সুহাসিনী মেয়ে

প্রথম যেদিন তোমার সাথে
হলো আমার দেখা
মনে মনে ডেকেছি তোমায়
ভেবে আমার সখা।

কম্পিউটারের চিঠির মাঝে
করলাম যোগাযোগ
পেলাম নাকো তোমার সাড়া
তোমার মনোযোগ।

ভার্সিটির ঐ কোরিডোরে
তোমায় আমি খুঁজি
যাবো মোরা অভিসারে
হলে তুমি রাজি।

অনেক দিন পরে ফের
তোমার দেখা পেলাম
অবাক হয়ে তোমার হাতের
ফোন নম্বরটি নিলাম।

দিন কাটলো মাস ফুরালো
নাই যে আমার পাত্তা !
ভাবলে তুমি কেমন যুবক
কেমন তাহার আত্মা ?

হঠাৎ করে উদয় হলাম
গ্রীষ্মকালীন দিনে
সকল ফেলে ছুটে গেলাম
মন মানষীর পানে।

সঙ্গ তোমার পেয়ে মনে
আঁকলাম তোমার ছবি
জেগে উঠলেন উদাস মনে
ঘুমিয়ে পড়া কবি।

তোমার প্রেমে বিভোর হয়ে
লিখি কতো পদ্য
তোমায় নিয়ে রচি কতো
ভালোবাসার গদ্য।

তোমার ছোয়াঁয় বোমা ফোটে
গায়ের এথায় সেথায়
হৃদয় মাঝে বীণা বাজে
তোমার অমন চুমায়।

তুমি আমার স্বপ্নচারিণী
তুমি কল্পসাগর
তোমার ফুলের মধু নিতে
আসবো আমি ভ্রমর।

তোমার আমার প্রেম কাহিনী
থাকবে অমর হয়ে
চাইবো তোমার পথপানে
সুহাসিনী মেয়ে।

৮১৬ বার দেখা হয়েছে

৮ টি মন্তব্য : “সুহাসিনী মেয়ে”

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।