সেই ফাগুনের গল্প

আর একটা ফাল্গুন চলে এলো আবার; আরেক ফাল্গুন। উহু ! লাল হয়ে যাওয়া কোনো শিমুল গাছ চোখে পড়েনি, কিংবা কালোচুড়া …
সময় কাটছে ফেসবুক- এ

সে সময়টাতে এই রাতটা ঘুমহীন কাটতো দেয়াল পত্রিকার কাজে, শেষ রাত পর্যন্ত। কাজ প্রায় শেষ…তবু শেষ হয়না যেন! সিগারেট চলছে খানিক বিরতিতে, রিজওয়ান এক মনে ছবির আউটলাইন ধরে কাচ বসাচ্ছে … হাতের লেখা ঠিক রেখে দ্রুত কলম চালাচ্ছে আন্দালিব। বন্ধুরা সবাই কমনরুমে এক সাথে সাহস যোগানোর কাজে… পাশের হাউস থেকে কে যেন এসেছে সিগারেট নিতে…তাকে আটকে রাখা হলো যেন চোখে না পড়ে আমাদের শিল্পকর্ম, ছেলেমানুষীর চুড়ান্ত।

তিনটার দিকে দেখা গেল তিনটা জুনিয়র ধরে এনে রগড়ানো হচ্ছে… কারণ ঘুম তাড়ানো লাগবে মাহমুদের, ওপাশে কারা যেন ঝগড়াও করে নিলো এক পশলা। বাইরে তখন আলো আধারীর লুকোচুরি, তুলির শেষ আচড় লাগছে আর্টপেপারে… চারপাশটা লাল করে সূর্য উঠলো, টিটি টেবিলে গত দিনগুলোর স্বপ্ন সূর্যের হাতছানি…নামটা বেশ সুন্দর লাগছে লাল হলুদের মিশেলে, “আরেক ফাল্গুন”
আন্দালিব শিরোনাম নামে গল্পও লিখেছে একটা…শেষ লাইনের আগের লাইন, “আরেক ফাল্গুনে আমরা দ্বিগুণ হবো”

লেখালেখিটা আন্দালিব এখনো ধরে রেখেছে এই ফাল্গুনেও…প্রায়ই ওর পোষ্ট-এ চোখ বুলাই। রিজওয়ান এখন তেমনি মনোযোগে উড়োযান চালায়; আমাদের সুখী ক্যাডেট মাহমুদ সুখে নেই, কিডনীতে কি যেন এক সমস্যা; আর আমি … পাক্কা দু’ঘটা ধরে কি বোর্ড টিপে টিপে (প্রথম পোষ্ট) সেই ফাগুনের গল্প করার চেষ্টা করে চলছি…

(চলবে)

১,৬৫৬ বার দেখা হয়েছে

২৮ টি মন্তব্য : “সেই ফাগুনের গল্প”

  1. রকিব (০১-০৭)

    চমৎকার লিখেছেন।
    ব্লগার হিসেবে সিসিবিতে স্বাগতম, আমি আর ওমর ক্লাশ সেভেনে আপনার টেবিলে বসতাম। চিনতে পারছেন 😀 😀 ??


    আমি তবু বলি:
    এখনো যে কটা দিন বেঁচে আছি সূর্যে সূর্যে চলি ..

    জবাব দিন
  2. সামিয়া (৯৯-০৫)

    :(( :(( কি জিনিস মনে করায় দিলেন

    পাশের হাউস থেকে কে যেন এসেছে সিগারেট নিতে…তাকে আটকে রাখা হলো যেন চোখে না পড়ে আমাদের শিল্পকর্ম, ছেলেমানুষীর চুড়ান্ত।

    আশ্চর্য, সব কলেজের সব কাহিনী সব সময় একই থাকে...(শুধু সিগারেটের জায়গায় চানাচুর পড়তে হবে, এমজিসিসি ওনলি 😐 )

    বাইরে তখন আলো আধারীর লুকোচুরি, তুলির শেষ আচড় লাগছে আর্টপেপারে

    :(( :(( :((

    জবাব দিন
  3. জিহাদ (৯৯-০৫)

    দুর্দান্ত স্টার্টিং! কে জানি বলেছিল ভাতের হাড়ির একটা চাল টিপলেই অন্যগুলার কাহিনী বুঝা যায় 😉

    ক্যাডেটদের ক্রিয়েটিভিটির চুড়ান্ত রকমের নিদর্শন আমার মনে হয় এই ওয়াল ম্যাগাজিনগুলা। আমি আঁকাআঁকির মানুষ না। কিন্তু যারা পারে তাদের আমি রীতিমত শ্রদ্ধার দৃষ্টিতে দেখি। কলেজে তাই টুকটাক খালি কামলা খাটতাম কম্পিটিশনের সময়।

    লেখা খুব ভাল হচ্ছে। আশা করি হুট করে মাঝপথে থেমে যাবেন না।

    শুভ লেখালেখি।


    সাতেও নাই, পাঁচেও নাই

    জবাব দিন
  4. আদনান (১৯৯৭-২০০৩)

    ফারহান ভাই, লুকার পার্টনার, ব্রাদার... ওয়েল্কাম টু দি সিসিবি... এবার সানা ভাই-এর ফ্রন্ট্রোল-সাইড্রোলের অপেক্ষা আর কিসু না।

    ফার্স্ট পোস্ট কোপা হইসে...

    মাই লুকার পার্টনার (গাইড ভাই) রক্‌স্‌!!!!!

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।