ফুটবল প্যাচাল (আহসান আকাশ ভার্সন)

( এহসান ভাইয়ের ফুটবল প্যাচাল ২০১০ এ মন্তব্য করতে গিয়ে দেখলাম সেটা মূল পোস্টের চেয়ে বড় হয়ে গিয়েছে। তাই সেটাকে আলাদা ভাবে পোস্টে দিয়েদিলাম। সাথে চামে দিয়া বামে নিজের একটা পোস্ট বাড়িইয়ে নেয়া আরকি 😛 )

কালকে রাতে বার্সার খেলা দেখে শেষের দিকে ভয় পেয়ে গিয়েছিলাম, কানের পাশ দিয়ে গুলি চলে গেছে। তবে মেসিকেও গোল মিস করতে দেখে কেমন জানি ভাল লাগলো, মানুষ মানুষ মনে হইছে। 😀 অবস্থা দেখে মনে হচ্ছে রিয়াল ৯৮(!!!) পয়েন্ট নিয়ে রানার্সআপ হতে যাচ্ছে। মনে আছে ডেপোর্টিভো যেবার চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল ওদের পয়েন্ট ছিল ৬০ এর ঘরে।

ইন্টার-বার্সা সেমিফাইনালে মোরিনহোর ট্যাক্টিকস এর জয় দেখে ভাল লাগছে, তবে সবাই যে রকম বলছে বার্সার কোন প্লান বি ছিল না, আমার মনে হয় ইন্টারের ও কোন প্লান বি ছিল না। বোজানের গোলটা বাতিল না হলে ওরা ধরা খেয়ে যেত। ১০ নিয়ে খেলেও যে এট্যাক করা যায়, গোল দেয়া যায় সেটা কালকে সেভিলাই দেখিয়ে দিল। ০৬ এর ফাইনালে আর্সেনাল ও ১০ নিয়েই প্রায় ম্যাচ বের করে ফেলেছিল, হেনরি ভয়াবহ মিস না করলে। (তবে বুড়া লারসেন কি ভেল্কিটাই না দেখায়ছিল 🙁 ফাইনালে কাকে সাপোর্ট করবো এখনো বুঝতে পারছি না, রিবেরি ছাড়া বায়ার্নের জন্য ম্যাচটা টাফ হয়ে যাবে। মোরিনহো প্রিমিয়ার লীগে ফিরে আসার গুজব শোনা যাচ্ছে, আসলে খুশীই হবো, ওর প্রেস কমফারেন্সগুলো এনজয় করা যাবে।

লিভারপুল নিয়ে কিছু বলবো না, দুইদিন আগে দেখলাম ব্যাঙ্ক লোনের কারনে লাল পতাকা ঝুলছে, আর এক কুয়ের্ট বাদে বাকি সবার নামেই চলে যাবার রিউমার দেখতেছি, আল্লাহই যানে আগামীবার এরা কোথায় গিয়ে দাঁড়ায়।

আর্সেনাল নিয়েও নতুন করে কিছু বলার নেই, মধ্য এপ্রিল পর্যন্ত তারা টাইটেল রেসে টিকে ছিল এটাই বোনাস, বিশেষ করে যে পরিমানে ইঞ্জুরির মুখোমুখি হতে হয়েছে। আর ট্রান্সফার গসিপে এখন আর্সেনাল সবচেয়ে আলোচিত দল, তবে যাদের নাম শুনি তাদের বেশিরভাগকেই গুগল করে খুঁজে বের করতে হয়, আশায় আছি ওয়েঙ্গারের এবার কিছুটা বোধদয় হবে টাকা পয়সা কিছু খরচ করবে। প্রতিবারের মত এবারো টার্গেট একই একজন রিলায়েবল গোলকিপার, একটা সেন্ট্রাল ডিফান্ডার(বয়স ৩৫ এর নীচে), একজন হোল্ডিং মিডফিল্ডার যে ভিয়েরার মত দলকে লিড করতে পারবে, আর মৌসুমে ২০-২৫ গোল করার মত একটা স্ট্রাইকার। কম করে ৭০-৮০ মিলিয়নের মামলা। তবে সব কিছুই ওয়েঙ্গারের উপরে, সে নিজেও হয়ত জানে, আগামী মৌসুমেও যদি সে কোন ট্রফি আনতে না পারে তাহলে তার “ভাল ফুটবল” আর সমর্থকদের সন্তুস্ট রাখতে পারবে না।

তবে এবার সবচেয়ে ভাল লেগেছে ফুলহ্যামকে, এমনিতে ইউরোপা লীগের খেলা বৃহঃবার হওয়ায় নিয়মিত দেখা হত। ম্যানেজার অফ দ্যা ইয়ার হাডসনেরই পাওয়া উচিত ছিল। আরেকজন ম্যানেজারকে আমার ভাল লেগেছে, আব্রাহাম গ্রান্ট। রেলিগেশন নিশ্চিত, ক্লাবের অস্তিত্তই যখন সংকটের মুখে সেরকম একটা দলের এরকম ফাইটিং স্পিরিট, অসাধারন। মিরাকল ঘটে গেলে পোর্সমাউথ এফএ কাপ ও জিতে জেতে পারে। হ্যারি রেডন্যাম্পকে ম্যানেজার অফ দ্যা ইয়ার না দিয়ে দেয়া উচিত ছিল ম্যানেজার অফ দ্যা ইয়ার এন্ড হাফ, টটেনহামকে রেলিগেশন প্লেস থেকে টেনে টপ ফোরে নিয়ে এসেছে। কে জানে আর্সেনাল যা দেখাচ্ছে তাতে ৩য় ও হয়ে যেতে পারে।

বিশ্বকাপে আমি বরাবরের মতই হল্যান্ডের সাপোর্টার, best team never to win a world cup. আশা করি এবার এর পরিবর্তন হবে। গোলকিপার হিসেবে ভ্যান ডার সার যথেষ্ট রিলায়েবল। ডিফেন্স হল্যান্ডের দূর্বল দিক হলেও ভ্যান ব্রঙ্কোস্ট, হেইটিংগা, খালিদ বেলারুজ(খালিদ দ্যা ক্যানিবল) একেবারে ফেলনা না নয়। মিডফিল্ডে রবেন, স্নাইডার, ভ্যান বমেল, রাফায়েল ভ্যান ডারভার্ট, নাইজেল ডে জং যেকোন মিডফিল্ডেকেই চ্যালেঞ্জ করতে পারবে। স্ট্রাইকার হিসেবে ভ্যান পারসি সদ্য ইঞ্জুরি থেকে ফিরলেও মোটামুটি ভাল টাচে আছে, বিশ্বকাপের আগে আরো ১ মাস সময় পাবে। ডার্ক কুয়েট লিভারপুলে ওয়াইড পজিসনে খেললেও হল্যান্ডের হয়ে সাধারনত সেন্টারে খেলে, ওর গাধার মত খাটার ক্ষমতা যথেষ্ঠ কাজে দেবে। মিলানের ক্লাস জন হান্টেলাও ভাল অপশন হতে পারে। বরাবরের মত এবারো হল্যান্ড নিয়ে আমি যথেষ্ঠ আশাবাদী।

1

ফ্যান্টাসী লীগে শেষ পর্যন্ত ৭ম স্থান নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হবে মনে হচ্ছে, এই উইকে আগানোর কোন সম্ভাবনা নাই, বড় ধরনের ভরাডুবি না হলে পিছিয়েও যাব না। মোটামোটি ৫ এর ভিততে থাকার টার্গেট নিয়ে খেলছিলাম, সে লক্ষ্যে আগাচ্ছিলামও, কিন্তু শেষ দিকে এসে আর ধরে রাখতে পারলাম না। ইঞ্জুরি, কয়েক সপ্তাহে টিম বদল করতে না পারা ইত্যাদি, ইত্যাদি বিভিন্ন কারন দেখানোর সুযোগ থাকলেও শেষ পর্যন্ত নিজের দূরদর্শিতার অভাবে পিছিয়ে গিয়েছি। আর একটা ট্রিক্স একদন শুরু থেকেই মিস করেছি সেটা হলো টিমের ভ্যালু বাড়ানো। আমি মনে নিয়মিতদের মধ্যে সবচেয়ে কম ভ্যালু নিয়ে মৌসুম শেষ করছি। ট্রামকার্ডও ভুল ভাবে ব্যবহার করেছি, মূলত তারপর থেকেই আমার অবনমন শুরু হয়েছে। আর ৯৬ ব্যাচের পোলাপাইন তো লীগের মাঝে হঠাৎ হঠাৎ ডুব দিছে, হাসান, মেহেদি, আমিন ভালই যাচ্ছিল কিন্তু ধরে রাখতে পারল না, আশা করি আগামী বার দেখা যাবে। আর বিশ্বকাপ নিয়ে ফান্টাসী লীগের আয়োজন করার জন্য এহসান ভাইয়ের কাছে দাবী জানায়া গেলাম।

৯৫৫ বার দেখা হয়েছে

২৪ টি মন্তব্য : “ফুটবল প্যাচাল (আহসান আকাশ ভার্সন)

  1. আহমেদ মাশফিক রায়হান সিউল (১৯৯৮-২০০৪)

    আর্সেনালে একটা ভাল কিপার আসুক এই আশাই করি, বেচারাদের অবস্থা মহা খারাপ :p

    রিভিউয়ের সাথে একমত। তবে বার্সাকে ইন্টারের বিরুদ্ধে অত ক্রেডিট দিতে রাজী নই। "গোল হয়ে গেলে" কথাটা সম্ভাবনা একটা, এর উপর বাজী ধরতে রাজী না। আর্সেনাল, লিভারপুল, হল্যান্ড এগুলির ব্যাপারে আমি পুরোপুরি একমত। তবে বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডকেও হিসেব করব কারণ ওদের কোচের নাম ক্যাপেলো

    আমি ম্যানইউ'য়ের সাপোর্টার...... আগ্রহ নিয়ে অপেক্ষায় আছি নেক্সট সিজনের আগে "MUST" কি করে সেটা দেখার জন্যে। ওরা যদি সফল হয় তাহলে সবগুলি ইংলিশ টিমের সাপোর্টাররাই নিজেদের ক্লাবকে নিজের করে নিবে ফলে তখন ক্লাব নিয়ে বিজনেস করতে যেয়ে ক্লাবের বারোটা বাজানো বন্ধ হবে।

    জবাব দিন
    • আহসান আকাশ (৯৬-০২)

      সাপোর্টারদের ক্লাব কিনে নেয়া এত সহজ হবে না, আর এমন না যে সব ক্লাবের মালিকানা নিয়েই সাপোর্টারদের ক্ষোভ আছে। মিড টেবিলের অনেক ক্লাবের সাপোর্টারাই চায় কোন বিলিওনিয়ার তাদের ক্লাবে টাকা ইনভেস্ট করুক, ম্যান সিটি, বার্মিংহামের সাফল্য এর কারনেই এসেছে। তবে ঠিক মত যাচাই না করা হলে পোর্সমাউথের ভাগ্যও বরন করা লাগতে পারে।


      আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
      আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

      জবাব দিন
  2. কামরুলতপু (৯৬-০২)

    আমিই মনে হয় ৯৬ ব্যাচের সবচেয়ে নিয়মিত টিম বদলাইছে এবং খেলার খবর রাখছি। যার কারণে অনেক ভুয়া ভাবে শুরু করার পরও শেষ পর্যন্ত ৩য় হয়ে গেলাম ফ্যান্টাসী লীগে। তোদের থেকে অনেক কম খেলোয়ার চিনি এবং খেলা দেখতেই পারি না মধ্যরাতে খেলা হওয়ার কারণে তাও দেখি ভালই ম্যানেজিং করলাম। প্রথম দিকে ৭ এর মধ্যে কিছুদিন ঘোরাঘুরি করে এরপর ১০ এর বাইরে চলে গিয়েছিলাম। শেষের দিকে সবাই অনিয়মিত হয়ে যাওয়াতে আস্তে আস্তে উঠে আসলাম। বলা যায় ফ্যান্টাসী লীগের জন্যই আমি ইপিএল ফলোয়ার হয়ে গেলাম।

    জবাব দিন
  3. রকিব (০১-০৭)

    পোষ্ট ভালো হইছে, কিন্তু পোষ্টের টাইটেলে ব্রাকেটে আহসান আকাশ না লিখে যদি কলকাতা ভার্সন লিখতেন তাহলে সবাই সহজেই বুঝতে পারতো 😛 😛
    :-B


    আমি তবু বলি:
    এখনো যে কটা দিন বেঁচে আছি সূর্যে সূর্যে চলি ..

    জবাব দিন
    • আহসান আকাশ (৯৬-০২)

      অনেক দিন কাউরে পাঙ্গাই না... রকিব্যা... ব্যানারের ধান ক্ষেতে যায়া ১০টা ফ্রন্টরোল লাগা, কুইক x-(


      আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
      আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

      জবাব দিন
      • রকিব (০১-০৭)

        দাদা, ধানক্ষেতের মধ্যে একটা জুনিয়র পোলা আপনার দিকে (আকাশের দিকে আর কী 😕 ) তাকাইয়া খাড়াইয়া আছে। ঐটা না সইরা গেলে তো ফ্রন্টরোলাইতে পারতেছি না। :(( :((


        আমি তবু বলি:
        এখনো যে কটা দিন বেঁচে আছি সূর্যে সূর্যে চলি ..

        জবাব দিন
  4. আহসান আকাশ (৯৬-০২)

    আরে ঐটারে তো টার্ন এবাউট করায়া লুক আপ করায়া রাখছি... ডাউটের জন্য আরো দুইটা বেশি লাগা...


    আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
    আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

    জবাব দিন
  5. মইনুল (১৯৯২-১৯৯৮)

    আজকের ম্যাচের রেজাল্ট যাই হোক না কেনো, শাবাশ ম্যান ইউ। তবে বেশ কয়েকটা ভালো পয়েন্ট না হারালে আরো ভালো লাগতো। আশা করি আগামি সিজনের জন্যে ভালো প্ল্যান আছে। যদিও চ্যাম্পিয়ন্স লীগে একেবারে ফালতু খেলসে চেলসী, তবে লীগে নিঃসন্দেহে সব চেয়ে ভালো টিম ছিলো এইবার। এক গাদা ইঞ্জুরী আর মোটামুটি লেভেলের প্লেয়ার নিয়েও আর্সেনাল জটিল খেলসে। আশা করি, আগামী সিজনে আরো ভালো শো দিতে পারবে। টটেনহাম বা ম্যান সিটি যেই ৪র্থ হোক না কেনো, আশা করি চ্যাপমিয়ন্স লীগে ভালো খেলা দেখাতে পারবে।

    সবচেয়ে হতাশ হয়েছি লিভারপুলের খেলাতে। মিড সিজনের পরে থেকে ওদের খেলা দেখে, কোনো প্ল্যান নিয়ে খেলতেসে বলে মনে হয়নাই। আর যে অবস্থা শুনতেসি, আগামী সিজনে ভালো করতে পারবে বলে মনে হচ্ছে না।

    ফ্যান্টাসী লীগে প্রথম টিমটা ফালতু বানায়ে ধরা খেয়ে গেসি। খুব তাড়াতাড়ি ওয়াইল্ড কার্ড খেলে ফেলতে হয়েছে। আশা করি ১০ এর মধ্যে শেষ করতে পারবো।

    ইন্টার মিলান - শীঁভোর খেলা দেখছি। সেই রকম জমেছে খেলা। ০-১। ১-১। ২-১। ৩-১। ৪-১। ৪-২। ৪-৩। মিলান আগায়ে আছে, তারপরেও গ্যালারীর সমর্থকেরা আঙ্গুল কামড়াচ্ছে। সেই রকম আক্রমন-প্রতি আক্রমনের খেলা হচ্ছে।

    জবাব দিন
    • আহসান আকাশ (৯৬-০২)

      ইটালিয়ান লীগ দেখার সুযোগ পাইনা, তবে খুব একটা ইন্টারেস্টেড ও না। নেটে লাইভ স্কোর দেখছিলাম, ৪-৩ এই শেষ হয়েছে দেখলাম।


      আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
      আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

      জবাব দিন
        • আহসান আকাশ (৯৬-০২)

          আমিও আজীবন নেদারল্যান্ডের সাপোর্টার, বাজীতে মনে হয় হেরে যাব, কারন খেলাধূলায় আমার ভাগ্য খুব কমই সহায় হয়। তবে প্রতিবার হিসাব নিকাশ করে টপ ফেভারিট দলকে সাপোর্ট করে জেতার থেকে কোন নির্দিস্ট টিমকে প্যাশোনেটলি সাপোর্ট ক্রা মনে বেশি স্যাটিস্ফাইং।
          ফ্যান্টাসী লীগ সম্পর্কে ডিটেইলস পাবা এহসান ভাইয়ের এই পোস্টে


          আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
          আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

          জবাব দিন
  6. মেহেদী হাসান (১৯৯৬-২০০২)

    অন্য যে কোনবারের তুলনায় এবার ফ্যান্টাসি লীগের কারনেই খেলা বেশি ফলো করেছি।
    ব্লগে সদস্য সংখ্যার দিক থেকে ৯৬ ব্যাব ৯৪ ব্যাচের চেয়ে অনেক পিছিয়ে থেকেও ভাল কম্পিটীশন করেছে, এটাই কম কিসের। শেষ সপ্তাহের আগে আমাদের ৩ জন ১০ এর মধ্যে আছে। বাকী অনেক সংখ্যাগরিষ্ঠ ব্যাচের তো খবরই নেই।

    জবাব দিন
  7. বার্সা-ইন্টার নিয়ে আপনার কমেন্টে একমত; আমার নিজের ব্লগেও আমি একই কথা বলসি ... ইন্টার খুবই ভালো ডিফেন্স করছে এটা মেনে নিয়েও বলবো যে এটা খুবই বিপজ্জনক স্ট্র্যাটেজি ছিল; এই একই স্ট্র্যাটেজি হয়তো বার্সার সাথে পরের ম্যাচেই কাজ করবে না ... বার্সাকে সত্যি সত্যি কোণঠাসা করার কৃতিত্ব পাওয়া উচিৎ গুস হিডিংকের, গত সেমিফাইনালে সব দিক দিয়েই চেলসি বার্সার চেয়ে অনেক ভালো খেলছিল; কিন্তু ইনিয়েস্তার এক মূহুর্তের ম্যাজিকে বার্সা পার হয়ে যায় আর গুস হিডিংকের স্ট্র্যাটেজির কথা সবাই ভুলে যায় ... মরিনহোকে কৃতিত্ব দিব ফার্স্ট লেগের জন্য, বার্সাকে এইভাবে কাউন্টার এটাকে তিন গোল দেয়া আসলেই বিশাল এচিভমেন্ট ...

    আর গার্ডিওলার প্ল্যান বি ছিল না এটাও বোধহয় ঠিক না; সেকেন্ড হাফে ইব্রাকে তুলে নিয়ে বোজান-মেসি-পেদ্রো-জেফ্রেনের ফাস্ট এবং ডায়নামিক [এবং পিচ্চি] ফ্রন্টলাইন বানিয়ে পিকেকে স্ট্রাইকার হিসেবে খেলানো অবশ্যই একটা ডেস্পারেট প্ল্যান বি ... বোজানের গোলটা হয়ে গেলে মরিনহোর বদলে গার্ডিওলার এই ট্যাক্টিস নিয়েই সবগুলি মিডিয়া মাতামাতি করতো, কোন সন্দেহ নাই ...

    আর্সেনাল মনে হয় গোলকীপার জো হার্টকে কিনতে চায়; স্ট্রাইকার মারুয়ান শামাখকে কেনাও মোটামুটি নিশ্চিত [শামাখ এই বছর ফ্রী এজেন্ট, কোন পয়সা খরচ করতে হবে না আর ওর বয়সও বেশি না, চব্বিশের আশেপাশেই হবে; ওয়েংগারের পছন্দ না হওয়ার কোন কারণ নাই] ... যদি ভ্যান পার্সি, আরশাভিন আর ফ্যাব্রেগাস সুস্থ থাকে তাহলে এই টিমটাই যথেষ্ট হতে পারে লীগ জেতার জন্য, বড়জোর একটা সেণ্ট্রাল ডিফেন্ডার লাগবে ... আর্সেনাল কাউকে কিনবে শোনার পর গুগল করে তার নাম বের করতে মজাই লাগে, গত সামারে হ্যাংগেল্যান্ডকে না কিনে ভার্মিউলেনকে কেনার পর ওয়েংগারকে বাঁশ দিয়ে লেখা আর্টিকেলগুলির কথা মনে পড়ে 😀

    ওয়ার্ল্ডকাপে হল্যান্ড ডাব্বা মারবে [যদিও ইউরোপে এই টিমটার খেলাই সবচেয়ে ভাল্লাগে] ... স্পেনকে নিয়ে খুব আশা করতেসিলাম কিন্তু টরেস-শাভি-ইনিয়েস্তা-ফ্যাব্রিগাস সব যেভাবে লাইন দিয়ে ইনজুরিতে পড়তেসে তাতে মনে হয়না শেষ পর্যন্ত কিছু হবে ... শেষমেষ বোধহয় ব্রাজিলই নিয়ে নিবে, যদিও ব্রাজিল সাপোর্ট করি বাচ্চাকাল থেকে কিন্তু এইরকম রোবটিক খেলা ভাল্লাগে না ...

    জবাব দিন
    • আহসান আকাশ (৯৬-০২)

      আসলে ইন্টারের ১ম লেগের খেলা দেখেই ২য় লেগে ওদেরকে সাপোর্ট দিয়েছি।

      এবার দেখি ওয়েঙ্গার কোন চুপা রুস্তম খুঁজে বের করে। বিশ্বকাপে যেকোন ইউরোপিয়ান দলের সাফল্য চাইব( ইটালি বাদে)। ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার বিরুদ্ধে মন ছোট বেলা থেকেই বিষিয়ে গিয়েছে এদেশে ওদের অন্ধ সমর্থকদের লাফালাফি দেখে। হল্যান্ডকে নিয়ে আশা করা সবসময়ই বিপদজনক, তবুও স্বপ্ন দেখছি 😀


      আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
      আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

      জবাব দিন
  8. তানভীর (৯৪-০০)

    আমার মনে হয় না আর্সেন ওয়েংগার খুব বেশি খরচ করবে এবারও! শামাখ তো নিশ্চিতভাবেই চলে আসছে, বাকি একটা গোলকিপার, একটা সেন্টার ব্যাক- এই দুইটা পজিশনে একটু ভালো খেলোয়াড় কিনবে। আর যদি কিনে তাহলে ব্যাকআপ কিনবে, বিশেষ করে সেন্টার ব্যাক (সেন্ডেরস, গালাস, সিলভেস্টর চলে যাবে মোটামুটি নিশ্চিত)।

    আর্সেনাল চ্যাম্পিয়ন হতে পারেনি- এজন্য আমি কোন সাফাই গাইব না, কিন্তু আমার মনে হয় ভ্যান পার্সির এত লম্বা সময়ের ইঞ্জুরী এক্ষেত্রে বিশাল ভূমিকা রেখেছে। রুনী যদি চার মাসের মত মাঠের বাইরে থাকত তাহলে ম্যানইউ এত বেশি পয়েন্ট পেত কিনা যথেষ্ট সন্দেহ আছে। আর্সেনালের ডিফেন্স দুর্বল তাতে সন্দেহ নাই, কিন্তু ভ্যান পার্সি গোল করে সেটাকে টপকে যেতে পারত। ইনশাল্লাহ আগামী মৌসুমে আরও ভালো করবে ওরা।

    চেলসি এই মৌসুমে অনেক আক্রমণাত্বক খেলেছে। তিনবার ওরা ম্যাচে ৭ গোলের বেশি করেছে। তবে ওদের খেলোয়াড়দের বয়স দেখে কিছুটা শংকিত হতে হয়- সবারই ত্রিশের আশেপাশে। দুই-তিন সিজনের মধ্যে আরও কিছু ভালো তরুণ খেলোয়াড় কিনে অবশ্য ঘাটতি পূরণ করে ফেলতে পারবে। শোনা যাচ্ছে, আর্জেন্টাইন সার্জিও আগুওয়েরো এই সামারে চেলসিতে আসছে- তাহলে ওদের আক্রমণভাগ দুর্দান্ত হয়ে যাবে।

    এখন শুধু বিশ্বকাপ ফু্টবলের অপেক্ষা। :dreamy:

    জবাব দিন
    • আহসান আকাশ (৯৬-০২)

      এবার অন্যান্য বারের থেকে আর্সেনালের খরচ বেশি করার সম্ভাবনা তুলনামূলক ভাবে বেশি। ওয়েঙ্গার কিছুদিন আগে স্বীকার করেছে নতুন স্টেডিয়ামে তৈরীর খরচ পোষাতে গত কয়েক মৌসুম ধরে ওরা খুব কম খরচ করেছে, সেটা মোটামোটি কভার হয়ে গিয়েছে। সেই সাথে পুরোনো স্টেডিয়াম হাইবুরিতে ওরা প্রপার্টি ডেভেলপমেন্ট করেছিল, অর্থনৈতিক মন্দার কারনে ওটা থেকে তেমন রিটার্ন পাচ্ছিল না, যেটা বর্তমানে অনেকটাই চাঙ্গা হয়েছে। আরো আছে গত মৌসুমে কলো ট্যুরে আর আদাবয়েরকে বিক্রীর টাকাও ওরা এখনো ব্যহার করেনি। তাই এবার একটু বেশি আশাবাদি 🙂


      আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
      আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

      জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।