পঁচিশে ফেব্রুয়ারী—-আমি কি ভুলিতে পারি?

কি ভাবছেন? আমি ভুল করে একুশে না লিখে পঁচিশে ফেব্রুয়ারী লিখেছি? উত্তরটা অতি শীঘ্রই জেনে যাবেন। আজ আমি সিসিবি তে প্রথম লিখছি….. তাও আবার বাংলায় ! আজ থেকে প্রায় তিন বছর আগে আমাদের এখানে একটি লোকাল অনুষ্ঠান পরিচালনা করার দায়িত্বটি আমার উপর ন্যস্ত হলো। কোরাসের জন্য বাছাইকৃত গানগুলো স্বহস্তে লিখার পর ফটোকপি করার দায়িত্বটিও আমারই উপর অর্পিত হলো। যখন “মোরা ঝঞ্ঝার মত উদ্দাম, মোরা ঝর্ণার মত চঞ্চল” গানটি লিখতে গেলাম, তখনি বুঝে ফেললাম বাংলা আমি একদম গুলিয়ে ফেলেছি এ ক’বছরেই। তখনও ভাবিনি আমি আবার কখনও বাংলা লিখতে পারব।

২৫শে ফেব্রুয়ারী, ২০০৯| সকালের শুরুটা আমার প্রাত্যহিক জীবনের আর দশটা সকালের মতই হয়েছিল। হঠাৎ বাবার একটি ফোন এলো, শুনলাম ধারণা করা হচ্ছে বিডিআর এর ডিজি ও তার পুরো পরিবারকে শেষ করে দেয়া হয়েছে, কিছু আর্মি অফিসারও পিলখানাতে আটক রয়েছে। এমন একটি চাঞ্চল্যকর তথ্য পেয়ে আমি চোখ রাখা শুরু করলাম বাংলা চ্যানেল গুলোতে। খুব অস্থিরতার মধ্যে সময়গুলো কাটছিল, খবরগুলো দেখছিলাম আর যেন বুকের মাঝে চিনচিনে ব্যাথা অনুভব করছিলাম। তারপর যখন একটার পর একটা লাশ দেখা শুরু করলাম তখন যেন বুকের ভেতর মস্ত বড় একটা পাথর অনুভব করলাম। শরীর ক্রমশ খারাপ হতে লাগল…মুখে খাবারও তুলতে পারছিলাম না; ভাবছিলাম নরপশুগুলোকে সবার সামনে এনে কঠিন বিচার করলেই বুঝি আমি কিছুটা সান্তনা পাব। হঠাৎ কেন যেন কলম তুলে নিলাম………. সেই যাদুর কলমটি অবলীলায় আমার মনের কথাগুলো বাংলায় লিখে আমাকে পুনরুজ্জীবিত করল। কিছুক্ষন বাঁধাহীনভাবে লিখে যেন খানিক স্বস্হিবোধ করলাম। হ্যাঁ, আমি সেই পঁচিশে ফেব্রুয়ারীর কথা-ই লিখেছি, যেদিনটির জন্য্ প্রায় এক যুগ পর আমার বাংলার পুনরুদ্ধার হল, বাংলায় লিখা হল অনেকদিন পর!………..লিখেছিলাম–

নরপিশাচদের বন্দী করে জনসম্মুখে আন
গর্দানেতে শেকল এঁটে এবার ওদের টান।
দূ্র্নীতি বল, সংশয় বল ক’জনকে আর ঘিরে?
দেশের মাথা কিসের লোভে নিল ওরা কেড়ে?

টাকার অংকে যাদের বিবেক বিক্রি হয়ে যায়,
দেশের মাটিতে কি করে তারা নিস্তার পেয়ে যায়?

বুদ্ধিজীবি ধ্বংস করার নীল নকশা গড়ে
বছর কয়েক গড়ালে দাঁড়ায় সর্বনাশের তরে।
বিস্ময়ে সব হতভম্ব! কেন ঘটল এসব?
ঘটনার কদিনিই শুধু শোনা যায় হট্টগোল-কলোরব।

ধীরে ধীরে সুযোগ বুঝে করে ফেলে সব শান্ত,
জনসাধারন কথার প্যাঁচে হয়ে যায় সব ক্লান্ত।

গণমাধ্যমে সাংবাদিকরা খোল সত্যের ঝুড়ি,
দেশের স্বার্থে লড়তে হবে থেকোনাকো চুপ করি।
ক’জন বোঝে কথার হিসাব? বুদ্ধি তাদের কত?
তোমাদেরি তরে তাকিয়ে থাকে জনসাধারণ যত।

আজও যদি পার পেয়ে যায় ষড়যন্ত্রের হোতা,
সুযোগ পেলেই ফেলবে ফাঁদে হও যত বড় নেতা।
কুচক্রান্তে চলে যদি এরূপ বুদ্ধিনাশের চেষ্টা,
জীর্ণ হবে স্বাধীনতা মোর গোল্লায় যাবে দেশটা।

————————————————————————-

জনসম্মুখে বিচার হওয়া তো দূরের কথা, আজও আমি সন্দিহান সুষ্ঠ কোন তদন্ত আদৌ হয়েছিল কিনা।রাঘব বোয়ালরা বুঝি এবারও চোখে ধুলি ছুড়ল।নাহ্, আর কোন শোকের কথা নয়, আজ আমি বরং আনন্দিত।

এখন আমি প্রায়ই বাংলায় লিখে ভাষাচর্চাটা চালিয়ে যেতে পারব ।
“যে তোমায় ছাড়ে ছাড়ুক, আমি তোমায় ছাড়বনা মা।”
ধন্যবাদ সিসিবিকে আমাকে বাংলায় লিখার সুযোগ করে দেবার জন্য।

২,১০২ বার দেখা হয়েছে

২৬ টি মন্তব্য : “পঁচিশে ফেব্রুয়ারী—-আমি কি ভুলিতে পারি?”

  1. সাব্বির (৯৫-০১)

    শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা :salute:
    সিসিবি তে স্বাগতম আপু!!!
    কবিতাটা অসাধারণ হয়েছে। বাংলাদেশের মানুষ খুব সহজেই সব ভুলে যায়। আর দুর্নীতিবাজ রা সেই সুযোগ টা কাজে লাগায়।
    দু বছর আগে যেই তারেক জিয়ার নাম মুখে নিলে মানুষ ছি ছি করত, আর ঠিক দু বছর পরে তাকে ভোট দিয়ে সরকারের আসনে বসালে অবাক হবনা। (উদাহরণ হিসাবে তারেক জিয়ার নাম ব্যবহার করেছি মাত্র)।
    অ ট নতুন লেখা দিলে সিসিবির কিছু নিয়ম কানুন,,,,,,,,না আমি কিছু বলি নাই :no:

    জবাব দিন
  2. সাবিহা জিতু (১৯৯৩-১৯৯৯)

    তোর লেখাগুলো এফবি তেই খুব ভাল লাগত, অনেক মন্তব্য দিয়েছি, তাই নতুন করে বলার কিছু নাই তোর লেখা সম্পর্কে।
    :just: সিসিবির নিয়মটা জানিয়ে দেই...
    নতুন ব্লগ লিখলে এখানে :frontroll: দিয়ে নিজেকে ব্লগার হিসেবে লিপিবদ্ধ করতে হয় 😐 ...প্রিন্সু স্যার নাকি আইসক্রীম খাওয়াবেন এই আশায় :dreamy: আমি ও দিয়েছিলাম :bash:
    তবে আমার পক্ষ থেকে সিসিবিতে তোকে স্বাগতম। অসাধারন অসাধারন সব লেখা দিয়ে এমজিসিসি রক অন করে দে :goragori: :goragori: :goragori:


    You cannot hangout with negative people and expect a positive life.

    জবাব দিন
  3. মেহেদী হাসান (১৯৯৬-২০০২)

    স্বাগতম আপু। কবিতাটা খুবই ভাল লেগেছে। এই দেশে এটাই নিয়ম। ব্যক্তিগত ভাবে কেউ ক্ষতিগ্রস্থ না হলে আমরা ক'দিনেই সব ভুলে যাই। বিচার এই দেশে হয় না। তবুও আমরা ক্ষীণ আশা বুক বাঁধি। উপর ওয়ালার দিকে তাকিয়ে থাকি। আর কিই বা করার আছে বলেন। আমাদের মধ্যে যদি একাত্বতা থাকতো তবে হয়তো অনেক কিছু সম্ভব হতো, কিন্তু সেটা নেই বলেই আমরা কিছু করতে পারবো সেটা বিশ্বাস করি না।
    ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০০৯ আমি কখনো ভুলতে পারবো না। আমার সারা জীবনের বিশ্বাস, গর্ব আর অহংকার কে ভেঙ্গে চুড়মার করে দিয়েছে এই দিনটি।

    জবাব দিন
  4. সাকেব (মকক) (৯৩-৯৯)

    স্বাগতম,
    সিসিবিতে দেখি ৯৩ ব্যাচের জনসংখ্যা বাড়তেসে...

    হুমম, মানুষ আসলেই অনেক সহজে ভুলে যায়...


    "আমার মাঝে এক মানবীর ধবল বসবাস
    আমার সাথেই সেই মানবীর তুমুল সহবাস"

    জবাব দিন
  5. রকিব (০১-০৭)

    কবিতাটা পড়েছি প্রথম দিনই; কিন্তু মন্তব্য করবার মতো ভাষা ছিলো না। শুধু নির্বাক কষ্টগুলো ঘুরে ফিরে নীল করে দিয়ে যাচ্ছে।


    আমি তবু বলি:
    এখনো যে কটা দিন বেঁচে আছি সূর্যে সূর্যে চলি ..

    জবাব দিন
  6. রহিমা আফরোজা নূপুর (৯১-৯৭)

    তোমার কবিতাটা অসাধারন হয়েছে । পড়ে কেমন যেন কান্না পাচ্ছে আমার। আমাদের দেশে কবে ন্যায় বিচার হবে, চোখের সামনে এত বড় অন্যায় করে, এতগুলো মানুশকে হত্যা করে কেমন সবাই পার পেয়ে যাচ্ছে!

    জবাব দিন
  7. রুম্মান (১৯৯৩-৯৯)

    অনেক কষ্ট রে...........গতকালের কালের কন্ঠ তে দেখলাম সুবেদার গোফরান যে কিনা ঐ বছরই বি ডি আর এর টাকাতে হজ্জ করে এসেছে,সেই লোকই এক অফিসারের বাসার কাজের মেয়েকে রেপ করেছে ।


    আমার কি সমস্ত কিছুই হলো ভুল
    ভুল কথা, ভুল সম্মোধন
    ভুল পথ, ভুল বাড়ি, ভুল ঘোরাফেরা
    সারাটা জীবন ভুল চিঠি লেখা হলো শুধু,
    ভুল দরজায় হলো ব্যর্থ করাঘাত
    আমার কেবল হলো সমস্ত জীবন শুধু ভুল বই পড়া ।

    জবাব দিন
  8. আহসান আকাশ (৯৬-০২)

    ব্লগে স্বাগতম আপু... লেখা নিয়ে মন্তব্য লিখেও মুছে ফেললাম, অনেক সংশয়, অনেক আক্ষেপ।


    আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
    আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

    জবাব দিন
  9. জুনায়েদ কবীর (৯৫-০১)

    আপু, ঠিক করেছিলাম বিচার হবার পরই আমার প্রোফাইল পিকচার বদলাবো...
    কিছুটা হলেও ক্ষোভ প্রকাশ করা আর কি...

    তবে এখন মনে হচ্ছে এ জীবনে হয়ত আর প্রোফাইল পিকচার বদলানো হবে না...

    ব্লগে স্বাগতম।


    ঐ দেখা যায় তালগাছ, তালগাছটি কিন্তু আমার...হুঁ

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।