তবুও মন ছুটে যায়

তবুও মন ছুটে যায়
————— ড. রমিত আজাদ

আমি জানি, তুমি আর আমার নও,
সেই কবেই হয়েছে বিচ্ছেদ।
তোমাকে বিরক্ত করা মোটেই ঠিক নয়,
এ যে একেবারেই বেহায়াপনা!

নোনাজলে আর্দ্র দগ্ধ হৃদয়,
অবিশ্রান্ত শ্রাবনের উত্তুঙ্গ উৎকন্ঠা
অজস্র ডেনডিলিয়নের বর্ণচ্ছটায় রঙিন হলুদ সবুজ মাঠ,
সতেজ ঘাসের ফাকে ফাকে রৌদ্রের খেলা।

নিঃসঙ্গ বৃত্তে বন্দি স্পৃহা,
নাগকেশরের অমলিন দিনে
প্রাচীন দর্শনের শূণ্যতার খেলা,
নিরর্থক প্রজাপতির চাঞ্চল্য।

তোমাকে আর বিরক্ত করবো না,
আমি মাঝে মাঝেই ভুলে যাই যে,
তুমি আর আমার নও,
ভালোবাসলেই অধিকার পাওয়া যায়না।

জানো আমার ব্যাধি রত্নবৎ উপল হয়েছে,
যেমন নিরীহ ঝিনুকের অন্ত:শীল আঘাত
দিনে দিনে বেড়ে ওঠে নিটোল মুক্তো হয়ে।

জোৎস্নার আলোয় পোড়েনা বিটপী, পোড়েনা পৃথিবী,
নিশ্চিন্ত নিদ্রার জন্যে আহাজারি করে নির্ঘুম রাত্রি,
রঙিন রক্তে ফুঁসে ওঠে বৈশাখী ঝড়।

আমি আর হেটে হেটে নিরুদ্দিষ্ট হতে চাইনা অর্থহীন জীবনে,
ইন্টারনেটের পাতায় পাতায় খুঁজে খুঁজে
অবশেষে পেয়েছি তোমার ঠিকানা
একটা ক্লিক করলেই ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট ধেয়ে যাবে,
পাঠাবো কি?
আরেকবার কি লেখার অপচেষ্টা করবো,
সেই চাঁদ, নদী, জল আর অরণ্যের গল্প?
থাক,
আমি জানি, তুমি আর আমার নও,
সেই কবেই হয়েছে বিচ্ছেদ।
তোমাকে বিরক্ত করা মোটেই ঠিক নয়,
মোটেই ঠিক নয়, মোটেই ঠিক নয়।
তবুও মন ছুটে যায়,
ক্লিক করার জন্য তর্জনীটা নিশপিশ করে ওঠে।

৩৯৫ বার দেখা হয়েছে

৩ টি মন্তব্য : “তবুও মন ছুটে যায়”

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।