বর্ষ শুরু সংখ্যা

নতুন বছরের শুরুতে দেখা যাচ্ছে সিসিবির উর্বরতা বেশ বৃদ্ধি পেয়েছ। একের পর এক নতুন লেখা আসছে, তারচেয়ে বড় কথা ভাল মানের লেখা আসছে। ব্লগে ঢুকলে মনটাই ভাল হয়ে যায়। লেখার সাথে সাথে আনাগোনাও প্রচুর বেড়েছে, সবসময়ই উল্লেখযোগ্য সংখ্যক সদস্য আর অতিথিদের অন প্যারেড দেখি। তবে এর মাঝে হালকা মন খারাপের বিষয় হলো এত আনাগোনার তুলনায় মন্তব্য করার হারটা একটু কমই। আমরা যারা লেখা পড়ছি তারা যদি একটু কষ্ট করে পোস্টটাতে আমাদের ভাল লাগা, খারাপ লাগা নিয়ে হালকা আওয়াজ দিয়ে যাই তাহলে মনে হয় লেখককে আমরা আরো লিখতে বা আরো ভাল লিখতে উৎসাহিত করা হয়। বিশেষ করে আমরা যারা নিজেরা লিখছি তারা যদি অন্যের লেখাগুলোতেও মন্তব্যের মাধ্যমে কন্ট্রিবিউট করি তাহলে মনে হয় সামগ্রিক ভাবে আমাদের ব্লগ পরিবেশের উন্নতি করতে পারবো।

লেখার শুরুতেই ভারী কথা বেশি হয়ে গেল, আসলে ব্লগের লেখার মান বেড়ে যাওয়ায় আবজাব লিখে পার পাওয়া যাবে না, তাই এভাবে লেখার ওজন বাড়ানোর অপচেষ্টা। (আর মন্তব্য বাড়ানোর আহবানের আড়ালে যে আমার নিজের পোস্টেই মন্তব্য বাড়ানোর দূরভিসন্ধি লুকিয়ে আছে সেটা নিশ্চয়ই আলাদা ভাবে বলে দিতে হবে না)

মূল প্রসঙ্গে চলে আসার সময় মনে হয় হয়ে গিয়েছে। নানা উৎসাহ, উদ্দিপনা, উত্তেজনা ইত্যাদি ইত্যাদির সাথে দেশ ও জাতি ইংরেজী ২০১৪কে বরন করে নিল। আমার জন্য সূচনাটা ছিল পুরোপুরি কনফিউজিং অবস্থায়। এলাকা পাহারার দ্বায়িত্ব থাকা অবস্থায় হঠাৎ করে যখন দ্রুম দ্রুম শব্দে চারিদিক প্রকম্পিত হতে থাকলো তখন মাথায় শুধু ঘুরছে এর মাঝে দু একটা আবার ধ্বংসাত্মক না তো! যাই হোক টানা তিন-চার মিনিট এই কনফিউজিং স্টেট এ থাকার পর নিশ্চিন্ত হলাম কোন খারাপ খবর নেই। কিন্তু এখন এখন চিন্তায় আছি পুরো বছরই না আবার এরকম কনফিউশনে কেটে যায়।

নতুন বছরে নতুন কিছু করার প্রতিজ্ঞা (নিয় ইয়ার রেজুলিউশন) করা একটা জনপ্রিয় ট্রেণ্ড। এতদিন পর্যন্ত এ নিয়ে আমার কোন আগ্রহ না থাকলেও এবার মনে হলো ব্যাপারটা মন্দ না, একবার চেষ্টা করে দেখাই যেতে পারে। এটিই হলো এই লেখার মূল উপজীব্য।

২০১৩ এর সূচনা হয়েছিল বড় একটা ঘটনা দিয়ে, জীবনের প্রথম ২৯ বছর ধূমপান মুক্ত থাকার পর ১৩ সালের শুরুর দিনেই ধূমপানের কাছে ধরাশায়ী হলাম, সেটা চললো পুরো বছর। নতুন বছরের প্রথম লক্ষ্য ছিল এর হাত থেকে নিজেকে মুক্ত করবো। এবছরের এখন পর্যন্ত ৮৮ ঘন্টা ধূমপান মুক্ত ভাবে পার করতে সক্ষম হয়েছি। ব্যাপারটা যত সহজ হবে ভেবেছিলাম মোটেও তত সহজ না। তবে এ সংগ্রাম চলবে।

২০১৩ সালের আরেকটি বড় দুঃখজনক ঘটনা ছিল পুরো বছরে সিসিবিতে একটাও লেখা না দেয়া। এক সময় যেখানে মাসে একাধিক (হাবিজাবি)লেখা দিতাম সেখানে গত প্রায় ১৫ মাস কোন লেখা দেয়নি। নতুন বছরের দ্বিতীয় পরিকল্পনা হলো প্রতিমাসে কমপক্ষে একটি লেখা দেয়া, আব্জাব যাই হোক। সেই সাথে নিরব পাঠকের খোলস থেকে বের হয়ে এসে মন্তব্যে নিয়মিত হওয়া। আপাতত কিছুদিন কোয়ালিটি নয় কোয়ান্টিটিতে বিশ্বাষী হয়ে সিসিবিতে বিচরনের পরিকল্পনা করেছি।

এক সময়ের ফ্যাশন ট্রেন্ড DSLR কিনেছি দু বছর হতে চললো, (এখন মনে হচ্ছে এর আর বাজার নেই, এখন হলো সাইকেলের যুগ) ছবি তোলা চলছে শম্ভুক গতিতে, তবে নিজের তোলা ছবি দেখে নিজেই সেভাবে খুশী হতে পারি না, অন্যদের দেখানোর মত কনফিডেন্স পাই না। এ বছরের আরেকটি পরিকল্পনা হলো প্রতি সপ্তাহে অন্তত একটি নতুন ছবি প্রকাশ করা। (এই আইডিয়ার পুরো কৃতিত্ব অবশ্য ফেসবুকের ক্যাডেটোগ্রাফি গ্রুপের)।

আপাতত এগুলোই, আশা করি আগামী বছরের শুরুতে সবগুলো পরিকল্পনারই সন্তোষজনক সমাপনী প্রতিবেদন দিতে পারবো। সে পর্যন্ত সকলের দোয়া প্রার্থী।

শেষ করছি এই ভাংচুরের সময়কে যথাপোযুক্ত ভাবে উদযাপন করতে চিৎকারের এই গান দিয়ে, এখন ভাংচুরের সময়…

৩,২২৭ বার দেখা হয়েছে

৫৫ টি মন্তব্য : “বর্ষ শুরু সংখ্যা”

  1. আমিন (১৯৯৬-২০০২)

    প্রতিদিন ভাবি কমেন্ট কইরা কোপাইয়া ফেলবো।
    অলস আমি সেইসব কিছউ করতে পারি না।
    ২৯ বছর পরে ধূমপান ধরা বেশ বিস্ময়কর।
    ফেসবুক ভরে ২০১৩ নিয়ে এত এত হতাশা দেখলাম লোকজনের। তাই গোপনে বলি, ২০০৬ এর পর গত আট বছরে সেরা সময় কাটালাম ২০১৩ তে।
    লেখা ভালো লাগছে।

    জবাব দিন
  2. রাজীব (১৯৯০-১৯৯৬)
    আমার জন্য সূচনাটা ছিল পুরোপুরি কনফিউজিং অবস্থায়। এলাকা পাহারার দ্বায়িত্ব থাকা অবস্থায় হঠাৎ করে যখন দ্রুম দ্রুম শব্দে চারিদিক প্রকম্পিত হতে থাকলো তখন মাথায় শুধু ঘুরছে এর মাঝে দু একটা আবার ধ্বংসাত্মক না তো! যাই হোক টানা তিন-চার মিনিট এই কনফিউজিং স্টেট এ থাকার পর নিশ্চিন্ত হলাম কোন খারাপ খবর নেই। কিন্তু এখন এখন চিন্তায় আছি পুরো বছরই না আবার এরকম কনফিউশনে কেটে যায়।

    B-)


    এখনো বিষের পেয়ালা ঠোঁটের সামনে তুলে ধরা হয় নি, তুমি কথা বলো। (১২০) - হুমায়ুন আজাদ

    জবাব দিন
  3. রাজীব (১৯৯০-১৯৯৬)
    আপাতত কিছুদিন কোয়ালিটি নয় কোয়ান্টিটিতে বিশ্বাষী হয়ে সিসিবিতে বিচরনের পরিকল্পনা করেছি।

    :gulti:


    এখনো বিষের পেয়ালা ঠোঁটের সামনে তুলে ধরা হয় নি, তুমি কথা বলো। (১২০) - হুমায়ুন আজাদ

    জবাব দিন
  4. মোকাব্বির (৯৮-০৪)

    আতাহার ভাইয়ের ৫২ সপ্তাহ ফটোগ্রাফীতে ঝাঁপায় পড়েন। :gulli:

    ধূমপানের বিরুদ্ধে সংগ্রাম সফল হোক। :thumbup:


    \\\তুমি আসবে বলে, হে স্বাধীনতা
    অবুঝ শিশু হামাগুড়ি দিল পিতামাতার লাশের ওপর।\\\

    জবাব দিন
  5. সাব্বির (৯৫-০১)

    বেস্ট লাইন "এখন হলো সাইকেলের যুগ"।
    সাইকেলে সাইকেলে ফেসবুক ভরপুর। যে কোন প্রসংগে সাইকেল টেনে আনে।
    ২৯ তো ছাড়ার সময়, তুমি বিড়ি ধরলা কেম্নে?? দুই বছর হচ্ছে আমি বিড়ি মুক্ত।

    জবাব দিন
  6. মাসরুফ (১৯৯৭-২০০৩)

    বলি ও আকাসদা, আচেন ক্যামোন দাদা? তারপর বলুন দিকিনি মশাই, ওপারের খবর টবর কি? আমাদের এপাড়ায় তো আজ নির্বাচন, আপনাদের মুল্লুকে কে আসচে-মোদী না আর কেউ? 😉 😛 😛

    জবাব দিন
  7. রিফাত আনজুম পিয়া (২০০৪-২০১০)

    সিসিবিতে প্রায়ই বিভিন্ন লেখা পড়া হয়, কিন্তু ফাঁকিবাজি করে কোন কমেন্ট করা হয় না ! নিউ ইয়ার রেজলুশন - এখন থেকে নিয়মিত কমেন্ট করব 😀
    ধূমপান ছাড়ুন, ফটোগ্রাফিতে ঝাঁপিয়ে পড়ুন ! এবং তার আপডেট দিয়ে নতুন নতুন লেখা লিখুন!
    শুভ কামনা ভাইয়া 🙂

    জবাব দিন
  8. কাইয়ূম (১৯৯২-১৯৯৮)

    সবাই দেখি সিগ্রেট ছাইড়া দিতাসে, গুড গুড 😀 বদভ্যাস যত্ত তাড়াতাড়ি বাদ্দেওন যায়!
    দুইহাজার চৌদ্দতে সিসিবিতে লেইখা কোপায়া ফালাবো এক্কেবারে, যা আছে কপালে 😀


    সংসারে প্রবল বৈরাগ্য!

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।