অসমাপ্ত চিঠি…!!!

মাঝে মাঝে মনে হয় ভালবাসার মত জিনিসগুলো অপরাধের পর্যায়ে পড়ে যার শাস্তি অপরাধীকে ব্রাশ ফায়ার করে মেরে ফেলা । ব্রাশ ফায়ার করার কেউ ছিলনা তো ভেতরেই কাজ যা হওয়ার শেষ !

কি অদ্ভুতই না ছিল আবেগ গুলো। জানো তো আবেগপ্রবণ মানুষ গুলোকে নিয়েই বিপদ। পাওয়ার তালিকাটা হিসাবেই আনেনা  কখনো । ভাল থাকে দেয়ালের উপর একসাথে বসে থাকায়,শেয়ার করা ফুচকায় ,আড্ডায় ,কবিতায় , ডিফারেন্সিয়েশন  এর ম্যাথ বুঝানোর আড়ালে বাসায় গিয়ে বসে থাকায়,কাঁটাবন এ মাছ না খরগোশ কে কোনটা নিবে সেই  ঝগড়ায়,কিংবা ওই যে মনে পড়ে কি শাহবাগ মোড়ের ফুলের দোকান গুলোর কথা…সেদিন গিয়েছিলাম জানো? গতকাল ।ওই মামা টা বলতেসেঃ”মনের মানুষ কই মামা? একলা ক্যান?”

হাসি দিলাম। 😀 কে জানে হাসি সুন্দর না বলেই হয়তো মামার মনটাও খারাপ হয়ে গেল। নাইলে তো মামা বোঝার কথা না যে আমি মৃত ঠিক নিজের ছায়ার মত। 🙂

আমি কিন্তু আবেগ আটকে রাখতে পারিনা। ফেভিকল ভয়ঙ্করভাবে কম আমার মধ্যে কিনা  তাই। 😀 এইজন্যেই হয়ত তোমাকেও আটকে রাখতে পারিনি । অবশ্য যে যেতে চায় তাকে আটকানোর কোনো উপায় ও নাই। সবকিছু খুব তাড়াতাড়ি শেষ হয়ে গেল ,তাইনা ? কে জানে ? আপেক্ষিকতার সূত্র অনুযায়ী তোমার জন্য হয়ত এটা লং জার্নি ছিল ।

আমি কিন্তু বেশ আছি। ইদানীং বেশ সুখী লাগে নিজেকে। “শূন্যস্থান পূরণ কর” খেলা খেলি। বেশ কাঁচা যদিও এই খেলায়। তবে সময় কেটে যায় বেশ। মাঝে মাঝে খালি পায়ে হাটি সংসদ ভবনে,গুলশান-বনানীর ব্যস্ত রাস্তায় সোডিয়াম লাইট এর অভিজাত আলোয়,বেশ লাগে।  শূন্যতা টুকু সাময়িক পূর্ণতা পায়।  আফসোস নেই, হয়তো কোন এক দুমুখো পথের শেষ প্রান্তে দেখা হবে তোমার সুখের আর আমার হেড ফোন কানে দিয়ে খালি পায়ে হাটার কোন এক বিশেষ মুহূর্তে…!!!!

প্রতিবারের কল্পনার মত আমি বলব-“কিরে পাগলী ভালো আছিস? সংসার-বাচ্চা কাচ্চা ভালো তো না?” 😀

৬৩৬ বার দেখা হয়েছে

৫ টি মন্তব্য : “অসমাপ্ত চিঠি…!!!”

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।