কত রঙ্গ জানো গো বন্ধু

(১)

প্রেসিডেন্ট থাকা অবস্থায় বিল এবং আমি বিনা পয়সায় অনেক বক্তৃতা দিয়েছি। এখন বক্তৃতা দেওয়ার জন্য আকর্ষণীয় সম্মানী পাচ্ছি এটা সাবেক প্রেসিডেন্ট হিসাবে বাড়তি পাওনা।

কানাডার টরোন্টোতে প্রথমবারের মত একই মঞ্চে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিন্টনের সঙ্গে বক্তৃতা দিতে এসে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট জর্জ ডব্লিউ বুশ এ কথা বলেন।

মন্তব্য :

এমনটা দেখা আমাদের দেশের সাবেক উপদেষ্টাদের। উপদেষ্টা হওয়ার আগে আমরা কতজনকে চিনতাম, কতজনকে আপনারা টি,ভি তে দেখেছিলেন। এখন টি,ভি তে তাদের উপস্থিতি হরহামেশাই হচ্ছে। এভাবে চ্যানেলগুলো এবং উপদেষ্টা উভয়েই লাভবান্‌ হচ্ছে। বুদ্ধিজীবী এর ব্যতিক্রম নয়।

(২)

সম্ভবত বিস্কু্টগুলো অতিরিক্ত ভিটামিন সমৃদ্ধ হওয়ায় এগুলো ছাত্র ছাত্রীরা হজম করতে পারেনি।

বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচির বিস্কুট খেয়ে খাগড়াছড়ি জেলার ৩ শতাধিক ছাত্রছাত্রী অসুস্থ হয়ে পরার বিষয়ে মানিকছড়ি উপজেলার স্বাস্থ ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা হরিপদ চক্রবর্তী।

মন্তব্য :

যে সব অতি সুখাদ্য আমাদের হজম হয়না, তা আমাদের প্রয়োজন নাই। তেমনি বুদ্ধিজীবী যে সব কথা আমাদের মাথায় ঢুকেনা তাও আমাদের প্রয়োজন নাই। সহজ কথা আমাদের জন্য কিছু করতে চাইলে আমাদের মত করেই করতে হবে। আর কিছু বলতে চাইলে আমাদের মত করেই বলতে হবে।

(৩)

২৫০টি নদী ও শাখা নদী বর্তমানে দেশে রয়েছে। সম্প্রতি “প্রধানমন্ত্রী সমীপে, নদী বাঁচাও, ঢাকা বাঁচাও শীষর্ক কর্মসূচির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে জানানো হয়, মোট ৭০০ নদী থেকে কমতে কমতে নদী ও শাখা নদীর সংখ্যা ২৫০ এ দাঁড়িয়েছে।

মন্তব্য :

এভাবে চলতে থাকলে অচিরেই নদীমাতৃক বাংলাদেশ উপনাম পরিবর্তিত হয়ে নদীদের কবরস্থান বাংলাদেশ হবে।

(৪)

২৯ টি বিচারবহির্ভুত হত্যাকাণ্ড গত পাঁচ মাসে ঘটেছে। সম্প্রতি অধিকার নামে এক সমানাধিকার প্রতিষ্ঠান এক প্রতিবেদনে উক্ত তথ্যতি জানায়। তারা আরো বলে বিগত ২ মাসে প্রতি ২ দিনে একজন বিচারবহির্ভুত হত্যাকান্ড হয়েছে।

মন্তব্য :

প্রতি ২ দিনে একজন করে হিসাব করলে ২ মাসে ৩০ জন দাঁড়ায়। তবে প্রথম ৩ মাসে কি কোনো বিচারবহির্ভুত হত্যাকাণ্ড হয়নি। হিসাবে অনেক গণ্ডগোল আছে। এছাড়াও প্রতিমন্ত্রি বলেছেন বর্তমান সরকারের আমলে বাংলাদেশে কোনো বিচারবহির্ভুত হত্যাকান্ড হয়নি।

(৫)

৪৩৯১ টি আবেদন “রাজনৈতিক হয়রানিমুলক” মামলা প্রত্যাহারের জন্য আবেদন পত্র জমা পড়েছে। চুরি, ডাকাতি, খুন রাহাজানির মামলাগুলোও রাজনৈতিক হয়রানিমুলক বলে আবেদনকারীদের দাবি। যে ৬২ টি মামলা রাজনৈতিক হয়রানিমুলক বলে প্রত্যাহার করা হয়েছে সবগুলি শেখ হাসিনা এবং আওয়ামীলীগ নেতাদের।

মন্তব্য :

এভাবে চললে হয়ত কিছুদিন পরে চোরেরাও রাজনৈতিক হয়রানিমুলক মামলা বলে প্রত্যাহারের আবেদন করবে। এতে করে পেশাজ়ীবি চোররাও রাজনীতিতে প্রবেশ করবে। শুধুমাত্র আওয়ামীলীগের নেতাদের মামলা প্রত্যাহার প্রমাণ করে তাদের মনের ভিতর চোর ঢুকেছে। শেখ হাসিনার মামলাগুলো হয়ত প্রত্যাহার করা হয়েছে চাটুকারীতায় অন্যান্যদের মামলা প্রত্যাহারকে জায়েজ করার জন্য।

(৬) বি,ডি,আর কর্তৃক হত্যাকান্ডের তদন্ত রিপোর্ট প্রকাশ করা হয়েছে। ৭ দিনের মধ্যে তদন্ত রিপোর্ট প্রকাশ করার কথা থাকলেও তাদের ৩ মাসের মত সময় লেগেছে।

মন্তব্য :

দেশে এই প্রথম কোনো তদন্ত রিপোর্ট প্রকাশ হলো। এর আগে কোন তদন্ত রিপোর্ট প্রকাশ করা হয়নি। আমার এই তদন্ত রিপোর্ট দেখে বার বার মনে হয়েছে তারা এটা ঘরে বসে মনের মাধুরী মিশিয়ে তৈরি করেছে। আমাদের তদন্ত কমিটির তদন্তের মান যদি এমন হয় তবে এমন রিপোর্ট প্রকাশ না করা হলেও ক্ষতি নাই। এখন তাই পুর্বের তদন্ত রিপোর্টগুলো যে প্রকাশ করা হয়নি তা নেয়ে আমার কোনো খেদ নাই। যদি আমি যেখানে চা খাই সেই চা ওয়ালা, বাদাম ওয়ালা, ধরে এনে এবং ক্লাস টেন পাস করা এক ছেলেকে প্রধান করে তদন্তের জন্য বসিয়ে দেই। আর তারা যদি বিভিন্ন টক শো গুলো দেখে দেখে মনের মাধুরী মিশিয়ে কাট, কপি, পেস্ট করে কোন তদন্ত রিপোর্ট তৈরি করে তা প্রকাশিত তদন্ত রিপোর্ট হতে খুব বেশী ভিন্ন হবে না।

(৭) বাংলাদেশ সম্প্রতি টি২০ বিশ্বকাপে আয়ারল্যান্ডের নিকট পরাজিত হয়েছে। টি২০ ফরম্যাটের ক্রিকেট যেকোনো দিন যেকোনো কিছুই হতে পারে। আশরাফুলের অধিনায়কত্ব প্রশ্নবিদ্ধ করা হয়েছে। অনেকেই দলটার মাঝে জাতীয় দলের হয়ে খেলার মানসিকতার অভাব দেখেছেন।

মন্তব্য :

বাংলাদেশের প্রধান নির্বাচকের নিকট আমার একটি প্রশ্ন আছে। যদি সে উত্তর দিতে পারে তবে আমার ২য় কোনো প্রশ্ন নাই। আমার প্রশ্ন হল আয়ারলান্ডের ১১ জন খেলোয়ারের নাম বলুন। যদি না পারেন তবে আপনি কিভাবে আয়ারল্যান্ডের বিরুদ্ধে গেম প্ল্যান করবেন? আর গেম প্ল্যান ছাড়া আপনি কীভাবে একটি দলকে মাঠে নামালেন? আর এই জন্য আপনি কেন পদত্যাগ করছেন না? যে দল হোম কন্ডিশনে জিম্বাবুয়ের মত দলের কাছে হেরে যায় সেই দলকে প্ল্যান ছাড়া মাঠে নামালে খেলার ফলাফল নেতিবাচকই আসবে। একটি প্ল্যান ছিল প্রথম ৬ ওভারে উইকেট দিবনা। এটা পাড়ার খেলার কৌশল। ইংল্যান্ডের মাটিতে আমার মতে বরাবরই আয়ারল্যান্ড বাংলাদেশ হতে যোগ্যতর দল। আমার মতে বাংলাদেশের সেরা একাদশ হল মিথুন, তামিম, আফতাব, আশরাফুল, সাকিব, অলক কাপালি, রকিবুল, জিয়াউর রহমান, মাশরাফি, রাজজাক, সৈয়দ রাসেল অথবা রুবেল হুসেন। এই দল ওয়ান ডে এবং টি২০ জন্য।

(৮) আসসালামু আলাইকুম, আসুন আমরা নতুন করে শুরু করি। আমি এখানে এসেছি গোটা মুসলিম বিশ্বের সাথে নতুন করে সম্পর্ক স্থাপন করতে।

ওবামা ৪ঠা জুন কায়রো বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্র্যান্ড হলে ভাষণ দেন। ভাষণ দেওয়ার শুরুতেই তিনি আসসালামু আলাইকুম বললে গোটা হল মুখরিত হয়ে উঠে।

মন্তব্য :

আমরা বাঙ্গালীরা যখন কোনো বিদেশীকে বাংলা ভাষা বলতে দেখি তখন আমরা আনন্দে গদ গদ হয়ে যাই। ভুলে যাই এরা জন্মগত ভাবেই ব্যবসায়ী। এরা যা করে নিজেদের স্বার্থে করে। মনে আছে হ্যারি কে টমাস বাংলাদেশে এশে অশ্রুত বাংলা ভাষায় কথা বলতেন। ওবামা ভাল করেই বুঝতে পেরেছেন কি করে মন ভুলাতে হয়। তবুও তিনি মার্কিন প্রেসিডেন্টদের প্রথাগত খোলস হতে বেরিয়ে আসতে পেরেছেন। আমার ভয় হয় তিনি হয়ত তার মেয়াদ পূর্ণ করার আগেই কোনো আততায়ীর হাতে নিহত হবেন। আর এই রকম ঘটনায় বর্তমান neo cons গোষ্ঠীর আঁতাত থাকাটা অযৌক্তিক বলা যাবে না। কেননা মার্কিন এবং মুসলিমদের সম্পর্কের বরফ গলতে শুরু করলে সব থেকে ক্ষতিগ্রস্ত হবে ইহুদিরাই।

(৯) ১০ ট্রাক অস্ত্র আটকের ঘটনায় দেশের শীর্ষ গোয়েন্দা কর্মকর্তারা জড়িত। তাদের সাথে ইন্টারন্যাশনাল ডন দাউদ ইব্রাহিম ও ছোটা শাকিলের সম্পর্ক ছিল।

মন্তব্য :

আমাদের মত ক্ষুদ্র দেশের নিরাপত্তা সার্বভৌমত্ব কোথায় থাকে। এই ঘটনার সাথে জড়িতদের পদবি এবং কর্মস্থল দেখার পর দেশের নিরাপত্তা ব্যবস্থার প্রয়োজনীয়তা আছে বলে মনে হয়না। সীমানা, সীমানা সংরক্ষণ, নিরাপত্তা, সার্বভৌমত্ব এসবকে সবসময়ই আমার ফেইক মনে হয়েছে। এগুলো হচ্ছে just কিছু মানুষের চাকরি করা ও নিয়োগ দেওয়ার ব্যবস্থা।

(১০) আর্জেন্টিনা কিছুদিন আগে বলিভিয়ার সাথে ৬-১ গোলে আর কাল ইকুয়েডরের সাথে ২- ০ গোলে হেরেছে। লাপাজ এবং কিটো যথাক্রমে ৩৬০০ এবং ২৮০০ ফুট উঁচু।

মন্তব্য :

ম্যারাডওনা নিজের জালে নিজেই জড়িয়ে পড়েছেন। ফিফা কর্তৃক নিষিদ্ধ করার প্রতিবাদে তিনি তার বন্ধুদের নিয়ে শ্যাভেজ ও তার একাদশের বিরুদ্ধে খেলে প্রমাণ করেন ৩৬০০ ফুট উচ্চতায় ফুটবল খেলা যায়। তাই তিনি তার দলের হাড়ের জন্য উচ্চতাকে দায়ী করছেন না। কিন্তু আমাদের দেশের লজ্জাহীন বি,এন,পি যখন লোড্‌শেডিং এর প্রতিবাদ জানিয়ে মানব বন্ধন ও জেলায় জেলায় মিছিল করে। তারা কি করে ভুলে যায় তারাই ম্যারাডোনার মত উদারভাবে এই সমস্যার জনক। আমরা শুধু লোড্‌শেডিং দেখছি। কিন্তু বিদ্যুত অফিস সমুহতে অতিরিক্ত ট্রান্সমিটারের অপর্যাপ্ততা কিছুদিনের মধ্যেই নতুন এক সমস্যার সৃষ্টি করবে।

মন্তব্য করুন

১,১৭৭ বার দেখা হয়েছে

৯ টি মন্তব্য : “কত রঙ্গ জানো গো বন্ধু”

  1. আহসান আকাশ (৯৬-০২)

    ১। আমাদের বুদ্ধিজীবীদেরকে চাপাজীবী বলে ডাকা উচিৎ, কারন তারা বুদ্ধি না, চাপা ব্যবহারে তাদের জীবিকা নির্বাহ করে... টকশোগুলো এখন তাদের বাড়তি আয়ের উৎস, আর কিছুই না, আর পাবলিকও তো ভালই খায় এইগুলা

    ২। পাবলিক সব কথা বুঝে ফেললে তো আর তাদের পাত্তা দিবে না, তাই তাদের অস্তিত্ত রক্ষার জন্যই তারা ক্তহার মারপ্যাচ আর জটিলতা বাড়াতে থাকে।

    ৩। ভবিষ্যত প্রজন্মকে নদী চেনানোর জন্য কিছু ডকুমেন্টরি তৈরী করে রাখা দরকার...

    ৪। হিসাবে গড়মিল আছে... তবে এইসব মানবাধিকার প্রতিষ্ঠান গুলোর ব্যাপারে আমার চরম এলার্জি আছে

    ৫। অপ্রত্যাশিত কোন ঘটনা নয়... এরকম না হলে অবাক হতাম।

    ৬। তদন্তের জন্য সময় দেয়া নিয়ে আপত্তি নেই, আর এ তদন্ত রিপোর্ট প্রকাশ না করার কোন সুযোগ ছিল না। আর কখনই আশা করিনি যে মূল পরিকল্পনাকারীদের নাম কোন তদন্ত কমিটি বের করবে।

    ৭। গেমপ্লান করা মনে হয় প্রধান নির্বাচকের কাজ না, আর প্লান যতই থাকুক, প্লেয়ারদেরকেই সেটা মাঠে গিয়ে বাস্তবায়ন করতে হয়... সিডন্স বেশ ক্ষোভের সাথেই প্লেয়ারদের কথা না শোনার কথা বলেছে... সবচেয়ে বড় সমস্যা হলো প্লেয়াররা কমটেড না, হারুক বা জিতুক, তাদের কোন দিক থেকেই কোন লাভ-ক্ষতি হচ্ছে না, তারা তো সবাই আজকাল প্রফেশনাল

    ৮। ঐ ভাষনে ওবামা কোরআনের আয়াত ও ব্যবহার করেছে... দেখা যাক শেষ পর্যন্ত কি হয় তবে আমার কাছে আমেরিকা আমেরিকাই... তাদের স্বার্থ তারা অর্জন করবেই, হয়তো ভিন্ন পদ্ধতিতে

    ৯। রাষ্ট্রের নিরাপত্তা ব্যবস্থার বিভিন্ন ক্ষেত্র গুলোকেও রাজনৈতিকরনের কারনেই এগুলো ঘটা সম্ভব হয়েছে।

    ১০। তাও ভাল তারা একটি সত্যিকারের ইস্যু নিয়ে রাস্তায় নেমেছে, সাধারন জনগন যে কারনে ভুগছে... বাড়ি দখল বা সিট দখল নিয়ে নয়... আর সরকারেরও উচিত বিদ্যুত সমস্যা প্রসঙ্গে কথা উঠলে শুধু বিদ্যুত সরকারের আমলে কি কি অনিয়ম তার ফিরিস্তি তুলে না ধরে তারা কি কি পদক্ষেপ নিয়েছে আর নিতে যাচ্ছে তার বিবরন তুলে ধরা ( যে কারনেই হোক,আর্জেন্টিনা হারছে এতেই আমি ব্যাপক খুশি 😀 )


    আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
    আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

    জবাব দিন
  2. মাসরুফ (১৯৯৭-২০০৩)

    মন্তব্য আকারে মাসুদ ভাইয়ের এই লেখাটিতে অন্যরকম আয়রনি বা শ্লেষের ছোঁয়া পেলাম।ভিন্ন স্বাদের এ লেখাটি আপনার গবেষণামূলক লেখাগুলোর চাইতে হালকা স্বাদের হলেও আকর্ষণ একটুও হারায়নি।বেশ ভাল লাগল পড়তে 🙂

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।