অভিনন্দন বাংলাদেশ

অভিনন্দন আমাদের ক্রিকেট দলকে আমাদেরকে আরেকটি জয় উপহার দেবার জন্য, মন খুলে সেলিব্রেট করার আরেকটি উপলক্ষ তৈরী করে দেবার জন্য।

বাংলাদেশের ক্রিকেট দলের প্রথম জয় সেলিব্রেট করেছিলাম ১৯৯৭ এর আইসিসি ট্রফিতে। সে সময় পুরো দেশ এক হয়ে উদযাপন করেছিল সেই জয়। এরপর আরো অনেক জয় এসেছে। এক একটা জয় ছিল যেন বিশ্ব জয়ের সমান, সেভাবেই আমরা উদযাপন করতাম সেগুলোকে। শুধু আমরা দর্শকরা কেন, মাঠের খেলোয়াররাও মেতে উঠত সেভাবেই। তবে সময়ের সাথে সাথে আমাদের ক্রিকেট এগিয়েছে, খেলোয়ার এবং দর্শক উভয়েই ম্যাচিউরড হয়েছে, সবচেয়ে বড় কথা জয় জিনিষটা আগের থেকে অনেক নিয়মিত হয়ে উঠেছে আমাদের কাছে। (এ কারনেই হয়ত এ জয় নিয়ে এখন পর্যন্ত ব্লগে কোন পোস্ট আসেনি, এই সুযোগে নিজের আরেকটা পোস্ট বাড়িয়ে নিচ্ছি) আজকের নিউজিল্যান্ডের সাথে ম্যাচ জয়ের পরে সেটা আরো ভাল ভাবে দেখলাম। শেষ বল হবার পর পর খেলোয়ারেরা আনন্দের অতিসজ্যে ভেসে না গিয়ে ব্যস্ত হয়ে উঠল আহত টিমমেটকে নিয়ে। ট্রু প্রফেশনালিজম! আশা করি তারা এই প্রফেশনালিজম ধরে রেখে তা সামনের খেলাগুলোতেও প্রয়োগ করবে। তবে সেই সাথে ভয়ও হয়। ইংল্যান্ড ট্যুরে প্রথমবারের মত তাদেরকে হারানোর পরের ম্যাচগুলোর অভিজ্ঞতা মোটেই সুখকর নয়। সেই সাথে চিন্তার বিষয় হচ্ছে মাশরাফি আর নাজমুল, দুই পেসারই ইঞ্জুরীতে পড়েছে। তবে খেলা শেষে মজা করে অন্যদের বলছিলাম আজকের মাশরাফির ইঞ্জুরি আমাদের সাপে বর হয়েছে, ও খেললে শেষ দুই/তিন ওভারের কোন এক ওভারে বোলিং এ আসতো আর ১৭/১৮ রান দিয়ে ম্যাচ হারিয়ে দিত। আশা করি মাশরাফির ইঞ্জুরি সিরিয়াস কিছু হবে না।

ম্যাকলামের এই উইকেট নিয়েই ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দেয় সাকিব

সাকিবের কথা আলাদা করে না বললেই নয় আবার আলাদা ভাবে বলারও কিছু নেই। বাংলা সিনেমার মত করে বললে নাম্বার ওয়ান সাকিব আল হাসান

আজকে ক্রিকেটের পাশাপাশি কমনওয়েলথ গেমসেও বাংলাদেশ সাফল্য পেয়েছে। ১০ মি এয়ার রাইফেল সুট্যিং এ ব্রোঞ্জ জিতেছে আসিফ এবং আবদুল্লাহ হেল বাকি জুটি। অভিনন্দন তাদেরকেও।

৩,২১৬ বার দেখা হয়েছে

৪২ টি মন্তব্য : “অভিনন্দন বাংলাদেশ”

  1. মাসরুফ (১৯৯৭-২০০৩)

    ভাই মাশরাফির ব্যাপারে কড়া কিছু কথা বলি- দুইটা ম্যাচ খেলে একটায় ইঞ্জুরি নিয়ে পরের ২০ ম্যাচ বসে থাকা আর যাই হোক ফাস্টবোলারসুলভ আচরণ না।নিজেকে ফিট রাখাটাও শারীরিক যোগ্যতার একটা মাপকাঠি-যে মাপকাঠিতে মাশ্রাফি ১০ এ টেনেটুনে ৫ পাবে কিনা তা নিয়ে আমি সন্দিহান।আর শ্লগ ওভারে ওর কথা না-ই বা বললাম,জোক বলেন আর যা-ই বলেন,লাস্ট ওভারে ২৫ দরকার হলেও মাশরাফি সাহেব তা দিয়ে দিত বলে আমি আমার নতুন কেনা আইপড বাজি রাখতে পারি।গত আইপিএলের আগের আইপিএলে মাশরাফিকে খেলতে দেয়া হয়না দেখে আমরা এত চিল্লাচিল্লি করেছি-যেই একটা ম্যাচ তাকে খেলালো সেই একটা ম্যাচের শেষ ওভারে প্রয়োজনীয় ২৫ রান ঠিকই রোহিত শর্মা আমাদের মাশরাফি বাবাজির ওভার থেকে তুলে নিয়ে আমরা যারা তার পক্ষে কথা বলছিলাম তাদের থোতা মুখ ভোতা করে দিয়েছিল।

    যাই হোক-সাবাশ বাংলাদেশ!সাবাশ সাকিব-ছেলেটা পারফর্ম করেই যাচ্ছে!

    জবাব দিন
  2. মইনুল (১৯৯২-১৯৯৮)

    গতকাল রাতে খাবার সময় ভারতীয় কলিগদের ইন্ডিয়ার করুন অবস্থা নিয়ে পচানোর পাশাপাশি বাংলাদেশের এই খেলাটা নিয়া ব্যাপক ভাব নিসিলাম ...... সকালে অফিসে আসার আগে হিসেব করছিলাম, ছুড়ে দেয়া এই ইটের কারণে কি সাইজের পাটকেল হজম করতে হয় ....... যা হোক, শেষ পর্যন্ত মুখ রক্ষা হয়েছে ..... আশা করি আগামী খেলাগুলোতে ব্যাটসম্যানরা আরেকটু ভালো খেলবে ......

    জবাব দিন
    • আহসান আকাশ (৯৬-০২)

      আজকে প্রায় সব ব্যাটসম্যানই স্টার্ট পেয়েছিল, কিন্তু কন্টিনিউ করতে পারেনি। কাউকে দায়িত্ব নিয়ে লম্বা ইনিংস খেলতে হবে।

      আজকে ভারতের টেস্টটাও কিন্তু সেই রকম হয়েছে... অস্ট্রেলিয়া আবারো সে লক্ষনের কাছে ধরা :))


      আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
      আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

      জবাব দিন
  3. আমিন (১৯৯৬-২০০২)

    সিরিয়াস ক্রিকেট আলোচনা বাদ....আসল কথা হলো শাহরিয়ার নাফীস লক্মী হয়ে আসছে দলে..... 😀 ( সিরিয়াসলি নিস না লক্ষ্মী তত্ত্ব আমার এক ফ্রেন্ডের দেয়া। হাবিবুলের ক্রমাগত পচানিতে আমরা যখন অতিষ্ট তখন আমাদের এক বন্ধু বলল, হাবিবুলকে বাদ দেয়া ঠিক হবে না কারণ ও বাংলাদেশ দলের লক্ষ্মী.......)

    আরেকটা অবজারভেশন , বাংলাদেশ ক্যাপ্টেন বদলাইলে ম্যাচ জিতে...২০০৩ জিম্বাবে সুজন-সুমন, ২০০৭, ২০-২০ ও ইন্ডিজ সুমন-আশরাফুল, ২০০৯ আশরাফুল মাশরাফি ও ইন্ডিজ টেস্ট জয়....২০০৯ মাশরাফি সাকিব ....টেস্ট জয়, ২০১০ সাকিব মাশরাফি ইংল্যান্ড (এইটা অবশ্য সেকেন্ড ম্যাচ) .. আড় কালকে ...(যদিও সাকিব ভারপ্রাপ্ত...) ক্রিকেট বোর্ড পালা কইরা প্রতিদিন ক্যাপ্টেন বদলাইলেও পারে..... 🙂

    এইবার সিরিয়াস... সাকিব অবিশ্বাস্য....অভিনন্দন সাকিব .....অভিনন্দন বাংলাদেশ........

    জবাব দিন
  4. রকিব (০১-০৭)

    ল্যাব ফেলাইয়া ল্যাবের ভাঙ্গা কম্পু দিয়া ক্রিকইনফোতে ঢুকছিলাম; এমন চিক্কুর পারছি যে টিএ আমার দিকে অগ্নিদিরিষ্টি বর্ষন করছে।
    সাব্বাস বাংলাদেশ!!!!


    আমি তবু বলি:
    এখনো যে কটা দিন বেঁচে আছি সূর্যে সূর্যে চলি ..

    জবাব দিন
  5. মরতুজা (৯১-৯৭)

    ছয় মাস পর পর এই জয় নিয়ে পরের ছয় মাস ভেজে খাওয়ার অভ্যাস এদের আজও গেল না। নিউজিল্যান্ড খারাপ খেলছে বলেই এরা জিতছে। ওদের দিন খারাপ ছিল বলেই ২২৮ করতে পারে নাই।২২৮ আজকের দিনে কোন স্কোর নাকি? আমাদের টাইগাররা আমার মতে এখনো অন্তত টেস্ট খেলার কোন যোগ্যতাই অর্জন করে নাই।

    জবাব দিন
    • আহসান আকাশ (৯৬-০২)

      ম্যাচে কোন না কোন দলকে তো খারাপ খেলতেই হবে আর অন্য দলকে সেটার সদ্বব্যবহার করতে হবে।

      ব্যক্তিগতভাবে আমার মনে হয় বাংলাদেশ দল ওয়ানডেতে যত না উওন্নতি করেছে তার থেকে টেস্টে বেশি উন্নতি করেছে। ম্যাচ জিততে না পারলেও প্রায় সব ম্যাচেই প্রতিদ্বন্দিতা করেছে, জানি এটা যথেষ্ঠ নয়। আমাদের সমস্যা হল টেস্ট স্ট্যাটাস পাওয়ার পর গত ১০ বছর ধরে আমরা তরুন দল হয়েই আছি... এখন সুযোগ এসেছে এই দলটাকে নিয়ে টানা কয়েক বছর খেলে যাওয়া।

      যদিও আমি টাইগারদের পক্ষে ওকালতি করছি, হয়ত আগামী কয়েক ম্যাচের পারফর্ম্যান্সের পর আমিই হয়ত আবার গালাগালি শুরু করব। 😛


      আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
      আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

      জবাব দিন
  6. ফয়েজ (৮৭-৯৩)

    ক্রিকেট এর পাশাপাশি অন্য খেলার উপরও ফোকাস থাকা দরকার, খুব আশ্চর্য লাগে যখন সিদ্দিকুরের রানার্স-আপ প্রাইজের চেয়েও তামিমের বেয়াদবীর খবর পত্রিকায় বড় কাভারেজ পায়। এশিয়ান ট্যুরের অর্ডার অব মেরিট বলছে সিদ্দিকুর এখন এশিয়ান ১১ নম্বর গলফ প্লেয়ার, উপার্জনের উপর ভিত্তি করে। গতবছর শেষ করেছিল ছিল সম্ভবত ৮৪ নম্বরে থেকে।

    আরও কিছু ট্যুর বাকী আছে, আশা করি প্রথম দশে দেখতে পাব তাকে।


    পালটে দেবার স্বপ্ন আমার এখনও গেল না

    জবাব দিন
    • আহসান আকাশ (৯৬-০২)

      এটা মনে হয় শুধু আমাদের না, সব দেশের মিডিয়ারই সমস্যা, প্রধান খেলাগুলোর বাইরের খেলাগুলো ফোকাস পায় না। সিদ্দিকুরের অর্জন অবশ্যই আরো বেশি হাইলাইট করা উচিৎ। তবে সমস্যা হচ্ছে গলফ নিয়ে আমাদের জানাশোনা প্যাশন দুটোই কম, ছিদ্দিক যদি পিজিএ ট্যুর ও জিতে আসে দেশের ৭০% লোক বুঝবে না ঘটনা কি ঘটেছে, মিডিয়াও হয়ত তাই সে রকম ব্যস্তও হবে না। তবে এর পরিবর্তন হওয়া দরকার।

      আশা করি ছিদ্দিকুর দশের ভিতরে চলে আসবে।


      আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
      আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

      জবাব দিন
      • ফয়েজ (৮৭-৯৩)

        ভাইরে ক্রিকেট বুঝে কয়জন বল?

        সমস্যা হচ্ছে স্পন্সরের টাকা, বুঝা বুঝির কিছু নাই। আমি বেট ধরছি, এশিয়ান ট্যুর বাংলাদেশে যখন হবে, তখন যদি বাংলাদেশের কেউ যদি প্রথম হয়, দেখবা মাতামাতি।

        আমরা আসলে জাতি হিসেবে সাফল্য ভুভুক্ষ (বানান্টা কি?) আর মিডিয়া, যেখানে গুড় আছে, সেখানে পিপড়া যাবেই, বুঝা-বুঝি হচ্ছে বুলশিট।


        পালটে দেবার স্বপ্ন আমার এখনও গেল না

        জবাব দিন
  7. মরতুজা (৯১-৯৭)

    আইসিসি হইল তো মনে হয় ৯৭ তে। এই তের বছরে যদি দ্বিতীয়বার নিউজিল্যান্ডকে হারানোর জন্য উৎসব করতে হয় তাহলে দুঃখজনক। গত মাসে প্রথম মনে হয় ইংল্যান্ডকে হারালাম, আহা কি অর্জন! এদের বিজনেস ক্লাসে না পাঠাইয়া তো আমরা কবিরা গুনাহ কইরা ফালাইতাছি। তামিম রে এর পরে তো ফার্স্ট ক্লাসে পাঠানো দরকার। এয়ারবাস ৩৮০ এর ফার্স্ট ক্লাসে নাকি বিছানাও থাকে।

    ফয়েজ ভাই ঠিক বলছেন। সিদ্দিকুরের অর্জন এর চাইতে যে অনেক গুন বেশি এইটা বাংলার পাব্লিক যে কবে বুঝবে।

    জবাব দিন
  8. ফারাবী (২০০০-২০০৬)

    আচ্ছা, মিস্টার ডাকওয়ার্থ আর লুইস- এই দুই ভদ্রলোকের বাসায় কুরিয়ার কইরা কয়েক কেজি মিষ্টি পাঠানো যায় না ?? 😡
    যাই হোক, নিউজিল্যান্ডের required rate তুলনামূলকভাবে বেশী হলেও, মাত্র ৩৭ ওভারে দশ-দশটা উইকেট হাতে পাওয়াটাও কিন্তু তাদেরই এ্যাডভান্টেজ । (যুক্তি দেওয়ার সময় নিজের দেশের জন্য একটু পক্ষপাতিত্ব এসে যাওয়াটা বোধহয় দোষের কিছু না...)

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।