প্রথম পোষ্ট

গত কয়েকদিনে এ ব্লগ এ ঘুরে ঘুরে যা দেখলাম তাতে মনে হলো আর সি সি এর ক্যাডেট মনে হয় কেউ নাই। দুঃখজনক। কি আর করা যাবে! নিজ়ের কলেজ় এর পোলাপান দের দেখলে ভাল লাগে একথা তো আর কাউকে নতুন করে বলা লাগবে না।

আমি আসলে আরেকটা ব্লগ মেইন্টেইন করি ব্লগস্পট এ ।তবে এটার খোজ় পাবার পর ভাবলাম এইখানে বাং;লায় ব্লগ লেখাটা করতে পারি। ঠিক করলাম আমি ধাপে ধাপে আমার কলেজ়ের ফেলে আসা দিনগুলির জ়াবর কাটব। যদিও আমার মনে হই আমার এই পচানি ব্লগ
পড়ার সময় কারো নাই;তবুও যদি কাউকে পাওয়া যায়…আমার মতো আইলসা আর বেকার…কোন কাম কাজ নাই।।সেই আশায় তাদের সাথে শেয়ার করার জন্য আরকি…হেহে

প্রথমে নিজের পরিচয় দেই। আমার নাম রাহাত ইবনে রফিক। ক্যাডেট নাম রাহাত। রাজশাহী ক্যাডেট কলেজ়ের ৩৭ তম ব্যাচের ছাত্র। খালিদ হাউজের ক্যাডেট। ঢাকায় থাকি। গ্রাম এর
বাড়ি চাদপুর। মায়ের বাড়ি চট্টগ্রাম। দুই ভাই। আমি বড়ো। আব্বি রিটায়ার্ড। মামনি হাউজওয়াইফ। ছোটো ভাই ক্লাস টেন এ পড়ে। এই তো…আর কিছু নাই মনে হয় হেহে। ও হ্যা…আমার ক্যাডেট নম্বর ১৯৮৫। আমি আমার হাউজের প্রথম ক্যাডেট। এর যে কি ঝামেলা তা কেবল যারা প্রথম ক্যাডেট তারাই জানে।

আমি আসলে কখনই বাবা মা ঘেসা ছিলাম না। আমার বাসার সবাই বলে আমি খুব চাপা আর নিজেকেই নিয়েই থাকি পুরো দিন। এটা সত্য কথা।আমি সাধারনত ঘটনায় অংশগ্রহন করার চেয়ে ঘটনা দেখতেই ভালবাসি। ওই যে কি না বলে কালের নিরব দর্শক সেই রকম
অনেকটা। আরেটা জিনিশ। আমি চরম বই পড়তাম। আমার মামার বিশাল বই এর কালেকশন। ইংরেজ়ি বাংলা মিলায় মনে হয় হাজারখানেক হবে। উনি নিজেও এতো বই পড়ছে নাকি আমার সন্দেহ আছে। মাঝখান দিয়ে আমি বই একটাও না কিনে ফ্রি ফ্রি পড়ার সুযোগ পেয়ে গেলাম।
চুপি চুপি বলে রাখি আমার হাল্কা বই চুরি করার ও অভ্যাস আছে হেহে।

তাই আমার আব্বি যখন আমাকে বল্লো ক্যাডেট এ ট্রাই করতে আমার তেমন কিছু মনে হয় নাই। আমি এর আগে আইডিয়াল স্কুল এ ছিলাম। চরম আতেল ছিলাম। আমি আসার আগে স্কুল এ ছেলেদের মধ্যে সেকেন্ড ছিলাম। সেটা হতে হলে সেই রকম আতেল হতে হয়।
আমি সেই রকমি ছিলাম। আমার আব্বি ৩ টা কলেজের ফর্ম আনল। রাজশাহী,সিলেট আর কুমিল্লা।রাজশাহী তার কারন ওইখানে নাকি কম্পিটিশন কম হয়। যাই হোক ঠিক হলো আমি সিলেটে দিবো কারন তাতে আমার যাওয়া আসার সুবিধা হবে কারন ওটা নাকি এয়ারপোর্ট
এর কাছেই। কুমিল্লা বাদ গেল ওইখানে নাকি সবাই দেয়।কোনো কারনে আব্বি পরীক্ষার দিন সিলেট এর সাথে রাজশাহীর ফর্মটাও নিলো। গিয়ে দেখা হলো আমার আব্বির এক ফ্রেন্ডের সাথে। উনার ছেলেও দিচ্ছে ক্যাডেট এ।উনি তখন বললেন সবাই কুমিল্লা তে কম্পিটিশন
বেশি হয় দেখে কেউই নাকি ভয় এ ওইখানকার ফর্ম নায় নাই। ফলে এবার নাকি ওতাতেই কম ফর্ম পড়ছে। কি বিপদ!উনি আরো বললেন সিলেটেও বিশাল লাইন। আমার আব্বি পাইলো ভয়। সে তখন আমাকে বল্লো বাবা চল আমরা রাজশাহীতেই দেই। আমি আর কি!যেই লাউ
সেই কদু। বল্লাম ঠিক আছে!

যথারিতী আমার ১ বছরের আতলামির ফসল হিসেবে আসাধারন একটা পরীক্ষা দিলাম। আমি প্রায় শিউর ছিলাম যে টিকব।যাই হোক কয়েকদিন পর পেপারে রেজাল্ট দিল। আমি আমার আব্বিকে না জানায়ে নিজেই রোল খুজতে লাগ্লাম। কিছুক্ষন পর আমার মাথা খারাপ হয়ে
গেল।আমি টিকি নাই। ওই সময়ে মনে হইল পায়ের নিচে মাটি আর নাই। আমি চুপচাপ পেপার আব্বিকে কে দিয়ে টয়লেট এ পালাইলাম। ভাব্লাম কি হইল!তখন আমার আব্বি চিল্লায় চিল্লায় বলতে লাগ্ল আমার বাবা হইছে আমার বাবা হইছে!আমি হাল্কা অবাক হইলাম!
কাহিনী কি হইছে বুঝার জন্যে বের হয়ে দেখলাম আমার আব্বি আমার চোখের সামনে আমার রোল ধরে বলতেছে তুই হয়ে গেছিস!!!আমি এখন পর্যন্ত বুঝতে পারি নাই আমি কি কারনে আমার রোল তা দেখি নাই ওই দিন। সেটা ছিল আমার জীবনের অন্যতম সেরা দিন।

এর পরে ভাইভা আর মেডিকেল হইলো।ভাইভাতে আমি ধুকার সময় বলসিলাম may i come in plz?ব্যস কাম খাম পুরো ভাইভা আমাকে তারা ইংরেজীতে করলো। খুব একটা খারাপ করি নাই।তবুও বের হলাম মন খারাপ নিয়েই।মেডিকে;ল এ হইলো আসল কাহিনী।
আমার হাইট আর ওয়েট দুইটাই কম।আরো ধরা পরলো আমার চোখ এর করুন আবস্থা।আমি উপরের ৩ লাইন পরে আর কিছুই পড়তে পারি নাই।তারা অবাক হয়ে বল্লো তুমি চশমা পড় নাকি?আমি বললাম না।মেডিকেল স্যার বল্লো তুমি হাটা চলা কর কিভাবে?আমি বুঝলাম
না আমার চোখ কি আসলেই এতটা খারাপ নাকি?আমি এতই গাধা এই চোখের ব্যাপারটা আমি আমার আব্বিকে কে পরে বলিও নাই।পরে আমি ক্লাস ৮ এ চশমা নেই।তখন আমার পাওয়ার হয়ে যায় -3।

ভাইভা আর মেডিকেল এর পর আমার মনে হইতেছিল হানিমুন ওভার।আর হবে না আমার।প্রায় ছেড়েই দিছিলাম স্কুল এর পরাশুনা।অনিচ্ছাসত্তেও ধরতে হল।কিন্তু যেদিন রেজাল্ট দিল আমার মনে হলো আমি মনে হয় এটা ডিজার্ভ করি নাই।আমি টিকলাম আর আমি এখন পর্যন্ত জানি না
আমি এত আনফিট থাকার পরেও কিভাবে টিক্লাম।অনেকে হইত ভাববেন পাওয়ার দিয়ে হয়তো কিন্তু এসব এর কোনোটাই আমার ছিল না।আমার ১৪ গোষ্ঠির কেউ আর্মিতে নাই।আল্লাহই জানে কেমনে কি হইল!

আজকে আর লিখতে ইছা করতেছে না। পরেরদিন আমি আমার কলেজের প্রথম কয়েকদিন নিয়ে লিখব ইনশাল্লাহ।

২,৬০৩ বার দেখা হয়েছে

৩৯ টি মন্তব্য : “প্রথম পোষ্ট”

  1. জিহাদ (৯৯-০৫)

    রাহাত, ব্লগে স্বাগতম 🙂

    দয়া করে নাম সহ প্রোফাইলের সব কিছু বাংলায় লিখে দাও। আর নামের সাথে হারি আপ সাল লাগাও। আগেই বলে দিলাম। সানা ভাই পরে এসে ফ্রন্টরোল স্টার্ট করাইলে আমার কিন্তু কোন দোষ নাই :no:


    সাতেও নাই, পাঁচেও নাই

    জবাব দিন
  2. তৌফিক (৯৬-০২)

    ব্লগে এমন এক সময় আসলা যখন পুরো ব্লগটাই কালো চাদরে ঢেকে আছে। যদি তোমাকে এর থেকে ভালো পরিস্থিতিতে স্বাগতম জানানো যেত!

    ভালো কথা, এই ব্লগ কিন্তু শুধুই স্মৃতিচারণমূলক না। এটা হলো, যেমন ইচ্ছে লেখার কবিতার খাতা। সবধরনের লেখাই লিখবে আশা করি।

    ব্লগ এমপি লাবলু ভাই সবাইকে পাংগা দিয়ে বরণ করেন। সুতরাং তুমি উনি আসার আগেই শুরু করে দাও। উনি এসে এক্সিউজ করবেন।

    জবাব দিন
  3. জুনায়েদ কবীর (৯৫-০১)

    নাহ্‌, গা ঝাড়া দিয়ে ওঠার সময় হয়ে গেছে...
    শোকের চাদর ভাঁজ করে গুছিয়ে মনের মধ্যে রেখে দিলাম...
    শোক ভুলতে চাই না...এটিকে শক্তিতে রুপান্তর করতে চাই...

    আজ থেকে সিসিবি আবার সরব করে তুলতে হবে...
    না হলে আমাদের চিন্তা-ধারা সঠিক পথে প্রবাহিত হবে না...
    শুধু আবেগ দিয়ে এত বড় আঘাত মোকাবেলা করা সম্ভব না...
    আমাদেরকে ঠান্ডা মাথায় সব কিছু বিচার-বিশ্লেষণ করে এগোতে হবে...
    তাই সিসিবির সকলকে জানাই আবেগকে চেপে রাখুন...
    সবাই সরব হোন...

    রাহাত ব্লগে স্বাগতম!!
    মিলিওনিয়ার রকিব, রাহাতের রিসিপশন হইলে ওরে চা দিস...
    ভাল কথা, রিসিপশন কাইয়ূম ভাই বা কামরুল ভাই করুন...পোলা অনেক জুনিয়র!!!


    ঐ দেখা যায় তালগাছ, তালগাছটি কিন্তু আমার...হুঁ

    জবাব দিন
  4. তানভীর (৯৪-০০)

    স্বাগতম রাহাত।
    এর থেকে ভাল পরিস্থিতিতে তোমাকে স্বাগতম জানাতে পারলে হয়ত খুশি হতাম।

    লেখা ভাল হয়েছে। আশা করি এখন থেকে তোমাকে নিয়মিত আমাদের মাঝেই পাব।

    জবাব দিন
  5. রাহাত ইবনে রফিক (০০-০৬)

    সবই বাংলায় করলাম।কিন্তু যে নামটা সবাই দেখবে সেটা নাকি বদলানো যাবে না।তাই ওটা ওভাবেই রাখতে হলো।আমি দেখি ফেইসবুকে আমার যতো ফ্রেন্ড আছে ওগুলারে এইখানে আনতে ট্রাই করবো।

    আ্মার ব্লগস্পট
    http://freakrahat.blogspot.com/
    আর অনেক অনেক ধন্যবাদ।খুব খুশি লাগলো আ্পনাদের এই অসাধারণ অভ্যর্থনা পেয়ে।

    জবাব দিন
    • রকিব (০১-০৭)

      রাহাত ভাই, এখনও করা যাবে। আপনি ক্যাডেট নাম এর বক্সে বাংলায় আপনার নাম লিখে প্রোফাইল আপডেট করেন। তারপর জনসম্মুখিত নামের ওখানে টোকা (ক্লিক) দিলে বাংলায় আপনার নাম দেখাবে ওখানে, এবার ওটা নির্বাচন করলেই হয়ে যাবে।
      শুভ ব্লগিং এবং সিসিবি পরিবারে স্বাগতম।


      আমি তবু বলি:
      এখনো যে কটা দিন বেঁচে আছি সূর্যে সূর্যে চলি ..

      জবাব দিন
  6. ইউসুফ (১৯৮৩-৮৯)

    ৩৫টা মন্তব্য পড়ে রিসেপশন ফরমালিটিস ভুলে গেছি। নতুন সদস্যকে নিয়ে মাইটি এ্যডজুটেন্ট এর কি যেন করতে হয়?

    রাহাত স্বাগতম।

    লিখ্তেথাক। (কপিরাইট: সিনিয়রের কাছে কিসের আবার কপিরাইট??)

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।