ব্যক্তিগত রেসিপি – ১২

হেডফোন কানে লাগাতেই রাহাত ফতেহ আলী। আ!
উড়নে লাগা কিঁউ
মন বাওলা রে
আয়া কাঁহা সে
ইয়ে হোসলা রে
ও রে পিয়াআআ
হায়য়য়, ও রে পিয়াআআ

পৃ-কে মেসেঞ্জারে লিঙ্কটা পাঠিয়ে দিয়ে চোখ বুঁজে বৃষ্টি শুনি। জানলার বন্ধ কাঁচে কী আক্রোশে ঝাঁপিয়ে পড়ছে আর কেঁদে কেঁদে ভেসে যাচ্ছে সেই ভোররাত থেকে। নির্ঘুম একটা রাত পার করে দিলাম পৃ-র সঙ্গে ঝগড়া করে করে। মেসেঞ্জারে মেসেঞ্জারে কখন বেলা চলে গেল কে রাখে তার খবর।
শেষে সন্ধিপ্রস্তাব খুঁজে ফিরি ইউটিউবে — খুঁজতে খুঁজতে ‘ও রে পিয়া’ পেয়ে যাই।
বেশ নাটুকে স্টাইলে ‘ও রে পৃ আ’ লিখে পাঠিয়ে খরখরে চোখে সেলফোনের স্ক্রিনে ঠায় দাঁড়িয়ে থাকি কাকতাড়ুয়ার মত

পাখি তাকে ঠুকরে খাবে বলে,
দাঁড়িয়ে আছে ঠায়।
ভুলেও আসে না কেউ
হাঁড়িমুখে কাকতাড়ুয়ার
বেলা চলে যায়

৩০ মিনিট নামের একযুগ পর ওপার থেকে আসা একটা স্মাইলি স্ক্রিনে জ্বলজ্বল করে উঠতে আমার লেগে আসা দু’চোখের পাতা ফের চঞ্চল হয়ে ওঠে। বৃষ্টির শব্দে তখন ঢাকায় ভোর নামছে। আরেকটি ছপছপে জবজবে দিন পার করার জন্যে নগরীর প্রস্তুতি টের পাই। জানলায় গিয়ে কাঁচের ভাপে আঙ্গুল বুলিয়ে লিখি – ও রে পৃ আ। শুনতে পেয়েছে যেন সে ডাক! মেসেঞ্জারে অবশ্যম্ভাবী টুং বেজে উঠলো – কি? এই ‘কি’ যে যুদ্ধবিরতির সাদাপতাকা আমার চে’ কে আর এমন জানে। লুফে নি সন্ধিপ্রস্তাব অতএব।

‘আসবি সোনা? আয় না!’ পাঠিয়ে জবাবের অপেক্ষা পর্যন্ত করিনা।

ঘরদোর গোছাতে শুরু করি। খিচুড়ি আর বেগুনভাজার প্রস্তুতি নিতে গিয়ে কিচেনের কোণায় Malbec-এর অভিমানী বোতলটাকে চোখে পড়ে। তক্ষুনি মনে হয় Sangria বানাবার কথা। আমাদের বর্ষাউদযাপন বেশ জমে যায় তাহলে!

উপকরণ

রেড ওয়াইন – আজকে যেমন Argentine Malbec – পুরো বোতল
গ্রেপফ্রুট (অথবা জাম্বুরা) রস – এক বা দেড় কাপ
লেবুরস – ১/৪ কাপ
লেবু স্লাইস – ২টা লেবু
কালো বা লাল আঙুর – যেমন মন চায়, আমার জন্যে ১০০ গ্রাম মতন
চিনি – ১/৮ কাপ
ভদকা – ১/৪ কাপ মিলি (ইচ্ছে হলে)
Angostura bitter – ১৫/২০ ফোঁটা
আইসকিউব

ওয়াইন, ভদকা, ফলের রস আর চিনি জারে নিয়ে ভালো করে নেড়ে নি। তারপর লেবুরস আর Angostura bitter যোগ করলাম; লেবু স্লাইস আর আঙুর দিয়ে এবারে জারটাকে ফ্রিজে চালান, ৪/৫ ঘণ্টা কমপক্ষে রাখতে পারলে ভালো। (ঢাকার আজকের বৃষ্টিকাদা ঠেলে পৌঁছুতে পৃ-র অমন সময়ই লাগাড় কথা।)পানের সময় আইসকিউব যোগে পরিবেশন।

সাতলক্ষ বার রাহাত ফতেহ শুনতে শুনতে নতুন কিছু শুনতে ইচ্ছে হয়। পৃ এলে Sangria খেতে খেতে কী শোনা যেতে পারে তাই ভাবি আর ইউটিউব হাতড়ে পেয়েও যাই। ফ্রিজে চালান করে দেবার আগে Sangria টাকে একচোট চেখে নিয়ে Blake Shelton এর মতই গুনগুন করে উঠতে ইচ্ছে করে –

You take my hand in yours, you lean in
And your lips taste like sang-ri-a,
Your lips taste like sang-ri-a

৩,২১৭ বার দেখা হয়েছে

৩২ টি মন্তব্য : “ব্যক্তিগত রেসিপি – ১২”

  1. সাইদুল (৭৬-৮২)

    ৩০ মিনিট নামের একযুগ পর ওপার থেকে আসা একটা স্মাইলি স্ক্রিনে জ্বলজ্বল করে উঠতে আমার লেগে আসা দু’চোখের পাতা ফের চঞ্চল হয়ে ওঠে।


    যে কথা কখনও বাজেনা হৃদয়ে গান হয়ে কোন, সে কথা ব্যর্থ , ম্লান

    জবাব দিন
  2. লুৎফুল (৭৮-৮৪)

    অনবদ্য। বরাবরের মতোন বৃষ্টি, মুঠফোনে সেই জলপতনের শব্দ ভাগাভাগি, মান অভিমানের আকাশ ভরা মেঘ আর জলের কাব্য, সেই সাথে ফতে আলী খা'র প্রিয়া, বিএস এর স্যাংগ্রিয়া, সেই সাথে মেঘের ডানায় ভর করে যোগ হলো আরো যে কতো কি !
    রেসিপিটা রমজানের দাক্ষিণ্যে আজকের মতো বাচলো।
    তবে না বাচলেও হাতের যশ পেতো না।

    জবাব দিন
  3. জুনায়েদ কবীর (৯৫-০১)

    রোজা তো হাল্কা করে দিলেন...নূপুরদা!! 😛
    আপনার রেসিপি পড়েই যেন স্বাদ পাই...জিভেও চেখে দেখা লাগে না! 😀


    ঐ দেখা যায় তালগাছ, তালগাছটি কিন্তু আমার...হুঁ

    জবাব দিন
  4. মোস্তফা (১৯৮০-১৯৮৬)

    লেখাটা, লেখার নাটকীয়তাটুকু, খুব মন কাড়লো। বিশেষ করে এই জায়গাটুকু,

    ৩০ মিনিট নামের একযুগ পর ওপার থেকে আসা একটা স্মাইলি স্ক্রিনে জ্বলজ্বল করে উঠতে আমার লেগে আসা দু’চোখের পাতা ফের চঞ্চল হয়ে ওঠে। বৃষ্টির শব্দে তখন ঢাকায় ভোর নামছে।

    সবচে তাজ্জব কি জানো, উইকি ঘেঁটে 'Malbec', 'Sangria' ওসব শিখে, তোমার দেয়া রেসিপি অনুযায়ী 'রক্তিম গেলাসে তরমুজ মদ' বানানো শিখে যেই না Blake Shelton-এ চাপ দিয়েছি অমনি বিভোর কল্পনার জানালা গলে আমার হাতে এসে হাত রাখলো 'নগ্ন নির্জন হাত'। বুঝলাম, 'অনেক কমলা রঙের রোদ ছিল' একদিন; আজ নেই!


    দেখেছি সবুজ পাতা অঘ্রানের অন্ধকারে হতেছে হলুদ

    জবাব দিন
  5. সাবিনা চৌধুরী (৮৩-৮৮)

    🙂 🙂 🙂 🙂

    ও নূপুর, তোমার পৃ কি রুহ আফজা পান করেন না? লেবুর সরবত, অথবা লাচ্ছি? আমি ভাবছিলাম স্যাংরিয়ার সাথে বেগুনি কতটাই বা যায়!
    ইফতারের পর তোমায় থ্রি চিয়াসর্ বলা যাবে। আপাতত পৃর উৎসব জারি থাকুক সিসিবিতে!

    জবাব দিন
  6. আহসান আকাশ (৯৬-০২)

    অনেকদিন পর রেসিপি নিয়ে আসলেন নূপুরদা।

    আপনার রেসিপি পড়েই যেন স্বাদ পাই...জিভেও চেখে দেখা লাগে না!

    😀


    আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
    আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

    জবাব দিন
  7. অরূপ (৮১-৮৭)

    "আমার ইচ্ছা করে তোদের মত মনে কথা কই"
    মুগ্ধ মুগ্ধ মুগ্ধ .................. খুজে দেখি কোথাও Argentine Malbec একটা গোটা বোতল পাওয়া যায় কিনা।
    সারাদিন বৃষ্টির সাথে ভালই যাবে মনে হচ্ছে আজ কেউ না এলেও ...
    :boss: :boss: :boss:


    নিজে কানা পথ চেনে না
    পরকে ডাকে বার বার

    জবাব দিন
  8. খায়রুল আহসান (৬৭-৭৩)

    "জানলার বন্ধ কাঁচে কী আক্রোশে ঝাঁপিয়ে পড়া" বৃষ্টির - আর
    "একটা স্মাইলি স্ক্রিনে জ্বলজ্বল করে উঠা"র বর্ণনা দুটো খুব ভালো হয়েছে।
    আর রেসিপির কথা নাই বা বললাম।

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।