বিদায়বেলায়

বিদায়বেলায়
চারিদিকে পৃথিবীর এত কোলাহল, জীবনের এত আয়োজনে
তা সবে উপেক্ষাভরে, নিথর আমি পড়ে আছি , খাটিয়ার এক কোণে
পৃথিবীর সব রূপ সুধা অবগেহে, ফিরে এসেছি এই ধরনীর পরে।

কত ভাবনা ডানা মেলে, ফানুস উড়ায় মনে
এই শেষবেলায়, তোমায় ফেলে যাবার তরে
বিদায়ের এই বেলা, যদি পাই আমি সবুজ ঘাসের ঘ্রাণ,
ভরে যাবে মোর দেহ মন এই প্রাণ
যদি এখুনি নামে ভরা বাদলের যত ঢল
জীবনের শ্রান্তিটুকু, ভেসে যেত অবিরল
যদি হঠাৎ বইত দমকা হাওয়া, মিটে যেত জীবনের সব পাওয়া।

তবু এই অবেলায়, রবির কিরণ তপ্ত এসে ধায়,
মোর নিথর দেহের পরে, হানে ভ্রুকুটি হায়।
বলে মোরে ডেকে, এই সপ্তরঙা পৃথিবীর ধারে
তোমারি মত কত শত আঁখি চিরতরে, মুদেছে বিষাদে কত ভারে
এই জীবনের হিসেবের খাতারে শূন্য করে।

হঠাৎ কোথা হতে, নীল রঙা প্রজাপতিটি এরই ফাঁকে
চুপটি বসেছে ঠিক আমার বুকের পরে
কী এক অব্যক্ত ব্যাকুলতায়, দিচ্ছে বিদায় তুচ্ছ এই আমায়,
ধরিত্রীর ক্ষুদ্র এ উপহার, নিলাম আমি দুহাত মেলে, মোর সাঁঝের বেলায়।

রিক্ত  আমি অবশেষে, বলছি বিদায় তোমার তরে
সকল খেলা সাঙ্গ করে, যাচ্ছি আমি অচিনপুরে
অন্য কোন ধরণীর পরে।

২৯০ বার দেখা হয়েছে

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।