এএফসি চ্যালেঞ্জ কাপঃ বাংলাদেশের শুভ শুচনা

ঘরোয়া ফুটবলের নবজাগরনের সাথে তাল মিলিয়ে এবার জাতীয় দলও জেগে উঠেছে। দীর্ঘ ২৫ ম্যাচ পরে আন্তর্জাতিক খেলায় জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। এএফসি চ্যালেঞ্জ কাপের বাছাই পর্বের ১ম খেলায় তারা কম্বোডিয়াকে হারিয়েছে ১-০ গোলে। খেলার দ্বিতীয়ার্ধে এনামুল জয়সূচক গোলটি করে। দিনের ১ম খেলায় মায়ানমার ম্যাকাওকে হারিয়েছে ৪-০ গোলে। লীগ পদ্ধতির এ টুর্নামেন্টের শীর্ষস্থান অর্জনকারী দল সরাসরি খেলার সুযোগ পাবে এএফসি চ্যালেঞ্জ কাপে।

আজকের খেলায় বাংলাদেশ অনায়াসেই ৪/৫ গোলের ব্যবধানে জিততে পারত, কিন্তু খেলোয়াড়দের গোল মিসের মহড়ায় তা হয় নি। ব্রাজিলিয়ান কোচ ডিডো প্রধানত তরুনদের নিয়ে গড়া দল মাঠে নামায়। পুরো ম্যাচেই দৃস্টিনন্দন ফুটবল খেলে বাংলাদেশ, শুধু অভাব বোধ হয়েছে একজন পরীক্ষিত স্ট্রাইকারের, এমিলি ইঞ্জুরি থেকে ফিরলে হয়ত এ সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে। আজকের খেলা সত্যিই দারুন এনজয় করেছি, আশা করি দিনে দিনে খেলার আরও উন্নতি হবে।

৮৫৫ বার দেখা হয়েছে

১৬ টি মন্তব্য : “এএফসি চ্যালেঞ্জ কাপঃ বাংলাদেশের শুভ শুচনা”

  1. কাইয়ূম (১৯৯২-১৯৯৮)

    ডিডোর প্রভাব সরাসরি খেলায় বোঝা গেছে :thumbup: :thumbup:
    মায়ানমারের সাথে আসল টেস্ট হবে। এই ভয়াবহ রোদের ভেতরেও মায়ানমারের তরুণ দলটা ভালোই স্ট্যামিনা নিয়ে খেলছে।
    কিন্তু আসল উৎপাত ছিলো শরাফত এন্ড গং 😡
    এখনই কোন সাফল্য না আসলেও ডিডোকে একটু সময় দেয়া দরকার।


    সংসারে প্রবল বৈরাগ্য!

    জবাব দিন
  2. কামরুলতপু (৯৬-০২)

    বহুদিন পরে জিতল বাংলাদেশ। খুব ভাল লাগল। আহসান তোরে আরেকটা রিকোয়েস্ট এইসব পোষ্টে যদি একটু হাইলাইটস ভিডিও থাকত তাহলে পুরা ৫ তারা দিমু।

    জবাব দিন
  3. আহসান আকাশ (৯৬-০২)

    এইটা কি ঠিক হইল? বসের সাথে আমারে এক কাতারে নিয়া গেলি :shy:

    আসলে খেলাধূলা ছাড়া আর কিছু নিয়া লিখতে পারি না, তাই......


    আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
    আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

    জবাব দিন
  4. আহসান আকাশ (৯৬-০২)

    a

    বারের পিছনের দিকে গ্যালারির উপরে বঙ্গবন্ধুর বিশাল এক মুর‌্যাল আছে...


    আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
    আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

    জবাব দিন
  5. ফয়েজ (৮৭-৯৩)
    আজকের খেলা সত্যিই দারুন এনজয় করেছি

    মোটেই এনজয় করি নাই আমি, গোল দিতে পারে না, এই রকম সহজ সুযোগে গোল দিতে আবার ষ্ট্রাইকার লাগে নাকি?

    তবে জিতছে এইটা আসল কথা, তবে এমনে মিস করতে থাকলে আর চ্যাম্পিয়ন হইতে লাগবে না কইলাম।


    পালটে দেবার স্বপ্ন আমার এখনও গেল না

    জবাব দিন
  6. মাসুদুর রহমান (৯৬-০২)

    ফুটবল খেলায় প্লেস নলেজ থাকাটা খুব জরুরি। কালকের খেলায় আমার মনে হল বাংলাদেশের প্লেস নলেজ বেড়েছে। অতএব আমি আশাবাদি। এখন দরকার একজন ভাল স্ট্রাইকার। তাছাড়া শক্তিশালি দলের বিরুদ্ধে জয় পাওয়া যাবে না।

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।