এবার ফেরৎ দে

শোন পাষন্ড! এবার আমায়, তিরিশ লক্ষ জীবন ফেরৎ দে,
মা-বোনেদের দুই লক্ষ সম্ভ্রম ফিরিয়ে দে,
মুক্তিযোদ্ধার হারিয়ে ফেলা হাতটা, পা-টা, চোখটা খুঁজে দে!
শোন অমানুষ! আমার মায়ের একটা ফোঁটা অশ্রু মুছিয়ে দে,
আমার ভায়ের বুক চিরে ঢেলে দেয়া, একটা ফোঁটা রক্ত ভরিয়ে দে।
আমার বোনের একটা করুন আর্তনাদ ভুলিয়ে দে!
শোন বেঈমান! রক্তঢালা মায়ের ভাষা; এবার ফেরৎ দে,
স্বাধীন দেশে লুটতে থাকা সুযোগ ফেরৎ দে,
নষ্ট করা ধর্ম ফেরৎ দে, পুড়িয়ে ফেলা পতাকা উড়িয়ে দে।
আমার চোখে আগুন ছিল, বধ্যভূমির গন্ধ ছিল, সব হারাবার ব্যাথা ছিল,
আমার একটা জন্ম ছিল, বাঁচার ভীষণ ইচ্ছে ছিল, মুক্ত হবার স্বপ্ন ছিল।
হারামজাদা-
খুবলে খাওয়া মাংস ফেরৎ দে,
খুচিয়ে মারা শিশু ফেরৎ দে,
বিকিয়ে ফেলা বিবেক ফেরৎ দে,
গিলে খাওয়া মানুষ ফেরৎ দে,
গুড়িয়ে ফেলা শহর ফেরৎ দে,
পচিয়ে তোলা নদী ফেরৎ দে,
পুড়িয়ে ফেলা স্বদেশ ফেরৎ দে।
ফেরৎ দে, ফেরৎ দে, ফেরৎ দে। ফেরৎ দে, ফেরৎ দে, ফেরৎ দে!
তোদের মত লক্ষ-কোটি পশু মরে গিয়ে, একটা নতুন “রাব্বী” ফেরৎ দে।
তোদের মত লক্ষ-কোটি কুকুর মরে গিয়ে একটা নতুন “আলীম” ফেরৎ দে।
তোদের মত লক্ষ-কোটি শূকর মরে গিয়ে, একটা নতুন “জহির” ফেরৎ দে।
তোদের মত লক্ষ-কোটি পশু মরে গিয়ে, একটা নতুন মানুষ ফেরৎ দে।
তোদের দেশে ফেরৎ গিয়ে আমার স্বদেশ দে!
তোদের দেশে ফেরৎ গিয়ে আমার স্বদেশ দে!

৩৪৩ বার দেখা হয়েছে

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।