চুম্বনের স্বাদ

চুম্বনের স্বাদ
———— ড রমিত আজাদ

আনত নয়নের তলে মিশে থাকা উদগ্র বাসনা,
তুলে ধরে পানপাত্র নেশাগ্রস্ত অধর মদিরার,
সর্বাঙ্গে গাহিয়া ওঠে গান প্রাচীন ঝর্ণার,
ধরা দিয়ে বাহুডোরে তৃষিত হৃদয় রাখে অধরে অধর।
কঠিন দেহের আলিঙ্গনে দুটি কোমল কুসুম,
হৃদয়ের ব্যকুলতা বাসনা হয়ে মিশেছে অধর মিলনে,
ঘণিভূত কুয়াশা ঝরেছে শিশির হয়ে ওষ্ঠদ্বয়ের স্পর্শরেখায়,
প্রণয়ে লাজ ভেঙে সজল আবেগে হয়েছে বিলীন ঐ চুম্বনের স্বাদে।
দু’টি রাঙা শতদল, অধরে অধর লাগি, বাজি ওঠে যৌবনসঙ্গীত,
কম্পমান মানব-মানবী ভাষাহীন প্রেমের ঘোরে মিটায় চির তৃষা,
অধর মিলনে খুঁজে পায় প্রশান্তি চির পিপাসিত যৌবন অবশেষে,
বক্ষ মাঝে জ্বলে ওঠা বহ্নিশিখা নিভে যায় অধরস্পর্শে।
লতায়ে পড়িছে দেহ, লভিছে আদর, বসন্তের সৌরভে,
অধরের তুলি টানি আঁকিবে রঙিন ছবি অধরের পটে,
কুলুকুলু সুরধ্বনী বাজি উঠে অধরবীণায়, ধরা দিয়ে বাহুপাশ,
কি এক রহস্যের আভাস, মর্তলোকে টেনে আনে স্বর্গের উচ্ছাস।
এ এক এমন সুধা, যেখানে ঘুঁচিছে তৃষা, বিরহ-বেদনা, দুঃখ-বিষাদ,
হোক সে ছলনা, তবুও কামনা, সুখের স্রোতেতে বয়ে যায় চুম্বনের স্বাদ,
বিদ্যুৎ চমক ঝলকিয়া ওঠে, আঁখি চায় আঁখিপাতে, অধরে অধর,
মানব-মানবীর সেই পুরাতন ক্রীড়া, চলিয়াছে, চলিতেছে, চলিবে জীবন ভর।

২৮১ বার দেখা হয়েছে

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।