সাতাশ বছর আগে – সাত

এখন যদি বৃষ্টি নামে, নামুক, আমি ভিজবো, নীলা।

সমস্ত শরীর ভিজবো, ভিজে চুপসে যাবো
ঠিক যখনই বৃষ্টি থামবে, তোমায় ডাকবো;
আমায় একটু শুকিয়ে দিয়ে যাবে, নীলা?

তোমার বুকের উত্তাপে আমায় শুকাতে দাও
নীলা, আমাকে শুকানোর জন্য ভেজাতে
সুখের কোন বৃষ্টি এ নয়, তুমিতো তা জানোই।

নীলা, তুমি নেই সে কথা বারে বারে মনে করানোর কি প্রয়োজন?

রাত যত বাড়ে, বৃষ্টি শুধু বেড়েই চলে
একবার তো থামবে নাকি? একবার, মাঝরাতে?
তোমায় ঘুম থেকে তুলবে; আমার কাছে
তোমায় নিয়ে আসবে, চুপিচুপি বলবে,
তোমার নীলা তোমার কাছেই আছে,
কি, শুকোবে না? আমিতো এজন্যই এলাম।

নীলা, আমি আর কত ভিজবো একাএকা?
এমন ভিজে আমি সাগর হতে চাইনা,
তুমি মেঘ কেন হও নাগালের বাইরের?
যদি মেঘ হয়ে সারা দিনরাত বৃষ্টি আনতে চাও
আমাকে সাগর বানিও না।
আমি সামনে চলতে চাই, শুকোতো চাই।

এরকম একা একা কাঁদতে ভালো লাগে না, নীলা।

১,৮১৩ বার দেখা হয়েছে

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।