বইমেলায় আমার প্রথম বই: স্প্রিং মুন

ধরেই নিয়েছিলাম এবারো হবে না। এই ফেব্রুয়ারীও কাটাতে হবে ‘এই বইমেলাতেও একটা বই বের করতে পারলাম না’ এমন আক্ষেপ নিয়ে। আমার বই যিনি প্রকাশ করতে আগ্রহী ছিলেন, অসংখ্য সমস্যায় তিনি ডিসেম্বর এর শেষদিক আর জানুয়ারীর মাঝামাঝি পর্যন্ত ছিলেন জর্জরিত। ভেবেছিলাম উনার সমস্যাগুলোর সমাধান হবে, কিন্তু উনার দিনকাল এতই খারাপ যাচ্চ্ছিল যে একটা সময় বুঝতে পারলাম এইবার মনে হয় উনি আর সাহায্য করতে পারবেন না। জানুয়ারীর প্রথমভাগ তখন অলরেডী শেষ, তার উপর আমার বইটাও ইংরেজী কবিতার। এখন কেউ আমার বই বের করতে চাইবে না, চাইলেও হয়ত টাকা দিয়ে করাতে হবে।

কিন্তু মাথায় জেদ চেপে গেল, মরিয়া হয়ে নতুন লেখকদের বই প্রকাশ করে এমন দুই জায়গায় চেষ্টা করলাম। ফলাফল শুণ্য। এতে জেদ গেল আরো বেড়ে, ঠিক করে ফেললাম ধার করে হলেও বই নিজেই প্রকাশ করব। এর মধ্যে বন্ধুবর সারোয়ার রেজা জিমি জানালো গত বছর ওর আর আমাদের আরেক বন্ধু মুনিয়ার বই দিনাজপুর থেকে ছেপে এনে জনান্তিককে ওরা দিয়েছিল, জনান্তিককে ১০% কমিশনে দিলে ওদের স্টলে বই রাখা যায়।

এখন সমস্যা টাকা। আমি বের করব হাইকু সংকলন, ৪৩ টা হাইকু, প্রত্যেকটার সাথে একটা করে আর্টওয়ার্ক। আর্টওয়ার্কগুলা রুদাবা মহসিন (টুম্পা) আপুর করা, প্রচ্ছদ করলেন উনার হবু বর ‘ব্ল্যাক’ এর জাহান ভাই। শেষমেষ টাকা যোগাড় হল অর্ধেক, প্রেসের লোক বললেন বাকি অর্ধেক আগামী মাসে দিলেও নাকি হবে 😀

‘স্প্রিং মুন’ এখন অমর একুশে বইমেলায় পাওয়া যাচ্ছে। জনান্তিকের স্টলে, স্টল নং ২৭৯। মূল্য ১২০ টাকা। বইটা বসুন্ধরা সিটির গীতান্জলিতেও (লেভেল সিক্স) পাওয়া যাচ্ছে।

যারা হাইকুর সাথে পরিচিত নন, তাদেরকে বলে রাখি হাইকু এক ধরনের জাপানীজ কবিতা। এর বৈশিষ্ট্য হল এটি পাঁচ-সাত-পাঁচ সিলেবলে লিখতে হয়, একটি ঋতুর উল্লেখ থাকতে হয় আর একটি ইমেজ ফুটে উঠতে হয়। তবে আধুনিক হাইকুতে পাঁচ-সাত-পাঁচ সিলেবলের নিয়ম মানা হয় না।

বাংলাদেশে এর আগে বাংলা হাইকুর বই বের হয়েছে, তবে ইংরেজীতে বা হেইগা (হাইকুর সাথে আর্টওয়ার্ক) ধরনের কাজ আগে হয়নি।

‘স্প্রিং মুন’ এ মোট ৪৩ টা হাইকু আছে (৪৩ টা হাইকু রাখার কারণ আমাদের ব্যাচ নাম্বার ৪৩)। তবে বইটির সবচেয়ে আকর্ষণীয় ব্যাপার হল টুম্পা আপুর করা আর্টওয়ার্ক আর জাহান ভাইয়ের ডিজাইন। আমার বিশ্বাস ‘স্প্রিং মুন’ আপনাদের ভালো লাগবে আর উপহার হিসেবেও বইটা আপনাদের পছন্দের তালিকায় উঠে আসবে।

৭৩২ বার দেখা হয়েছে

৪৬ টি মন্তব্য : “বইমেলায় আমার প্রথম বই: স্প্রিং মুন”

  1. রকিব (০১-০৭)

    প্রথম প্রকাশনার জন্য অভিনন্দন। দেশে থাকলে অবশ্যই কিনতাম 😛 (প্রবাসীদের বাঁধাধরা অজুহাত :grr: )


    আমি তবু বলি:
    এখনো যে কটা দিন বেঁচে আছি সূর্যে সূর্যে চলি ..

    জবাব দিন
  2. সামীউর (৯৭-০৩)
    বইটির সবচেয়ে আকর্ষণীয় ব্যাপার হল টুম্পা আপুর করা আর্টওয়ার্ক আর জাহান ভাইয়ের ডিজাইন

    হাসান ভাই, তাহলে কি আপনার হাইকু গুলো একদমই অনাকর্ষনীয়!

    জবাব দিন
  3. আব্দুর রহমান আবিদ (৮০-৮৬)

    অভিনন্দন হাসান। প্রথম বই প্রথম সন্তানের মত। অন্তত আমার কাছে তেমন অনুভূতিই হয়েছিল আমার প্রথম বই বের হওয়ার সময়। আমি বাংলায় ছড়া-টড়া লিখি। তোমার কবিতার বই বের হওয়ার খবরে আমিও অনুপ্রেরণা পাচ্ছি আমারটা পরবর্তীতে বের করার প্রচেষ্টা করার। আবারও অভিনন্দন।

    জবাব দিন
  4. ওয়াহিদা নূর আফজা (৮৫-৯১)

    অভিনন্দন। ্বইটা সংগ্রহের চেষ্টা চালাবো। আর্ট ওয়ার্কগুলো দেখতে ইচ্ছে করছে সাথে হাইকু।


    “Happiness is when what you think, what you say, and what you do are in harmony.”
    ― Mahatma Gandhi

    জবাব দিন
  5. শওকত (৭৯-৮৫)

    হাসানের বইটা কিনেছি। খুবই ভাল প্রডাকশন। পছন্দ হইছে।
    এই সুযোগে জানাইয়া রাখি যে, এই মেলায় আমারো একটা বই বের হইছে। সাদা-কালোর অথর্নীতি, দিব্যপ্রকাশ থেকে। 🙂

    জবাব দিন
  6. সামিয়া (৯৯-০৫)

    কামরুল ভাই, প্রথম থেকেই ঠিক করে রেখেছিলাম আপনার বই না কিনে এই পোস্টে মন্তব্য করবো না। অনেক দিন পরে আজকে সময় পেয়ে বইমেলায় গেলাম, আমরা দুইজনেই কিনলাম আপনার বই, আরেকজনকে গিফটও দিলাম। অসাধারণ হইসে আপনার বইটা, প্রথম হাইকুটা পরেই আমি কাৎ। আর ইলাস্ট্রেশন...কোন ভাষা নাই। বইটা আসলেই অনেক অনেক অনেক সুন্দর হইসে। একদম বাড়ায় না, তেল দিতেসি না...মন থেকে বলতেসি, খুবই এক্সেপশনাল আর ইউনিক হইসে বইটা।
    অটঃ সেদিনের জন্য মাইন্ড করেন না প্লিজ, আমার এক ক্লাসমেটের চেহারার সাথে আপনার চেহারার এত্ত মিল...আমি গুলায় ফেলসিলাম 🙁

    জবাব দিন
  7. সানাউল্লাহ (৭৪ - ৮০)

    অভিনন্দন হাসান। বইমেলায় যাইনি এখনো। সময় করে উঠতে পারিনি। যদি নাও যেতে পারি, তবু পরে হলেও সংগ্রহ করার চেষ্টা করবো।

    অফটপিক : পোলাপাইন সব বেয়াদপ হইয়া গ্যাছে! ~x( বই বেরুনোর পর কই প্রিন্সিপালের কাছে আইস্যা প্রথম কপি "সেলামি" দিবো তা না, সিসিবিয়ানরা বই কিনে না বইল্যা কান্দাকাটি করে!!


    "মানুষে বিশ্বাস হারানো পাপ"

    জবাব দিন
  8. রুম্মান (১৯৯৩-৯৯)

    পরের বইয়ের ইলাষ্ট্রেশন আর আর্টওয়ার্ক আমি করমু............


    আমার কি সমস্ত কিছুই হলো ভুল
    ভুল কথা, ভুল সম্মোধন
    ভুল পথ, ভুল বাড়ি, ভুল ঘোরাফেরা
    সারাটা জীবন ভুল চিঠি লেখা হলো শুধু,
    ভুল দরজায় হলো ব্যর্থ করাঘাত
    আমার কেবল হলো সমস্ত জীবন শুধু ভুল বই পড়া ।

    জবাব দিন
  9. মাহমুদ (১৯৯০-৯৬)

    শুভেচ্ছা।

    ইত্তেফাকে মনে হয় দেখলাম কবিতার বই বিক্রি কম হচ্ছে। আশা করি তোমার বই এর মাঝেও সারভাইভ করবে।


    There is no royal road to science, and only those who do not dread the fatiguing climb of its steep paths have a chance of gaining its luminous summits.- Karl Marx

    জবাব দিন
  10. নূপুর কান্তি দাশ (৮৪-৯০)

    আমি নিশ্চয়ই এই সময়টায় ইনঅ্যাকটিভ ছিলাম, তাই বিরাট খবরটা এ্যাদ্দিন পর নজরে এলো।
    বইটা আমি পেতে চাই, এ্যাত্ত দূরে কি করে হাতে আসতে পারে তাই ভাবছি।

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।