হাঁটুলের ক্রিয়েটিভ চিন্তা

চারপাশে এতো ক্রিয়েটিভ মানুষের ভিড় দেখে আমার মধ্যেও আজকাল ক্রিয়েটিভিটির ভূত চেপেছে। টেলিভিশন খুললেই দেখি দারুন সব ক্রিয়েটিভ বিজ্ঞাপন, অভিনেতারা সব ক্রিয়েটিভ ভাষায় কথা বলছে, ক্রিয়েটিভ বুদ্ধিজীবিদের মুক্ত বুদ্ধির চর্চা, রাজনীতিকদের দেশ গড়ার ক্রিয়েটিভ ভাবনা, প্রতিশ্রুতি, ক্রিয়েটিভ রাজনৈতিক কূটচাল কত কি! ঘরে বাইরে সব জায়গায় ক্রিয়েটিভিটির ছড়াছড়ি। ফেইসবুক, ব্লগ যেখানেই ঢুকি সেখানেই ক্রিয়েটিভ সব ভাবনা, ক্রিয়েটিভ সব পোস্ট। রাস্তাঘাটে, ক্যাম্পাসে, চায়ের দোকা্নে, রেস্তোরায় সব জায়গায় ক্রিয়েটিভ ব্যবসা, ক্রিয়েটিভ দেশ চিন্তা, ক্রিয়েটিভ পড়াশুনা, ক্রিয়েটিভ স্টাইলে কথা বলা… সব মিলিয়ে বলা যায় ক্রিয়েটিভ জ্বরে আক্রান্ত সমগ্র বাংলাদেশ। আমার মতো ছা পোষা মানুষ এর মধ্যেও সংক্রমিত হয়েছে এই ক্রিয়েটিভ ভাইরাল জ্বর। কিছু পয়দা হোক আর না হোক ক্রিয়েটিভ ভাবনা ভাবতে তো আর পয়সা লাগে না।

সিসিবির চা ওয়ালা রকিবের মত আমার মাথায় ভূত চেপেছে সবাইকে আমি চা খাওয়াব।তাই আমি আজকাল বাসায় ডেকে এনে লোকজন কে চা খাওয়ানো শুরু করেছি।সবাই আমার হরেক পদের চা খেয়ে ব্যপক গুণ গানও গাইছে।আমিও চরম উৎসাহের সঙ্গে অবসরে চা তৈরির কৌশল রপ্ত করছি।অনেক ভেবে চিন্তে স্থির করলাম আমার মত হাটূল মানুষ যার থলে ভর্তি ডিগ্রি নেই,নেই টাকা কড়ি,মগজ ভর্তি ক্ষুরধার বুদ্ধিও নেই,কিন্তু চা এর দোকানদার হতে হলে তো এর কোনটির দরকার নেই।একটু ধৈর্য ধরতে জানলে আর পরিশ্রম করলেই হবে। তাই স্থির করেছি নগণ্য বিনিয়োগ দিয়ে আমি একটা চায়ের দোকান খুলবো। দোকানের নামও ঠিক করেছি-হাটুলের ক্রিয়েটিভ চা।জায়গা হিসেবে বেছে নিবো শাহবাগ,আজিজ মার্কেট অথবা ঢাকার প্রাণ চঞ্চল কোন জায়গা।আমার চা এর দোকানের লে আউট টা হবে ক্রিয়েটিভ।চায়ের দোকানের চারপাশ জুড়ে থাকবে অনেকগুলো ক্রিয়েটিভ কর্নার।যেমন-সাহিত্য কর্নার,ক্রিয়েটিভ মিডিয়া কর্নার,বুদ্ধিজীবি কর্নার,কৃষি কর্নার,সাংবাদিক কর্নার,অর্থনীতি কর্নার,মিউজিক কর্নার ইত্যাদি ইত্যাদি।বিভিন্ন পেশার মানুষজনের সমাগম হবে এসব কর্নারে।২৪ ঘন্টা সেই কর্নারগুলোতে অভিজ্ঞ লোকজন থাকবেন ভলান্টিয়ার হিসেবে।বিনিময়ে তাদের সবাইকে আমি বিনে পয়সায় চা খাওয়াব।সাহিত্য কর্নারে সাহিত্যপ্রেমিরা ভিড় জমাবেন ,চায়ে চুমুক দিতে দিতে তারা সাহিত্যের সব গুরুতত্ত্ব আলোচনা করবেন।ক্রিয়েটিভ মিডিয়া কর্নারে ক্রিয়েটিভ আইডিয়া নিয়ে আলোচনা করবেন সব ক্রিয়েটিভিটি প্রেমিরা,বিভিন্ন ভাষার সিনেমা নাটক,ফিল্ম মেকিং নিয়ে ,বিষয়বস্তু নিয়ে আলোচনা সমালোচনা হবে।বুদ্ধিজীবি কর্নারে সমাগম হবে দেশ ,রাজনীতি অর্থনীতি নিয়ে ভাবুক সম্প্রদায়।কৃষি কর্নারের জন্য আমি নিজে যাতায়াত ভাড়া দিয়ে প্রতি মাসে কিছু সফল কৃষকদের নিয়ে আসবো তাদের কৃষি ভাবনা শেয়ার করার জন্য,নতুন উদ্ভাবন পদ্ধতি নিয়ে আলোচনা করার জন্য কৃষি বিষয়ে অভিজ্ঞ বড় ভাই,বন্ধু,ছোট ভাই কিংবা শাইখ সিরাজের মত লোকদেরকে।সাংবাদিক কর্নারে থাকবেন মাসুম ভাই,সানাউল্লাহ লাবলু ভাই,জুবেরি ভাই,মোস্তফা মামুন ভাই,কাম্রুল এর মত লোকজন।অর্থনীতিতে অভিজ্ঞ ক্যাডেট কলেজের বড় ভাই,বন্ধু ,ছোট ভাই সবাইকে থাকবেন অর্থনীতি নিয়ে, বাজেট নিয়ে আলোচনা করার জন্য।মিউজিক কর্নারে থাকবে মিউজিক নিয়ে আগ্রহীরা।ক্যারিয়ার কাউন্সেলিং এর জন্য থাকবে বিভিন্ন ক্যারিয়ারে সফল হওয়া সব ক্যাডেটরা।দর্শন আর ধর্ম নিয়ে আলোচনা করবে আন্দালিব কিংবা মুহম্মদেরমত প্রখর মেধাবি ছোট ভাইয়ের দল,রাজাকার আর ধর্ম ব্যবসায়িদের মুখোষ উন্মোচনে ব্যস্ত থাকবে রায়হান আবির আর জুনার মত একদল নতুন দিনের স্বপ্ন দেখা অসিম সাহসি নবীন প্রজন্মের মক্তিযোদ্ধা।প্রেমিকাদের আর জাস্ট ফ্রেন্ড এর গল্প নিয়ে থাকবে মান্না ,মাস্ফু,আর টুশকি নিয়ে সায়েদুল হাস্মত ভাই,লুলু পাগ্লার গল্প নিয়ে থাকবে তায়ফুর ভাই।নতুন সিনেমার গল্প নিয়ে থাকবে মাসুম ভাই, আর ইতিহাস নিয়ে থাকবেন প্রিন্সিপাল স্যার ,শহিদলিপির মত প্রযুক্তির গল্প নিয়ে থাকবেন সাইফুদ্দাহার শহিদ ভাই এর মত স্বপ্ন বাজ একদল মানুষ বউ কথা কউ এর মত সুন্দর গল্প নিয়ে থাকবে টিটো। একঘেঁয়েমি দূর করার জন্য থাকবে একটা মুক্ত পাঠাগার,বিভিন্ন বিষয়ের বই থাকবে ।আর বিনোদনের জন্য থাকবে একটা প্যারাডাইম অথবা পলক অডিও অথবা জ়ে বি এল এর সাউণ্ড সিস্টেম সাথে একটা ১০০ ইঞ্চির স্ক্রিন মাল্টিমীডীয়া প্রজেক্টর সহ।বিভিন্ন ভাষার সিনেমার ডিভিডি কালেকশন থাকবে,।একেকদিন একেক জ্যনারির মুভি শো হবে,মিউজিক শো হবে।চায়ের দোকানের চার কোনায় সবার মাঝে সুবাস বিলানোর জন্য থাকবে হাস্নাহেনা,শিউলি,বেলী আর কাঠালচাপা এর গাছ।পান খেতে যারা ভালোবাসেন তাদের জন্য থাকবে মিষ্টি মসলাযুক্ত পান।
হাটুলের চায়ের ব্যবসা রম রমা হবে,আর হাটুলের চায়ের দোকানে চা খেতে খেতে আলোকিত সব মানুষরা বেরিয়ে আসবে।চায়ের ব্যবসা যখন রমরমা হয়ে যাবে মুনফা বাড়তে থাকবে তখন একই আদলে চেইন শপ আকারে হাটুলের চায়ের দোকান খোলা হবে সমস্ত মফস্বল শহর কিংবা থানা সদরের প্রাণকেন্দ্রে।করপোরেট প্রতিষ্ঠাঙ্গুলা এগিয়ে আসবে বিভিন্ন পৃষ্ঠপোষ্কতার লোভাতুর অফার নিয়ে।কোন কোন টীভি চ্যানেল ওয়ালা আসবেন বিভিন্ন পেশাজীবি মানুষের মিলন্মেলার এই চায়ের দোকানের লোকদের নিয়ে নতুন কোন প্রোগ্রাম বানানোর জন্য।
এতক্ষনে নিশ্চয় সবার মধ্যে চরম ভাবে ধৈর্যচ্যুতি ঘটেছে।কেউ বিশ্বাস করুক আর নাই করুক তাতে যায় আসে না ,কিছুদিন আগে সুদীর্ঘ ১৬ ঘণ্টা ঘুমের মধ্যে এমন একটি চায়ের দোকানের স্বপ্নই আমি দেখেছি।প্রতিদিন গড়ে আমি ১০ থেকে পনেরো পেয়ালা চা খাই বলেই হয়ত এমন স্বপ্ন দেখেছি।সবাই হয়ত অনেক বড় বড় স্বপ্ন দেখেন ,আমি না হয় নগন্য চা ওয়ালার স্বপ্নই দেখলাম।
রবীন্দ্রনাথের একারত্রি গপ্লের কয়েকটা লাইন মনে পড়ছে-এক্টু নিজের মত করে সম্পাদনা করে বলছি-
আমার মত প্রতিভাহীন হাটুল ঘরে বসিয়া নানারুপ কল্পনা করিতে পারে মাত্র,অবশেষে পশ্চাতে লেজ মলা খাইয়া দু পেট জাবনা খাইতে পাইলেই অধিক সন্তুষ্ট থাকে,লম্ফে ঝম্ফে আর ততোধিক উতসাহ থাকেনা।
এপিজে আব্দুল কালাম এর একটা কথা আছে-সত্যিকারের স্বপ্ন নাকি মানুষ্কে ঘুমুতে দেয় না জাগিয়ে রাখে ,আমারপক্ষে যেহেতু এই স্বপ্ন বাস্তবায়নের জন্য জেগে থাকা সম্ভব না সেহেতু স্বপ্ন স্বপ্নলোকেই থাক,বস্তুবাদের এই পৃথিবিতে আমি আরামে ঘুমুতে চাই।

৬,৪৪৩ বার দেখা হয়েছে

৬৫ টি মন্তব্য : “হাঁটুলের ক্রিয়েটিভ চিন্তা”

  1. সাবিহা জিতু (১৯৯৩-১৯৯৯)

    সাইফ, আমি ও চোখের সামনে তোমার স্বপ্নটাকে দেখতে পাচ্ছিলাম :teacup: :teacup: :teacup: । এতো গুছিয়ে কেউ তার স্বপ্নের কথা লিখতে পারে! :boss:


    You cannot hangout with negative people and expect a positive life.

    জবাব দিন
  2. ফয়েজ (৮৭-৯৩)

    পইড়া মনে হইতেছে এইটা খুব এক্সপেন্সিভ প্রজেক্ট, প্রফিটও নাই তেমন। মেইন্টেইন্সে কস্ট অনেক বেশি হইবো।

    সস্তা কিছু নাই। 🙁

    তবে এন জি ও টাইপ হইলে ঠিকাছে, টাকা দিব মামারা 😉


    পালটে দেবার স্বপ্ন আমার এখনও গেল না

    জবাব দিন
  3. আহসান আকাশ (৯৬-০২)

    আপনার চায়ের দোকানে আমার বসার মত কোন জায়গা পাইলাম না :((


    আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
    আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

    জবাব দিন
  4. তাইফুর (৯২-৯৮)

    তোর স্বপ্নের স্টলে দেখি ক্যাডেটের ছড়াছড়ি ...

    বিভিন্ন পেশার মানুষজনের সমাগম হবে এসব কর্নারে।২৪ ঘন্টা সেই কর্নারগুলোতে অভিজ্ঞ লোকজন থাকবেন ভলান্টিয়ার হিসেবে।বিনিময়ে তাদের সবাইকে আমি বিনে পয়সায় চা খাওয়াব

    অভিজ্ঞ লোকজন শুধু 'বিনে পয়সার চা'য়ের জন্য ভলান্টিয়ার কি না ... আমার ডাউট আছে।
    বিনে পয়সায় চা খাওয়াবি সবাইরে ... কয়দিন ??

    খুব এক্সপেন্সিভ প্রজেক্ট, প্রফিটও নাই তেমন। মেইন্টেইন্সে কস্ট অনেক বেশি হইবো

    স্বপ্নই যদি দেখবি হাটুল, লাভজনক কিছু দেখ।


    পথ ভাবে 'আমি দেব', রথ ভাবে 'আমি',
    মূর্তি ভাবে 'আমি দেব', হাসে অন্তর্যামী॥

    জবাব দিন
  5. রকিব (০১-০৭)

    চায়ের দোকানটা ম্যালা বড় হবে, একা চালাইতে কষ্ট কবে। অভিজ্ঞ চাওয়ালা হিসেবে আমার জয়েনিং লেটারটা দিয়ে দেন। 😀


    আমি তবু বলি:
    এখনো যে কটা দিন বেঁচে আছি সূর্যে সূর্যে চলি ..

    জবাব দিন
  6. আশহাব (২০০২-০৮)

    :)) :)) :))
    সাব্বির কন কি, চান্স না পাইলেন, স্বপ্ন দেখতে দোষ কি 😀
    ভাই, আমারে রকিব ভাইয়ের এ্যাসিস্টেন্ট এর পোস্টটা দিয়েন, উনার পরে তো আর কেউ দাবিদার জুনিয়র নাই B-)

    জবাব দিন
    • শাহাদাত মান্না (৯৪-০০)

      লেখা পড়ে ঠিক করে ফেলেছি আমি ম্যানেজার হব।
      সিরাজ তুই ক্যাশের জায়গা দখল নিতে পারিস।
      আর ব্লগে লেখা নিয়ে মন্তব্যগুলোই আসল জিনিষ। রেটিং করাটা ব্যক্তিগতভাবে আমার খুব অপছন্দ।
      দেখা গেল অসম্ভব একটা সুন্দর যুক্তিপূর্ন লেখা। কিন্তু সেখানে বিতর্কিত বিষয় থাকায় অথবা ব্যক্তিগত আক্রোশ থেকে অনেকেই বাজে রেটিং করে খারাপ করে ফেলল। এক্ষেত্রে আমাদের ব্লগ একটা অনন্য জায়গা হতে পারে।
      ব্লগিং তো আর পরিক্ষার খাতা নয়, যে এটাকে নম্বর দিয়ে মাপতে হবে। 🙂

      জবাব দিন
  7. সামীউর (৯৭-০৩)

    সাইফ ভাই, দোকানের বিভিন্ন এঙ্গেলে লিছু ক্যামেরা ফুট কইরা রাইখা দিবেন, এরপর ঐ ফুটেজ গুলাই বিভিন্ন ভাবে এডিট কইরা "কৃষি ও মানুষ", "পঞ্চম মাত্রা" ইত্যাদি নামে চোখ টিভি কিংবা বাইশে টেলিভিশনে বিক্রি করবেন। তাইলে কেরোসিন, চা পাতার খরচ কিছুটা উইঠা আসবো।
    লেখা ভালো লাগসে, আরো ভালো লাগসে সবার মন্তব্য।

    জবাব দিন
  8. সানাউল্লাহ (৭৪ - ৮০)

    বড়ই ক্রিয়েটিভ। অ্যান্ড আই লাইক ক্রিয়েটিভ পিপল। :gulli2:

    সাইফ : আমার জইন্যও একটা কোনা-কানচি রাখছো দ্যাখছি!! ~x( খারাপ না! প্রিন্সিপালরে চায়ের দোকানে দ্যাখলে পোলাপাইন আর ওইখানে ঢুকবো?? স্বপ্ন থাইক্যা জাইগ্যা ভালো কইরা ভাইব্যা দ্যাখো!! :-B


    "মানুষে বিশ্বাস হারানো পাপ"

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।