ফেসবুকের মানুষগুলো (পর্ব-১)

অফিসে ঢুকেই মহিউদ্দিন আহমেদের মেজাজ খারাপ হয়ে গেলো। ৮ টা ৫০ বাজে। পুরা অফিস খাঁ খাঁ করছে। এমনি রাতে ভাল ঘুম হয়নি। এই খালি অফিস দেখে তার মেজাজ আরো চড়ে গেলো। অফিসে ঢুকার টাইম ৯ টায় । ১০ মিনিট এর রিলাক্স টাইম দেয়া আছে। সবাই হিসাব করে ৯ টা ১০ এই ঢুকবে! মাসে ৩ দিন লেট এলাউড আছে। ঐ সুযোগও নিবে! “রাবিশ! আমি হেড অফ সিকিউরিটিজ হয়ে সময়মতো চলে আসি, বাকিরা কেন পারবে না”- আরো মেজাজ চড়ে যায় মহিউদ্দিন সাহেব এর।

গ্রীন ডেল্টা ইনশিউরেন্স কোম্পানির নির্ধারিত কক্ষে ঢুকেন তিনি। এসিটা ছেড়ে নিজের চেয়ারে বসে পড়েন।কিছুক্ষন চোখ বুজে একটু রাগটা কমানোর চেষ্টা করতে থাকেন। “নাহ, চা লাগবে।” বেল চেপে পিয়ন ছেলেটাকে ডাকেন।”যা, গ্রীন টি নিয়ে আয়”। একেকদিন একেকরকম চা খাওয়ার অভ্যাস তার। কোনদিন দুধ দেয়া চা, কোন দিন লেবু চা। পিয়নকে আগে থেকেই বলে দেয়া সব উপকরণ রেডি রাখার জন্য। ছেলেটা কাজের আছে।

সিসিটিভির মনিটরটা অন করেন। সব ঠিকঠাক আছে কিনা দেখে নেন তিনি। গতকাল সন্ধ্যায় টাইম পিছিয়ে দেখে নেন কোন অস্বাভাবিক কিছু ঘটলো কিনা। লিফটের সামনের সিসিটিভি ক্যামেরাটার দিকে তার বেশি আকর্ষণ। অফিসের নিচের তলায় একটা রেস্টুরেন্ট আছে। মাঝে মাঝেই দুই একটা কাপল উপরে চলে আসে অন্ধকারে। সিসিটিভি ক্যামেরায় এমন কয়েকটা ঘটনা তিনি দেখেছেন। না, গতকাল এমন কিছু দেখলেন না। একটু যেন আশাহত হলেন।

পিসিটা অন করে ফেসবুকে লগিন করেন তিনি। ২০ টা নোটিফিকেশন, ৮ টা মেসেজ।মেসেজটা আগে চেক করতে গিয়ে তার মেজাজ আরো চড়ে যায়। এক সদ্য কলেজ থেকে বের হওয়া ক্যাডেট মেসেজ দিয়েছে, “ভাই, সালাম। আপনার নাম ক্যামেলিয়া কেন? “- তার পুরা নাম মহিউদ্দিন আহমেদ ক্যামেলিয়া -এটা তে মানুষের এতো চুলকায় কেন! “কলেজ থেকে এই বছর বের হইসে মাত্র। আর আমি সিলেট ক্যাডেট কলেজ এর দ্বিতীয় ব্যাচ এর কলেজ প্রিফেক্ট, আমাকে এই প্রশ্ন করার সাহস পায় কিভাবে!! আমি কি আবুল হোসেনরে গিয়ে জিগাই, তোর নাম আবুল কেন? ক্যামেলিয়া একটা সুন্দর ফুল। যেই ফুলকে নিয়ে কবি শামসুর রাহমান কবিতা লিখসে, জেমস ঐ কবিতাকে গান বানাইসে”-
“ক্যামেলিয়া হাতে এই সন্ধ্যায়, ভালোবেসে যত খুশি বলতে পারো ও ফুল আমার…”

কত সুন্দর একটা নাম। অবশ্য এই নামে একটা শাহবাগী ব্লগার আছে, মেয়ে ব্লগার। “নামটাই নষ্ট করে দিলো শাহবাগীরা, ধুর।” মেসেজটা রিপ্লাই না করে রেখে দেন তিনি।

“স্যার আপনার চা”-পিয়নের কথায় পিসি থেকে মাথা সরান তিনি। চা টা নিয়ে এক চুমুক দেন। মুহূর্তেই তার সব রাগ তরল হয়ে যায়। মনটা বেশ ফুরফুরা লাগে। কিছুক্ষন চোখ বন্ধ করে চায়ের স্বাদ নেন তিনি। সিদ্ধান্ত নেন কাপ নেয়ার সময় পিয়ন কে ১০ টাকা দিবেন। এই কাজটাও প্রায় করেন তিনি, এতে চা টা যত্ন নিয়ে বানায় ওরা। পকেট থেকে মার্লবরোর প্যাকেট হতে একটা সিগারেট বের করে তাতে আগুন ধরান তিনি। চায়ের জন্য তার ভিন্ন রুচি থাকলেও সিগারেট এর ক্ষেত্রে ব্র্যান্ড একটাই, মার্লবরো। দিনে ৮০ টার বেশি সিগারেট খান না।চা খেতে খেতেই মনে একটা স্ট্যাটাস চলে আসে তার, কাপ টা একটু রেখে ফেসবুকের স্ট্যাটাস টা আপডেট করে নেন, “প্রেম হওয়ার পর একমাত্র প্রেমিকা যাকে কোনদিন চুমু খেতে ভুলিনি, যার চুমু তে আমি চাঙ্গা হয়ে উঠি-সে হলো চা। হা হা হা। গুড মর্নিং ঢাকা”।

**********************************

(সিসিবি তে প্রথম কোন লেখা দিচ্ছি।  ফেসবুকে বেশি সময় বিচরণ করেন এমন মানুষগুলোকে নিয়ে সম্প্রতি নিজের মতো করে অনুগল্প লেখার চেষ্টা করছি। এটা ৩য় গল্প। সিলেট ক্যাডেট কলেজ এর মহিউদ্দিন আহমেদ ক্যামেলিয়া ভাইকে নিয়ে লেখা। ব্লগ আকারে এটাকেই প্রথম দিলাম। জানি না ব্লগ এর উপযুক্ত লেখা হয়েছে কিনা, সবার আলোচনা- সমালোচনা সাদরে গ্রহণযোগ্য 🙂   )

২,২৯১ বার দেখা হয়েছে

৩২ টি মন্তব্য : “ফেসবুকের মানুষগুলো (পর্ব-১)”

  1. আহসান আকাশ (৯৬-০২)

    ব্লগে স্বাগতম ইয়েন, লেখা ভাল লেগেছে। আরো লেখার অপেক্ষায় থাকলাম।

    হ্যাপি ব্লগিং 🙂


    আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
    আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

    জবাব দিন
  2. সামিউল(২০০৪-১০)

    ভাল্লাগছে ভাই। আপনার ছোট খাটো কিছু ছড়া পড়েছি ফেসবুকের একটা গ্রুপে। আপনি সুন্দর লেখেন,

    ব্লগে স্বাগতম


    ... কে হায় হৃদয় খুঁড়ে বেদনা জাগাতে ভালবাসে!

    জবাব দিন
  3. রাজীব (১৯৯০-১৯৯৬)
    মাঝে মাঝেই দুই একটা কাপল উপরে চলে আসে অন্ধকারে। সিসিটিভি ক্যামেরায় এমন কয়েকটা ঘটনা তিনি দেখেছেন। না, গতকাল এমন কিছু দেখলেন না। একটু যেন আশাহত হলেন।

    B-)


    এখনো বিষের পেয়ালা ঠোঁটের সামনে তুলে ধরা হয় নি, তুমি কথা বলো। (১২০) - হুমায়ুন আজাদ

    জবাব দিন
  4. রাজীব (১৯৯০-১৯৯৬)
    “নামটাই নষ্ট করে দিলো শাহবাগীরা, ধুর।”

    এই কথা ক্যামেলিয়া ভাই বলতে পারে।
    তার সাথে যায়।


    এখনো বিষের পেয়ালা ঠোঁটের সামনে তুলে ধরা হয় নি, তুমি কথা বলো। (১২০) - হুমায়ুন আজাদ

    জবাব দিন
  5. রাজীব (১৯৯০-১৯৯৬)

    লেখা ভালো হইছে।
    ব্লগে স্বাগতম।

    ফেসবুকের ঐ মানুষগুলা কি ওকে তোমার লেখা নিয়া?
    তাইলে ক্যারি অন।


    এখনো বিষের পেয়ালা ঠোঁটের সামনে তুলে ধরা হয় নি, তুমি কথা বলো। (১২০) - হুমায়ুন আজাদ

    জবাব দিন
  6. শাহরিয়ার (০৬-১২)

    ব্লগে স্বাগতম ভাইয়া। লেখা কড়া হইছে। (সম্পাদিত)


    • জ্ঞান যেখানে সীমাবদ্ধ, বুদ্ধি সেখানে আড়ষ্ট, মুক্তি সেখানে অসম্ভব - শিখা (মুসলিম সাহিত্য সমাজ) •

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।