ঘুম ভাঙ্গার পর

অভ্যেসটা ঠিক এমন হলো-
গভীর রাতে ঘুম ভেঙ্গে যায়।
ইদানীং আর অবাক হই না,
মধ্যরাতে একলা হাঁটি,
বিন্দু বিন্দু শিশিরগুলো-
জমতে থাকে  নগ্ন পায়ে।

চেনাজানা পথ অচেনা হলে-
কাছে কিংবা দুরে কোথাও
হারানো দিনের বিলাপধ্বনি!
সরু লম্বা কান্ডগুলো,
বিষন্নতার স্তম্ভ যেনো।

দুর আকাশে দু’চোখ মেলি,
কেমন যেনো অন্যরকম!
আকাশ ভরা কান্নাগুলো-
কুয়াশা হয়ে নেমে আসে।
কেউ কি জানে মধ্যরাতে-
নক্ষত্ররা এমনি কাঁদে!

মাঝে মাঝে অচিন পাখি-
ডেকে ওঠে করুণ সুরে।
পাহাড়ী মাটির খনিজ হয়ে-
ব্যর্থ প্রানের আর্তি ওঠে।
রাত গভীরে-
মুখের পরে শিশিরগুলো,
অশ্রুধারা গোপন করে।

কোথাও কি কিছু হারিয়ে গেছে?
ভাবতে গিয়ে থমকে দাঁড়াই,
পালিয়ে গেছে জীবন আমার-
এই জীবনের মধ্য থেকে!

 

(পুরনো কবিতার খাতা থেকে)

১,২৯৮ বার দেখা হয়েছে

১৪ টি মন্তব্য : “ঘুম ভাঙ্গার পর”

  1. নূপুর কান্তি দাশ (৮৪-৯০)

    তোমার লেখাগুলো পড়ে মনে হচ্ছে আপাদমস্তক রোমান্টিক মানুষ তুমি।
    অদ্ভুত বিষণ্ণতা লেগে থাকে লেখায়।
    পুরনো খাতা উপুড় করে ঢেলে দাও এখানে।

    জবাব দিন
  2. মীম (২০০৬-২০১১)

    ভাবতে গিয়ে থমকে দাঁড়াই,
    পালিয়ে গেছে জীবন আমার-
    এই জীবনের মধ্য থেকে!

    ভাইয়া ক্যাডেট লাইফ টা শেষ হওয়ার পর এই কথাটাই সব চেয়ে বেশি মনে হয়......... 🙁 🙁 (সম্পাদিত) (সম্পাদিত)

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।