কি জানি কিসেরও লাগি…

১। নতুন একটা যন্ত্র আবিষ্কারের সময় হইছে, জিনিষটা দেখতে অনেকটা হেডফোন টাইপের হবে, USB দিয়ে কম্পিউটারে সংযোগ দেয়া থাকবে। এটার কাজ হবে Thought Writing মানে চিন্তা লেখনী, আমি যা লেখার জন্য চিন্তা করবো তা লেখা হয়ে যাবে। গত প্রায় একমাস যাবৎ এই ‘Thought Writer’ এর অভাব বেশ অনুভব করছি। এ ক’দিন সিসিবিতে পোস্ট দেয়া তো দূরে থাক, মন্তব্যও করতে পারছি না। এই যন্ত্র একটা থাকলে কি শান্তিতেই না এগুলো করা যেত।(আগেই বলে রাখি, আমার এই নতুন যন্ত্রেও আইডিয়া কিন্তু কপিরাইট করা, নিকট/দূর যেকোন ভবিষ্যতে কেউ যদি এটা চুরি করে যন্ত্র তৈরী করে ফেলে, তার নামে কিন্তু কপিরাইটের মামলা ঠুকে দেব) মাঝে অবশ্য কিছুদিন আসতেও পারিনি। সেই বিরতিতে আরেকটি ইসসিরে পোস্টের অবতারনার মত অবস্থা হয়েছে।

২। গত কয়েকদিন যাবৎ সিসিবিতে ঢুকলেই কেমন কেমন জানি লাগে, মনটা উড়ু উড়ু করে, দুঃখে চোক্ষে পানি চলে আসে, হিংসায় গা জ্বলতে থাকে ইত্যাদি ইত্যাদি। কারন আর কিছুই না, জিতুদি’র জিটুজি। দিন দিন দেখি খালি প্যারেড স্টেট ভারি হচ্ছে আর এদিকে আমি যোগ দিতে পারছি না। আমাদের মত এরকম সুবিধা বঞ্চিত সিসিবিয়ানদেরকে এই ভাবে বিভিন্ন ধরনের মানসিক অশান্তি দেবার তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

৩। সিসিবিতে গত পোস্ট দিয়েছিলাম দেড় মাস আগে, এর মাঝে অনেক কিছুই বদলে গিয়েছে, তার মাঝে একটি হলো ঠিকানা। আমার ঠিকানার কথাই বলছি, অন্য কারো না, হরতালের ভয় নেই। সেসময় ছিলাম সিলেটের অস্থায়ী আর ঢাকার স্থায়ী বাসিন্দা। বর্তমানে আমি বন্দর নগরী চট্টগ্রামের স্থায়ী নাগরিক। তিনদিনের নোটিশে ঢাকা ছেড়ে চলে আসায় ঢাকা আর ঢাকাবাসীর কাছ থেকে ঠিকমত বিদায় নিতে পারিনি। তবে ঢাকা কিন্তু সেদিক থেকে কোন কার্পন্য করেনি, একেবারে আয়োজন করে আমাকে বিদায় দিয়েছে। ট্রাফিকের জ্যামে আটকে গ্রীনলাইনের রাজারবাগ কাউন্টারে বাস মিস করে বাসের পিছে ছুটতে ছুটতে সায়েদাবাদ কাউন্টারে গিয়ে উঠেছি। ঢাকা জীবনের একেবারে perfect ending।

৪। সবচেয়ে বড় পরিবর্তন যেটি হয়েছে সেটা হলো ফেসবুকের relationship status এর পরিবর্তন। জ্বী, গত ২৬ নভেম্বর তারিখে ছোট খাট এক আয়োজনের মধ্য দিয়ে আমি জীবিতদের দল ছেড়ে বান্ধা গরুদের দলে যোগ দিয়েছি। ব্যস্ততার কারনে কাউকে জানাতে পারিনি বলে দুঃখিত। ইনশাআল্লাহ অদূর ভবিষ্যতে সবাইকে কবজি ডুবিয়ে খাওয়ার আমন্ত্রন জানাতে পারবো।

৫। আরো অনেক কিছুই হয়ত বদলে গিয়েছে, যাবে। কিন্তু একটা জিনিষ কখনোই বদলানোর নয়, তা হলো বাশ্রাফুলের ব্যাটিং। গুরু যা দেখালো আজকে! তবে শুধু ওকে বলে লাভ নেই। এই বোলিং এট্যাকের সামনে যদি এই রান চেজ না করতে পারে আমাদের সোনার ছেলেরা, তাহলে তা সত্যি হতাশাজনক, কুমিরের বাচ্চার মত এক সাকিবকে দেখিয়ে দেখিয়ে আর ক’দিন! তবে তার থেকে এগিয়ে আছে আমাদের আম্পায়াররা। আমাদের উচিত এখন ঘরের মাঠে নিরপেক্ষ আম্পায়ারের দাবি তোলা, এছাড়া আর গতি নেই। আশা করি এই এক ম্যাচ হারাতেই আমরা সবাই গেল গেল রব না তুলে পরবর্তী ম্যাচগুলোর দিকে নজর দেব। দেখা যাক আমাদের জন্য কি অপেক্ষা করছে।

৬। এ মুহুর্তে মোটামোটি একটা বিরহ পর্বের মধ্য দিয়ে যাচ্ছি। বান্ধা গরু হবার দু’দিনের মাথায় খুঁটি ছেড়ে শুধু দড়িটা গলায় ঝুলিয়ে চট্টগ্রাম চলে এসেছি, তার উপর কালকের জিটুজি মিস করছি। তবে সবচেয়ে বড় মিস হয়ে যাচ্ছে কলেজের রিইউনিয়ন। এ মাসের মাঝামাঝিতে হতে যাওয়া রিইউনিয়নে যেতে পারছি না, তখন পড়ে থাকবো হয়তো কর্নফুলির পাড়ে। কি জানি ‘কত কিছুরই’ লাগি প্রাণ করে হায় হায়…

৭। রবীন্দ্রনাথের গান নিয়ে আজকাল সবাই মাঠে নেমে পড়েছে। এর ভাল মন্দ বিচারের ক্ষমতা আমার নেই, কারন রবীন্দ্রসংগীত আমার কখনোই সেভাবে শোনা হয় নি বরং এদের কল্যানে এখন কিছুটা শোনা হচ্ছে। শিরোনামহীনের করা গান গুলোর বেশিরভাগই আমার কাছে ভাল লাগে নাই, তবে দু তিনটা বেশ লেগেছে, বিশেষ করে ‘পুরোনো সেই দিনের কথা’ রিইউনিয়ন যত কাছে আসছে, তত বেশি করে শোনা হচ্ছে গানটা, আসলেই খুব, খুব মিস করবো…

৩,৪২২ বার দেখা হয়েছে

৬০ টি মন্তব্য : “কি জানি কিসেরও লাগি…”

  1. সামি হক (৯০-৯৬)

    অনেক অনেক শুভেচ্ছা তোমাদের দুইজন কে ... অনেক সুখী হও... ঢাকা থেকে আর চট্টগ্রাম কতোই বা দূর, এক দড়িতেই হয়ে যাবে, টান পড়লেই রওনা দিয়ে দিবা।

    আর চিটাগাং যখন গেছোই এই ফাকে ফয়েজ ভাইয়ের বাসায় জিটুজির দিনে নাহয় দাওয়াত খেয়ে নিও।

    শিরোনামহীনের অ্যালবামটা কিন্তু খারাপ লাগে নাই।

    জবাব দিন
    • আহসান আকাশ (৯৬-০২)

      ধন্যবাদ সামি ভাই, তবে দড়ি টানাটানির সুযোগ সামনের দু'মাসের মধ্যে অন্তত নেই 🙁

      গতবার চট্টগ্রামে এসে ফয়েজ ভাইয়ের দেয়া দাওয়াত গ্রহন করতে পারিনি, এবার আশা করি মিস হবে না।

      শিরোনামহীনের অ্যালবামটা আমারো ভাল লেগেছে, ৪টা গান দারুন লেগেছে বাকি ৫ টা ভাল লাগেনি, ওদের পরিবেশনার জন্য না, গানগুলিই পছন্দ হয়নি।


      আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
      আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

      জবাব দিন
      • ফয়েজ (৮৭-৯৩)

        😀
        ব্যাপক বিনোদন পাইলাম। কারন জিহাদ জানে আরকি। তয় সংক্ষেপে কইতে পারি। আমি আসলে ঢাকা আর চিটাগাং এর মাঝখানে ঝুইলা আছি। একবারে ৯৬ ব্যাচের আমিন আর ৮৯ এর এহসানের মত নাছোরবান্দা না হইলে আমারে ধরা হালকা টাফ আছে মুনে লয়। :grr:


        পালটে দেবার স্বপ্ন আমার এখনও গেল না

        জবাব দিন
  2. আমিন (১৯৯৬-২০০২)

    ওয়েলকাম টু ডি ডেডলি ওয়ারিয়র ( করা : ফয়েজ ভাই)।

    আগেই তো কইছিলাম নাফীস হইলো লক্ষ্মী 🙂 যাউক ঐ টা কথা না। কালকের পরাজয়টা ব্যাড লাক। তবে আমার গায়ে লাগতো না যদি জিম্বাবুয়ে খুব ভালো খেলতো। সমস্যা হইলো আমরা যদি আগেই ওদের চারটা উইকেট রান আউটে দেই তাইলে তো সমস্যা।

    রিইউনিয়ন মিসের লাইগা সমবেদনা। দুই তিন মাস আমাদের রিইউনিয়ন। আমি ঐ টা মিস করবো। সমব্যাথী পাইয়া ভাল্লাগতাসে। 🙁 গানটার জন্য ধন্যবাদ।

    জবাব দিন
    • আহসান আকাশ (৯৬-০২)

      থ্যাঙ্কু 😀

      জুনায়েদের জায়গায় সহজেই নাফীসকে খেলানো যেত (আমি কইতেছি এই কথা!!!) আর অদের সাথে রেকর্ডও ভাল। তবে সাকিবের প্রেস ব্রিফিং শুনে গিয়াঞ্জামের গন্ধ পাচ্ছি। নেক্সট ম্যাচে টিম হিসেবে ভাল করা জরুরী হয়ে পড়ছে।

      তোর জন্যও সমবেদনা।


      আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
      আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

      জবাব দিন
  3. তানভীর (০২-০৮)

    অভিনন্দন নতুন জীবন শুরু করার জন্য ।
    রবীন্দ্র সঙ্গীত চিরকাল ই অমর থাকবে ,শিরোনামহীন এর এই এলবাম টি অসাধারণ ।
    আর বাংলাদেশ টিম এর দারুণ এক সিরিজ এর পর একটি পরাজয় আমরা ক্ষমার দৃষ্টিতেই দেখি 😛

    জবাব দিন
  4. নূপুর কান্তি দাশ (৮৪-৯০)

    সবকিছুর জন্যে শুভেচ্ছা আকাশ।
    শুভেচ্ছা এত সুন্দর একটা ব্লগের জন্যে।
    তোমার সাথী নিশ্চয়ই এমন রোমান্টিক একটা মানুষ পেয়ে বাকবাকুম করছে আনন্দে।
    চট্টগ্রাম হচ্ছে বাংলাদেশের অন্যতম রোমান্টিক নগরী, বিরহকেও নতুন রূপে দেখার সুযোগ হবে। চ্যালেঞ্জ!
    ভালো থাকো। আনন্দে থেকো, ওকেও রেখো।

    জবাব দিন
    • আহসান আকাশ (৯৬-০২)

      ধন্যবাদ নূপুরদা 🙂
      সাথী আপাতত বিরহে কাতর... 🙁 চট্টগ্রাম আগে থেকেই আমার প্রিয় শহর, আশা করি সময় ভালই কাটবে। দোয়া রাখবেন।


      আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
      আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

      জবাব দিন
  5. শার্লী (১৯৯৯-২০০৫)

    একি আকাশদা, বিয়ে করে ফেললেন নাকি? অনেক অনেক অভিনন্দন। ঢাকায় এসে খাওয়ানোর কথা ভুলবেন না আশা করি 😀 ।

    আমিও অনেকদিন পর সিসিবিতে এসেছি। আপনি তাও মাত্র দেড় মাস। আমি তো প্রায় ছয় মাস পর এলাম। কেমন আছেন?

    জবাব দিন
    • আহসান আকাশ (৯৬-০২)

      হুম বিয়েটা করেই ফেললাম... খাওয়া পাওনা রইলো।

      দেড় মাস পোস্ট দেইনি, তবে চোখ বোলানো হয়েছে। দু/একদিন সিসিবিতে ঢু না মারলেই কেমন হাসফাস লাগে।


      আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
      আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

      জবাব দিন
  6. মইনুল (১৯৯২-১৯৯৮)

    নতুন জীবনে অভিনন্দন। ব্যাচেলর লোকজন যাই বলুক না কেন, বিবাহিত জীবনও খারাপ না।

    তোমার লেখা খেলার প্রিভিউ বা পোস্ট ম্যাচ রিপোর্টগুলো খুব মিস করি।

    জবাব দিন
    • আহসান আকাশ (৯৬-০২)

      ধন্যবাদ মইনুল ভাই। ব্যাচেলরদের কথা বলে লাভ নেই, একটা গ্রুপের কাছে আঙ্গুর ফল টক থাকবেই।

      এই মৌসুমে এখন পর্যন্ত মনে হয় ৩টা খেলাও পুরো দেখতে পারিনি, তাই লেখালেখির সুযোগও নেই। আশা করি আগামি বছরের শুরু থেকে আমার ফুটবল নিয়ে মেতে উঠতে পারবো।


      আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
      আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

      জবাব দিন
  7. রায়হান আবীর (৯৯-০৫)

    অভিনন্দন আকাশ দা। গত কয়েকদিন বেশ কয়েকবার আপনার রুমের সামনে দিয়ে আসা যাওয়া হয়েছে, ভাবছিলাম সিলেট থেকে ফিরলে একদিন আড্ডা দেওয়ার কথা। কিন্তু সেদিন শুনি চলে গেছেন!

    আবারও অভিনন্দন রইলো!

    জবাব দিন
    • আহসান আকাশ (৯৬-০২)

      ধন্যবাদ রায়হান। সিলেট থেকে এসে কিছুদিন ছুটিতে ছিলাম, সেখান থেকে চট্টগ্রাম। মাঝে শুধু একদিন মীরপুরে থাকা হয়েছে। চট্টগ্রাম আসলে খবর দিও, আড্ডা দেয়া যাবে।


      আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
      আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

      জবাব দিন
  8. ফয়েজ (৮৭-৯৩)

    চিটাগাং থাকবা কয়দিন? 😀

    বিয়া কইরা ভালা কাম করছো একখান। ব্যাচেলর পোলাপাইন হুদাই চিল্লায়, চিল্লানির মুরোদই আছে শুধু, আর কিছু না, আকাইম্মার দল সবডি। কিছুদিন পরে সুরসুর কইরা ডেডলি ওয়ারিয়র গ্রুপে জয়েন করে আর আওয়াজ দেয়, পোস্ট দেয়। বেকুব কোঙ্কখাঙ্কার। :grr:


    পালটে দেবার স্বপ্ন আমার এখনও গেল না

    জবাব দিন
    • আহসান আকাশ (৯৬-০২)

      এখন পোস্টিং চিটাগং, দেড়/দুই বছর তো থাকা হবেই।

      আমি কিন্তু অনেক আগে থেকেই ডেডলি ওয়ারিয়র গ্রুপের সাপোর্টার ছিলাম, কখনো কোন চিল্লানি দেই নাই 😛


      আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
      আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

      জবাব দিন
  9. কামরুল হাসান (৯৪-০০)

    বুদ্ধিমানরা বিয়ে করে অল্প বয়সে, জ্ঞানীরা করে বেশি বয়সে।
    আর সময় মতো যারা বিয়ে করে তারা হয় ফয়েজ ভাইয়ের মত 'ডেডলি ওয়ারিয়র'।

    তুই কোনটা ?

    অভিনন্দন। 😀


    ---------------------------------------------------------------------------
    বালক জানে না তো কতোটা হেঁটে এলে
    ফেরার পথ নেই, থাকে না কোনো কালে।।

    জবাব দিন
  10. সানাউল্লাহ (৭৪ - ৮০)

    আকাশ, লেখায় অনেক কিছুই এনেছো, কিন্তু এল ক্লাসিকো নেই!! তন্ন তন্ন করে খুঁজলাম পেলাম না........

    আর অভিনন্দনটা আবার নতুন করে জানিয়ে যাই। ভালো থেকো তোমরা দুজন। অনেক ভালো থেকো। :guitar:


    "মানুষে বিশ্বাস হারানো পাপ"

    জবাব দিন
    • আহসান আকাশ (৯৬-০২)

      আসলে এই লেখায় খেলা পর্ব আনতেই চাইনি, কারন ঘুরে ফিরে খেলা ছাড়া আর কিছুই আমার লেখায় থাকে না, কিন্তু আশরাফুল মেজাজটা এত খারাপ করে দিছিল যে বাদ দিতে পারি নাই।

      রিয়াল বার্সা নিয়ে আর কি বলার আছে, রিয়ালকে তো পুরা ঢাকা মোহামেডান বানায়া ছাইড়া দিছে :grr: :grr:

      আবারো অনেক ধন্যবাদ সানা ভাই।


      আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
      আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

      জবাব দিন
  11. মাসরুফ (১৯৯৭-২০০৩)

    ইনশাআল্লাহ অদূর ভবিষ্যতে সবাইকে কবজি ডুবিয়ে খাওয়ার আমন্ত্রন জানাতে পারবো

    আহা, আজ জিটুপির জিটুজি,সেই সাথে তক্কে তক্কে ছিলুম আকাসদা কবে খাওয়াচ্চেন সেটা নিয়ে...কবজি না দাদা, আপনার বিয়েতে খাবার সময় গোটা হাতটাই ডুবিয়ে দেবো'খন B-)

    জবাব দিন
  12. ইমরান (১৯৯৯-২০০৫)
    সবচেয়ে বড় মিস হয়ে যাচ্ছে কলেজের রিইউনিয়ন। এ মাসের মাঝামাঝিতে হতে যাওয়া রিইউনিয়নে যেতে পারছি না, তখন পড়ে থাকবো হয়তো কর্নফুলির পাড়ে। কি জানি ‘কত কিছুরই’ লাগি প্রাণ করে হায় হায়…

    :thumbup: হাজারটা লাইক... আমার কলেজেরও ঐ সময়ে রিইউনিয়ন।


    রঞ্জনা আমি আর আসবো না...

    জবাব দিন
  13. তারেক (৯৪ - ০০)

    অনেক অভিনন্দন তোমাকে। 🙂

    থট রাইটার বের হলে আমাকেও একটা দিয়ো। কিছুই টাইপ করতে ইচ্ছা করে না আজকাল।
    শিরোনামহীনের গানগুলো শুনলাম। এম্নিতে খারাপ হয়নি, এরকম এক্সপেরিমেন্ট যারা করে তাদের অনেকের চেয়ে ভাল। কিন্তু রবীন্দ্রসঙ্গীতের মূল যে জিনিস, সুর আর আবেগ, এই দুইটায় ব্যাপক ঘাটতি আছে। 🙁


    www.tareqnurulhasan.com
    www.boidweep.com

    জবাব দিন
    • আহসান আকাশ (৯৬-০২)

      ধন্যবাদ তারেক ভাই... রবীন্দ্রসঙ্গীত সম্পর্কে জ্ঞান সামান্যই, তারপরো বেশিরভাগ গান শুনে আমারো আপনার মতই মনে হয়েছে।


      আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
      আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

      জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।