চন্দ্রগ্রহণ

আজকে চন্দ্রগ্রহণ ছিল।যান্ত্রিক জীবনে অনেকেই হয়ত ভুলেই গেছি।তাই কিছু ছবি দিলাম……………….

গ্রহণ শুরু

চাদের গ্রহণ বাড়হে……………….

২,৭৩৮ বার দেখা হয়েছে

২৫ টি মন্তব্য : “চন্দ্রগ্রহণ”

  1. রাজীব (১৯৯০-১৯৯৬)

    পোস্টটি অসম্পূর্ণ। লুনার এবং সোলার এক্লিপ্স যে আল্লাহর বড় নেয়ামত এবং তার খমতার প্রকাশ এইটা আসা উচিত ছিল।
    কয় রাকআত নামায পড়তে হবে।
    কোরান ও হাদিসের আলোকে গ্রহণের তাৎপর্য এসব আলোচনা এখানে আসলে এই পোস্টটাও প্রিয়তে নিতে পারতাম।
    ক্যারি অন সাদিক।
    ভেরি ওয়েল ডান।


    এখনো বিষের পেয়ালা ঠোঁটের সামনে তুলে ধরা হয় নি, তুমি কথা বলো। (১২০) - হুমায়ুন আজাদ

    জবাব দিন
      • আমিন (১৯৯৬-২০০২)

        চিপা খায়া এইসব কিলিয়ার দিয়া সব ঠিক হয় না!!!
        আর কথা হইলো বাক্য বিন্যাস ভুল লাইনে লাইনে বানান ভুল ছাপার আগে তো পড়ে দেখতে হয়।
        এই জাতীয় বালছাল লেখা ফার্স্ট পেজে কেম্নে থাকে ???
        আমি আগের লেখার কথা কইলাম। এই লেখাতেও দেখেন সূত্রের উল্লেখ নাই। লেখক কি নিজে ক্যামেরা দিয়ে তুলছে?? তুললে কেমনে তুলছে জানতে চাই।

        জবাব দিন
        • সাদিক (২০০০-২০০৬)

          আসলে আমি ভাবছিলাম ছবি দেখেই আপনারা বুঝবেন আমার তোলা ছবি। যারা বোঝেন নাই তাদের জন্য বলছি এটা এই অধমের তোলা ছবি।
          তারপরেও যাদের সন্দেহ আছে তারা আমার বাসায় চলে আসেন দেখিয়ে দেব।

          আর আগের লেখাটা তাদের জন্য যারা..................................

          জবাব দিন
        • সাদিক (২০০০-২০০৬)
          এই জাতীয় বালছাল লেখা ফার্স্ট পেজে কেম্নে থাকে ???

          আমিন ভাই অনেক আগে কলেজ ছেড়ে আসেছেন জুনিয়দের গালাগালির অভ্যাস বাদ দেন। আর এই গালিটা কারো চোখে পড়েনি নাকি।

          জবাব দিন
          • আমিন (১৯৯৬-২০০২)
            আমিন ভাই অনেক আগে কলেজ ছেড়ে আসেছেন জুনিয়দের গালাগালির অভ্যাস বাদ দেন। আর এই গালিটা কারো চোখে পড়েনি নাকি।

            ধন্যবাদ সাদিক। আমার যে জুনিয়রদের গালিগালাজ করার অভ্যাস আছে (ছিল) সেটা আমি নিজেই জানতাম না। এই মহান সত্য গবেষণা করে বের করবার জন্য তোমাকে অনেক ধন্যবাদ। তোমার এই কথাটা শুনে কী বুঝা গেলো?? বুঝা গেলো আমার কলেজে থাকতে জুনিয়রদের গালিগালাজ করবার খুব অভ্যাস ছিলো এবং এখনো সেটা করে যাচ্ছি। আমি অনুরোধ করবো তোমার রেফারেন্সটা একটু জানাতে। মানে কলেজে থাকতে আমি গালি দিয়েছি এমন কারো নাম যদি বলতে খুবই কৃতার্থ হতাম।
            কলেজের ব্যাপার বাদ দেই, সিসিবিতে মোটামুটি সাড়ে তিন বছর ব্লগিং করি।মতের অমিল অনেকের সাথেই থাকতে পারে। কখনো কাউকে গালি দিয়েছি এমন উদাহরণ যদি তুমি দেখাতে আমি তোমার অভিযোগ মাথা পেতে নেবো। তোমার আগের দাজ্জালের পোস্টে আমি অনেক ধৈর্য নিয়েই তোমাকে বুঝাবার চেষ্টা করেছি। সেই সময় গুলো আমার পানিতে যাওয়া ছাড়া খুব বেশি কাজে আসছে বলে মনে হয় নাই। তারপরেও ঐখানে কোথাও (কিংবা অন্য কোন পোস্টে) কোন গালি দিছি এমন কিছু কি মনে করতে পারো?? শুধু তুমি না সিসিবির কোন ব্লগার এইরকম অভিযোগ আমার নামে করতে পারবে না। অথচ তুমি আমার অভ্যাস নিয়ে ব্যাক্তিগত আক্রমণ করে ফেললে। সাথে উপযাচক হয়ে একটা উপদেশ দিতেও ছাড়লে না।

            এই জাতীয় বালছাল লেখা ফার্স্ট পেজে কেম্নে থাকে ???

            এই কথাটার ব্যাখ্যায় আসি। এই কথাটাকে তুমি গালি বলছো। গালিটা কাকে দিলাম। আমি লেখাটার পিছে একটা বিশেষণ জুড়ে দিয়েছি। মানছি বিশেষণটা খুব বেশি শালীন নয়। কিন্তু ঐ পোস্টে তোমার কীর্তিকলাপ যা সেটা তুমি কেন যে কোন সিনিয়র ভাই কিংবা ব্যাচমেট করলেও ঐ পোস্টরে আমি বালছালই বলতাম।

            এবার দেখা যাক কেন আমি এই কথা বললাম।

            প্রথমত পোস্টটি ফেসবুকের একটা নোটের কপি পেস্ট। সেটার আগে পিছে কিছু নাই। একটা পুণশ্চ আছে,

            বিঃদ্রঃ সব সময় শুদ্ধ ভাষায় লেখালেখি খুব বেশি robotic মনে হয়।তাই দু একটা আঞ্চলিক ভাষা ব্যবহার করলাম।

            এইটা যদি থাকে অথচ তোমার নিজের কোন বক্তব্য না থাকে তাহলে সবাই কি ধরবে? ধরে নিবে এটাতে তোমার পূর্ণ সমর্থন আছে। পোস্টে তোমার নিজের কন্ট্রিবিউশন হচ্ছে একটা শিরোনাম ,

            ফেসবুক থেকে : আমরা রেগে

            যায়
            কেন?

            বাক্যটা আপাতত দৃষ্টিতে আমার কাছে ভুল মনে হচ্ছে । "আমরা রেগে যাই কেন?" হতে পারতো। অবশ্য "আমরা" যদি কোন ভদ্রলোকের নাম হয় আর তার রেগে যাওয়া নিয়ে আলোচনা হয় তাহলে তার পরিচয় দেয়াটা দরকার ছিলো। "যাহোক আমরা রেগে যায় কেনো?" কথাটা দিয়ে কিছু বুঝা যায় কি?? আমি বুঝতে পারিনি। খুব সম্ভবত অনেকেই বুঝতে পারেনি। (ভুল বাক্য অপ্রাসঙ্গিক হলে, অর্থ বুঝা একটু কঠিনই)।

            এবার দেখা যাক সবার চিপা খাওয়ার পরে ঐ পোস্টে তোমার দ্বিতীয় অবদান কমেন্ট টি।

            আসলে আমার কথাটা পুরা হতে দিলেন আসলে আমি চাই ছিলাম।আমি সবার শেষে বলল এই লেখাটা আমি ফেসবুক থেকে নিয়েছি লেখক আমাদের দেশের খুবই ভালো প্রতিষ্ঠানে পড়াশোনা করেন।
            আমি ভয় পাই এই ভেবে দেশে আবার রাজাকারের দরকার হলে লোকের অভাব হবেনা।

            মোটামুটি দুর্বোধ্য বাক্যে বিরাম চিহ্ন ঠিকমতো করো নি। তুমি পড়ে বলো, প্রথম বাক্য থেকে কী বুঝা যায়? আর পরের কথাগুলো ঠিক কি মিন করে?
            আর এই পোস্ট সম্পর্কে তোমার মূল্যায়ন কি? এতগুলো ভুলে ভরা এইমলেস, পয়েন্টলেস পোস্টরে বালছাল বলার মধ্যে কী ভুল দয়া করে ব্যাখ্যা কর।

            আর আমারে অভ্যাস না শিখায়া নিজে বাংলা ভাষাটাকে ঠিকমতো ব্যবহার করবার অভ্যাস করো।

            তোমার জন্য শুভকামনা। (সম্পাদিত)

            জবাব দিন
            • সাদিক (২০০০-২০০৬)

              আমিন ভাই যা হোক আপনাদের দেখে শান্তি পাই।আপনারা থাকলে আমাদের আর ভাষা নিয়ে আর চিন্তা নেই। তবে ভাই দয়া করে আমাদের লেখা গুলো একটু ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন আমরা মুর্খ মানুষ।

              জবাব দিন
              • আমিন (১৯৯৬-২০০২)

                তুমি যা হোক বলে পুরো ব্যাপারটা পাশ কাটিয়ে যাবার চেষ্টা করো না। তুমি আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ আনছো আমি জুনিয়রদের গালিগালাজ করি, আমি প্রমাণ দেখাইতে বলছি, তুমি দেখাইতে পারো নাই, এখন বলতেছো যাই হোক???

                কমেন্টটাতে বেশ শ্লেষ মিশিয়েই সারকাস্টিক ওয়েতে নিজেরে মূর্খ বলে আপার পজিশন নিতে চাইলা, কিন্তু দুঃখের ব্যাপার হলো "মূর্খ" বানানটাও ঠিকমতো লিখতে পারো নি!!!!

                জবাব দিন
            • আহসান আকাশ (৯৬-০২)

              আমিন তোর ধৈর্যের তুলনা করতে হয়, তুই আবার এত বড় কমেন্ট করে যুক্তি দিয়ে বোঝানোর চেষ্টা করতেছিস! কিছু 'ম্যান আওয়ার' সেভ কর...


              আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
              আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

              জবাব দিন
      • রাজীব (১৯৯০-১৯৯৬)

        সে যাই হোক না কেন, এইখানে তা অবিকল কি করে আসে? অইটা নিয়া আলোচনা করলেও কথা ছিল। তাও যদি ঐ দুইটা লেখা হকিংস সাহেবের হইতো তাইলে না হয় আলোচনা হইতো।


        এখনো বিষের পেয়ালা ঠোঁটের সামনে তুলে ধরা হয় নি, তুমি কথা বলো। (১২০) - হুমায়ুন আজাদ

        জবাব দিন
    • সাদিক (২০০০-২০০৬)

      রাজীব ভাই আমার মনে হয় আক্রমণটা খুব বেশি আর ব্যক্তিগত হয়ে যাচ্ছে না।আর কোন মানুষের ধর্মীয় ব্যপারে বা কোন ধর্মীয় আচার নিয়ে এ ধরনের মন্তব্য কাম্য কি না আমার জানা।
      জানেন আমার মাঝে মাঝে একটা কথা মনে হয় মধ্যযুগে ধর্ম, দেব-দেবতা, আল্লাহ-রাসুল নিয়ে কটাক্ষ করলেই সমস্যা ছিল। সেটা ছিল অমানবিক। সেটা যদি অমানবিক হয়ে থাকে তাহলে এখন যে ধর্ম, দেব-দেবতা, আল্লাহ-রাসুল কথা বললেই কটু কথা বলা হয় সেটা কি?

      জবাব দিন
      • রাজীব (১৯৯০-১৯৯৬)

        তোমার ভাগ্য ভালো যে এইটুকুর উপর দিয়া গেছে। যা করছো তাতো কহতব্য নয়।

        সেটা যদি অমানবিক হয়ে থাকে তাহলে এখন যে ধর্ম, দেব-দেবতা, আল্লাহ-রাসুল কথা বললেই কটু কথা বলা হয় সেটা কি?

        কি বুঝাইলা? তোমার ভাষা দেখি হায়ারোগ্লিফিক্স এর চাইতে কঠিন হইয়া গেছে।


        এখনো বিষের পেয়ালা ঠোঁটের সামনে তুলে ধরা হয় নি, তুমি কথা বলো। (১২০) - হুমায়ুন আজাদ

        জবাব দিন
  2. আহসান আকাশ (৯৬-০২)

    কালকে যে চন্দ্রগ্রহন ছিল সেটা জেনেছিই চন্দ্রগ্রহন শেষ হবার পরে 🙁

    পোস্টের কমেন্ট পড়ে বিমলানন্দ লাভ করলাম :))


    আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
    আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।