সুন্দরবন নিয়ে উন্মাদনার কিছুটা কি আমরা পর্যটনশিল্প বিকাশে কাজে লাগাতে পারি না?

সুন্দরবন নিয়ে অনেক উন্মাদনা অনেক কিছু হল। এর থেকে সত্যিকার অর্থে কে লাভবান হল তা প্রশ্নই থেকে গেল। একটি বিতর্কিত সংগঠনের আয়োজন করা এই প্রতিযোগিতায় আমরা বেশিরভাগ মানুষই কিছু না বুঝেই অংশগ্রহন করলাম। আমাদের এমনভাবে বুঝানো হল যে ভোট দিলেই হয়ে যাবে কিন্তু আরো অন্যান্য বিষয়ও যে বিবেচনায় এসেছে এই বাপারটা আমাদের প্রচার মাধ্যম বা ফোন কোম্পানী কেউই বলে নি। তাতে যে তাদের লস।
যাই হোক এই উন্মাদনার মাঝে আব্দুর নূর তুষার একটি পোস্ট এ বলেছিলেন সুন্দরবনে অধিক মানুষের আনাগোনা এই বনের আসল সৌন্দর্য নষ্ট করতে পারে। আমিও তার সাথে একমত। আমরা অনেকেই জানি না আমাদের এই বাংলাদেশেই সুন্দরবন ছাড়া আরো অনেক জায়গা আছে যে সব জায়গাকে একটু চেষ্টা করলেই অনেক আকর্ষনীয় বিনোদন স্থান হিসেবে গড়ে তোলা সম্ভব। আমদের বুঝতে হবে শুধু প্রাকিতিক সৌন্দর্যই পর্যটকদের আকর্ষন করতে যথেষ্ট নয়। এর জন্য দরকার উন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থা, থাকা খাওয়ার সুব্যবস্থা আর সর্বোপরি নিরাপত্তা ব্যবস্থা। আরো একটা গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে প্রচারনা। সুন্দরবনের জন্য আমরা যেভাবে প্রচারনায় নেমেছি আগের যে সব বিষয়গুলো বলেছি তার সাথে এইটুকু প্রচারণা থাকলেই চলবে।

পরিশেষে শুধু এইটুকু বলতে চাই আমাদের এই বাংলাদেশের পর্যটনশিল্পকে এগিয়ে নিতে কোন বিতর্কিত সংগঠনের স্বীকৃতি নয়, প্রয়োজন সঠিক পরিকল্পনা ও প্রয়োগ।

৩৫৬ বার দেখা হয়েছে

৬ টি মন্তব্য : “সুন্দরবন নিয়ে উন্মাদনার কিছুটা কি আমরা পর্যটনশিল্প বিকাশে কাজে লাগাতে পারি না?”

  1. নাজমুল (০২-০৮)

    ভাইয়া আপনার সাথে একমত
    আমি এবার একটাও ভোট দেইনাই, কোনো ফোন কোম্পানীর মাধ্যমে ভোট দিতে বললেই আমার মেজাজ খারাপ হয়ে যায়, যেমন হয় ফেসবুকের কোন পোষ্টে নিচে যদি লিখা থাকে লাইক করোতে কিংবা শেয়ার করোতে।
    যাইহোক, কক্সবাজারের কথায় ধরা যাক। অনেক সুন্দর যায়গা অনেক হোটেল আছে, এসি বাস আসা যাওয়া করে। কিন্তু আমার মতে খুব ভালো কোন নিরাপত্তার ব্যাবস্থা নাই। নিরাপত্তার ব্যাবস্থা ভালো করা এবং যাতায়ত থেকে শুরু করে সব কিছু আরো ভালো করা যায়।
    আর সব চাইতে বড় জিনিস হলো প্রমোট করা তাহলেই হবে।

    জবাব দিন
  2. আহসান আকাশ (৯৬-০২)

    আমি নিজে এই প্রচারনার পক্ষে ছিলাম, মেইল এর মাধ্যমে বেশ কিছু ভোট ও দিয়েছি, তবে গত কয়েকদিনে কিছু লেখা পড়ে আলোচনা শুনে উপলব্ধি করলাম এই স্মীকৃত পাওয়া থেকে সুন্দরবনকে রক্ষা করা আমাদের জন্য অনেক অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু ভোট চেয়ে বিভিন্ন মহল বিভিন্ন ভাবে প্রচারনা চালালেও সুন্দরবন সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধি করার জন্য কোন ধরনের পদক্ষেপ নেই। এখন মনে হচ্ছে সেরা ৭ এ না ঢুকে ভালই হয়েছে, তা না হলে সুন্দরবনের আয়ু জ্যামিতিক হারে কমা শুরু করতো। আর একটা গুরুত্বপূর্ণ জিনিষ মনে রাখা দরকার, জলবায়ু বিপর্যয় সহ বিভিন্ন প্রাকৃতিক দূর্যোগের হাত থেকে রক্ষা পাওয়ার ক্ষেত্রে সুন্দরবন আমাদের বিশাল অস্তিত্ত রক্ষার জন্য প্রয়োজনীয়... পর্যটন হলো এর একটা বাই প্রোডাক্ট। আগে আমাদের অস্তিত টিকিয়ে রাখার জন্য এই বনকে স্বরূপে টিকিয়ে রাখতে হবে, তারপর চিন্তা করতে হবে এর থেকে আমরা কিভাবে পর্যটনের মাধ্যমে আয় করতে পারি।


    আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
    আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

    জবাব দিন
  3. রকিব (০১-০৭)
    আমাদের এই বাংলাদেশের পর্যটনশিল্পকে এগিয়ে নিতে কোন বিতর্কিত সংগঠনের স্বীকৃতি নয়, প্রয়োজন সঠিক পরিকল্পনা ও প্রয়োগ।

    :thumbup: :thumbup:


    আমি তবু বলি:
    এখনো যে কটা দিন বেঁচে আছি সূর্যে সূর্যে চলি ..

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।