একটি COMMON SENSE

আমি এটা বলছিনা যে আমি খুবই ধার্মিক। আবার এটাও বলছিনা যে আমি বর্তমান যুগের খুব কমন ফ্যাশনটাকে আঁকড়ে ধরেছি (নাস্তিকতা)। কিন্তু কিছু ব্যাপার আছে যেসব আমাদের মুসলমান হিসেবে হোক বা মানবিক চক্ষুলজ্জা, বিবেকবোধ থেকে হোক মেনে চলা উচিত। আজ ঈদ্ গাহে গিয়ে যা হয়েছে যদি সেটাকে উদাহরন হিসেবে ধরি………

ইমাম সাহেব খুব সুন্দর খুতবা দিলেন, এই দিনের তাৎপর্যও বললেন ভালই। কিন্তু এত বড় আলেম হয়ার পরেও তোষামোদ করা শুরু করলেন কোন জেলা প্রশাসক না কি যেন শহরের মেয়রের। আমি বুঝিনা আল্লাহ র ঘর, হাজারের উপর মানুষ আবার একজন ইমাম যে কিনা বয়সে ঐ দুই (ইমাম সাহেব যাদের বলছিলেন জেলার সর্বশ্রেষ্ঠ মানুষ) জনের চেয়ে বড়; সে কিভাবে আল্লাহ ছাড়া আর কারো তোষামোদ করে এই ঈদের দিনে নামাযের আগে।

আমাদের বুঝতে হবে, মসজিদ-ঈদগাহ এইসব হল আল্লাহর ঘর যেখানে at least এইসব নগ্ন তোষামোদি করা উচিত না। সারা মাস রোযা রাখলাম, নামায পরলাম আর জায়গা মত এসে এই বেহায়া পোনা করলাম …।। এটা কিরকম যৌক্তিকতা। আর বাকি কি কি বলছে তা না হয় না ই বললাম, কিন্তু পাঠকগণ এটা নিশ্চিত থাকুন যে যা বলেছে আমার গা জ্বলছিল, আমার তো ওখানে নামায না পড়ে অন্য কোথাও চলে যেতে ইচ্ছা করছিল। এটা তো ছিল একটা মাত্র। ……।। বিভিন্ন জায়গাতে দেখা যায় মসজিদে প্রথম লাইনে জায়গা ফকোথাও চলে যেতে ইচ্ছা করছিল।

এটা তো ছিল একটা মাত্র। ……।। বিভিন্ন জায়গাতে দেখা যায় মসজিদে প্রথম লাইনে জায়গা ফাকা রাখা হয়েছে। যা কিনা গাখা হয়েছে। যা কিনা গন্য মান্য ব্যক্তিদের জন্য। আরে আল্লাহ তাআলার গন্য মান্য ব্যক্তিদের জন্য। আরে আল্লাহ তাআলার ঘর যে আগে মসজিদে আসবে সে ই তো সবচেয়ে বিশিষ্ট ব্যক্তি। আর যেখানে হোক অন্তত মসজিদে আমাদের এরুপ কাজ করা উচিত না। মসজিদ তো এমন ই একটা জায়গা যেখানে ধনী-গরিব, আমলা-শ্রমিক আলাদা হয়না বা হবেনা। তো আমরা কেন এভাবে শ্রেণীবিভেদ করছি। পাঠকগণ…।। আপনাদের কাছে আমার একটাই অনুরধ থাকবে— জীবনে অনেক বড় জায়গাতে জাবেন আপনারা …। Please…request থাকলো…। এমন অনুচিত সম্মান নিবেন না বা সামরথে থাকলে অপরকেও বাধা দিবেন। মসজিদ ই তো একমাত্র জায়গা যেখানে এক আল্লাহর বান্দা ছাড়া আমাদের অন্য কোন পরিচয় নেই।

৮৮৭ বার দেখা হয়েছে

১৭ টি মন্তব্য : “একটি COMMON SENSE”

  1. আজিজুল (১৯৭২-১৯৭৮)

    আমি সাকিব এর সাথে সম্পূর্ণ একাত্বতা পোষণ করছি। এই নোংরামি আমারো নজরে এসেছে। এ ব্যপারে ইমামদের সাথে সংগোপনে আলাপ করে মৌওক্ষিক ভদ্র ভাবে ধোলাই দেয়া উচিত !


    Smile n live, help let others do!

    জবাব দিন
  2. আনোয়ারুল হক তারিক (১৯৬৯-১৯৭৫)

    বেতন ভুক্ত ইমাম রাখলে এটাই ত হবে । শেরেকি কত ভাবে হ্য় । তাই রবীন্দ্রনাথ লিখলেন " রথ যাত্রা - - - লোকারন্ন মহা ধুমধাম - - হাসে অন্তর্যামী ।

    জবাব দিন
  3. রাজীব (১৯৯০-১৯৯৬)

    কলেজে থাকতে প্রিন্সিপাল তো পরে আইসাও ইমামের পিছনে দাঁড়াইয়া সালাত আদায় করতো।
    আর বর্তমানের ফ্যাশন নাস্তিকতা নাকি?
    অবাক হইলাম।
    চারপাশে সবাই তো ধর্মের দাওয়াত দিয়া বেড়াইতেছে।


    এখনো বিষের পেয়ালা ঠোঁটের সামনে তুলে ধরা হয় নি, তুমি কথা বলো। (১২০) - হুমায়ুন আজাদ

    জবাব দিন
  4. রাব্বী (৯২-৯৮)
    মসজিদ তো এমন ই একটা জায়গা যেখানে ধনী-গরিব, আমলা-শ্রমিক আলাদা হয়না বা হবেনা

    আমো তাই জানতাম। কিন্তু বাস্তবতা কঠিন - কাজীর গরু, কিতাবে আছে, গোয়ালে নাই। সত্য যে কঠিন, কঠিনেরে ভালবাসিলাম।


    আমার বন্ধুয়া বিহনে

    জবাব দিন
  5. সাকিব (২০০২-২০০৮)

    "নাস্তিকতা বর্তমান যুগের ফ্যাশন"?????????
    বিগত ২০০০ বছর ধরে আস্তিকতা জ্বালাও পোড়াও করে যে "ফ্যাশন" এর উদাহরণ দেখিয়েছে, সেটার চাইতে কি নাস্তিকতা ভালো না? আপনার কথার মাধ্যমেই বোঝা যায়, আস্তিকরা কতটা সহনশীল।

    জবাব দিন
    • সাকিব (২০০০-২০০৬)

      হুম! বাইরে " আমি নাস্তিক আমি নাস্তিক বল আর দেয়ালে পিঠ ঠেকলে ঠিক ই লাইনে আসো।
      ২০০০বছরের যে কথা বল্লা ভাই...।।--- আস্তিকতা সত্য বলেই সেসব দেখতে পেয়েছ।
      ফ্যাশন নিয়ে তো আর মানুষ এমন করে না।

      জবাব দিন
      • সাকিব (২০০২-২০০৮)

        ভাইয়া, দেয়ালে পিঠ ঠেকলেই আপনারা গ্যালিলিওকে আটকে রাখেন, ব্রুনোকে পুড়িয়ে মারেন, বিমান নিয়ে নিরীহ মানুষ মারেন, আর আত্নত্যাগী অনেক বিজ্ঞানীর বহু বছরের অবদান আপনাদের জাকির নায়েক অস্বীকার করে পাঁচ মিনিটের ঝাড়া মিথ্যা কথা দিয়ে।
        যাই হোক, আমি যেটা বোঝাতে চেয়েছি, তা হল, আপনি একদল মানুষকে ইঙ্গিত করে হেয় করবার চেষ্টা করেছেন। আপনার যদি নাস্তিকদের প্রতি আক্রোশ থাকে, তাহলে হয়ত অন্য ধর্মের লোকদের প্রতিও সে ধরনের মনোভাব থাকতে পারে, যা আজকের দিনের বিজ্ঞান্মনস্ক কারো কাছ থেকে আশা করা যায় না।

        জবাব দিন
        • সাকিব (২০০০-২০০৬)

          এইখানেই তো কথা ভাই।
          ইতিহাস জুড়ে থাকা যেসব ঘটনার কথা বললেন তার সাথে ধরমের কি দোষ!!!!
          কোপার্নিকাস,গ্যালিলিও,ব্রুনো র প্রতি অবিচার তো কোন ধর্মের সাথে কিছু ছিলনা। সেই সব ছিল শক্তি- প্রতিপত্তি (এক কোথায় যাকে আমরা power বলি) র সাথে reality র conflict.

          কোপার্নিকাস,গ্যালিলিও,ব্রুনো থেকে শুরু করে কাজী নজরুল,লালন এমনকী ইবনে সিনার ব্যাপার যদি বলেন…… মানুস সব সময় সহজ- সুবিধাময় পথ খোঁজে । আর স্বাভাবিকের বাইরের কিছুই তার কাছে থাকে interesting. তাই সেই সব ভাবুক দের প্রতি আকৃষ্ট হয়। বেশি বলতে গেলে অনেক ভাবে বলা যায়।

          আর সবচেয়ে important কথা টা হল—- ইহুদি থেকে খ্রিষ্টান…খ্রিষ্টান থেকে ইসলাম…।। মহাল আল্লাহ তাআলা যেসব ধর্ম আমাদের জন্য দিয়েছেন সেই সব ধর্মের কোন ভুল ছিল না ……।। সমস্যা সরবদা আমাদের মানুসের। আমরাই নিজেদের সুবিধার কারনে ধর্মকে নিজের মত করে সাজিয়ে নিয়েছি।

          আর শেষ এবং সারবজনিন ধর্ম ইসলাম যখন এসেছে তখন…। তাকে change করতে না পেরে নাস্তিক নামক ফ্যাশনকে আকড়ে ধরেছি।
          আর নাস্তিকতার ইতিহাসের কথা যদি বলেন তবুও তাইই।
          আমাদের সাজিইয়ে নেয়া ধর্ম যখন আসল ধর্ম গুলোকে ম্লান করেছে তখনি সেই সব কোপার্নিকাস,গ্যালিলিও রা নাস্তিক হতে চেয়েছে।
          আর আসুন আক্ষরিক অর্থে শিক্ষিত কথা টায়।
          আপনি জীবন যুদ্ধে সংগ্রাম করা কোন অশিক্ষিত দিনমজুর এর কথা একবার ও শুনবেন না। পাত্তাই দিবেন না।
          কিন্তু ভাবুক গান গাওয়া লালন আর কবি নজরুল এর মত অশিক্ষিত (হুম বুঝলাম বিখ্যাত) মানুস —– কি lecture দিয়ে গেছে তা বিশ্বাস করে এক আল্লাহ র কথা অস্বীকার করবেন তাহলে তো চল্বেনা।

          জবাব দিন
          • সাকিব (২০০২-২০০৮)

            ভাইয়া, আপনি প্রথমে নাস্তিকতা কে "এ যুগের ফ্যাশন" বলে দাবী করলেন, এবার তাচ্ছিল্য করলেন নজরুল লালনদের। আমার মত অভাজনের এই মন্তব্য পড়বেন কিনা, তাতেই সন্দেহ লাগছে।
            গ্যালিলিও, কোপার্নিকাস আর ব্রুনোদের সম্পর্কে আপনি সম্পূর্ণ নতুন একটি তত্ত্ব দাঁড় করিয়েছেন, আপনি বলছেন, তাদের পরিণতির কারণ, শক্তি আর বাস্তবতার দ্বন্দ্ব। সম্ভবত আপনি চার্চের শক্তির কথাই বলছেন, যাদের কিনা পুরো শক্তিটাই দেয়া হয়েছে ধর্মের দোহাই দিয়ে। ধর্মগ্রন্থের বিপরীতের বাস্তবতাকে মেনে নিতে না পারার সংকীর্ণতা সেদিন যেমন ছিল, আজ আছে। সেদিন তারা চেয়েছিল সূর্যকে পৃথিবীর চারপাশে ঘোরাতে, আজ তারা চায় ডারউইনকে ভুল প্রমাণ করে বিবর্তনবাদ উড়িয়ে দিতে। হয়ত কোন একদিন আস্তিকরা বিবর্তনবাদ মেনে নেবে, যেমনটাআজ মেনে নিয়েছে সূর্যকে সৌরজগতের কেন্দ্রে বসিয়ে, কিন্তু তাদের দম্ভ রয়েই যাবে, যে দম্ভ দিয়ে বিজ্ঞানের খেয়ে পরে বিজ্ঞান কে গালি দিতেই থাকবে।
            আল্লাহর পাঠানো সব ধর্ম মানুষ পরিবর্তন করেছে, তাতেই জগতে সমস্যা। আচ্ছা, আল্লাহ কেন শুধুমাত্র ইসলামকে রক্ষা করবার প্রতিশ্রুতি দিলেন, অন্য ধর্মগুলোকে কেন নয়? কেন কুরানকেই শুধুমাত্র অবিকৃত রাখার অঙ্গিকার করলেন, বাইবেল কিংবা তাওরাতকে নয়? তাতে কি ৫৭০ খৃষ্টাব্দের আগে বসবাস করা মানুষদের প্রতি অবিচার হল না, যারা কিনা সত্য কুরানের আলো থেকে বঞ্চিত হল? আল্লাহ যদি বাইবেল কিংবা তাওরাতকেই রক্ষার প্রতিশ্রুতি দিতেন তাহলে হয়তবা ওহুদ, বদর, খন্দক আর হালের টুইন টাওয়ারের নিরপরাধ মানুষদের জীবন দিতে হত না।
            অশিক্ষিত দিনমজুরদের কথা বলছেন? প্রতিটি ধর্মযুদ্ধে এরাই নির্মমতার স্বীকার। রিকশাওয়ালারাই রোযা না রাখার দায়ে হয় মহাপাপের ভাগী, আর ধনীরা রোজার আগেপরে খাবার খেয়ে দোজাহানের সওয়াব হাসিল করে। মুহাম্মদ কিংবা জেসাস দাস প্রথাকে উচ্ছেদ করেন নি, কোন ধর্মেই আপনার তথাকথিত "মজুর" দের দর্শনকে গুরুত্ব দেয় নি। দিয়েছে নজরুল, লালনেরাই।
            যাই হোক, আশা করব নজরুল আর লালনের "লেকচারে" কিছুটা নজর দেবার সময় পরবর্তিতে পাবেন।

            জবাব দিন
            • সাকিব (২০০০-২০০৬)

              ভাই তুমি চার্চের শক্তির যে কথা বলছ সেটা কি ধর্মের দোষ নাকি আমরাই ধর্মের দহায় দিয়ে ঐ সব করেছি!!!! কারো reference দিয়ে খারাপ কাজ করলেই তো আর সে খারাপ হয়ে যায় না!!!! আর একটু study korlei দেখতে পাবে কুরানে কখনই বলে নি যে গ্যালিলিও মিত্থা ছিল।
              কেন এত ধর্ম দেয়া হয়েছে তা আল্লাহ ই ভাল বোঝেন, বলেই তিনি সারা দুনিয়ার মালিক।এতাই তো আমাদের জন্য পরিক্ষা ঠিক না!!!!
              কোন দুরঘটনা ঘটলে ঠিকই বল "OMG" or ALLAH.... আর কাগজ আর চা এর দোকানের lecture a বল ইসলাম ধর্ম নট ট্রু। হাহ!!!!!
              আর ৫৭০ সাল এর আগেও মানুসের জন্য অন্য ধর্ম ছিল।
              আর টুইন টাওয়ারের নিরপরাধ মানুষ!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!!! তুমি কতটুকু জানো যে কে নিরপরাধ আর কার রোজা কবুল হয় আর কার হয়না ????????????????
              আর তোমার টুইন টাওয়ারের নিরপরাধ মানুষ গুলোর ম্রিত্তুর দায়ভার কেন ইসলাম কে দিচ্ছ?????????? ঐ সব ও কি আমাদের মত মানুসের পাপের কাজ এর ফলাফল নয়?????? এক জন এর দোষ আর একজন কে কেন দাও ভাই...।।
              অশিক্ষিত দিনমজুরদের কথা টা তুমি বঝনি। আমি বলসি তুমি অশিক্ষিত দিনমজুরদের পাত্তা দাও না কারণ তারা কোন ভাবের গান লিখে বা ৮-১০ ক্লাস পাশ করে কবিতা লিখেনি ...।। আর লালন ভাবের গান গিয়েছে আর নজরুল কবিতা লিখছে যা তমাদের সুবিধা করে দিয়েছে তাই তাদের বিশ্বাস করে ধর্মকে উপেক্ষা করে বসে আছ!!!!!!!!!!!!!!!!!!!! - মানুস সভ্য এক দিনে হয়নি দিনে দিনে বছরে বছরে হয়েছে তবু আজও যদি কুরান পড়ে হাদিস পড়ে দেখ ---- কোনটা খারাপ কাজ -- কোনটা ভাল কাজ --- কার সাথে কি ব্যবহার ---- কি কি হারাম--- কি কি হালাল তা লিখা পেয়ে যাবে।
              তমাদের কোন নাস্তিক বিজ্ঞানি বলেছে মিত্থা বলতে বল??????
              কে বলেছে মদ খাওয়া ভাল?????? এই সব জিনিস ধরমে নিষেধ করা আছে ।
              ধর্ম ভাল মতমেনে চললে সব ই ঠিক থাকে। ধর্মকে আল্লাহ উপেক্ষা করার কিছু নাই। কি নামাজ পরতে ইচ্ছা করে না ??? রোজা করতে কষ্ট হয়??? যাকাত দিতে চাও না???? সব ভাল কাজ করার পাশাপাশি just ইসলাম এ কিছু দায়িত্ব দেয়া আছে তা তমাদের পালন করতে ভাল লাগে না -- বোঝা মনে হয় তাই ......।। এই সব ফালতু উদাহরন টেনে নাস্তিক হয়ে বসে আছ যার ফলে যা ইচ্ছা করতে পার guilty feelings আসে না। তুমিই বল যে উদাহরন গুলো দিয়েছ সেসব এর year gap কত?????? যে ঘটনা গুলোর কথা বলছ তার ratio সারা বিশ্বের সব ঘটনার ratio কত? ?????
              ্যদি তরকের কারনে তরক না করে neutrally দেখ ...... তাহলে সব কিছুরি উদাহরন নিজেকে দেখলেই পাবে............ তুমি যেমন নিজের সুবিধার কারনে সব কিছুকে সাজিয়ে নিয়েছ নিজেকে বুঝিয়ে নিয়েছ ......। ঠিক তেমনি সব খারাপ কাজ যার দোষ তুমি ধর্মকে দিচ্ছ...। ঐ খারাপ কাজ গুলতে কিছু মানুসের যখন ক্ষতি হয়েছে অন্য কিছু মানুসের সুবিধা হয়েছে আর শক্তিশালি মানুসেরা নিজেদের সুবিধার জন্য ই কাজ গুলো করেছে ............... দাস প্রথা তার ই একটা উদাহরন.........।। আর ইসলাম এ দাস দের সাথে যে রুপ আচরন করতে বলা হয়েছে সেরুপ করলে ...। দাস দের অবস্থা আজ কাল কার চাকুরিজিবিরা যেরুপ ভাল খায় , ভাল বেতন পায় আর ভাল পড়ে ঠিক সেরুপ বা তার চেয়ে ভাল হত বইকি খারাপ হত না।

              জবাব দিন
  6. আসিফ খান (১৯৯৪-২০০০)

    সাকিব@ "আবার এটাও বলছিনা যে আমি বর্তমান যুগের খুব কমন ফ্যাশনটাকে আঁকড়ে ধরেছি (নাস্তিকতা)"। এই মন্তব্যটা আমার কাছে বেশ আপত্তিকর মনে হয়েছে। পৃথিবীর ইতিহাসের হাজার হাজার পৃষ্ঠা জুড়ে প্রমান পাওয়া যায় যে ধর্মের নামে মানবতাকে শূলে চড়ানো হয়েছে। প্রতিটি যুগে সকল প্রগতিশীল মানুষকে নিপীড়নের ক্ষেত্রে ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানগুলি ছিল খড়গহস্ত। কোপার্নিকাস,গ্যালিলিও,ব্রুনো থেকে শুরু করে কাজী নজরুল,লালন এমনকী ইবনে সিনার মত মানুষদেরও নাস্তিকতার দায়ে অভিযুক্ত করা হয়েছে। সবচেয়ে বড় কথা হল, অন্ধভাবে আস্তিক হওয়া গেলেও উন্নত নৈতিক ভিত্তি এবং না জেনে নাস্তিক হওয়া অসম্ভব।

    জবাব দিন
    • সাকিব (২০০০-২০০৬)

      এইখানেই তো কথা ভাই।
      ইতিহাস জুড়ে থাকা যেসব ঘটনার কথা বললেন তার সাথে ধরমের কি দোষ!!!!
      কোপার্নিকাস,গ্যালিলিও,ব্রুনো র প্রতি অবিচার তো কোন ধর্মের সাথে কিছু ছিলনা। সেই সব ছিল শক্তি- প্রতিপত্তি (এক কোথায় যাকে আমরা power বলি) র সাথে reality র conflict.

      কোপার্নিকাস,গ্যালিলিও,ব্রুনো থেকে শুরু করে কাজী নজরুল,লালন এমনকী ইবনে সিনার ব্যাপার যদি বলেন...... মানুস সব সময় সহজ- সুবিধাময় পথ খোঁজে । আর স্বাভাবিকের বাইরের কিছুই তার কাছে থাকে interesting. তাই সেই সব ভাবুক দের প্রতি আকৃষ্ট হয়। বেশি বলতে গেলে অনেক ভাবে বলা যায়।

      আর সবচেয়ে important কথা টা হল---- ইহুদি থেকে খ্রিষ্টান...খ্রিষ্টান থেকে ইসলাম...।। মহাল আল্লাহ তাআলা যেসব ধর্ম আমাদের জন্য দিয়েছেন সেই সব ধর্মের কোন ভুল ছিল না ......।। সমস্যা সরবদা আমাদের মানুসের। আমরাই নিজেদের সুবিধার কারনে ধর্মকে নিজের মত করে সাজিয়ে নিয়েছি।

      আর শেষ এবং সারবজনিন ধর্ম ইসলাম যখন এসেছে তখন...। তাকে change করতে না পেরে নাস্তিক নামক ফ্যাশনকে আকড়ে ধরেছি।
      আর নাস্তিকতার ইতিহাসের কথা যদি বলেন তবুও তাইই।
      আমাদের সাজিইয়ে নেয়া ধর্ম যখন আসল ধর্ম গুলোকে ম্লান করেছে তখনি সেই সব কোপার্নিকাস,গ্যালিলিও রা নাস্তিক হতে চেয়েছে।
      আর আসুন আক্ষরিক অর্থে শিক্ষিত কথা টায়।
      আপনি জীবন যুদ্ধে সংগ্রাম করা কোন অশিক্ষিত দিনমজুর এর কথা একবার ও শুনবেন না। পাত্তাই দিবেন না।
      কিন্তু ভাবুক গান গাওয়া লালন আর কবি নজরুল এর মত অশিক্ষিত (হুম বুঝলাম বিখ্যাত) মানুস ----- কি lecture দিয়ে গেছে তা বিশ্বাস করে এক আল্লাহ র কথা অস্বীকার করবেন তাহলে তো চল্বেনা।

      জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।