আমার নতুন বান্ধবী

আমার বাবার জন্ম হয়েছিল উনিশ শতকে। তার অভিজ্ঞতার ঝুলিতে জমা ছিল ব্রিটিশ আমলের লাটবাট থেকে আরম্ভ করে পাক শাসনামলের ক্রঢ়তা পর্যন্ত অনেক কিছুই। তবে আমার যে অভিজ্ঞতা হয়েছে, সেটি তার হয়নি, ক্যাডেট কলেজে পড়ার। আমাদের সময়কার ক্যাডেট কলেজের নিয়ম কানুন, রীতি রেয়াজ থেকে এখনকার কলেজগুলো যে অনেকটাই ভিন্ন সেটা চাকুরী সুবাদে ১৯৯০ সালে এ এ জি ক্যাডেট কলেজ থাকার সময়ই টের পেয়েছিলাম। তাও লোভ সংবরন করতে পারিনি একমাত্র মেয়েকে ক্যাডেট হিসেবে দেখার। আমার স্ত্রীর অনেক অনুনয় বিনয়ের পরও আমার আর আমার মেয়ের প্রবল ইচ্ছার কাছে সে একসময় হার মানতে বাধ্য হল এবং আমার ক্যাডেটীয় ধারা অব্যাহত রেখে সে ময়মনসিংহ গার্লস ক্যাডেট কলেজে ভর্তি হল।
এরপর সময় পার হয়ে গেছে এক যুগেরও অনেক বেশী। সেই মেয়ে এমবিএ করেছে, চাকরী বাকরী করছে, বিয়ে করেছে, একটা ফুটফুটে নাতনীও উপহার দিয়েছে আমাকে। এখন কেউ আমাকে যখন জিজ্ঞেস করে আমি রিটায়ার্ডমেন্টের পর বর্তমানে কি করছি আমি আমার বর্তমান চাকরীর কথা না বলে সবাইকে বলি, আমি দুইটা নার্সারী দেখাশুনা করি। একটা আমার বাসার বাইরে, ছাদের উপর গাছ-গাছলায় ভরা, আরেকটা আমার ঘরের ভিতর, আমার মেয়ের বোনা সেই ছোট্ট চারা গাছ, আমার নাতনী, মারযুকাহ। অবশ্য শুরুর দিকে আমি সেই চারাগাছের যত্ন আত্তি করলেও এখন দেখি ধীরে ধীরে সে-ই আমার ৩৩ বছরের পুরনো স্ত্রী কে পিছে ফেলে আমার ঘরের দায়িত্ব বুঝে নিতে চাইছে। প্রতিবেলা খাওয়ার পর তার হাতে ওষুধ না খালে কি ভীষন অভিমান তার। অফিস থেকে ফিরে কলিং বেল শুনেই সে বলে দেয় “নানা এসেছে, নানা, এসেছে!” অধিকার নিয়ে আমার কাছে তার আবদার, “আমার জন্য কি এনেছ?” ওর শাসনকারী মায়ের ভয়ে লুকিয়ে বসে থাকে আমার টেবিলের নীচে, যেন এটাই তার একমাত্র পরম আশ্রয়, নির্ভরতা আর নিরাপত্তার একমাত্র স্থান। নতুন কোন জামা পড়ে বা কপালে টিপ লাগিয়ে কিংবা হাত মেহেদিতে লাল করে প্রথমে যেন আমাক না দেখালে কি ক্ষতিটাই না তার হয়ে যাবে।
অনেক মহিলাদের আক্ষেপ করতে শুনেছি, “বিয়ের আগে ছিলাম কারো মেয়ে, বিয়ের পরে হলাম কারো বউ, এখন ছেলে হবার পর হয়েছি কারো মা…এই কি আমার পরিচয়!!!” আমার কিন্তু বেশ লাগে যখন আমার মেয়ের প্যারেন্টস ডে তে গেলে আমার মেয়ের নাম ধরে “অমুকের বাবা” বলে ডাকত, শোনাতো নাচ, গান, আবৃতিতে তার একক আধিপত্যের কথা। এখন যখন আমার স্ত্রীর মুখে নতুন সম্বধন শুনী “মারযু’র নানা”, সত্যি বলতে কি, ভেতরটা কোন এক অদ্ভুত আনন্দে ভরে যায়।
আমার সাথে খুব মিল আমার এই বান্ধবীটার। হয়ত অনেকেই আবাক হবে জেনে যে এই বয়সেই সে করলা ভাজি খেতে খুব পছন্দ করে, আমিও। আমি যেমন সবার অনেক বকুনি খেয়েও টুকটুক করে এই বাটি, সেই বাটি থেকে খেতে খুব পছন্দ, আমার উনিও দেখি এই পঁচা অভ্যেসটা পেয়েছেন। বন্ধু-বান্ধব, বাড়ি ভর্তি মেহমান অতিথির আসা যাওয়া আমি খুব উপভোগ করি। ইনিও দেখি বাড়িতে কলিং বেল বেজে উঠলেই খুশিতে চকচক করা চোখ দুটি নিয়ে সদর দরজার দিকে ব্যাপক আশা নিয়ে তাকিয়ে থাকে, আর মেহমান আসলে তো কথাই নাই!
আমার মেয়ের ভীষন ইচ্ছা আমার মত, তার মত, একদিন মারযুও ক্যাডেট কলেজে পড়বে। প্রায় রাতেই শুনতে পাই ঘুম পাড়ানোর সময় মা মেয়েটতে মিলে ক্যাডেট কলেজের অনাগত জীবনের গল্পে মসগুল হয়ে থাকতে! “মা, ক্যাডেট কলেজের গল্পটা শুনায় দাও”, “মা, বলনা, ক্যাডেট কলেজে কি অন্নেক চকলেট আছে?” “মা, ক্যাডেট কলেজে গেলে কি আমাকে আর দুধ খেতে হবে না?” “মা, ক্যাডেট কলেজে রাইয়ান মামা এসে আমাকে জালাবে না তো” আরো কত যে সরল জিজ্ঞাসা তার!!! এখন একটু বুঝতে শিখেছে সে, তাই এবার ভাবছি ওকে ওর নানা-বাড়ি দেখাতে নিয়ে যাব ফৌজদারহাটে, এর পর ময়মনসিংহে। একসময় ওর এই ছোট্ট দুটি পা বড় হবে,  হয়তো ক্যাডেট কলেজের গর্বিত প্যারেড গ্রাউন্ডে অক্সফোর্ড সু পরে দাপিয়ে বেড়াবে, আমি কি সে দৃশ্য দেখে যেতে পারব কি না জানি না, হয়তো পারব, হয়তো পারব না। কিন্তু খুব ইচ্ছা মারযু তার নানার মত, মায়ের মত, ক্যাডেট পরিবারের সদস্য হয়ে থাকুক আর একসময় এই সিসিবিতে ওর মা, সাবিহা জিতুর মত লেখা দিয়ে মাতিয়ে রাখুক।
ওর পুর জীবনের জন্য মঙ্গল কামনা করি প্রতিদিন স্রষ্ঠার কাছে। আজ একটু বেশীই করছি কারণ আজ ১৬ সেপ্টেম্বর আমার এই বান্ধবীটির ৩য় জন্মদিন।

আমার সাথে ওর স্মৃতিময় কিছু ছবি সবার সাথে শেয়ার করলাম।

আমার আদরিনি


আমার “শিরমনি”


আকাশ ছোয়ার স্বপ্ন দেখতে শিখাচ্ছি


মায়ের মেয়ে


নাচুনী বুড়ি


মামার মত ডাক্তারও নাকি তার হতে হবে!


হাতেখরি… অনেকদুর এগিয়ে যাক এই কলমের কালি


এই ছবিটা মারযুর না, মারযুর মা, জিতুর। কিন্তু যতবার সে এটা দেখে অভিমানে ঠোট ফুলে ওঠে, “আমাকে এইভাবে নাও নাই কেন?”


খুবই ব্যাস্ত সে তখন!


ছোট্ট হাতে মেহেদি


এই ঈদে তোলা সবচেয়ে রিসেন্ট ছবি।

১২,২৮৯ বার দেখা হয়েছে

১১০ টি মন্তব্য : “আমার নতুন বান্ধবী”

  1. সাবিহা জিতু (১৯৯৩-১৯৯৯)

    অসংখ্য ধন্যবাদ, বজলু ভাই 😕
    ভাবতেও পারিনি আমার মেয়েকে নিয়ে ব্লগ লেখা হতে পারে। আবেগাপ্লুত হয়ে যাচ্ছি।


    You cannot hangout with negative people and expect a positive life.

    জবাব দিন
  2. নূপুর কান্তি দাশ (৮৪-৯০)

    :clap: :clap: :clap:
    ব্লগে স্বাগতম বজলু ভাই!

    জিতুকে আগে চিনেছি বলে আংকেলও ডাকলাম...
    আবার আমরা দুজনেই ফৌজদারহাটের বলে
    জিতুরও আংকেল হয়ে গেলাম... কি মজা...

    আপনার প্রথম পোস্টটি তো মারাত্মক সুন্দর হইসে!
    আপনার কথা, আপনাদের সময়ের কথা আরো বলুন...
    সেই সময়ের এফসিসির কথা....
    আপনি যখন এ এ জি ক্যাডেট কলেজ তখন আমরা কেবল বেরুনোর
    প্রস্তুতি নিচ্ছি ক্যাডেট কলেজ থেকে....

    অনেক অনেক শুভকামনা...

    জবাব দিন
  3. নূপুর কান্তি দাশ (৮৪-৯০)

    বজলু ভাই আরেকটা কথা...
    নতুন যারা আসে তাদেরকে :frontroll: দেওয়ান আমাদের প্রিন্সিপাল স্যার..
    এখন আপনি এসে কি উনাকে :frontroll: দেওয়াবেন?
    :tuski: :tuski: :guitar: :guitar: ....
    এই সম্ভাবনা দেখে বেশী আনন্দ পাবার কারণে আগেই :frontroll: দেয়া শুরু করে দিলাম।

    জবাব দিন
  4. সাব্বির (৯৫-০১)

    অনেক্ষণ চিন্তা করলাম, কারে কি ডাকবো :bash: :bash:
    মারযুর জন্য জন্মদিনের শুভেচ্ছা!
    বজলু ভাই লেখা অতি চমৎকার হইছে :thumbup: :thumbup:
    বজলু ভাইরে বরণ করবে কে 😮 😮 জিতাপু ছাড়া তো আর কাউরে দেখতেছি না :-B
    প্রথম লেখা,,,,,না থাক কিছু না 😕

    জবাব দিন
  5. রাব্বী (৯২-৯৮)

    বজলু ভাইয়ের আগমন শুভেচ্ছা স্বাগতম! সাইফ ভাই (১৯৬১-১৯৬৫) যদি একটু কষ্ট করে :frontroll: ব্যবস্থা করেন বজলু ভাইয়ের জন্য তাহলে মনটা আনন্দ পাইতো। লকিভুল চায়ের ফ্লাক্স নিয়ে তাত্তাড়ি আয়, ম্যালা লোকজন হবে মনে হচ্ছে!

    লেখা এবং ছবি ভাল লাগলো, বজলু ভাই। শুভ জন্মদিন, মারযুকাহ!


    আমার বন্ধুয়া বিহনে

    জবাব দিন
  6. মইনুল (১৯৯২-১৯৯৮)

    প্রথম পার্ট শেষ করেছি৷ আপনার নাতনীর সমান মেয়ে বানিয়ে ফেলেছি একটা৷ এখন মেয়ে বড় করে নাতনীর জন্য অপেক্ষা৷ আরো লেখা চাই, এগিয়ে চলেন বজলু ভাই :clap: :clap: :clap: :boss: :boss: :boss:

    জবাব দিন
  7. জুলহাস (৮৮-৯৪)

    নানাভাইস্যার.........সালাম।
    আপনারে ভাই বলতে লোভ হয়...জানি সেটা করতে-ও পারি...। 🙂
    আর আঙ্কেল বলা? সেটা তো সবসময়ে-ই সম্ভব! 😀
    তাই...চামে নানা ভাইস্যার ডেকে ফেললাম... (ওরে, আমি কত ভস্‌ রে!!) :awesome:
    শুভেচ্ছা...স্বাগতম। :guitar:
    আপনার নতুন বান্ধবী-র জন্য শুভ জন্মদিনে শুভকামনা রইল। :party:
    ওয়েলকাম টু ইয়োর ওউন ওয়ার্ল্ড :salute: :salute: :salute:


    Proud to be an ex-cadet..... once a cadet, always a cadet

    জবাব দিন
  8. সাইফ শহীদ (১৯৬১-১৯৬৫)

    বজলু,

    এখন বুঝলাম কোথা থেকে জিতু তার এই সুন্দর লেখার হাত পেয়েছে। মেয়ে বাবা দু'জনকেই মারযুর এই শুভ জন্মদিনে অভিনন্দন জানাই। সকালে ফেসবুকে অবশ্য এই কথা একবার লিখেছি।

    তবে মারযুকে একলা দখল করে রাখলে চলবে না। ওর যখন ২১ বছর বয়েস হবে - তখন আমার সাথে ডিনারের ডেট রইল।

    আর হা - রাব্বীর কথায় মনে পড়লো - তুমি যখন এ এ জি ক্যাডেট কলেজ ছিলে তখন আমার কোম্পানী থেকে বেশ কিছু কম্পুউটার ক্যাডেট কলেজে সাপ্লাই দিয়েছিলাম। তার সব টাকা কিন্তু আজও পাইনি। জানি তুমি এখন বলবে যে ঐ পদে তুমি আর এখন নেই তাই টাকা দেওয়া সম্ভব না - কয়েকটা :frontroll: :frontroll: :frontroll: তো দিতে পারবে তার বদলে - নাকি এখানেও বাতের ব্যাথার অজুহাত?

    সত্যি খুব সুন্দর হয়েছে তোমার এই মন ছুয়ে যাওয়া লেখা।

    জবাব দিন
  9. মাসরুফ (১৯৯৭-২০০৩)

    এই তাহলে কাহিনী!!!! কি সাঙ্ঘাতিক!!!! বজলু "ভাইয়ের" কাছ থেকেই জিতুয়াপ্পি এরকম লেখার হাত পেয়েছে...(ইয়ে মানে,জিতুয়াপ্পির ব্লগগুলা এবং বিশেষ করে সেখানে আমার কমেন্ট ভাইয়া দেখলে খবর আছে,আমি দৌড়ে পলাবো 😕 :shy: )

    আমার প্রচন্ড হিংসা হচ্ছে,মারজুকাহ বড় হয়ে দেখবে কি অসাধারণ লেখক পরিবারে তার জন্ম!!

    ভাইয়া, অনেক অনেক অনেক অনেক চমৎকার হয়েছে লেখাটা,এই ভোরবেলা সিসিবিতে ঢুকেই মন ভালো হয়ে গেলো...

    এটা আমার প্রথম কমেন্ট এই লেখায়-আশা করি আরো গোটাবিশেক কমেন্ট করবো সময়-সুযোগ বুঝে...এখন ইঁট ফেলে গেলাম মাত্র 😛

    জবাব দিন
  10. মাসরুফ (১৯৯৭-২০০৩)

    হায় হায় বলতে ভুলেই গেছি...হ্যাপ্পি হ্যাপ্পি হ্যাপ্পি বার্থডে টু মাই ডিয়ারেস্ট ভাগনি মারজুকাহ ফ্রম হার পুলিশ মামা!!!(পিচ্চি আমাকে এই নামেই ডাকে ~x( :duel: ) শোন পিচ্চি,আমি কিন্তু এখন রাস্তায় না-তোর ধারণামত সারাদিন রাস্তায় থাকিও না 😡 ২০ তারিখের পরপরই তোর চাহিদা অনুযায়ী স্ট্যাডলারের "লুনা" রংপেন্সিল নিয়ে হাজির হবো-তোর মা কে বলবি চিজ কেক বানিয়ে রাখতে :hug:

    শুভ জন্মদিন মামনি!!!!!

    জবাব দিন
  11. শেখ আলীমুজ্জামান (১৯৭০-৭৬)

    মারযু মা মনিকে শুভ জন্মদিন।
    জিতুকে সিসি ব্লগ প্রাণবন্ত রাখার জন্য শুভেচ্ছা।
    বজলু ভাইকে স্বাগতম।
    তিন পুরুষের ব্লগিং এর অপেক্ষায়-------

    জবাব দিন
  12. আব্দুল্লাহ্‌ আল ইমরান (৯৩-৯৯)
    তাই এবার ভাবছি ওকে ওর নানা-বাড়ি দেখাতে নিয়ে যাব ফৌজদারহাটে, এর পর ময়মনসিংহে।

    এই অনুভূতি অসাধারণ।নেক্সট রিইউনিয়নে চলেন।আমাদের মত অনেক ইয়াং নানা পাবে ওখানে।আপনাদের দেখে সত্যি হিংসে হয় এবং আরো হিংসে করার উপলক্ষ হিসেবে তিন প্রজন্ম ক্যাডেট এবং ব্লগার হিসেবে দেখতে চাই এবং আমার বিশ্বাস,ইনশাল্লাহ সে দিন বেশি দূরে নেই।জিতু তার বাবা মা'কে ভাই ভাবী ডাকার কারনে আমাকে যতই ঝারি দিক না কেন আমার কাছে ফৌজিয়ান ব্রাদারহুড আগে।
    নাতনী কে জন্মদিনের শুভেচ্ছা :party:
    জিতুকে ধন্যবাদ এত সুইট নাতনী উপহার দেয়ার জন্য
    বজলু ভাইকে ব্লগে স্বাগতম :salute: :salute:

    জবাব দিন
  13. দেয়া (২০০২-২০০৮)

    মারযু মামনিকে জন্মদিনের অনেক অনেক শুভচ্ছা।আর তাড়াতাড়ি বড় হয়ে আমাদের কলেজের আরেক জন ট্যালেন্টেড ক্যাডেট বৃদ্ধি করার জন্য দোয়া রইলো।শুভ জন্মদিন :party: :party:

    জবাব দিন
  14. রায়েদ (২০০২-২০০৮)

    বজলু ভাইয়ের নাতনী আর জিতু আপুর মেয়েকে জন্মদিনের অনেক অনেক শুভেচ্ছা। :party: :party:
    অ.ট.: মাত্রই আজ বাড়ি থেকে ফিরলাম। আরেকটু হলেইতো দেরী করে ফেলেছিলাম।

    জবাব দিন
  15. কাইয়ূম (১৯৯২-১৯৯৮)

    শুভ জন্মদিন মারযুকাহ মামণি!
    এমন মায়াময় নানা নানী সহ সবার সাথে নিশ্চয়ই দারুণ জন্মদিন কেটেছে, তাইনা?
    দোয়া করি তার মায়ের চেয়েও বিদুষী হবে আমাদের ভাগ্নী....

    বজলু ভাইকে সিসিবিতে স্বাগতম। চমৎকার মা মেয়ের পিতা ও মাতামহ হওয়ায় আপনার জন্য একরাশ হিংসা 🙂


    সংসারে প্রবল বৈরাগ্য!

    জবাব দিন
  16. মাসরুফ (১৯৯৭-২০০৩)

    বজলু ভাই, ফেসবুকে দেখলাম আপনি ৪৫ পিএমএ লং কোর্সের এবং বর্তমান পাকিস্তান সেনাপ্রধান আশফাক পারভেজ কিয়ানির কোর্সমেট হিসেবে পাকিস্তানে রিইউনিয়নে গিয়েছিলেন।সে সময়ে পাকিস্তান মিলিটারি একাডেমির কথা,তাদের মন-মানসিকতার কথা শুধু হেল কমান্ডো বইটায়(মেজর আনোয়ার হোসেনের) পড়েছি।সে সময়ের ট্রেনিঙ্গের কথা,বাঙ্গালিদের প্রতি ট্রেনিঙ্গের সময় কোন বৈষম্য হত কিনা এসব খুচরো কথা,সেই উত্তাল সময়ে সেনাবাহিনীতে ক্যাডেট হিসেবে আপনার অভিজ্ঞতা,এই এত বছর পর পুরানো কোর্সমেটদের সাথে দেখা হবার পর কেমন লাগলো-এগুলো নিয়ে একটা পোস্ট দেয়া যায় কি??খুব খুব খুব আনন্দিত হব যদি অভিজ্ঞতাগুলো আমাদের সাথে ভাগাভাগি করেন।

    জবাব দিন
  17. সানাউল্লাহ (৭৪ - ৮০)

    আগে মারজুমনিকে বিলম্বিত শুভেচ্ছা জানিয়ে নিই! ~x( সঙ্গে মারজুর গর্বিত মা জিতু আর নানা বজুল ভাইকে অভিনন্দন। জিতুর পাওনাটা হলো এমন একটা মিস্টি মেয়ের মা হওয়ার জন্য। আর বজুল ভাইয়ের পাওনাটা হচ্ছে তেল মারার জন্য।

    পাহাড়-জঙ্গল ঘুরে হাত-পা আর পুরো শরীর ব্যথা। এই অবস্থায় ক্যাডেটদের সামনে (কারো কারো উস্কানি সত্ত্বেও ব্লগের স্বঘোষিত প্রিন্সিপালকে অসম্মানে না ফেলবেন না আশা করি। নূপুর তোমার খবর আছে! পেরেন্টসের কাছে লাভ লেটার যাবে!! :mad:) আর যাই হোক :frontroll: দিতে বলবেন না যেন। আপনার জুনিয়র হলেও আমি আবার সৈয়দ বংশের নাতি (মায়ের দিক দিয়ে) কিনা!! একটা মান-সম্মান আছে না! 😀

    ৫ দিন পর সিসিবিতে। খুলেই দেখি বজুল ভাই! কি দারুণ সারপ্রাইজ!! কোনো অজুহাত নাই। ব্লগে যখন ঢুকেই পড়েছেন আমাদের সঙ্গে থাকুন। কি-বোর্ড টিপতে সমস্যা হলে জুনিয়র ক্যাডেট তো ঘরেই আছে। :thumbup:


    "মানুষে বিশ্বাস হারানো পাপ"

    জবাব দিন
  18. টিটো রহমান (৯৪-০০)

    শুভ জন্মদিন মারযুকাহ মামণি!
    এমন মায়াময় নানা নানী সহ সবার সাথে নিশ্চয়ই দারুণ জন্মদিন কেটেছে, তাইনা?
    দোয়া করি তার মায়ের চেয়েও বিদুষী হবে আমাদের ভাগ্নী….

    বজলু ভাইকে সিসিবিতে স্বাগতম। চমৎকার মা মেয়ের পিতা ও মাতামহ হওয়ায় আপনার জন্য একরাশ হিংসা 🙂


    আপনারে আমি খুঁজিয়া বেড়াই

    জবাব দিন
  19. রকিব (০১-০৭)

    দেরি হয়ে গেলো :(( :(( :(( তারপরো বেটার লেইট দেন নেভারঃ
    শুভ জন্মদিন মারযুমণি!!!!
    সিসিবিতে স্বাগতম ভাইয়া। :teacup: :teacup: :teacup:


    আমি তবু বলি:
    এখনো যে কটা দিন বেঁচে আছি সূর্যে সূর্যে চলি ..

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।