তোমার হাতটা ধরতে দেবে তো?

আজ ভোরের সূর্যটা দেখেছিলে নিশ্চয়ই?

শীতবুড়ির কুয়াশার চাদরের আড়াল থেকে বেড়িয়ে কেমন রঙ্গিন হয়ে উঠেছিলো!

কিন্তু সেই রাঙা রোদ নয়, তোমার রাতজাগা চোখের তারায় ঝিকমিকিয়ে উঠা

দেশপ্রেম আর চেতনা আমার ঘুম ভাঙিয়েছে আজ!

ভোরের প্রথম আলোকরশ্মি মেখে মিটমিটিয়ে হাসছিল জড়াজড়ি করে দাঁড়ানো

রংধনু রঙ ডালিয়া, গাঁদা, চন্দ্রমল্লিকারা-

কিন্তু তোমাদের তুলির আঁচড়ে জ্বলজ্বল করতে থাকা প্রাণের বর্ণমালা যখন

ব্যানার, পোস্টার, ফেস্টুন হয়ে মাথা উঁচু করে দাঁড়ায়,

তখন সেই আশ্চর্য সুন্দরের সামনে ফুলেরাও ফিকে হয়ে আসে!

পাতার আড়ালে লুকিয়ে বসে বসন্তের আগমনী বার্তা ঘোষণা করছিলো মুখচোরা কোকিল-

কিন্তু তোমাদের সহস্র কণ্ঠে গর্জে উঠা দুর্বিনীত তারুণ্যের ঝংকারে

মুগ্ধ হয়ে চুপ করে যেতে হয় তাকেও!

বসন্ত এই আসলো বলে, প্রতিবছর হয়তো বাসন্তী রঙে সেজে তাকে বরণ করে নাও তুমি,

সুসজ্জিতা তরুণ-তরুণীদের চপলতায় আরও বর্ণিল, আরও স্বপ্নিল হয়ে  উঠে ফাল্গুন-

কিন্তু রক্তপিপাসু, নরপশুর বিচারের দাবীতে যখন তোমার বজ্রমুষ্ঠি বারবার আকাশ ছুঁয়ে দেয়, স্লোগানমুখর এই তোমার চোখের কোলে যখন বিনিদ্র রাত কাজল মাখে,

সেই কাজলে, অবিন্যস্ত চুল আর ক্লান্ত পোশাকে কী যে অপূর্ব দেখায় তোমাকে!

এর চেয়ে সুন্দর সাজে বসন্ত বরণ কি করেছ কখনো?

আমের কচি মুকুলের মাতাল করা ঘ্রাণে নয়,

বাসন্তী শাড়ী পড়া তরুণীর খোঁপায় গুঁজে রাখা ফুলের সুবাসে নয়,

শহীদরক্তে সিক্ত বাংলাদেশ আজ সুবাসিত তোমার জাগরণী চেতনার সৌরভে, গৌরবে।

এই ফাল্গুনে সব হিংস্র সাপের দূষিত বিষাক্ত নিঃশ্বাস থেকে বাংলাকে মুক্ত করব,

আমি, তুমি, আমরা মিলে।

তোমার হাতটা ধরতে দেবে তো?

৭২৩ বার দেখা হয়েছে

৩ টি মন্তব্য : “তোমার হাতটা ধরতে দেবে তো?”

  1. শাহরিয়ার (২০০৪-২০১০)

    ফেসবুকে কি আগে লিখেছিলে?btw লাইনগুলোর মাঝের স্পেস একলাইন করে কমিয়ে দাও...মনোযোগে টান পড়ে


    People sleep peaceably in their beds at night only because rough men stand ready to do violence on their behalf.

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।