তবু কী?

হে আমার তারুণ্য, তোমায় আকন্ঠ পান করেছি-
প্রিয় কোন জলের মতো
তোমায় দিয়েছি বিলিয়ে আমার সকল পিপাসা।
হে আমার উচ্ছ্বাস, তোমায় তুমুল বাজিয়েছি-
একান্ত নিজস্ব বাদ্যের মতো
তোমায় সঁপেছি আমার সকল প্রকাশের ভার।
হে আমার আশা, তোমায় বারে বারে ভেবেছি-
ভীষণ প্রিয় কোন মুখের মতো
তোমার ঢেউয়ে ভাসিয়েছি আমার প্রাপ্তি-অপ্রাপ্তির ভেলা।
হে আমার উদ্যম, তোমায় নিয়ে চলতে শিখেছি-
খুব আপন কোন বন্ধুর মতো
তোমায় দিয়েছি আমার সকল বেদনা মোছার অধিকার।
হে আমার স্বপ্ন, তোমায় আকড়ে ধরে বাচতে শিখেছি-
আলতো ছুয়ে দেয়া সুতীব্র কোন স্পর্শের মতো
তোমায় দিয়েছি আমায় নিয়ে খেয়ালী হবার স্পর্ধা।
হে আমার ভালবাসা, তোমায় হন্যে হয়ে খুঁজেছি-
ঝড়ো রাতের বাতিঘরের মতো
তোমায় দেখিয়েছি আমার গহনতম বোধের পথ।
হে আমার নিয়তি, নিত্য তোমায় মেনেই চলেছি-
অমোঘ কোন দৈববানীর মতো
তবুও তোমার আমার দ্বন্দ্ব চিরন্তন, নিয়ত চলমান।
হে আমার জীবন, তোমায় যাপন করেছি-
নিরন্তর অভ্যস্ততায়, প্রতিটা দিনের মতো।
এত সব আয়োজন সাঙ্গ করে, আমার সকল ব্যাথা তুচ্ছ করে
তবু কী তুমি আমার হলে?
তবু কী তুমি আমার হলে, ওগো?

৪২২ বার দেখা হয়েছে

৩ টি মন্তব্য : “তবু কী?”

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।