আশার গোঁয়ার্তুমি

সংবিধিবদ্ধ সতর্কীকরণঃ সাবধান, সামনে কবিতা

 

সশাবক বাঘিনীর মত না হলেও-
অন্তত একটিবার,
খেপা ষাঁড়ের মত গোঁ ধরতে চাই।

নিদেনপক্ষে,
ভুখা কাক অথবা, শীর্ন নেড়ি কুকুর;
নাহয়-
জবাই করা ভেড়া,
মাছওয়ালার বাক্সে রাখা কইমাছ।

আর,
কিছুতেই কিছু না হলে-
দেয়ালে পিঠ ঠেকা নিরস্ত্র মানুষ;
এবার হবোই হবো!

কেবল, জানি না-
কবে?

০৭.১০.২০১৫

 

১,৮৯২ বার দেখা হয়েছে

২৬ টি মন্তব্য : “আশার গোঁয়ার্তুমি”

  1. সাবিনা চৌধুরী (৮৩-৮৮)

    ইশি তোর নাম দেখে ভাবছিলাম, যাই খানিক বিজ্ঞান পড়ে আসি। তুইও যে তলেতলে কোবতে লিখিস জানিনা তো 😛 সে যাই হোক, অরূপদার চায়ের দোকানে তোর চা কনফার্ম করলি 😀

    সিসিবিতে সুসুসুস্বাগতম, ছোট ভাইয়া। আমাদের সাথেই থাকিস 🙂

    জবাব দিন
    • ইশহাদ (১৯৯৯-২০০৫)

      হুমম... কবিগুরুর শরণ নিলাম

      আমরা আরম্ভ করি, শেষ করি না,
      আড়ম্বর করি, কাজ করি না;
      যাহা অনুষ্ঠান করি তাহা বিশ্বাস করি না;
      যাহা বিশ্বাস করি, তাহা পালন করি না;
      ভুরি পরিমাণ বাক্যরচনা করিতে পারি, তিল পরিমাণ আত্মত্যাগ করিতে পারি না;
      আমরা অহংকার দেখাইয়া পরিতৃপ্ত থাকি, যোগ্যতালাভের চেষ্টা করি না;
      সকল কাজেই পরের প্রত্যাশা করি, অথচ পরের ত্রুটি লইয়া আকাশ বিদীর্ণ করিতে থাকি;
      পরের অনুকরণে আমাদের গর্ব, পরের অনুগ্রহে আমাদের সম্মান,
      পরের চক্ষে ধুলিনিক্ষেপ করিয়া আমাদের পলিটিক্স এবং
      নিজের বাকচাতুর্যে নিজের প্রতি ভক্তিবিহ্বল হইয়া ওঠাই আমাদের জীবনের প্রধান উদ্দেশ্য।



       

      এমন মানব জনম, আর কি হবে? মন যা কর, ত্বরায় কর এ ভবে...

      জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।