সাব্বির তোর জন্য

তারিখ ৩০শে এপ্রিল,১৯৯৫ বিকাল বেলা, আমি ডাইনিং হল থেকে বাবা-মার সাথে বের হল একটি ছেলে,চারপাশে তাকাচ্ছে, আর দেখছে বেশীর ভাগ অপরিচিত কতগুলো মুখ, তারমতো । ডাইনিং এর সামনের বাস্কেটবল গ্রাউন্ডের পাশের রাস্তায়, একজন খাকি ড্রেস পরা একজন ক্যাডেট দাড়িয়ে বাশি দিচ্ছে, তার আর্মড ব্যান্ডে লেখা ডিউটি ক্যাডেট, নেম প্লেটে লেখা, নাম লেখা “নজরানা” নাম দেখে ছেলেটা ভাবছে, আরে এ আবার কেমন নাম? নজরানা মানেতো “উপহার সামগ্রী”। যাহোক তার কাছে আসতেই,চোখে চোখ পড়লো ছেলেটার দিকে, সে ইশারা দিল হাউসে যেতে, ছেলেটি তখন ভয় পেয়ে, হাউসের দিকে হাটতে শুরু করলো। বাবা-মার কাছ থেকে ঠিক মত বিদায় নিতে পারলো না, বলতে পারলোনা যে, আমার খুব খারাপ লাগবে…..সে খালি পেছনে ফিরে বাবা-মার দিকে একবার তাকালো…দেখতে পেল তার মা তার দিকে করুন দৃষ্টিতে তাকিয়ে আছে এবং চোখ দিয়ে পানি পড়ছে…।

সাব্বির তোর মা-তোর জন্য নিশ্চয় এই ভাবে চোখের পানি ফেলবে নীরবে….মা তো, ঈদে ছোট ছেলে কাছে নাই, মন খারাপ করিস না,,আর মাকে অবশ্যই ঈদের দিন সবার আগে ফোন দিবি, কি ঠিক আছে…..

Long Back ago…
There was a huge Apple tree..
A Little boy loved to play with it..
He Love to climb the tree, love to tree, love to eat apples…

l…love to take the nap under its shadow …
Times went on… The boy grew up…
And he no longer play around the tree
.. ..
.. ..
.. ..
One day the boy came….
The Tree asked him.. “Hi.. Come and Play with me..”
The Boy replied..
“I am not a kid.  Idon’t play around tree”
“I play with toys.  I need money to buy toys.”
The Tree said… “I don’t have money but you can take all my apples and sell it.
You will get the money .”
The boy picked all the apples of the tree and went..
He sold the apples and got money…
… he bought lots of toys…
But he didn’t turn back…
.. ..
The Tree was again sad…
.. ..
.. ..
One day again the boy came, he became a young man now…….
The Tree said… “HI… Why are you Sad? Come and Sit  under my shadow…
I am feeling very lonely without you…”

The boy said… “I don’t have time…
I work for my family…
I want to build Home  for them…
I Need money…”
The Tree said..  “I don’t have money…
You can take my Branches and Trunk…
and build your home…”
The Boy Became Happy…
He cut all the branches and trunk of the tree ………
And built a home for him….
Again the tree became alone.. alone..
.. ..
The boy didn’t turned back..

Time passes on .. Time passes on ..
After Long time the boy came back..
.. ..
He was so old…  Looking sad…Tired… And lonely..
The Tree asked him… “Whyare you Sad..
I Wish.. I Can help you… … but I Don’t have Apples… I don’t have branches….
Even I don’t have Shadow…
Nothing  to Offer you…
The Boy (old man) replied… “I am tired of my life…
I am alone…”
…“I just need you… …
Can I sit down at your roots.”



The Boy The Boy
(Old man)  sit down ..
Both were
happy &weeping

Is the boy really cruel and selfish??
?? ??
?? ??
?? ??
?? ??
?? ??
We all are like him…
And treating our parent
like that….
The tree is like our parent
We love to play them when
we were kids…
We leave them alone…and
come only when… We are in need or in trouble
We don’t have Time for our Parent…
No matter what, parent will always give everything….
To make us happy and solve our
problems…
And in return what they want….
Just our company!
Please love to your parent…
Don’t forget them…
Give them Time…Give them your company…
They will be happy by seeing you happy..…
Please Don’t leave  your parent …
Gratitude them…
One can gets Child as many as he want,
but parent he gets only once… (Bexca Group এক বার পোস্ট করেছি মনে হয়)

২,১১৩ বার দেখা হয়েছে

২৮ টি মন্তব্য : “সাব্বির তোর জন্য”

  1. সায়েদ (১৯৯২-১৯৯৮)

    অসাধারন।
    পড়তে পড়তে ভাবছিলাম লেখাটা বাংলায় ঠিক কিভাবে লিখলে সঠিক অনুভূতিগুলো ফুটিয়ে তোলা যায়। বাবা মা'কে মনে পড়ছে।
    কিছু কিছু সময়, কিছু কিছু মুহূর্ত ক্যামেরায় ধরে না রাখলেও মনের ফ্রেমে ঠিকই বন্দী হয়ে চিরস্থায়ী হয়ে যায়। কলেজে যোগদানের দিনটা বোধকরি সেইরকম একটা মুহূর্ত। এরপর কত দিন কত রাত চলে গেছে কিন্তু সেই দিনের ঘটনাগুলো, অনুভূতিগুলো সেইরকম তরতাজাই আছে এখনও, চিরদিন থাকবে বলে বিশ্বাস করি।
    এই ঈদে যারা বাবা মা থেকে দূরে আছেন তাদের জন্য বিশেষ শুভেচ্ছা।


    Life is Mad.

    জবাব দিন
  2. সায়েদ (১৯৯২-১৯৯৮)
    ডাইনিং এর সামনের বাস্কেটবল গ্রাউন্ডের পাশের রাস্তায়, একজন খাকি ড্রেস পরা ক্যাডেট দাঁড়িয়ে বাশি দিচ্ছে, তার আর্মড ব্যান্ডে লেখা ডিউটি ক্যাডেট, নেম প্লেটে লেখা “নজরানা” নাম দেখে ছেলেটা ভাবছে, আরে এ আবার কেমন নাম? নজরানা মানেতো “উপহার সামগ্রী”

    তোমাদের বা অন্যদের দোষ দিয়ে কি লাভ...নজরানা নিজেই মাঝে মাঝে বিশ্বাস করতে চায় না যে এইরকম নামে দ্বিতীয় আর কেউ থাকতে পারে। বিশ্ববিদ্যালয় কোচিং সেন্টারে (সম্ভবত UCC) পরিচিত হবার সময় একটা মেয়ে যখন বলল তার নাম 'নাজরানা' তখন আমাদের নজরানা চোখ পাকিয়ে বলেছিল, "ফাইজলামি কর? আমার সাথে ফাইজলামি কর"?
    শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত নজরানা এনটিভি'তে আছে, দাবিয়ে রিপোর্টিং করছে।


    Life is Mad.

    জবাব দিন
  3. কামরুলতপু (৯৬-০২)

    নজরানা নাম নিয়ে তো এইরকম হইলে সমস্যা নাই আমার সাধের তপু নিয়েই হইছে। ইন্টার পাশ করে বুয়েটে ঢুকে তখন বুয়েটের সিল ভাংগিয়ে চলছি। পড়াতে পারি আর না পারি সমানে টিউশনি করি বুয়েট ছাত্র বলে কথা। এক ছাত্রী পড়াতে গেছি প্রথম দিন। জিজ্ঞেস করলাম তোমার নাম কি ? বলে আমার নাম ভাইয়া তপু। আমার তখনকার অবস্থা আর কি বলব।

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।