চেতনাহীন প্রাণ

জীবনের পঁচিশটি বছর কাটিয়ে দিলাম
তোমার সাথে, তোমার পথে, তোমার পাতে ।

সব সময় তুমি বলেছো—
তোমার কোন স্বপ্ন নাই,
বেঁচে থাকার মায়া নাই,
কাজে কর্মে বিশ্রাম নাই,
কাজ করে উপার্জন নাই,
সুখ নাই, শান্তি নাই,
নাই, কোন কিছুই নাই,

অথচ আমি ভেবে দেখি
বেশ সুখেই তো কেটে গেল এতটা কাল ।
সেই পদ্মা তীরে তোমার হাত ধরে
মিশে যেতাম বালু চরে ।

পরম হংসের মতো জেগে উঠতাম
সে কি, পাখা মেলে ঝাঁপটা ঝাঁপটি;
বিকেল গরিয়ে রাত, রাত গরিয়ে ভোর
তবু ঘুম ঘুম চোখে থাকতাম পরিপাটি।

আমি জানি, কি করে চলে গেল পঁচিশ বছর
আর তুমি এখন ভাবো, কি করে যাবে আগামী বছর।
রুপ হীন গন্ধ হীন জীবনের অখন্ড অবসরে
কুড়িয়ে আনবো ফেলে আসা সুখেদের আমার ঘরে।
তখন তুমি আমায় ফেলে কোথায় পালাবে,
জানি তোমার গ্লানি ককটেল হয়ে ফুটে উঠবে।

আমি জানি সেটাই হয়তো আমার পুরস্কার,
তুমি আমায় করনা কেন যত তিরস্কার।
আমার অনুপস্থিতি হয়তো তোমায় করবে আখিঁ জলে সিক্ত,
চেতনাহীন আমার প্রাণ তাতেই হবে উদ্দীপ্ত।

৫৬২ বার দেখা হয়েছে

৭ টি মন্তব্য : “চেতনাহীন প্রাণ”

  1. খায়রুল আহসান (৬৭-৭৩)

    ৫ বার 'নাই' শোনার পর কবিতার ৯ম লাইনে হঠাৎ 'নেই' শুনতে কেমন যেন লাগছে। এখানের নেই দুটোকেও নাই করে দিলে কেমন হয়?
    দুটো টাইপো চোখে পড়লো, 'উটবে' আর 'পুরুস্কার'।

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।