সোমেশ্বরী

নিশুতি নির্জন জোছনার রাতে আবছা আলোছায়ায়
শুয়ে রুপালি বালির বুকে যে সোমেশ্বরী বয়ে যায়
তুমিতো এখনো দেখনি কখনো সে মৃতের বিবর্ণতা
মিষ্টি ঘ্রাণে স্রোতের উজানে শালুকের নির্জনতা।

ভাদ্র মাসের আর্দ্র রোদে তাই একলা বিকেলে হেঁটে
লতাগুল্মের ঝোপে তোমার স্বপন বোনা ক্ষেতে
থেমে যাওয়া সোমেশ্বরী আর মৃত ভালবাসাটি খুঁজো
কোনদিন যদি না পাও তারে নিভৃতে দুচোখ মুছো।।

[সোমেশ্বরী নদীটি বিরিশিরি বিজিবি ক্যাম্পের পেছন দিয়ে নির্বিবাদে কাউকে কিছু না বলে চুপিচুপি বয়ে গেছে। অভিমানী নদী!]

১,২৩৬ বার দেখা হয়েছে

১১ টি মন্তব্য : “সোমেশ্বরী”

  1. তাওসীফ হামীম (০২-০৬)

    null
    এই ছবিটা দিয়ে স্মৃতিচারণে সঙ্গী হলাম।
    অনেক সুন্দর নদী। নদী আসলেই অভিমানী। সুন্দর কবিতার জন্য ধন্যবাদ।


    চাঁদ ও আকাশের মতো আমরাও মিশে গিয়েছিলাম সবুজ গহীন অরণ্যে।

    জবাব দিন
  2. নূপুর কান্তি দাশ (৮৪-৯০)

    কবিতা ভালো লেগেছে।
    মেসেজ কি একটাই? না কি কয়েক লেয়ারের এনকোডিং আছে?
    যদি একটাই থাকে তাহলে বলবো বেশি সিম্পল হয়ে গেছে।
    তবু আমারো শুভকামনা
    'সুখে থেকো ভাআলো থেকোওও '...।

    জবাব দিন
  3. মামুনুর রশীদ খান(২০০১—২০০৭)

    ধন্যবাদ দাদা।
    ওয়েল ইটস নো সারপ্রাইজ যে আপনি ধরতে পারবেন।সত্যি বলতে আর কেউ পারুক বা না পারুক আপনি পারবেন এ নিয়ে কোন দ্বিধা ছিল না।
    মেসেজটা এনক্রিপ্ট করার উদ্দেশ্য মেসেজটা গোপনে সংরক্ষণ করা ছিল না। কারো কাছে পৌঁছানোই ছিল মুল উদ্দেশ্য , তাই যথাসাধ্য সিম্পল রাখা। আপনি যখন বলছেন তাহলে একটু ভরসা পাচ্ছি। বোধহয় মেসেজটা পৌঁছে যাবে! 🙂
    মেসেজ একটাই। 😛


    ক্যাডেট রশীদ ২৪তম,প ক ক

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।