তিনটি কৌতুক

তিনটি কৌতুক

পোস্ট অফিস

একজন এসে পোস্ট মাস্টারকে বললেন,

 : ভাই বিদেশ থেকে আমার একটা পার্সেল আসার কথা, একটু দেখবেন কাইন্ডলি।

: আরে, আপনাকে বলতে হবেনা। বিদেশ থেকে যত পার্সেল আসে, সব আমরা খুলে খুলে দেখি।

উপদেস্টা

একজন বিশেষ সমস্যায় পরে উপদেশ নেয়ার জন্য এক প্রতিস্ঠানের জনৈক উপদেস্টার কাছে গেলেন। : আমার খামারের মুরগীর বাচ্চাগুলো মারা যাচ্ছে। কি করা যায় বলুনতো?

 : ওদেরকে কলের পানি দিচ্ছেন না ফুটানো পানি দিচ্ছেন ?

: জ্বি, কলের পানি দিচ্ছি।

: না না ফুটানো পানি দিন।

কিছুদিন পর ব্যক্তিটি আবার উপদেস্টার কাছে গেলেন।

: আপনার কথামতো তো ওদেরকে ফুটানো পানি দিলাম, তারপরেও আমার খামারের মুরগীর বাচ্চাগুলো মারা যাচ্ছে।

: ওদেরকে গম খেতে দিচ্ছেন না চাল দিচ্ছেন ?

: জ্বি, চাল খেতে দিচ্ছি।

: না না গম খেতে দিন।

কিছুদিন পর ব্যক্তিটি আবার উপদেস্টার কাছে গেলেন।

: আপনার কথামতো তো ওদেরকে গম খেতে দিলাম, তারপরেও আমার খামারের মুরগীর বাচ্চাগুলো মারা যাচ্ছে।

 : ওদেরকে কি টিনের ঘরে থাকতে দেন, না খড়ের ঘরে রাখেন?

: জ্বী, খড়ের ঘরে রাখি।

: না না টিনের ঘরে রাখবেন।

কিছুদিন পর ব্যক্তিটি আবারো উপদেস্টার কাছে এসে বললেন

: আপনার সব উপদেশ মতোই তো কাজ করলাম, তারপরেও আমার খামারের সবগুলো মুরগীর বাচ্চাই মরে গেল।

শুনে উপদেস্টা বললেন

: ভেরি স্যাড!

 : কেন ভেরি স্যাড কেন? আমার সবগুলো মুরগীর বাচ্চাই মরে গেল তাই?

: না, আমার আরও অনেক উপদেশ ছিল, দিতে পারলাম না! 

ভুতুরে কৌতুক

গোরস্থানের পাশ দিয়ে যাচ্ছিল এক লোক। রাত প্রায় দুটো বাজে। যত সাহসীই হোক, একটু হলেও গা ছমছম করছিল। জনমানব নেই, চারিদিক শুনশান, গোরস্থানের নিস্তদ্ধতা যাকে বলে আরকি। যেতে যেতে হঠাৎ একটি কবরের উপর কি যেন দেখা গেল। ভালো করে তাকিয়ে দেখে আবছায়া একটি মানুষ বসে আছে।

 : কি ভাই, কবরের উপর বসে আছেন কেন?

গনগনে চোখে তাকিয়ে মানুষটি বলল।

: ভিতরে অনেক গরম, তাই বাইরে বের হয়ে বসে আছি।

৫১২ বার দেখা হয়েছে

১০ টি মন্তব্য : “তিনটি কৌতুক”

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।