জুতা পালিশ

সবাই কে লিখতে দেখে ভাই-বোনেরা আমারো খুব লিখতে ইছ্ছা করছিল। যার ফসল এখন আমি, যে অখাদ্য আপনাদের গিলাতে যাচ্ছি…,,,

আমরা তখন ক্লাশ ৮ এ। একদিন শুনতে পেলাম সোহরায়ার্দী হাউসের ক্লাশ ৭ এর (নাম বললাম না)…একজন সানসেটের উপর উঠেছিল।
পরে আমাদের ব্যাচের কয়েকজন তাকে সানসেটের উপর দেখে, সেখান থেকে তাকে উদ্ধার করার পর, এক রুমের ভিতর নিয়ে গিয়ে রিমান্ড শুরু করে।
পরে রিমান্ডের রেজাল্টে জানা গেল……….সে আত্মহত্যা করতে সানসেটের উপর উঠেছিল। ভয়ংকর ব্যাপার……..আত্মহত্যা চেষ্টার কারন?………
কয়েকদিন পর নভিসেস্ প্যারেড, তার জুতা আয়নার মত পলিশ হচ্ছেনা,………..

যে ছেলে সামান্য জুতা পলিশ এর জন্য আত্মহত্যার চেষ্টা করতে পারে, নিশ্চয় সে ভবিষতে আরো বড় বিপদ ঘটাতে পারে, এই চিন্তা করে আমাদের ব্যাচমেটরা তাকে হাউসমাষ্টারের হাতে সোপার্দ করলো।……….হাউসমাষ্টার জনাব বেলাল স্যার…..সব কাহিনী শুনে সে তার বিখ্যাত হুংকার দিয়ে ক্লাশ ৭ টাকে ধরলো………পরে তাকে স্টেটমেন্ট লিখতে বললো……সে সব কিছু লিখার পর, শেষে তাকে লিখতে বলা হলো……..

(বেলাল স্যার যেভাবে বলেছিল): হু…আত্মহত্যা কুরতে চাস্…..হু সাহস কুমনা ……….লিখ্…..আমি যুদি আর একবার আত্মহুত্যা করি(?)………….তাহলে আমাকে যেন ক্যাডেট কলেজ থেকে আউট করে দিলে আমার কিছু বলার থাকবে না।..

সে ঠিক এই কথাই লিখতে বাধ্য হয়েছিল। এরপর সে আর আত্মহত্যা করেনি, কিন্তু তার নাম হয়েগিয়েছিল………সুইসাইট (__তার নাম__)।

২,৬৮২ বার দেখা হয়েছে

৪২ টি মন্তব্য : “জুতা পালিশ”

  1. জুনায়েদ কবীর (৯৫-০১)

    আমি যুদি আর একবার আত্মহুত্যা করি(?)………….তাহলে আমাকে যেন ক্যাডেট কলেজ থেকে আউট করে দিলে আমার কিছু বলার থাকবে না।..

    =)) =))


    ঐ দেখা যায় তালগাছ, তালগাছটি কিন্তু আমার...হুঁ

    জবাব দিন
  2. আহ্সান (৮৮-৯৪)

    কোমলমতি ছেলে পেলে...।
    আর বাইছা বাইছা সোহরাওয়ার্দী হাউসের...? পইরা গেলে তো ভর্তা হইয়া যাইতো...। আচ্ছা, বেলাল স্যার না শরিয়তউল্লাহ হাউসের হাউস মাস্টার ছিলেন?

    জবাব দিন
  3. রায়হান আবীর (৯৯-০৫)

    ও আরিফ ভাই আছেন ক্যামন বস?? আপনি কুই?? ব্লগে স্বাগতম।

    অফ দ্য টপিকঃ সিসিবি তো বরিশালে সয়লাব হৈয়া গেলো। বরিশালের পোলাপাইন এতো বস ক্যান?? :boss: :boss: :boss:

    জবাব দিন
  4. সায়েদ (১৯৯২-১৯৯৮)

    আইনস্টাইনের সূত্র ভুল প্রমাণ করার একটা ব্যাপার ঘটছিল কলেজে। এইটা কি তোমার এই ক্লাসমেটের কান্ড না 😉 ?
    বেলাল স্যারকে নিয়ে টক ঝাল মিস্টি অভিজ্হতা মন্দ নেই।
    দেখি সময় করে লিখে ফেলতে পারি কিনা।


    Life is Mad.

    জবাব দিন
    • মাসরুফ (১৯৯৭-২০০৩)

      বেলাল স্যার বিশাল এক আইটেম ছিলেন রে ভাই!!আচ্ছা উনার একটা কমন ডায়ালগ ছিল-"হাগু করেছেন??" সেই থেকে আমরা বলতাম-"বয়েজ,আজকে প্রথম পিরিয়ড কিন্তু "হাগুমুতুর"।
      আমাদের "এস" এর সাথে স্যারের কথোপকথন ছিল এরকমঃ
      -স্যার,বাইরে যেতে পারি?
      --কেন যাবেন?
      -স্যার,টয়লেট করব।
      -কেন?
      --স্যার ছোট বাথরুম পাইছে।
      -(ভয়ংকর রেগে)তোমার "যন্ত্র" আমি কেটে নেব,যাও সিটে গিয়ে বস!!
      অফ টপিকঃএর পর পুরো টার্ম "এস" এর নাম ছিল "যন্ত্রকাটা" আর বেলাল স্যারের নাম ছিল "হাজাম"। 😀

      জবাব দিন
  5. ভাই, বেলাল স্যারের কথা মনে করে দিলি। তাহারে আমি পাগলের মত ভয় পাইতাম, যত না ভয় পাইতাম তার কেমেস্ট্রি-রে। মনে আছে এক পর্যায় সারনী পড়াইয়া দুই টার্ম কাটায়া দিছে। আর যতদিন ক্লাস নিছে, ক্লাসে ঢুইকা-ই আমার তলব। "জ্যা, মহিউদ্দিন সাহেব দাড়ান, পড়া কি শিখছেন? পড়া বলেন, না পারলে কানে ধরেন" কোন একটা দিন ইনার হাত থেকে বাচতে পারি নাই।
    যাই হোক, ইনি যদি জানতে পারতেন যে, আমাকে কেমিস্ট্রি নিয়াই বাকি জীবন চালাইতে হইতেছে তবে নির্ঘাত তিনি হার্ট ফেল মারতেন।

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।