পাগলা জহির স্যারের গল্প

ক্লাস সেভেনেই আমরা যে কজন পাগলা স্যারকে পেয়েছিলাম, জহির স্যার তাদের একজন। তার ইতিহাসের ক্লাস মানেই “এরাবিয়্যান নাইটসের” কাহিনী শুরু হয়ে যাওয়া। মোঘল সম্রাট জহির উদ্দিন মোহাম্মদ বাবর তার প্রিয় লোক হওয়ায় আমাদের কাছে তার নিকনেম ছিল “বাবর”।
যে কয়েকটা ঘটনা এখনও মনে পড়ে তা শেয়ার করা লোভ সামলাতে পারছি না।

ঘটনা-১:
আমরা তখন ক্লাস সেভেনে। নতুন নতুন কলেজে এসেছি। সিঙ্গেল লাইনে হাটা তখনও বাধ্যতামূলক। ইভিনিং প্রেপ চলছে। বেচারা হাসান প্রকৃতির ডাকে সারা দেয়ার জন্য ফর্ম থেকে টয়লেটের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছে। ইতিহাসের আধ পাগলা জহির স্যার সেদিন ডিউটি মাস্টার, প্রেপ টাইমে রাউন্ড দিচ্ছেন। স্যারের হাটার রাস্তার গতিপথ সিঙ্গেল লাইনের উপর দিয়ে যাওয়ায় বেচারা হাসান স্যারকে ওভারটেক করতে পারছে না। একাডেমিক ব্লকের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত স্যারের পিছ পিছ হেটে যাওয়ার পর হটাৎ করে স্যার উল্টা ঘুরে হাসানকে চড় বসিয়ে বললেন,

“এই ছেলে তুমি আমাকে ফলো করছো ক্যানো ?”

ঘটনা-২:
এই ঘটনাও জহির স্যারের। পলাশীর যুদ্ধে নবাব সিরাজুদ্দোউলার নির্মম পরাজয়ের কাহিনী বলতে বলতে স্যার অতিশয় ইমোশনাল হয়ে গেলেন। স্যারের ভাষায়,

“ইংরেজরা পলাশীর যুদ্ধে ইংল্যান্ড থেকে ট্রাক ট্রাক হেলিকপ্টার নিয়ে আসছিলো, সিরাজুদ্দোউলা পারবে কিভাবে ?”


ঘটনা-৩

এইসব ঘটনার পরে আমরা বুঝে গেছিলাম জহির স্যারের খাতায় ইতিহাস লেখা আর সাহিত্য লেখা একই কথা।
ফলাফল – ইতিহাসের সাবজেক্টে কে কত তামাশা করতে পারে তার প্রতিযোগিতা শুরু হয়ে গেল।
পাক্ষিক পরীক্ষার খাতা দেখানো হচ্ছে, বিষয়-ইতিহাস। ভাষা আন্দোলনের ইতিহাসের বর্ণনার যায়গায় ইলিয়াস কাঞ্চন ও দিতির বাংলা সিনেমার কাহিনীর সারমর্ম তুলে দিয়ে কেউ একজন ইতিহাসে হাইয়েস্ট নাম্বার পেল।

ঘটনা-৪:
জহির স্যারের পানিশমেন্ট মানেই কষে চড় অথবা ব্যান্ড পজিশন করিয়ে পশ্চাৎদেশে প্রহার। আমাদের নাসিম রেগুলার স্যারের ক্লাসে আকাম করতে করতে পানিশমেন্টের রেকর্ড গড়ে ফেলল। পশ্চাৎদেশে প্রহারে নাসিম যখন সেঞ্চুরী ছুঁই ছুঁই, তখন খবর আসলো স্যার বদলী হয়ে যাচ্ছেন। নাসিম তখন সেঞ্ছুরীর স্বপ্নে বিভোর। ফলাফল- ফর্মে যাই হত সব দোষ দেয়া হত নাসিমের উপর,তবু যাতে ছেলেটার সেঞ্ছুরী পূর্ণ হয়। কিন্তু স্যার আর শেষ সময়ে কাউকে মারতে রাজী না। desperate নাসিমের স্বপ্ন অবশ্য পূরন হয়েছিল। স্যারের সামনে দাড়িয়ে উচ্চস্বরে স্যারের নিকনেম ধরে ডাকার শাস্তি স্বরুপ যখন পশ্চাৎদেশে প্রহার শুরু হল, পুরো ফর্ম উচ্চশব্দে কাউন্ট ডাউন করলো, ৯৬, ৯৭, ৯৮, ৯৯, ১০০ তালিয়াআআআআআআআ।

২,৫৮৭ বার দেখা হয়েছে

৩৭ টি মন্তব্য : “পাগলা জহির স্যারের গল্প”

  1. রাকেশ (৯৪-০০)

    জহির স্যারকে আমরা প্রথম পাই, সমারসেট মমের নাম থেকে তার নাম হল মগাম। চিরকুমার এউ স্যার প্রথমে এই সেই বলতে বলতে স্বীকার করলেন ঐস্বরীয়া কে বিয়ে করতে চান, এ ছাড়া আর কাউকে না।

    আমাদের ইমরান কোন এক মিডটার্মের সময় হাসপাতালে, ইতিহাস পরীক্ষার খাতা হাসপাতালে পৌছায়ে দেয়া হল। তো একাডেমীতে আমাদের সব খাতা জমা নেয়ার পর স্যার যাওয়ার পথে ইমরানের খাতা নিয়ে যাবেন, এরকমই কথা ছিল। সম্ববত রামমোহন রায়ের চরিত্র অঙ্কন করার কোন একটা প্রশ্ন ছিল, তো বেচারা ইমরান এতক্ষন ধরে কি পরীক্ষা দিবে। বই খুলে সব খাতায় তোলার পর মনে হল আরো সময় আছে, তাই রামমোহন রায়ের ছবিটাও ছাপা দিয়ে দিল।

    দেখা গেল ইমরান হাইস্ট মার্ক ওই টার্মে, চরিত্র অঙ্কনের কোন প্রশ্নে স্যার নাকি প্রথম দেখলেন কেউ হুবহু আর অনেক সুন্দর করে ছবি আকতে পারে !

    জবাব দিন
  2. নাফিজ (০৩-০৯)

    আমরা যখন এসএসসি ক্যান্ডিডেট তখন অ্যাকাডেমীতে ১২, ১১ আর আমরা বসতাম সিনিয়র ব্লকে আর বাকীরা জুনিয়র ব্লকে।স্যার একদিন সিনিয়র ব্লকে নাইট প্রেপে ফর্মে ঢুকে বললেন “ক্লাস এইটের ফর্মটা কোথায় ?” পিছন থেকে কেউ একজন উত্তর দিলো, “স্যার, পাশের রুমে।” আর কথা না বলে স্যার হাঁটা শুরু করলেন সেদিকে।
    আমাদের ফর্মের সেই পাশে একমাত্র ছিলো সিনিয়র টয়লেটটাই, যেটা স্যার মাত্র তক্ষুনি সিঁড়ি দিয়ে ওঠার সময় পার হয়ে এসেছেন ।
    :boss:


    আলোর দিকে তাকাও, ভোগ করো এর রূপ। চক্ষু বোজো এবং আবার দ্যাখো। প্রথমেই তুমি যা দেখেছিলে তা আর নেই,এর পর তুমি যা দেখবে, তা এখনও হয়ে ওঠেনি।

    জবাব দিন
  3. মশিউর (২০০২-২০০৮)

    একদিন সকালে পিটির ফলিনে যাওয়ার আগে আমাদের সবাই ভীড় করলো হাউস অফিসের পাশে এনডিএম রুমে । কাহিনী আর কিছু না জহির স্যার মেঝেতে কম্বল মুড়ি দিয়া ঘুমাইতেছে ।

    জবাব দিন
  4. মোর্শেদ (৯৮-০৪প.ক.ক)

    আমাদের মফিজুর স্যার কে প্রেপ টাইমে ডাক দিল "জহির come here" স্যার ওর কাছে আসল। মফিজুর বলল স্যার ছেলেরা বেয়াদব হয়ে গেছে।আপনাকে নাম ধরে ডাকে। স্যার জিজ্ঞেস করল কে ডাকে? মেহেদি বলে দিল স্যার আই মাত্র মফিজুর ডাকল।তারপর ACTION. (সম্পাদিত)


    মোর্শেদ_(৯৮-০৪)পাবনা ক্যাডেট কলেজ

    জবাব দিন
  5. হাবিব

    😀 😀 😀 ভাষা আন্দোলনের ইতিহাসের বর্ণনার যায়গায় ইলিয়াস কাঞ্চন ও দিতির বাংলা সিনেমার কাহিনীর সারমর্ম তুলে দিয়ে কেউ একজন ইতিহাসে হাইয়েস্ট নাম্বার পেল :)) :)) :)) =)) =)) =)) ।

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।