ক্যাডেট নামচা-BCC-১৯৮৬-৯২ (পর্ব-২)

টিচার এর নাম উল্লেখ করে এই ব্লগ এর নিয়মাবলী লঙ্ঘন হবে কিনা জানিনা, তবে নামটা বলছি এই জন্যে যে নাম উল্লেখ না করলে হয়তো ঘটনার রস আস্বাদনে কিঞ্চিত ব্যাঘাত ঘটবে; তাই ব্লগ এর নীতিমালা ক্ষনিকের জন্যে ভুলে যাচ্ছি। তিনি ছিলেন আমাদের রেজাউল করিম স্যার। স্যার তখন Political Science এর প্রভাষক। এখন উনি পাবনা ক্যাডেট কলেজ এর কোনও এক হাউসের হাউস মাস্টার, মজার ব্যাপার হইলো- আমাদের Mobashwer এখন পাবনার adjutant. যাই হউক স্যার এর কিছু বিশেষ বৈশিষ্ট ছিল-ওনার হাতে বেশীর ভাগ সময় যে কোনও একটা গাছের ডাল থাকতো, এবং সেই ডালের মাথায় অবশ্যই দুই চারটা গাছের পাতাও থাকতো। ওনার আরও একটা ব্যাপার ছিল, যে কোনও কথা উনি বাংলায় বললে আবার সাথে সাথে ইংরেজীতে তরজমা করে দিতেন; আবার উল্টোটাও করতেন- প্রথমে ইংলিশ তারপর বাংলায় অনুবাদ। উঠতে-বসতে আমরা Civic Sense সংক্রান্ত স্যারের বিশাল জ্ঞান ভান্ডার এর ছিটে-ফোটা পেয়ে ধন্য হতাম। স্যার এর ধারনা ছিল Civic Sense নামের বস্তুটা ক্যাডেটদের মাঝে অনুপস্থিত।

তখন আমরা সবেমাত্র ক্যাডেট কলেজ এর নবাগত অতিথি-সপ্তম শ্রেনীর নান্না-মুন্না, পেয়ারাসা বাচ্চা । First Evening Prep. একাডেমি ব্লক এ ক্লাস এ যেয়ে Self Study র নতুন ধারার সাথে নিজেকে খাপ খাওয়ানোর চেষ্টা করছি। আমাদের ব্লক এ Prep. Guard দিচ্ছেন শ্রদ্ধেয় রেজাউল করিম স্যার। যথারীতি হাতে তার সেই গাছের ডাল অবশ্যই পাতা সমেত। Duty র এক পর্যায়ে তিনি খেয়াল করলেন, আমাদের প্রথম Form Prefect এর ডেস্ক অনেকক্ষন ধরে খালি। উনি ক্লাস এ ঢুকে প্রশ্ন করলেন – “এই সেলেটা (স্যার এভাবেই উচ্চারণ করতেন) কোথায় গ্যাসে? Where this boy has gone?” প্রশ্নটা সবার দিকে ছুড়ে দেয়ায় আমরা এ ওর মুখ চাওয়া-চাওয়ি করছি। স্যার আবার একই প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করলেন- আচমকা পেছন থেকে একজন বলে উঠলো- “স্যার পায়খানায় গেসে” (বেচারা আলম তখনো ক্যাডেট কলেজের পরিভাষায় অভ্যস্ত হয়ে ওঠেনি)। স্যার তার ডাল উচিয়ে রাগত ভঙ্গিতে বললেন- “কে কে বললো এই কথাটা? Who has said this? ব্যাটা এক্ষুনি দাড়া। Stand-up right now. সত্যি কথা বললে আমি কিসুই বলবোনা।” পুরো ক্লাস ইতি-উতি তাকাচ্ছে। যাই হোক আমাদের আলম অবশেষে উঠে দাঁড়িয়ে বললো- “স্যার আমি” । স্যার বললেন, “ব্যাটা আমি জানতাম এই কথাটা তোর পক্ষেই বলা সম্ভব। I knew, only you could say such kind of words. তোদের কোনও Civic Sense নাই। You have no civic sense.” বলে তার হাতের ডাল দিয়ে ২/১ ঘা লাগিয়ে দিলেন। শেষমেষ সগতোক্তি করতে করত হেটে গেলেন- “These are cadets and they take special dinner; এরাও ক্যাডেট এরাও আবার পোলাও খায় ।”

সৈয়দ শফি

বরিশাল ক্যাডেট কলেজ (১৯৮৬-৯২)

৫৭৩ বার দেখা হয়েছে

৬ টি মন্তব্য : “ক্যাডেট নামচা-BCC-১৯৮৬-৯২ (পর্ব-২)”

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।