সাপ্তাহিক…(৩)

শনির সাত মঙ্গলের তিন

আমাদের সাথে কিছু শ্রীলংকান ও নেপালি অফিসার কোর্স করছে। গত শনিবার ওদের সাথে বসে সকালে নাস্তা করছিলাম। কথায় কথায় আবহাওয়া প্রসংগ এলো, এখানকার গরমে ওরা বড়ই কষ্ট পাচ্ছে। আগামী চার/পাঁচ মাসে গরম আরো বাড়বে না কমবে তা জানতে চাচ্ছিল। ওদের চিন্তা দূর করার জন্য বললাম এটা মূলত বর্ষাকাল, বৃষ্টি শুরু হয়ে গেলে আর চিন্তা নেই, তবে কেন যে তখনও বৃষ্টি শুরু হয় নাই এ প্রশ্নের কোন উত্তর দিতে পারিনি, শুধু কলেজ জীবনে ব্যাপক ভাবে প্রমানিত হওয়া খনার বচনটা ওদের জানিয়ে বললাম দোয়া করতে যাতে আজকে বৃষ্টি হয় তাহলে আগামী সাত দিন নিশ্চিন্ত। ওদের দোয়ায় কিনা জানি না, বিকালেই বৃষ্টি নামল। আর খনার বচনের সার্থকতা প্রমান করে পুরো সপ্তাহ জুড়ে দিন নেই রাত নেই হচ্ছে তো হচ্ছেই। আপসোস একটাই… ফুটবল খেলে বা শান্তি করে ঘুমিয়ে বৃষ্টিকে উপভোগ করতে পারছি না।

DST এবং বৃষ্টি

DST দৈনন্দিন জীবনে তেমন কোন পরিবর্তন আনে নাই, শুধু সন্ধ্যা হলে পড়ার টেবিলে বসলে দেখি ৮ টা বেজে গেছে, কিছুক্ষন পরেই ডিনারের টাইম হয়ে যায় আর ডিনারের পরে চলে আসে ঘুম। তবে প্রকৃতি মনে হয় এখনো হিসাব মিলায়া উঠতে পারে নাই। তা না হলে সপ্তাহে যে তিন দিন পিটি থাকে তার প্রতিদিনই একদম পিটির সময়ে বৃষ্টি হবে কেন? একদিনও পিটি করা লাগেনি ( যদিও ঘুম থেকে উঠে ফল-ইন এ ঠিকই যাওয়া লেগেছে)

ঘুষ প্রতিরোধক ব্যবস্থা

সেদিন একটা খবরে চোখ পড়ল। নেপালের বিমান বন্দরের বিভিন্ন ধরনের স্টাফদের বিরুদ্ধে ঘুষ গ্রহনের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে সে দেশের সরকার এক অভিনব ব্যবস্থা গ্রহন করতে যাচ্ছে। তারা সকল স্টাফদের জন্য পকেট ছাড়া প্যান্ট ইউনিফর্ম হিসেবে চালু করছে, যাতে তারা ঘুষ রাখার জায়গা না পায়। হোয়াট অ্যান আইডিয়া হে না স্যার জী 😉 আমার মনে হয় আমাদের দেশেও বিভিন্ন ক্ষেত্রে এই ব্যবস্থা নেয়া যেতে পারে। বিস্তারিত

ট্রান্সফার মার্কেট ( হায় আর্সেনাল)

রিয়াল মাদ্রিদ আবার পুরানো ফর্মে ফিরে গেছে, টাকা দিয়ে তারা পারলে পুরা বিশ্ব একাদশ কিনে ফেলে, এই জন্যই আমি রিয়াল, চেলসি, ম্যান সিটি টাইপ দলগুলো দুই চোখে দেখতে পারি না। কাকাকে তো পুরা হলিউডি স্টাইলে বরন করে নিল। তবে একটা কাজ ভাল হইছে, অসহ্য রোনাল্ডো ইংলিশ লীগ থেকে দূর হইছে। রিয়ালে রোনাল্ডোর বেতন শুনে আমি মোটামুটি তব্দা খেয়ে গেছিলাম, শুধু বেতনই নাকি পাবে দিনে বাংলাদেশি টাকায় ৩৪-৩৫ লাখ টাকা, খালি ফুটবলে দুইটা লাথি মাইরা, নাহ দুনিয়াতে আসলেই কোন ইনসাফ নাই…

ইউরোপের সব বড় ক্লাবগুলা যখন নতুন নতুন স্টার প্লেয়ারের পিছনে দৌড়াচ্ছে তখন আমার আর্সেনাল থেকে খালি প্লেয়ার চলে যাওয়ার খবর শুনি, আজ ক্লিশি তো কাল ফ্যাব্রিগাস… সেই দিনের আরশাভিন ও আওয়াজ দিচ্ছে বার্সিলোনায় খেলতে পারলে নাকি সে খুব খুশি হইত ~x( গত দুই তিন মৌসুমের শেষের দিকে এসে আমি মনে মনে চাইতাম আর্সেনাল খারাপ খেলুক( চ্যাম্পিয়ন হবার সম্ভাবনা যখন নাই হয়ে যেত), তাইলে যদি পরবর্তী মৌসুমে কিছু টাকা পয়সা খরচ করে। কিন্তু কিছুতেই কিছু হইতেছে না… যাই হোক, শেষ কথা একটাই… in arsene we trust

আকাশের ঠিকানায়……
পুরো সপ্তাহের সেরা আকর্ষন আমার জন্য অপেক্ষা করছিল শেষ দিনে। ঢাকা থেকে আমার কাছে একটা জরুরী পার্সেল পাঠানো হয়েছিল চারদিন আগে। একদিনের মধ্যেই তা চলে আসার কথা থাকলেও তিন পার হয়ে যাবার পরেও পাচ্ছিলাম না। আজ যখন হাতে পেলাম তখন মেজাজ বেশ বিগড়েই ছিল এই দেরির কারনে। কিন্তু রুমে এসে খুলে বিশাল এক সারপ্রাইজ পেলাম। দেখি প্যাকেটের এক কোনায় পড়ে আছে ওর হাতে লেখা একটা চিঠি। অনেকের কাছেই চিঠির অনেক প্রসংসা শুনেছি, তবে কলেজে থাকতে বাসার চিঠি ছাড়া আর কোন চিঠি পাওয়ার সৌভাগ্য হয়নি কখনো। আজকে প্রথম চিঠি পেয়েই এর মাহাত্ম বুঝলাম, বলা যায় এটা এখন পর্যন্ত আমার পাওয়া সেরা গিফট… নাহ চিঠি আসলেই রক করে…

সবশেষে সবার জন্য আমার প্রিয় একটা গান (চিঠি লেখালেখি নিয়েই)

২,৮৩২ বার দেখা হয়েছে

৪৬ টি মন্তব্য : “সাপ্তাহিক…(৩)”

  1. জিহাদ (৯৯-০৫)

    ঘুষ প্রতিরোধের ব্যবস্থাটা তো ব্যাপক =))

    আর আমরা কলেজে থাকলে বেশির ভাগ সময়ই হয় পিটির আগেই বৃষ্টি থেমে যেত, না হয় পিটি শেষ হবার পর শুরু হতো 😡

    আর চিঠির কথা কি বলবো.. আমার মিস করা লিস্ট এর তালিকায় এইটা টপ থ্রি তে থাকবে। 🙁

    আর ভালৈ আছেন তাইলে? ;;;


    সাতেও নাই, পাঁচেও নাই

    জবাব দিন
  2. মুসতাকীম (২০০২-২০০৮)

    ঘুষ প্রতিরোধ ব্যাবস্থাটা জটিল :thumbup: :thumbup: :thumbup:


    "আমি খুব ভাল করে জানি, ব্যক্তিগত জীবনে আমার অহংকার করার মত কিছু নেই। কিন্তু আমার ভাষাটা নিয়ে তো আমি অহংকার করতেই পারি।"

    জবাব দিন
    • আহসান আকাশ (৯৬-০২)

      তুই তো সারাজীবন ধরেই পাইছিস... আর আমি এই প্রথম...


      আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
      আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

      জবাব দিন
      • সানাউল্লাহ (৭৪ - ৮০)

        প্রথম চিঠির অভিনন্দন :hatsoff: । খাওয়াইবা কবে? :party: :party: :party:

        ঘুষ বন্ধের নেপালি কৌশলটা দারুণ মজার, আবার সিরিয়াসও। বাংলাদেশে চালু করতে গেলে তো শুধু কাস্টমস বা বিমানবন্দর না; আমলা, পুলিশ, সাংবাদিক, বিচারক সবার শার্ট-প্যান্টের পকেট সেলাই করতে হবে। শাড়ির তো আবার পকেট থাকে না! তাইলে?? ~x( ~x( ~x(


        "মানুষে বিশ্বাস হারানো পাপ"

        জবাব দিন
        • আহসান আকাশ (৯৬-০২)

          ধন্যবাদ সানা ভাই, আগে ঢাকায় তো আসি তারপর না হয় খাওয়ানোর কথা ভাবা যাবে 😛

          শাড়ি নিয়া তো আসলেই ডাউট... এই নারী জাতি সব জায়গাতেই এডভান্টেজ পাইয়া গেল, তাও খালি অধিকার নিয়া চিল্লাফাল্লা লাগায়... দুনিয়ায় কোন ইনসাফ নাই :no:


          আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
          আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

          জবাব দিন
  3. তানভীর (৯৪-০০)

    কলেজে পিটির ঠিক আগেই কেমন করে যেন বৃষ্টি থেমে যেত। (ধুর! বৃষ্টির ব্যাঞ্চাই। 😡 😡 )
    আর্সেনালের আরেকজন ডিফেন্ডার কেনা দরকার। কেন জানি এখন টুরেকেও খুব একটা ভরসার মনে হয়না, আর গালাস তো ফর্মে নাই অনেকদিন থেকে। মেলোকে কেনার ট্রাই করতেছে শুনলাম। ইবুইয়ে+ক্যাশ দিয়া ওরে যদি আনা যায়, তাইলে বেশ ভালো হয়।
    গানটা ভালো লাগল। ডোলি সাজা কে রাখনা আমার পছন্দের ছবির তালিকায় অনেক উপরে। আর অক্ষয় খান্না আমার প্রিয় নায়কদের মধ্যে একজন। 🙂

    জবাব দিন
  4. রায়হান আবীর (৯৯-০৫)

    ইন আর্সেন আই ডু নট ট্রাস্ট।

    টেলিগ্রাফের পাতায় উঁকি দিলে এই দল এই কিনছে সেই কিনছে দেখি আর আর্সেনালের কিনবো কিনবো- কিন্তু দিন শেষে আসলে কিছুই কিনেনা। কিনে বালছাল কয়ডিরে যেডিরে চিনার জন্য গুগুল করা লাগে। :thumbdown:

    আর্সেন উইঙ্গেরার মতোই অবস্থা DST এর। সামার অন্য অনেক দেশের জন্য ব্লেসিং হইতে পারে- কিন্তু বাংলাদেশের জন্য না। আমাদের জন্য রাইত। উচিত ছিল সকাল দশটারে ৭ টা বানানো। মাইষে রাইতে জাইগা থাকবো। কিন্তু এইটা দুরাশা কারণ এই আশা পূরণ করতে চাইলে বাংলাদেশ চাইলেও কোনদিন করতে পারবে না, এই পরিমান পাওয়ার সাপ্লাই দরকার। পাওয়ার সেক্টরের টাকা আমাদের কর্মকর্তা আর পলিসি মেকারদের ভুঁড়ি মোটা করতেই ব্যয় হবে-

    আজাদ ভাইয়ের এই সিরিজটা ভালু পাই।

    জবাব দিন
    • আহসান আকাশ (৯৬-০২)

      ভালু পাও জেনে ভাল লাগল 😀

      আমার এই আর্সেনালই ভাল লাগে, রিয়াল চেলসি টাইপ টিম আমার পছন্দ না... সুপার স্টার ছাড়াই ভাল আছে... তবে ট্রফির গ্যাপটা একটু বেশি হয়ে গেছে... এইবার কিছু একটা জেতা ফরজ হয়ে গেছে, তাই চাচ্ছিলাম স্কোয়াডটা যেন আরো একটু স্ট্রং হয়... দেখা যাক... কি হয়...


      আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
      আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

      জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।