যতই দু:খ তুমি দাওনা মোরে, আমি তোমাকেই ভালোবেসে যাব

যতই দু:খ তুমি দাওনা মোরে

—————ড: রমিত আজাদ

 

আজ হাতে কিছু জরুরী কাজ ছিল,

তাও কবিতা লিখতে বসলাম।

ভালোবাসা দিবস কি কবিতাহীন হতে পারে?

 

আমার জানালার সামনে একটি নারকেল গাছ আছে,

সেখানে এক জোড়া পাখী কিচির-মিচির করে,

ঠোটে ঠোট ঘষে কিছু বলল।

আমি পাখীর ভাষা বুঝতে পারলাম,

‘আজ ভালোবাসা দিবস’।

 

আমার বেলকুনির টবে ফুটে থাকা

ডালিয়া ফুলগুলোর উপর দিয়ে

একজোড়া প্রজাপতি উড়ে গেল।

তাদের মধু নৃত্য আমায় বুঝিয়ে দিল

‘আজ ভালোবাসা দিবস’।

 

আমার হৃদয়ে চিনচিন করে উঠল পুরোন ব্যথা,

যা অনেকগুলো বছর ধরে পুষে রেখেছি।

তোমার একটি টেলিফোনে,

বজ্রপাত হয়েছিল আমার জীবনে।

তুমি বলেছিলে, “ক্ষমা কর। আমি আর তোমার নই।”

 

এমন ভূমিকম্প হবে আমার জীবনে

আমি স্বপ্নেও ভাবিনি,

অথচ সেটাই সত্যি হলো।

 

এই এতগুলো বছর আমি

ভালোবাসা দিবস কাটাই তোমাকে ছাড়াই।

একা, একেবারেই একা।

 

তুমি বলেছিলে, “বেছে নাও অন্য কোন তরুণী”।

 

আমি পারিনি।

কোন তরুণীর চোখে চোখ পরে গেলেও,

হৃদয়ে ব্যথা চিনচিন করে সেই চোখ সরিয়ে নেয়।

আমি মনে মনে শুধু গাই, গানের একটি কলি,

‘যতই দু:খ তুমি দাওনা মোরে, আমি তোমাকেই ভালোবেসে যাব’।

৫৩২ বার দেখা হয়েছে

৩ টি মন্তব্য : “যতই দু:খ তুমি দাওনা মোরে, আমি তোমাকেই ভালোবেসে যাব”

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।