ছবিব্লগঃ আনাড়ির HDR

ব্লগে আমার পোস্টের সংখ্যা মাশাল্লাহ কম না। খেলাধূলা আর দিনলিপির নামে খাচ্ছি-দাচ্ছি, ঘুরে বেড়াচ্ছি টাইপের বকর বকর করেই এসব পোস্টের পাতা ভরেছি। এতদিন পরে ভাবলাম একটু বৈচিত্র আনা দরকার, তাই এই ছবিব্লগ।

প্রথমেই বলে নেই আমার ফটোগ্রাফি এই ব্লগের মূল উদ্দেশ্য না, আর এখানের সব ছবি আমার নিজের তোলাও নয়। (মূল ফটোগ্রাফারের নাম ও অনুমতি সাপেক্ষেই ব্যবহার করছি)

ফটোগ্রাফি সম্পর্কে আমার আগ্রহ এখন পর্যন্ত ফেইসবুক, বিভিন্ন ব্লগ আর সাইটে দারুন দারুন সব ছবি দেখে হা করে তাকিয়ে থাকা আর মনে মনে ভাবা একদিন আমিও… পর্যন্তই সীমাবদ্ধ। প্রথম দিকে কিছু কিছু ছবি প্রায় অতিপ্রাকৃত মনে হত। পরে জানলাম HDR কাহিনি। বিস্তারিত কিছু জানা নেই, শুধু জানি সফটওয়্যার দিয়ে সাধারন ছবিকেও দারুন করে তোলা যায়। তাই যখন গরীবের HDR ধরনের একটা সফটওয়্যার খোঁজ পেলাম তখন সেটা নিয়ে হালকা ঘষামাজা করার লোভ সামলাতে পারলাম না। আর এর ফলাফল হলো আজকের এই ছবিব্লগ। আর কথা না বাড়িয়ে ছবিগুলো দেখা যাক।

    এই ছবির ফটোগ্রাফার আমার বউ। আমার ছয় তলার রুমের বারান্দা থেকে তোলা। এই বর্ষাকালে বারান্দায় বসে ঝড় বৃষ্টি দেখা দারুন উপভোগ করি।

    এই ছবির ফটোগ্রাফার আমার বন্ধু খায়ের। সিলেটের সারি নদীতে নৌকায় করে লালাখালে যাওয়ার পথে। সামনে লালাখালের ঘাট আর পেছনের পাহাড় সীমান্তের ওপারে। তবে সত্যি কথা বলতে এডিটের পরেরটা থেকে নদীর পানির আসল রংটাই ভাল ছিল।

    এটা আমার নিজের তোলা। সারি নদীতে নৌকা ভ্রমন।

    পতেঙ্গা সৈকতে সূর্যাস্ত, আমার তোলা।

    কক্সবাজারে সূর্যাস্ত, ফটোগ্রাফার আমি।

    জাফলং এর পথে…

    গোধূলী, সিলেটের কোথাও। আমার তোলা।

সফটওয়্যারের কেরামতি বোঝানোর জন্য একটি মূল ছবি দিয়ে দিলাম।

এবার যে যাদুর কাঠির ছোঁয়ায় এগুলো বদলে গেল তার খোঁজ দিয়ে যাই। মূল সফটওয়্যারটির ওয়েবসাইট এখানে পাওয়া যাবে। আর সরাসরি ট্রায়াল ভার্সন (ফ্রি) ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন। আমি এটাই ব্যবহার করেছি।

শুভেচ্ছা।

২,১৩৭ বার দেখা হয়েছে

৩১ টি মন্তব্য : “ছবিব্লগঃ আনাড়ির HDR”

  1. তৌফিক (৯৬-০২)

    যতোদূর জানি HDR ছবির জন্য একই সিনের দুই-তিনটা এক্সপোজার সেটিং-এর ছবি লাগে। একটা সিংগেল এক্সপোজারের ছবি দিয়াও HDR করা যে যায়- জানতাম না। 🙂
    ছবি ভালো লাগছে। 🙂

    জবাব দিন
  2. রকিব (০১-০৭)

    নাহ, আকাশদা দেখি সিরাম ছবি তুলছেন।
    ২,৩,৫,৭- ভালো পাইলাম।
    অফটপিকঃ বস কয়েকটা ছবি দেখে কিন্তু HDR বুঝা যায় নাই। 🙁


    আমি তবু বলি:
    এখনো যে কটা দিন বেঁচে আছি সূর্যে সূর্যে চলি ..

    জবাব দিন
    • আহসান আকাশ (৯৬-০২)

      মুরাদ ভাই, প্রথমে ঢাকা থেকে সিলেট যেতে হবে। সেখান থেকে গোয়াইন ঘাট, শহর থেকে জাফলঙ্গের দিকে যেতে ঘন্টা খানেকের পথ, সিলেট-জাফলং রোডের উপরেই, নদীর উপরে একটা ব্রীজ আছে ঐ ব্রীজের নিচেই ঘাট। সেখানে ইঞ্জিনে চলা ছইওয়ালা নৌকা পাবেন। আর ব্রীজের ওই পাশে আছে স্পীডবোটের ঘাট।


      আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
      আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

      জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।