সাবধান! মহিলা সিট!!

প্রায় প্রতিদিনই একুশে পরিবহনে করে ভার্সিটি যাওয়া হয়। এই বাসে সংরক্ষিত মহিলা আসনের নিয়মটা মোটামুটি কঠোর ভাবেই মেনে চলা হয়। আর সেটা মানতে গিয়েই মাঝে মাঝে ঘটে বিচিত্র কিছু ঘটনা।

মহিলা সিটে পুরুষ বসা নিষেধ। বসলেও বাসে মহিলা উঠা মাত্র তা ছেড়ে দিতে হয়। কারন কথা-যুদ্ধে নারীর জয় সবসময়ই হয়। তাছাড়া প্রথম আলোর ঐ বিজ্ঞাপনটা প্রচারের পর থেকে বাসে দাঁড়িয়ে থাকা সচেতন পুরুষেরাও সদ্য উঠা মহিলার পক্ষে ‘backup force’ এর মত কাজ করে। ফলে তখন সিটের সাথে সাথে, মান-সম্মানও হারাতে হয়। তাই পারতঃপক্ষে কেউ মহিলা সিটে বসেনা।

সেদিন মহিলা সিট খালি না থাকায় এক মেয়ে পাশের double সিটে বসেছিল। তার পাশেই দাঁড়িয়ে ছিল বয়ষ্ক এক লোক যিনি একটু আগেই মহিলা সিট ছাড়তে বাধ্য হয়েছেন। কিছুদূর যাবার পর মহিলা সিট খালি হল।
তখন বয়ষ্ক লোকটি মেয়েটিকে বললোঃ “মা, তুমি মহিলা সিটে যাও, আমি এখানে বসি”।
মেয়ে জানালো সে যাবেনা।
লোকটির পাশেই এক ছেলে দাঁড়ানো ছিল। সে মেয়েকে বললঃ “কেন যাবেন না? আংকেল মহিলা সিটে বসলে তো একটু পরেই আবার সিট ছেড়ে দিতে হবে”।
মেয়েটা খুব রেগে ছেলেকে বললঃ “আপনি এত বেশি কথা বলেন কেন। একা মেয়ে দেখলেই কি কথা বলতে ইচ্ছা করে”?
বয়ষ্ক লোকটি বললঃ “আজকালকার মেয়েরা এত বেয়াদপ হয়ে গেছে!”
ছেলেটা বললঃ “ঠিক বলছেন আংকেল”।
মেয়েতো আরো ক্ষেপে ছেলেকে বললঃ “আমি বেয়াদপ না। আপনি বেয়াদপ”।
ব্যাস, আর কি দরকার!! ছেলে আর মেয়ের মধ্যে তুমুল ঝগড়া বেধে গেল।
বয়ষ্ক লোকটি মেয়েটিকে থামতে বললে মেয়েটি তাকে বললঃ “আপনি আরো বড় বেয়াদপ”।
তখন ঐ ছেলের বন্ধুরাও মেয়ের সাথে ঝগড়া শুরু করে দিল। ঝগড়া ততঃক্ষনে ‘আপনি’ থেকে ‘তুই’ এ নেমে গেছে। এক সময় ঝগড়ার বিষয় বস্তু হয়ে উঠল “নারী-পুরুষের সমান অধিকার”। তখন আশেপাশের কিছু যাত্রীও ঝগড়ায় join করল।
তাদের মতে- ‘নারীরা সমান অধিকার চাইলে, বাসে আবার আলাদা সিট চায় কেন’?
মহিলা সিটে বসে থাকা মহিলারা আর চুপ করে বসে থাকল না। তারাও পুরুষদের বিরুদ্ধে মুখ খুলল। পুরো বাসে শুরু হল মহিলা Vs. পুরুষ ঝগড়া।

আমি আর আমার এক বন্ধু হলাম তার দর্শক (বিনা টিকিটে এমন live show কে মিস করে বলুন)। ঐ দিকে ভদ্র-পুরুষ ও ভদ্র-মহিলাদের ঝগড়া চলতে থাকল বাসের চেয়েও বেশি গতিতে।

হঠাত এক পুরুষ বললঃ “ আচ্ছা, আমরা এতগুলো পুরুষ কয়েকজন মহিলার সাথে ঝগড়া করছি, এটা কি ঠিক? তারা ভুল করতেই পারে। আমাদের উচিত নরম মনে তাদের ক্ষমা করা। তাদের পাশে থাকা।” সাথে সাথে কিছু লোক তার সমর্থন দেয়া শুরু করল।

ঠিক তখন-ই একজন তাকে উদ্দেশ্য করে বললঃ “হ্যাঁ ভাই। আমরা অনেক পুরুষই আছি যারা ঘরে বউ পিটাই আর বাসে উইঠ্যা মাইয়্যা দেখলে মন নরম হইয়া যায়।” ব্যাস, মুহুর্তের মধ্যেই বেচারা হিরো থেকে জিরো হয়ে গেল। সবাই বলা শুরু করলঃ “ঠিক! ঠিক! যারা বাইরে মেয়েদের বেশি তোয়াজ করে, দেখেন গিয়া তারাই ঘরে বউ পিটায়”।

ততঃক্ষনে বাস মহাখালি পৌঁছলো। এতক্ষন যারা ঝগড়ার প্রধান বক্তা ছিল তারা সবাই নেমে গেল। মহাখালি থেকেই এক লোক বাসে উঠে মহিলা সিটে বসতে গেলে হেল্পার মামা চেঁচিয়ে বললঃ ভাই সাবধান! মহিলা সিট!!

২,৭৮৭ বার দেখা হয়েছে

৪৩ টি মন্তব্য : “সাবধান! মহিলা সিট!!”

  1. তৌফিক (৯৬-০২)

    অসাম্প্রদায়িক এবং ভীষনরকম উদারনৈতিক একটা কথা বলে যাই, ট্যাগে কলেজের নাম লাগাও। ডাবল ফিগারে চইলা যাইতে পারবা...ইনশাল্লাহ মাস ছয়েকের মধ্যে...... :grr:

    জবাব দিন
  2. ইউসুফ (১৯৮৩-৮৯)

    ব্লগে স্বাগতম। মজার লেখা। :thumbup:

    কিন্তু নতুন আসলে কি যেন করতে হয়?? এতগুলো প্রিফেক্ট থাকতে, প্রত্যেকবার এইটা কেন আমার মনে করাতে হয়? 😡

    সানাউল্লাহ ভাই কবে যে আমাকে পোস্টিং করে দেন, আল্লাহ জানে। 🙁

    জবাব দিন
  3. সানাউল্লাহ (৭৪ - ৮০)

    :khekz: :khekz: :pira:।

    দারুণ। ভীষণ মজা পাইলাম।
    ছোট ভাই ১০টা :frontroll: কি দিছ? উপরে ব্লগের অ্যাডজুটেন্ট ইউসুফ তুমারে মনে করাইয়া দিছে দেখলাম।
    হারি আপ ব্লা.............. 😡 😡 😡


    "মানুষে বিশ্বাস হারানো পাপ"

    জবাব দিন
  4. কাইয়ূম (১৯৯২-১৯৯৮)

    ব্যাপক মিজা পিলিম :)) :)) :))
    সিসিবিতে স্বাগতম জাকারিয়া :clap: নিজে রেগুলার লিখতে থাক আর পাবনারে রাজশাহীর দিকে আরেকটু আগায়া নেও ;;;


    সংসারে প্রবল বৈরাগ্য!

    জবাব দিন
  5. জুনায়েদ কবীর (৯৫-০১)

    জটিল শুরু করছ তো... :clap: :clap: :thumbup: :thumbup:
    তয়, শুরুতে ভাব বাচ্যের কথা ভাল লাগে নি... :-B
    এটা কি ইচ্ছে করে দিয়েছ, নাকি ভুল করে? ইচ্ছে করে ভুল??? নাকি ভুল করে ইচ্ছে???
    আবার এমনো হতে পারে তোমার হয়ত ভুল করার ইচ্ছে ছিল না, কিন্তু অনিচ্ছাকৃতভাবে ভুল হয়ে গেছে...
    আমার ইচ্ছে ছিল না সামান্য এই ভুল নিয়ে এত কথা বলি...তবে কি জান, আজকের দিনের কলিই হবে আগামী দিনের গোলাপ...আর সেই গোলাপের কি মূল্য যার দাম নেই...কবি বলেছেন, কাঁটা হেরি ক্ষান্ত কেন গোলাপ তুলি'তে...গোলাপ এবং তুলি যদি রাজি থাকে কাঁটার বাপের কি সাধ্য তাদের কে আটকায়???? তুমিই বল... ;))

    যাই হোক, ব্লগে স্বাগতম...কারণ গদ্যকার বলেছেন- রাতের যেখানে শেষ, দিনের সেখানে শুরু...আর সেই শুরুর কি মূল্য, যার শেষ নেই...!!!! ;;) ;;)


    ঐ দেখা যায় তালগাছ, তালগাছটি কিন্তু আমার...হুঁ

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।