খিচুড়ি-৫

ক।
আজকের সকালটা কেমন জানি অন্যরকম একটা ভাল লাগা দিয়ে শুরু হয়েছে। রাতে স্বাভাবিকের চেয়ে ঘুম অনেকটাই কম হলেও ঘুম ভাঙ্গার পরে বিরক্তির বদলে মন আর ভাল হয়ে গেল। এর পিছনে কারন আছে দুটি, যার একটি হলো গতরাতের আর্সেনাল-বার্সিলোনা ম্যাচ। শেষ পর্যন্ত আর্সেনাল বার্সিলোনাকে হারাতে পারলো। বেশি ডিটেইলস এ যাব না, শুধু বলবো যারা দেখেনি তারা বিশাল মিস করেছে। এ পরাজয়ের পরেও পরের রাউন্ডে যাবার জন্য এখনো বার্সিলোনা হট ফেবারিট, তবে এ মুহুর্তের আর্সেনাল দল তাদের দিনে যেকোন কিছু করে ফেলতে পারে। এখন শুধু ৯ মার্চ এর জন্য অপেক্ষা।

খ।
টিভিতে খবরে দেখে ঢাকার প্রস্তুতি দেখে মনে হলো ঢাকা পুরো বদলে গিয়েছে। লাল-নীল বাত্তি জ্বলছে, বিলবোর্ড, প্লাকার্ড দিয়ে পুরো ঢাকা ছেয়ে ফেলা হয়েছে। দেখতে ভালই লাগল, বেশ ভালই খরচ করা হয়েছে অতিথিদের কাছে আমাদেরকে সুন্দর ভাবে তুলে ধরার জন্য। বিবিসির হয়ে এবার বিশ্বকাপে ঢাকার খেলাগুলো কভার করতে আসা সাংবাদিক এডাম মাউন্টফোর্ডের এই ব্লগ পড়ে যা বুঝলাম তারা এর দ্বারা বেশ প্রভাবিতও হয়েছে। তবে সৌন্দর্যবর্ধনে যা করা হয়েছে তার সবকিছুই প্রায় অস্থায়ী। স্থায়ী কিছু করা হলে মনে হয় ভাল হত, বিশ্বকাপের একটা স্মারক হিসেবে থেকে যেত।

গ।
গত সপ্তাহে বিশ্বকাপের সব দল প্রস্তুতি ম্যাচ খেলেছে। বাংলাদেশের নিজেদের আর আমাদের গ্রুপের অন্যান্য দলের পারফর্মেন্স বিশ্বকাপে আমাদের সম্ভাবনা নিয়ে কিছুটা হলেও শঙ্কার সৃষ্টি করেছে। বিশেষ করে আয়ারল্যান্ড আর হল্যান্ডকে নিয়ে নিশ্চিত থাকা আর সম্ভব হচ্ছে না, নিজেদের সেরাটা দিতে না পারলে ঐ ম্যাচ দুটোও কঠিন হয়ে দেখা দিতে পারে। আর নিউজিল্যান্ড গতকাল যেভাবে ভারতীয়দের ব্যাটিং প্রাকটিস করালো তাতে মনে ভয় ঢোকাটাই স্বাভাবিক কথা।

ঘ।
সিসিবি ফ্যান্টাসী বিশ্বকাপ শুরু হতে আর বাকি আছে একদিন। এখন পর্যন্ত ১৮টি দল এতে নাম লিখিয়েছে। যারা এখনো বাকি আছে তারা তাড়াতাড়ি দলে দলে যোগ দিন। বিস্তারিত দেওয়া আছে এই ব্লগে।

ঙ।
বিশ্বকাপ নিয়ে আমাদের আয়োজনের শেষ নেই। ভারতীয়দের মত সিনেমা না বানালেও নাটক, বিজ্ঞাপন, গান এসব কিছুতে আমরা পিছিয়ে নেই, বিশেষ করে গানের তো কোন শেষ নেই, সব শিল্পীই কমপক্ষে একটা করে গান গেয়ে ফেলেছে। তবে বিশ্বকাপ নিয়ে আমাদের আয়োজনের সবচেয়ে লজ্জাজনক ঘটনা এই গান নিয়েই ঘটলো। আরেফিন রূমীর সুরে দূরবীন ব্যান্ডের করা আমাদের সূচনা সঙ্গীতের সুরের উৎস হলো তামিল সিনেমার এক গানের। ছিঃ… আমাদের নিজেদের ক্রিয়েটিভিটির কি এতই আকাল পড়েছে?

চ।
সকালটা ভাল লাগা দিয়ে শুরু হবার কথা বলেছিলাম, সেটার আরেকটা কারন হলো আজকের সকালটা চট্টগ্রামে শুরু হলেও রাতটা আশাকরি ঢাকায়। নতুন ঢাকাতে যাচ্ছি ছুটি কাটাতে। দেখা যাক ঢাকা আসলেই কতটা সেজেছে।

৪৮২ বার দেখা হয়েছে

৬ টি মন্তব্য : “খিচুড়ি-৫”

  1. জিহাদ (৯৯-০৫)

    আমি ফার্স্ট হাফ দেখে আর্সেনাল হারবে এই ভেবে ঘুম দিলাম । সকালে উঠে দেখি কি তামশা।

    উদ্বোধনী অনুষ্ঠান দেখে মনটা আসলেই ফুরফুরা হয়ে গেসে। এখন বাংলাদেশ ক্রিকেট দল কি করে দেখা যাক।


    সাতেও নাই, পাঁচেও নাই

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।