সাতাশ বছর আগে- এক

কদিন আগে একটা কবিতা লিখবার চেষ্টা করেছিলাম। ফেসবুক ওয়ালে পোষ্ট করা আছে। কি হয়েছে আল্লাহ মালুম, তবে রফিক আজাদের একটা কথা মনে আছে, জীবনে যার নারী নাই সে কবিতা লিখবে কিভাবে?

যাইহোক, তখন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র, মাঝে মাঝে দুই এক লাইন লিখতাম, এরপর এক সময় বসে কম্পাইল করে একটা কবিতা দাঁড় করাতাম। নিশ্চিন্তে বলতে পারি এইগুলা কবিতা না। কারন কবিতা একটা সময়ে বা বিভিন্ন সময়ে একটা নির্দিষ্ট ভাব নিয়ে লিখতে হয়। টুকরো কাগজ যোগার দিয়ে একমাত্র কবি নজরুলই বিদ্রোহী লিখেছেন।

বাসায় পুরোন কাগজ ঘাটতে গিয়ে ফ্যামিলি প্লানিং এর ১৯৯০ সালের একটা ডাইরী পেলাম। কয়েকটা কবিতা কেন যেন কম্পাইল করে এখানে লিখেছিলাম। ২৭ বছরের পুরোন কবিতা পড়তে গিয়ে খুব অবাক লাগছিলো। হাতের লেখা আমার, কথা আমার, একটা বিশেষ ধরন ব্যবহার করতাম, প্যারার পর এক লাইন। নিজে মনে না করতে পারলেও আমি নিশ্চিত এগুলো আমার সেই সময়ের কম্পাইল করা। এইগুলোকে কম্পাইলই বলবো, কবিতা বলবোনা।

সাকুল্যে আটটা পেলাম। একটা পোষ্ট করলাম। কেন লিখেছিলাম মনে নাই, তবে আমার অন্যতম প্রিয় শিক্ষক মরহুম রফিক নওশাদ স্যারকে উৎসর্গ করলাম, যিনি ধমক দিতেন কবিতা না লিখলে। ও হ্যা, আমার কবিতার কোন টাইটেল ছিলোনা। স্যার মাঝে মাঝে নিজেই দিয়ে দিতেন। আমার দৌড় নম্বর পর্যন্ত, তাই কবিতার নাম দিলাম এক।

সাতাশ বছর আগে- এক

জানালায় তোমার মুখ দেখে চমকে উঠি, নীলা।।

এখনতো বাইরে বৃষ্টি নাই
ভেতরে আমি একাই ভিজছি;
যা কিছু লিখতে চাই হাত সাত দেয়না।
কাগজ ভিড়ের ভিড়ের লেখার অযোগ্য হয়ে যায়,
নীলা, এমন কেন হয়?

জানালায় তোমার মুখ কেঁপে কেঁপে ওঠে, নীলা।।

একগাদা কথা বুকের মাঝে জমে আছে
বলবো বলবো করেও বলা হয়ে ওঠেনি।
যখন বৃষ্টি আসে তখনই তোমায় পাই
বৃষ্টির সাথে সাথে তুমি হারিয়ে যাও।
নীলা, আমি বৃষ্টি চাই।

জানালায় তোমার মুখ হারিয়ে গেছে, নীলা।।

৪,০৩৬ বার দেখা হয়েছে

১২ টি মন্তব্য : “সাতাশ বছর আগে- এক”

  1. পারভেজ (৭৮-৮৪)

    যাক, আসছিস তাইলে।
    ভাল।
    এখানে মানুষের আনাগোনা কম। তাতে সমস্যা নাই কারন এখানকার পোস্টের একটা আর্কাইভ ভ্যালু আছে।
    কে পড়লো আদৌ কমেন্ট করলো কিনা, এত কিছু ভাবার দরকার নাই।
    জাস্ট কীপ অন রাইটিং...
    লিখে যা, কেউ না কেউ চুপিচুপি পড়ে যাবে 😀 😀 😀
    আর হ্যাঁ, ওয়েলকাম টু সিসিবি।
    এখন থেকে তুইও আমার মত একজন সিসিবিয়ান!!!
    🙂 🙂 🙂


    Do not argue with an idiot they drag you down to their level and beat you with experience.

    জবাব দিন
    • Murshed JCC-85

      অনেক ধন্যবাদ বোন। কবিতার বাইরে কিছু লিখার ইচ্ছা আছে। কিন্তু এ্যাপেল এয়ার দিয়ে অভ্র ম্যানেজ করতে পারছিনা। আপাতত মোবাইলে সময় নিয়ে লিখতে হয়। বড় কষ্টের কাজ।

      জবাব দিন
      • সাবিনা চৌধুরী (৮৩-৮৮)

        🙂 🙂 🙂 🙂 🙂 🙂 🙂

        সেল ফোনে আমি বাংলা নোটে লিখি। আপনি বাংলা নোটে পরীক্ষামূলক ভাবে লিখে দেখতে পারেন; ভাল লাগলেও লাগতে পারে।

        আপনার 'কবিতার বাইরে' কিছু একটা পড়বার জন্য অপেক্ষায় রইলাম, ভাইয়া। আশাকরি আমাদের নিরাশ করবেন না। ভাল থাকবেন।

        জবাব দিন
        • Murshed JCC-85

          বাংলা নোটে আগেও চেস্টা করেছি। যুক্তাক্ষরে ঝামেলা হয়। এখন পর্যন্ত যেটা সবচেয়ে সহজ লাগে তা হলো আইফোনে বাংলা টাইপ করা।
          বড় কিছু লিখতে চাই, কিন্তু ট্র্যাক (ট্রাক না) ঠিকমত ধরে রাখতে পারিনা। লিখতে গেলে প্রথমে প্লট দাড়ঁ করাতে হয়, শুরু যেন ঠিক থাকে, কোন তথ্য যেন ভুল না হয়, আর পুরো ফ্লো যেন ঠিক থাকে, শেষটা কি হবে, এক কথায় অনেক কষ্ট। সহজ রাস্তা হলো ফেসবুকে কিছু ছোট কমেন্ট লিখি। তাও আবার আজকাল এতো লোক ঝগড়া করে, ফ্রেন্ডলিস্ট ৩০০ এর নীচে রাখি।কারন লাইকের জন্য ফেসবুকে লিখি না, একটা দুটা লাইক পড়লে সেটা বিশাল বোনাস।

          জবাব দিন
  2. লুৎফুল (৭৮-৮৪)

    জলে ভেজা জানালায়
    স্বপ্নের মুখখানি
    অনায়াস দেখা যায়,
    চোখজোড়া ভুল করে
    সেইপথে পড়তে
    বুকখানি তড়পায়
    তড়পায়
    তড়পায়
    ~ তোমার লেখা ভাললাগার দ্যোতনায় কয়েক ছত্র।

    জবাব দিন
    • Murshed JCC-85

      চমৎকার লিখেছেন ভাইয়া। বোধটা একদম এক, শুধু কথাগুলো অন্যভাবে সাজানো। অনেক ধন্যবাদ এতো পুরনো লেখার থিমটাতে বুলসআই ডার্টথ্ রো করার জন্য। জীবনে কিছু অভিজ্ঞতা আছে নিজে তার মাঝ দিয়ে না গেলে শব্দে আনা যায় না।

      জবাব দিন
  3. খায়রুল আহসান (৬৭-৭৩)

    সিসিবিতে স্বাগতম!
    কবিতা ভাল লেগেছে।
    যখন বৃষ্টি আসে তখনই তোমায় পাই
    বৃষ্টির সাথে সাথে তুমি হারিয়ে যাও।
    নীলা, আমি বৃষ্টি চাই
    -- চমৎকার হয়েছে।
    সময় করে এসে একবার পাঠকদের মন্তব্যগুলো অন্ততঃ একনলেজ করে যেও, যথাযথ জবাব দেয়া সম্ভব না হলেও। এতে লেখক-পাঠকের ইন্টার এ্যাকশন ভাল হয়।

    জবাব দিন
    • Murshed JCC-85

      ভাইয়া দেরী হয়ে গেছে বলে ক্ষমা চাইছি। একবারে কয়েকটা পোস্ট দিয়েছিলাম, মনে করেছিলাম কোন পোস্ট এপ্রুভ হলে মেল আসবে। মেল না পেয়ে ধরে নিয়েছিলাম, মডারেটর এতো পুরনো মাল গ্রহন করে নাই।
      আমি সহমত, ইন্টারঅ্যাকশন খুবই সাহায্য করে। নিয়মিত অন্য কিছু লিখবার চেস্টা করবো, এখনো পড়ার অভ্যাস আছে। বেশ কয়েক টা পোস্ট এক বসাতেই পড়েও নেব। অনেক ধন্যবাদ।

      জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।