চেলসি vs লিভারপুল

(এটা কোন প্রিভিউ না, কিছু তথ্যাবলি)

ম্যাচঃ চেলসি vs লিভারপুল
ভেন্যুঃ স্ট্যামফোর্ড ব্রিজ।
সময়ঃ রাত ১০ টা (বাংলাদেশ সময়)

চেলসি আর লিভারপুলের ম্যাচ সব সময়ই মৌসুমের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ফিক্সচার। তবে আজকের ম্যাচটা সাম্প্রতিক সময়ের মধ্যে সবচেয়ে আলোচিত চেলসি লিভারপুল ম্যাচ। কারন একটাই, জনৈক ফার্নান্ডো টরেস। ট্রান্সফার উইন্ডোর শেষ দিনে ব্রিটিশ রেকর্ড গড়ে এ সময়ের লিভারপুলের হিরো চেলসিতে নাম লেখানোর পর থেকেই লিভারপুল ফ্যানেরা বেশ তেতে আছে, এর সাথে যোগ হয়েছে টরেসের বিভিন্ন বক্তব্য। আর পুরো ঘটনাটাকে আরো নাটকিয়তা দিতে চেলসির হয়ে টরেসের অভিষেক হতে যাচ্ছে সেই লিভারপুলের বিপক্ষেই। তাই বাকি সব হিসাব নিকাশের বাইরে এই ম্যাচে সবচেয়ে বড় ফ্যাক্টর হচ্ছে টরেস।

টরেসের জার্সিতে আগুন

তবে বাকি হিসাব নিকাশগুলোও কম গুরুত্বপূর্ণ নয়। আজকের খেলার ফলাফল দুদলেরই বাকি মৌসুমের টার্নিং পয়েন্ট হিসেবে দেখা দিতে পারে। দূর্দান্ত ভাবে লীগ শুরু করা গতবারের চ্যাম্পিয়ন চেলসি যাচ্ছে খুব বাজে সময়ের মধ্য দিয়ে। এক ম্যাচ কম খেলে শীর্ষে থাকা ম্যান ইউ’র সাথে তাদের পয়েন্টের ব্যবধান ১০, এ ম্যাচে জিততে পারলে পয়েন্টের ব্যবধান কমানোর পাশাপাশি নতুন আত্মবিশ্বাষে এগিয়ে যাবে চেলসি।

লিভারপুলের শুরু ছিল আর খারাপ, বেনিতেজ লিভারপুল ছাড়ার পরে রয় হডসনের হাতে লিভারপুল ক্লাব ইতিহাসের অন্যতম বাজে সময় কাটিয়েছে। কিন্তু কিং কেনির প্রত্যাবর্তনের মাধ্যমে লিভারপুল ও ঘুরে দাড়িয়েছে। পয়েন্ট টেবিলের ৭ নং এ থাকা লিভারপুল এখন শীর্ষ ৪ এর স্বপ্ন দেখা শুরু করেছে, আজকের ম্যাচ থেকে পজেটিভ ফলাফল বের করে নিতে পারলে সেটার সম্ভাবনা আমার মতে পুরো মাত্রায় থাকবে।

সুয়োরেজের প্রথম গোল

সম্ভাব্য লাইন আপঃ
চেলসিঃ (৪-৩-৩) চেক, লুইজ, ইভানোভিচ, টেরি, কোল, এসিয়েন, মিকেল, ল্যাম্পার্ড, আনেলকা, টরেস, দ্রগবা।
লিভারপুলঃ (৪-৪-২) রেইনা, কেলি, স্কার্ল্টেল, আগ্যার, জনসন, রড্রিগেজ, লুকাস, জেরার্ড, মেরেলিস, ক্যায়ূর্ট, সুয়োরেজ।

ফর্মঃ (শেষ ৫ ম্যাচ)
চেলসিঃ ৪ জয়, ১ ড্র। গোলঃ ১৮/৩
লিভারপুলঃ ৩ জয়, ১ ড্র, ১ পরাজয়। গোলঃ ৯/৪।

হেড টু হেডঃ (শেষ ৫ ম্যাচ)
চেলসি ৩টি লিভারপুল ১টিজয়, বাকি ১ টি ড্র।

কিছু ফ্যাক্টঃ

> কোন লিভারপুল খেলোয়াড় চেলসির মাঠে শেষবার গোল করেছিল জানুয়ারী ২০০৪ সালে। মাঝে ২০০৮ সালে চেলসির বোসিঙ্গুয়া একটা আত্মঘাতি দিয়েছিল।

> চেলসি নিজেদের মাঠে লীগের বর্তমানে শীর্ষে থাকা ৪টি দলের সাথেই জিতেছে, কোন গোল হজম না করেই।

প্রেডিকশনঃ

বিবিসির ফুটবল পন্ডিত মার্ক লরেন্সনঃ ২-০
স্কাই স্পোর্টসঃ ১-১
গোল.কমঃ ২-১

এবার সিসিবিয়ানদের প্রেডিকশন শোনা যাক…

১,০৭৪ বার দেখা হয়েছে

১২ টি মন্তব্য : “চেলসি vs লিভারপুল”

  1. রিয়াজ (৯৮-০৪)

    আজাদ ভাই কেমন আছেন??ফুটবল নিয়ে এখনও দেখি আপনার আগের মতো মাতামাতি।আজকে চেলসি জিতবে।


    জানি সত্য নয়,শুধু কল্পনায়...ইচ্ছের ঘুড়ি আমরা ওড়াই...স্বপ্ন গুলো সত্যি হবে তারি অপেক্ষায়

    জবাব দিন
  2. আহসান আকাশ (৯৬-০২)

    এত আগ্রহ নিয়ে অপেক্ষা করে শেষ পর্যন্ত অফিসে আওটকে গয়ে খেলাটাই মিস করলাম, তবে রেজাল্টের কারনে সেই দুঃখ ভুলে গেছি। সাব্বাশ রেড :clap: :clap: :clap:


    আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
    আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

    জবাব দিন
  3. মইনুল (১৯৯২-১৯৯৮)

    প্রিমিয়ার লীগে এই সপ্তাহটা খুবই ইন্টেরেস্টিং গেলো।

    চেলসি নিজেদের মাঠে লীগের বর্তমানে শীর্ষে থাকা ৪টি দলের সাথেই জিতেছে, কোন গোল হজম না করেই।

    ম্যান ইউয়ের সাথে মনে হয় এখনো চেলসীর মাঠে খেলা হয় নাই।

    জবাব দিন
  4. এহসান (৮৯-৯৫)

    এই রেজাল্ট অবশ্যই ভাগ্য আর ভালো ট্যাক্টিক্স এর ফসল। কিন্তু আমার কিং কেনীর বদলে স্টুয়ার্ট ক্লার্ককে গুরুত্বপূর্ণ মনে হয়েছে। সেই মরিনহো আমলের চেলসি মার্কা খেলা দিয়ে লিভারপুল এবার চেলসি কে ধরিয়ে দিলো 🙂 যখনই টরেস বল পাইসে তিন জন মিলে ক্রাঊডেড করে ফেলেছে। বেচারা কি আর করবে। ক্যারাঘার আইসা টিম এর অরগানিজেশন্টাই বদলে দিয়েছে। ম্যাক্সি রড্রিগয়েজের মিসটাকে আমার মিস অফ দ্য সিজন মনে হয়েছে। রেফারিং হোম টিমের দর্শকের কাছে মাথা নত করে নাই। যদিও ওল্ড ট্র্যাফোর্ড কিংবা হাওয়ার্ড ওয়েব হইলে এইগুলো পেনাল্টি হয়ে যাইতো।

    চেলসির প্ল্যানটাই বুঝলাম না। মালুদারে বাদ দিলো কেন? টরেস ড্রগবার পিছনে আনেলকা। ল্যাম্পার্ডের রোলটা কি ছিলো বুঝি নাই। আসলে ওরা বেশী ব্যস্ত ছিলো টরেসের শার্ট বেইচা কয় টাকা উঠে আসছে সেটা হিসাব করার জন্য 🙂

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।