একদা ঈদে

হিমেল বিলেতীবসন্তের শ্বেতচাদরাবৃত পার্কে
সেদিন ছিলাম তোমার কোলে নত আমি
ভোরবেলাকার মন্দিরের অদ্বিতীয় পূজারী হয়ে,
ঈদের আনন্দপূর্ণ মিলনে বাকরুদ্ধ
তোমার নিবিড় আলিঙ্গনে।

হৃদয়ের প্রতিটি ভাবনা ছিলো মগ্ন তোমাতে
একনিষ্ট স্বতস্ফুর্ত স্পন্দনে ছিলে শুধু তুমি,
তোমার প্রফুল্লতার আঁচে নিমেষে উবে গেলো
বরফের মতো সূক্ষ্ম অভিমান সব আমার।

তোমার নক্সীকাঁথা শাড়ীতে খেলে গেলো
মসৃণ সুবাসিত ঢেউ,
বিকেলের মধুর মদিরতায় তোমার সূর্যমুখী গালে
সোনালী আলো নিলে মেখে,
আমায় দিলে সবুজ মরুদ্যান
ফুল শোভিত শুভেচ্ছামালা,
তোমার আকাঙ্ক্ষিত ঠোঁটস্পর্শে রচে দিলে
আমার হৃদয়ে গভীর নিশানা,
যে ছোঁয়ায় বার বার বিস্ফোরিত হয়
মনের আনাচে কানাচে জমে থাকা মেদ সমূহে,
তোমার চোখের বিদ্যুত স্পৃষ্ঠে হলাম আত্মহারা।

হে প্রিয়া,
আমার প্রতিটি ঈদের চাঁদে
আমায় দিয়ো হৃদয় কাঁপানো বাঁকা হাঁসি,
আমায় তন্ময় চিত্তে জাগিয়ে রেখো
তোমার জোঁছনা মাখা শাড়ীর আঁচলের ছায়াতলে,
আমি নির্ঘাতে করবো আত্মমেধ
তোমার প্রেমাগ্নিশিখায় জ্বলে।

৪৯২ বার দেখা হয়েছে

৪ টি মন্তব্য : “একদা ঈদে”

  1. রকিব (০১-০৭)
    তোমার জোঁছনা মাখা শাড়ীর আঁচলের ছায়াতলে,
    আমি নির্ঘাতে করবো আত্মমেধ
    তোমার প্রেমাগ্নিশিখায় জ্বলে।

    :shy: :shy:


    আমি তবু বলি:
    এখনো যে কটা দিন বেঁচে আছি সূর্যে সূর্যে চলি ..

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।