হয়তবা কোন একদিন

হয়তবা কোন একদিন
হয়ত,
আমার একটা ঘর থাকবে
চিলেকোঠায়-
রাতের আকাশে এক মগ চা হাতে তারা গুনব
আর অপেক্ষায় থাকব-
ভোরের সূর্যোদয়ের
এলোমেলো বাতাসে চুল উড়বে
আর কানে থাকবে-
কোল্ডপ্লে,লিংকিন পার্ক অথবা বন জোভির সব মাতাল করা গান।

হয়তবা কোন একদিন
হয়ত,
কোন বাধা থাকবে না
ক্লাশ, এসাইনমেন্ট, সিটি, মিড, প্রেজেন্টেশন কিচ্ছু না।
চাইলেই শুধু ব্যাগটা কাধে ঝুলিয়েই
কোন অজানার উদ্দেশ্যে ট্রেনে চাপব,
কোন সিট নেব না,
গেটে দাঁড়িয়ে পুরোটা সময় দেখব
সবুজ, জীবন, বেচে থাকা-
কোন স্টেশনে নেমে এককাপ চা খেয়ে নেব
তারপর আবার-
ঝকঝকঝক।

হয়তবা কোন একদিন
হয়ত,
অনেক টাকা হবে
ভিসা-পাসপোর্টের জন্য ভাবতে হবে না
আশি দিনে বিশ্ব ভ্রমণ
উপন্যাসের শুটিং এ চলে যাব।

হয়তবা কোন একদিন
হয়ত,
এই কবিতা সত্য হবে
হিমালয়ের কোন পাদদেশে ক্যাম্পে শুয়ে
এ কবিতা পড়ব আর মিটিমিটি হাসব
হয়ত, বাইরে থেকে ডাক আসবে-
” অনেকে রেস্ট হয়েছে,চলো শুরু করা যাক আবার।”
শুরু হবে-
পথচলা।

২,৭১৭ বার দেখা হয়েছে

১টি মন্তব্য “হয়তবা কোন একদিন”

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।