কম্পিউটার আর আমরা কিছু সেকেলে

“কি বললি? তুই কম্পিউটার দেখছস?”
অবাক নয়নে আমার গুটি কয়েক বন্ধু আমার দিকে তাকিয়ে আছে। আমি অত্যন্ত গর্বের সাথে বুক ফুলিয়ে বললাম, “হ্যাঁ! বাবা নিয়ে গেছিল স্টেশনে।ওইখানে অফিসে নিয়ে আমাকে কম্পিউটার দেখাইছে। আমি ধরছিও!”
বন্ধুরা অবাক হয়ে মস্ত হা করে আমার হাতখানা টিপে দেখে! আলভী কম্পিউটার ধইরা আসছে! সোজা কথা?
এরপর একেকজনের কৌতূহলী প্রশ্ন,
-কম্পিউটার কি করতেছিল রে?
-মানুষকে টিকিট দিতেছিল।
-টিকিটও দিবার পায়! আল্লারে আল্লা! আর কি পায়?
-সব পায়! তুই যেই অঙ্কই দিবি,এক সেকেন্ডে কইরা দিব!
-তাই নাকি? বলতে পারব আমার মাথার চুল কয় টা?
-হ্যাঁ! পারবো না কেন! অযৌক্তিক প্রশ্ন!
অত্যন্ত কনফিডেন্সের সাথে আমার জবাব!
-আমার বয়স কত বলতে পারব?
-এইডা একটা কথা কইলি! কম্পিউটার পায় না এমন কোন কাজ আছে নাকি!

১৯৯৬ সালের কোন এক পড়ন্ত বিকেলে আলভী নামের বাচ্চা ছেলেটি তার বাবার সাথে প্রথম কম্পিউটার দেখে আসার কথা বন্ধুদের অবাক নয়নে বলছে আর তারা তার থেকেও হতবাক হয়ে দেখছে!

জানুয়ারী ২০১৩

-ভাইয়া, তোমার ল্যাপটপ এতো স্লো কেন?
-কি জানি! আমি তো খালি মুভি দেখি!
-তোমাকে আগেই বলছিলাম কুয়াড কোর কিনতে! সেলেরন কেউ কিনে নাকি? পচা ল্যাপটপ! ফিফা টাও ঠিকমতো চলেনা!!

আমি অবাক নয়নে আমার ক্লাস থ্রিতে পড়া ভাই টার দিকে তাকায় আছি। কিছুই বলার নাই! খালি একটা দীর্ঘশ্বাস পড়লো,
হায়রে কম্পিউটার! তখনো অবাক করলি, এখনো অবাক করলি!!

৩৯২ বার দেখা হয়েছে

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।