শুভ জন্মদিন প্রিয় মাজহার ভাই

আমার খোমাখাতা আজকাল বড্ড অসহ্য হয়ে উঠেছে। আমি না থাকলে এই পান্ডুলিপি কে লিখে যাবে? তা নিয়ে ভাবছিনা, বরং আমাকে জ্বালায় বন্ধুতালিকার একজন একজন করে চলে যাওয়া। এ এমনই এক যাত্রা, না ফেরার দেশে যাত্রা। কি এমন বয়স, এভাবে না বলে চলে যাওয়া প্রিয় মানুষগুলো তাই বড্ড জ্বালাতন করছে। কদিন পর পরই খোমাখাতা জানান দিচ্ছে এরা নিষ্ক্রিয়, এদের আবার জাগাও। কে বলে মাজহার ভাই জেগে নেই, আমি দিব্যি তাঁকে দেখি কাটাবন দিয়ে রিকশা করে পিলখানা ফিরছে, আর আমাকে বান্ধবীসহ রিকশায় দেখে টিটকারি হাসি দিচ্ছে। এমনকি জিগাতলায় যাবার জন্য বাইপাস শট-কাট মারার জন্যও তো আপনাকে আমার খুব প্রয়োজন! কই ডুব মারলেন ভাই? আরে একটা আওয়াজ দেন।

কলেজে ছিলেন আমাদের দু’বছরের বড়। আজ আমার মজা লাগছে এই ভেবে আপনার আর বয়স বাড়লনা। আমরা একে একে সবাই আপনাকে বয়সে পেরিয়ে যাব। আপনি সেই মানুষটিই রয়ে গেলেন। বয়স আপনাকে কাবু করতে পারলনা। সত্যি খুব হিংসে হচ্ছে আমার। এমন প্রস্থানে কোন লজ্জা নেই, আছে শুধু গৌরবময় অহংকার। ট্রিগার চাপতে তো অনেকেই জানে কিন্তু বুলেটের সামনে নির্দ্বিধায় বুক পাততে আপনার মত করে কজনই বা শিখেছে বলুন? তাই এমন একটা সাহসী মৃত্যুর জন্য আমি হাজার বছরের প্রার্থনা করি।

বাইশ নম্বর রুমে জিন্নাত, আলদীন আর আমি ঐদিন সত্যি সত্যি মোজার বল দিয়ে দরজার কাঁচ ভেঙ্গেছিলাম। মোজার বলে কাঁচ ভাঙ্গে এটা বোধহয় এখনও আপনি বিশ্বাস করেননা। কিন্তু ভাইয়া এখনও দোহাই দিয়ে বলি, আমরা টেনিস বলে না মোজার বলেই গ্লাস ভেঙ্গেছি।
জিন্নাতকে তো আপনি ভালো করেই চিনেন, ওর পক্ষে এরকম বিচিত্র কিছু করা অসম্ভব নয়। অবশ্য এগুলো এখন আপনাকে কেনই বা বলছি? আপনি আবেগ, অনুভূতি সব ছাড়িয়ে দূরদেশে আশ্রয় নিয়েছেন। এখন খুব মজা করছেন নিশ্চয়। অবশ্য বন্ধুদের ছাড়া আপনি ভালো থাকেন কিভাবে আমার বিশ্বাস করতে কষ্টই হয়। আরে শোনেন সেইদিন কলেজে সবাই ফুটবল খেলতে গিয়েছিলাম। আপনার বন্ধু নাফিজ ভাই এখনও কাউরে ঠিকমত পাস দেয়না। গোটা বিশেক মিস করেছে। বিশ্বাস হচ্ছে না? তাহলে ওনারেই কল করে দেখেন।

আপনি এখন ভালো করেই জানেন, বেঁচে থাকাটা কত আকাংখিত আমাদের কাছে। আমি সারাজীবনই বিশ্বাস করে যাব আপনি আছেন। আর যদি ভূত হয়েও আসেন আমি ভয় পাবনা। আপনাকে ঠিকই টীজ করব। আপনি যতই চোখ রাঙ্গান আমরা আপনাকে নিক নামে ডেকেই যাব। তাতে আবার পুরো ক্লাশ একসাথে সারারাত ধরে পাঙ্গা খেলেও ছাড় দিবনা। অবশ্য কথা অমান্য করার নেশায় পেয়ে বসা আমরা সবাই এখন খুব ভালো হয়ে গেছি! হোসেন আর জিন্নাত তো সেইরকম ভদ্র হয়ে গেছে। বিশ্বাস করেন শাহেদই আপনার কথা সবচেয়ে বেশী বলে। সেদিন কেউ স্বীকার করিনি ,আজ বলি আপনারে ক্ষ্যাপানোর জন্য যে গানটা আমরা গাইতাম ওইটার গীতিকার ও সুরকার আমাদের শাহেদ। আপনারে এত জ্বালিয়েছি তাও কলেজ থেকে বের হয়ে যে কোন কাজেই আমরা আপনাকে পেয়েছি। বড় বয়সে হয়না, হয় তার মাহাত্ন্যে- এই কথাটা আপনি আমাদের হাড়ে হাড়ে উপলব্দি করিয়ে ছাড়লেন। তাই বলি, এবার ফ্রন্টরোল দিতে বললে এতটুকু দেরী করবনা। একবার বলেই দেখেননা, আমরা সবাই রেডী। :frontroll:

জানেন, বাংলাদেশ আজকাল টেষ্ট ক্রিকেটে যাচ্ছেতাই খেলছে। আমার খালি আপনার কথা মনে হচ্ছে, আহারে একটা লোক ৭২ বলে ১ রান কিভাবে করে? আপনারেই এখন টেষ্ট টীমে নেয়া দরকার। তাহলে কিছু টিপস দিতে পারতেন। আপনার সেই ঘোড়া মার্কা দৌড় ও অনেকদিন দেখিনা। কি যে হল, আপনার সাড়াই পাইনা আজকাল। না বলে হঠাৎ এ চলে যাওয়া মানেইতো জীবনের নিদারুন অপব্যয়! আপসোস একটাই আপনাকে আমাদের সঞ্চয়ের খাতায় ধরে রাখতে পারলামনা। তবে আমাদের হৃদয়ের খাতায় আপনার নাম লিখে রেখেছি। কথা দিচ্ছি তাতে ইরেজারের ঘষা পড়বেনা কখনই। আজ ২৫ শে জুলাই, তাই আপনাকে জানাই জন্মদিনের শুভেচ্ছা।

৬,৭৯১ বার দেখা হয়েছে

৬৬ টি মন্তব্য : “শুভ জন্মদিন প্রিয় মাজহার ভাই”

  1. সাইফ (৯৪-০০)

    দোস্ত,তুই একি মনে করিয়ে দিলি?চোখ ভারী হয়ে আসছে?
    কুমিল্লা স্টেডিয়ামে আন্তঃ কলেজ এথলেটিক্স হয়,আমদের কলেজ বাইরের অন্যান্য কলেজের সাথে অংশগ্রহন করত,মাজহার ভাই সেইখানে দৌড়াতে গিয়ে পায়ে ব্যথা পেয়েছিলেন,খুঁড়িয়ে হাটতে হয়েছিলো অনেকদিন

    শুভ জন্মদিন মাজহার ভাই,
    ''আজ আমার মজা লাগছে এই ভেবে আপনার আর বয়স বাড়লনা। আমরা একে একে সবাই আপনাকে বয়সে পেরিয়ে যাব। আপনি সেই মানুষটিই রয়ে গেলেন। বয়স আপনাকে কাবু করতে পারলনা। সত্যি খুব হিংসে হচ্ছে আমার। এমন প্রস্থানে কোন লজ্জা নেই, আছে শুধু গৌরবময় অহংকার। ট্রিগার চাপতে তো অনেকেই জানে কিন্তু বুলেটের সামনে নির্দ্বিধায় বুক পাততে আপনার মত করে কজনই বা শিখেছে বলুন? তাই এমন একটা সাহসী মৃত্যুর জন্য আমি হাজার বছরের প্রার্থনা করি''।

    জবাব দিন
  2. সাইফ (৯৪-০০)

    শুভ জন্মদিন মাজহার ভাই,আমরা বুড়ো হয়ে যাবো,আপনি বড় হয়েও চির তরুণ হয়ে বেচে থাকবেন আমাদেরসবার মাঝে,্বুক ভরা ভালোবাসা রইল ছোট ভাইদের তরফ থেকে।যদি কখনো আবার দেখা হয়ে যায় কোন দিন -আগের মতই জোর করে আমাকে বেশি করে খাওয়াবেন কিন্তু,মেস ওয়েটরকে বলবেন আমার প্রতি যেন বিশেষ যত্ন নেয়,সেই যে শেষবারের মত দরবার হলে আমাকে খাইয়েছিলেন

    আপনি এখন ভালো করেই জানেন, বেঁচে থাকাটা কত আকাংখিত আমাদের কাছে। আমি সারাজীবনই বিশ্বাস করে যাব আপনি আছেন। আর যদি ভূত হয়েও আসেন আমি ভয় পাবনা। আপনাকে ঠিকই টীজ করব। আপনি যতই চোখ রাঙ্গান আমরা আপনাকে নিক নামে ডেকেই যাব।
    জবাব দিন
  3. আন্দালিব (৯৬-০২)

    প্রতিটা জন্ম বার্ষিকী মনে করিয়ে দেয়, মানুষটা এখানেও ছিলো।
    প্রতিটা মৃত্যুবার্ষিকী মনে করিয়ে দেয় মানুষটা এখানে আর নাই।

    .....
    আমি মাজহার ভাইয়ের জন্মদিনই পালন করতে চাই, মৃত্যুদিন না!....
    .....

    জবাব দিন
  4. শাওন (৯৫-০১)
    আমাদের হৃদয়ের খাতায় আপনার নাম লিখে রেখেছি। কথা দিচ্ছি তাতে ইরেজারের ঘষা পড়বেনা কখনই


    ধন্যবাদান্তে,
    মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান শাওন
    প্রাক্তন ক্যাডেট , সিলেট ক্যাডেট কলেজ, ১৯৯৫-২০০১

    ["যে আমারে দেখিবারে পায় অসীম ক্ষমায় ভালো মন্দ মিলায়ে সকলি"]

    জবাব দিন
  5. তানভীর (৯৪-০০)

    জন্মদিনের শুভেচ্ছা মাজহার ভাই, জানি ওপার থেকে ঠিকই মুচকি হেসে আমাদের শুভেচ্ছা নিচ্ছেন।
    দোয়া করি, যেখানেই থাকেন যেন অনেক অনেক ভালো থাকেন।

    মান্না, তোর লেখা নিয়ে কিছু বলবা না। মন অসম্ভব রকমের খারাপ হয়ে গেল। 🙁

    জবাব দিন
  6. ইফতেখার (৯৫-০১)

    কিছু সময় অনেক কিছুই লেখার থাকলেও লিখতে গেলে সব জমে যায় ... এটা তার সবচেয়ে বড় উদহারন। মাজহার ভাই... আপনি এই অল্প সময়েই যা আমাদের দিয়ে গেছেন তার জন্য আমরা কৃতজ্ঞ ... শুভ জন্মদিন ভাই।

    আশা করি অন্তত পরেরটাও আমরা এত অন্ধকারের ভেতরেই বলতে বাধ্য থাকবো না ... কৃতজ্ঞতা প্রকাশের ভাষা আমরা খুজে বের করবই।

    জবাব দিন
  7. আশহাব (২০০২-০৮)
    আমাদের হৃদয়ের খাতায় আপনার নাম লিখে রেখেছি। কথা দিচ্ছি তাতে ইরেজারের ঘষা পড়বেনা কখনই

    :salute:
    শুভ জন্মদিন মাজহার ভাই ...
    লেখাটা ছুঁয়ে গেলো মান্না ভাই :hatsoff:

    জবাব দিন
  8. মাসরুফ (১৯৯৭-২০০৩)

    স্রষ্টায় বিশ্বাস করিনা,কিন্তু তারপরেও মনে হয়-"ভালো মানুষদের স্রষ্টা এই নষ্টামিপূর্ণ পৃথিবী থেকে তাড়াতাড়ি নিজের কাছে নিয়ে যান"-ধর্মভীরুদের এই বিশ্বাসটা আমার মধ্যেও থাকলে সম্ভবত মাঝে মাঝে অক্ষম আক্রোশে ফেটে পড়তে হতনা।মাজহার ভাই,তানভীর ভাইয়ের মত মানুষদের এভাবে চলে যাওয়ার অন্যায় মনে হয় কেউ ভুলতে পারবেননা...

    শুভ জন্মদিন মাজহার ভাই!

    জবাব দিন
    • ভাল মানুষ তারাতারি মারা যায়,কথাটা মোটেও ঠিক না। বরং তার পাশের খারাপ মানুষ রা তাকে বেশী দিন বাচতে দেয় না । আমরা খারাপ মানুষদের কিছু বলতে পারিনা বলেই, ভাল মানুষটার দিকে করুনা করে বলি,ভাল মানুষ বেশী দিন বাচে না।

      জবাব দিন
  9. কামরুল হাসান (৯৪-০০)

    এই প্রথম কারো জন্মদিনে বলতে পারছিনা যে, বড় হয়ে আপনার সঙ্গে তিন প্রহরের বিল দেখতে যাবো।

    ভালো থাকুন, মাজহার ভাই। জন্মদিনের অনেক অনেক শুভেচ্ছা।


    ---------------------------------------------------------------------------
    বালক জানে না তো কতোটা হেঁটে এলে
    ফেরার পথ নেই, থাকে না কোনো কালে।।

    জবাব দিন
  10. সাবিহা জিতু (১৯৯৩-১৯৯৯)

    মানব্জাতির একটা কমন ধর্ম হচ্ছে আমরা দাঁত থাকতে দাঁতের মর্যাদা করি না। তোমার লেখা পরে সত্যিই আরেকবারো সেই উপলব্ধি হল।
    আসলেই তার আর বয়স বারবে না, কক্ষন না।
    :salute: :salute: :salute: :salute:


    You cannot hangout with negative people and expect a positive life.

    জবাব দিন
  11. সাকেব (মকক) (৯৩-৯৯)

    ...
    ...

    শুভ জন্মদিন,ভাই...

    মান্না, তোমাকেও অনেক ধন্যবাদ...আমাদের বড় ভাইরা এমনই ছিলেন...


    "আমার মাঝে এক মানবীর ধবল বসবাস
    আমার সাথেই সেই মানবীর তুমুল সহবাস"

    জবাব দিন
  12. সায়েদ (১৯৯২-১৯৯৮)

    মাজহার,
    "লালঘোড়া"য় যেয়ে প্লাটুন কমান্ডারকে আউল বানিয়ে দিতে তুই যেই কাহিনীটা করেছিলি তা সিনেমার মতোন মনে পড়ে যাচ্ছে। আর সারাটা জীবন বোধ করি এমনটা করেই মনে করে যেতে হবে।

    অপেক্ষায় থাকিস - চলে আসব নিশ্চিত।

    মান্না, :salute: :salute:


    Life is Mad.

    জবাব দিন
    • মাসরুফ (১৯৯৭-২০০৩)

      ভাবী,

      লেখাটা আপনাকে পাঠিয়েছিলাম শুধু এটুকু বলতে যে আমরা এক্স ক্যাডেটরা মাজহার ভাইকে ভুলে যাইনি,ভুলতে পারবোওনা কোনদিন।আপনি যে লেখাটি পড়েছেন এবং কষ্ট করে কমেন্ট করেছেন এতে এ ব্লগের সবাই আপনার প্রতি কৃতজ্ঞ।লেখাটি পড়ার পর সারাদিন প্রচন্ড মন খারাপ ছিলো,এই গভীর রাতে আপনার মন্তব্য পড়ার পর দুচোখে অশ্রু বাঁধ মানছেনা কিছুতেই।

      শুভ জন্মদিন,মাজহার ভাই!অনেক অনেক অনেক ভাল থাকুন-আমরাও আসছি একে একে আপনার সাথে দেখা করতে...একটু আগে আর পরে এই যা পার্থক্য!

      জবাব দিন
    • ভাবী,
      তোমাকে বড় আপন মনে হচ্ছে, তাই তুমি করেই বলছি. কেন তুমি এভাবে লিখলে? এখন তো কিছুই ভালো লাগছেনা আর বাইরেও অনেক ঝড় হচ্ছে। পিচ্চিটা ঘুমোচ্ছেনা, তাই নেট এ হঠাৎ আসলাম আর তোমার লিখা পড়লাম. তুমি ঠিকই বলেছ তোমরা অন্য একটা জীবনে গ্র্যান্ড পার্টি দেবে......তোমার জন্য আমার অনেক অনেক ভালবাসা রইলো.

      জবাব দিন
    • জিনাত (২০০২-২০০৮)

      বাধন আপি ,আপনার সাখে সিসিবির মাধ্যমে এভাবে কথা বলার সৌভাগ্য হবে ভাবি নি কখনো । আপনার কথা যখন জানতে পারি , তখন মনে হয়েছিল আমরা সবাই যদি আপনার দুঃখগুলো ভাগ করে নেই ,তাহলেও কি আপনার কষ্ট একটু কমবে ? বাংলাদেশের প্রতিটি বিবেকবান মানুষ আপনার সাথে আছে জানবেন অবশ্যই । ভাইয়াকে :salute:

      জবাব দিন
    • ভাবী,
      কেমন আছ,জিজ্ঞেস করা খুব হাস্যকর হয়ে যায়।তারপর ও আমাদের ভাল থাকতে হবে।২৬জুলাই ছিল আমাদের ২৫তম বিবাহের দিন।সব হারিয়ে গেল।তাই মনটা খুব খারাপ হয়ে আছে।এই লেখাটা পড়ে চোখের পানি আটকাতে পারলাম না।এনশাদ ও FCC র ছিল, তাই ক্যাডেটদের অনুভূতিগুলি খুব feel করি।তোমার সাথে অনেকদিন দেখা হয় না।ভাল থেক।ভাইয়ের জন্য অনেক দোয়া।

      জবাব দিন
      • সাবিহা জিতু (১৯৯৩-১৯৯৯)

        আপনার ছেলের আই ইউ টি এর রেজাল্ট যখন বের হল, Lt Col Enshad কে ওরা ভূল করে ছাপিয়েছিল, Late Enshad. বাবা ফোন করে হাসতে হাসতে বলল, "এনশাদ, তুমি যে লেট হয়ে গেছ, কই জানাজা, কুলখানি কিছুতে যে ডাক পেলাম না।" তার একবছর যেতে না যেতেই সেই বিভত"স দিনটিতে, মনে আছে, দরবার হল থেকে এনশাদ আঙ্কেল বাবাকে ফোন করেছিল, "স্যার, দোয়া করবেন, আমরা বোধহয় কেউ আর থাকছি না"
        পরে খবর পেয়ে বাবাকে কাঁদতে দেখেছি, বারবার বলছিল, "আই ইউ টি কেন late Enshad" লিখেছিল?"
        আমার বাবা Lt Col Bazlur Rahman (retd.), FCC 10th batch.


        You cannot hangout with negative people and expect a positive life.

        জবাব দিন
      • শাহাদাত মান্না (৯৪-০০)

        এনশাদ ভাবী,
        শুভ বিবাহবার্ষিকী। এরকম একটা শুভদিনে আপনাকে চোখের পানিতে ভাবনায় ফেলে দেবার জন্য ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি। আসলে ক্যাডেট পরিবার যে কত বড় আর শক্ত বন্ধনে আবদ্ধ তা ক্যাডেট না হলে কখনও উপলব্ধি করতে পারতামনা। তাই যত বার জন্মাই এই পরিচয়েই জন্মাতে চাই। আর আপনিও এনশাদ ভাইয়ের সাথেই থাকতে চাইবেন, এটাও জানি।
        যে কোন কাজেই এই ভাইদের স্মরণ করলে আমরা হাজির। আর না হয় সুখ-দুঃখের কথা বলতে চাইলেও এখানে এসে যাবেন।

        জবাব দিন
  13. রকিব (০১-০৭)

    কিছু বলতে ইচ্ছে করছে না; কেবল এটুকুই বলা ভালো থাকুন ভাইয়া; যেখানেই থাকুন না কেন শান্তির ঘুম ঘুমান..............................


    আমি তবু বলি:
    এখনো যে কটা দিন বেঁচে আছি সূর্যে সূর্যে চলি ..

    জবাব দিন
  14. রাব্বী (৯২-৯৮)

    ১.
    মাজহারের সাথে আমার কথা হয়েছে মাত্র দুবার। কি বলেছিলাম আজ মনেও নেই। দেখা হয়তো আরো এক-দুবার বেশি হয়ে থাকতে পারে। খুব সপ্রতীভ একটা ছেলে এটুকুই স্মৃতিতে আছে। তারপর মাজহার আসলে আমার পৃথিবীতে একেবারেই অনুপস্থিত ছিল। আবার ফিরে এলো গত বছর। এমনভাবেই এলো যখন মাজহারের ঠিকানা না ফেরার দেশে। মান্নার লেখাটা মাজহারকে গভীরভাবে উপলব্ধি করার সুযোগ করে দিল।

    শুভ জন্মদিন, মাজহার। অশেষ শ্রদ্ধা এবং ভালবাসা।

    ২.
    মাজহারদের হারিয়ে যাওয়া কতখানি গৌরবের ও বীরোচিত জানি না, আমার কাছে সাংঘাতিক নির্মম, অসহায়, হতভাগ্য এবং করুণ বলে মনে হয়।


    আমার বন্ধুয়া বিহনে

    জবাব দিন
    • শাহাদাত মান্না (৯৪-০০)

      ভাইয়া, বন্দুকের নলের সামনে যে দাঁড়ায়েছে সে তো সকল ভয়কে জয়ই করেছে। আর তা যদি হয় সত্যের পথে তাতে তো গৌরবের রঙ ছড়িয়ে গেছে। আমরা মাজহার ভাইকে তেমনটি করেই জেনে এসেছি এবং জানব। তাতে ভারাক্রান্ত বন্ধুর মন কেন অসহায়ত্ব খুঁজবে ? একে এক বীরের আত্নত্যাগের গল্পগাঁথা হিসেবেই না হয় জানি, কি বলেন ?

      জবাব দিন
  15. তাইফুর (৯২-৯৮)

    রুবেল আমার ন্যাংটা কালের দোস্ত ...
    ক্যাডেট কোচিং, ক্যাডেট কলেজের ছুটির দিনগুলো, এইচএসসি'র পর কল্যানপুরের বাসার টাঙ্গাইলের আমরা ছয় কলেজের ছয়জন

    আমি তোরে সারাজীবন ঈর্ষা করব ... এটাই আমার প্রায়ঃশ্চিত্ত ...

    (ধন্যবাদ মান্না)


    পথ ভাবে 'আমি দেব', রথ ভাবে 'আমি',
    মূর্তি ভাবে 'আমি দেব', হাসে অন্তর্যামী॥

    জবাব দিন
  16. ওয়াহিদ (১৯৯০-১৯৯৬)

    আমার কোন গুন নাই যাকে বলে আমি খুব উন্নত মানের বেগুন, তবু লেখাটা পড়ার পরের আনুভুতি হচ্ছে মাজহার আর মান্না আমার ছোট ভাই! ওদের বড় ভাই হতে পেরে আমার বেগুনের মান প্রায় বাতিলের পরযায়ে পরে। :salute: শুভ জন্মদিন মাজহার, মান্না দীর্ঘজিবী হও

    জবাব দিন
  17. পূরব চাকমা (১৯৯৫-১৯৯৮)

    ভাইয়ার কথা মনে পরলেই কান্না আসে....:-(
    "বিশ্বাস করেন শাহেদই আপনার কথা সবচেয়ে বেশী বলে। সেদিন কেউ স্বীকার করিনি ,আজ বলি আপনারে ক্ষ্যাপানোর জন্য যে গানটা আমরা গাইতাম ওইটার গীতিকার ও সুরকার আমাদের শাহেদ। "
    জানি না শাহেদ ভাই এখন কি বলেন....

    জবাব দিন
  18. সানাউল্লাহ (৭৪ - ৮০)

    মাজহার, জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানাতে দেরি করে ফেললাম। তুমি তো দারুণ ছেলে হে! এই একটা বয়স তুমি ধরে রাখবে? সারাটা জীবন থাকবে এইরকম টগবগে যুবক? আর আমি, আমরা বুড়িয়ে যাচ্ছি, যাবো! ভালোবাসা নিও ভাই। অনেক অনেক ভালোবাসা।


    "মানুষে বিশ্বাস হারানো পাপ"

    জবাব দিন
  19. সাব্বির (৯৫-০১)

    গত তিন দিন ধরে এই পোষ্টে আসি, পোষ্ট পড়ি, কমেন্টস পড়ি।
    বেশ কিছুক্ষণ চিন্তা করি কি কমেন্টস করব, কিছুই মনে আসে না, মন খারাপ করে চলে যাই। লেখা+কমেন্টস পড়ে বেশ কয়েক বার চোখ ঝাপসা হয়ে গেছে।
    যেখানেই আছেন ভাল থাকবেন মাজহার ভাই, শুভ জন্মদিন!
    অ ট মান্না ভাই আপ্নের্ব্যঞ্ছাই।

    জবাব দিন
  20. রাকিব

    কিছু লিখব ভেবে শুরু করেছিলাম। কিন্তু সবগুলা লিখা পড়ার পর সব ভাষা হারিয়ে ফেলেছি।চোখের কোনায় পানি জমে গেছে। মাযহার ভাই, শান্তিতে ঘুমান। ধন্যবাদ মান্না ভাইকে।

    জবাব দিন
  21. শাহাদাত তুমি আমার বন্ধুটার কথা আত্ত সুন্দর করে লিখেছ even mazhar would be proud of you. আর তোমরা যে ওকে এত্ও ভালোবাস!! তোমার লেখা পরে মন অনেক ভাল হয়েছে। অসাধারণ লিখেছ। thank you.

    জবাব দিন
  22. ড. রমিত আজাদ (৮২-৮৮)

    চমৎকার লেখা শাহাদাত।

    আমি চিৎকার করে কাঁদিতে চাহিয়া
    করিতে পারিনি চিৎকার
    আমি চিৎকার করে কাঁদিতে চাহিয়া
    করিতে পারিনি চিৎকার
    বুকের ব্যথা বুকে চাপায়ে নিজেকে দিয়েছি ধিক্কার

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।