এক জন সাধারন ক্রিকেট দর্শক

আমার জীবনে ক্রিকেট কিভাবে এল জানি না। এই দেশের আর সব ছেলেদের মতো একদিন আমিও খেলাটা কোনও ভাবে শিখে গেলাম।প্রথম খেলা দেখার কথা যা মনে পরে তা হল ৯৬ এর বিশ্বকাপ ফাইনাল অস্ট্রেলিয়ার সাথে শ্রীলংকার।আর খেলা দেখার শুরু মোটামুটি ৯৭-৯৮ এরদিকে।প্রথম কোনও দল সাপোর্ট করলাম পাকিস্তান।সেবার পাকিস্তান এর সাথে শ্রীলংকার খেলা হয়েছিলো ঢাকাতে।প্রথম ওয়াসিম আকরাম আর শোয়েব আখতার এর খেলা দেখলাম।ওয়াসিম আকরাম সেই সিরিজে বোল্ড করে স্ট্যাম্প ভেঙ্গেছিল যা আমার তখনকার বালক মনে ব্যাপক দাগ কেটেছিল।এরপরে ৯৮ এ হোল উইলস ইন্টারন্যাসনাল কাপ।এবার হয়ে গেলাম সাউথ আফ্রিকার ভক্ত। সব কিছুর মতো আমার মাঝেও ক্রিকেটীয় বিবর্তন ঘোটতেথাকলো।খেলা সম্পর্কে আরও শিখতে লাগলাম। বাংলাদেশ আইসিসি ট্রফি জিতেছে সেই ম্যাচ না দেখলে ও ৯৯ এর বিশ্বকাপ থেকেই বাংলাদেশ এর খেলা দেখার শুরু আর এই সময়টাতেই প্রথম দেশের প্রতি টানটা অনুভব করতে শুরু করলাম আর জানি না কেন আর সব দলের প্রতি আকর্ষণ কমতে থাকলো আর বিশেষ করে পাকিস্তানের প্রতি বিতৃষ্ণা আরও বারতে থাকলো যদিও জীবনের প্রথম সাপোর্ট পাকিস্তান কেই করেছিলাম। হয়ত তাদের খেলা মনে দাগ কেটেছিল কিন্তু তাদের অতীত এক সময় আমাকে তাদের প্রতি বিদ্বেষ তৈরি করে দিল । আর ক্যাডেট কলেজে ইন্ডিয়া পাকিস্তান খেলা মানেই নতুন এক উৎসব , ঝগড়া , কোন্দল,হইচই,আনন্দ আর যেহেতু পাকিস্তান সাপোর্ট করবো না সুতরাং তাদের বাশ দিতে হইলে ইন্ডিয়া সাপোর্ট করাটাই সুবিধা জনক হবে।আর এইদিক বিবেচনা করেই ইন্ডিয়া কে সাপোর্ট করা।

আর সব বাঙালীর মতো আমারো আবেগ হয়তো বেশী তাই বাংলাদেশ টিম এর খারাপ ভাল কেমন যেন নিজের গায়ে লাগে মনে হয় তাই সেবাগ যখন বাংলাদেশ কে সাধারণ বলে আর সবার মতো কষ্ট পাই মন খুলে গালি দেই, পাকিস্তান যখন প্রলোভন দিয়ে তাদের দেশে সফরে যেতে বলে আর আমাদের বিসিবি প্রধান কথা দেয় তখন নিজেকে খুব ছোট মনে হয়।

এখনো হোস্টেলেই থাকি ক্যাডেট কলেজের সেই উদ্দাম দিন পার করে এসেছি, নিজেকে একটু বর বর লাগে কিন্তু সেই পাকিস্তান ইন্ডিয়া খেলা আসলেই মন এর দিক থেকে অনেক ছোট হয়ে যাই । জানি না পাকিস্তানিরা বা ইন্ডিয়ান রা তাদের দেশ রেখে অন্ন দেশ সাপোর্ট করে কিনা কিন্তু টিভি রুমে যখন পাকিস্তান বা ইন্ডিয়া বলে হইচই চলে অবাক লাগে এই টা কি বাংলাদেশ?

শেষ বছর বি পি এল এ সবাই একটা দল সাপোর্ট করেছে আমিও করেছি কিন্তু খেলা দেখতে গিয়ে আবিষ্কার করলাম আমি কোন দল কে সাপোর্ট না কোরে প্লেয়ার কে সাপোর্ট করছি যখনি কোন বাংলাদেশি ব্যাট করছে বা বল করছে তাকেই সাপোর্ট করছি , যেই টিম ই জিতুক বাংলাদেশ এর কেউ ভালো খেলল কিনা এইটাই জানার আগ্রহ বেশী ছিল।

আমার লেখাকে অনেকে বলবে প্রফেসনাল আচরণ না খেলা ত খেলাই। খেলাকে ভালবাসি তাই অমুক দল সাপোর্ট করি ভালো কথা কিন্তু তাই বলে ত নিজের ঝাপি খুলে দিতে হবে না। ইন্ডিয়া পাকিস্তান বলে শ্লোগান দেয়ার কি আছে জানি না হয়ত এটাই প্রফেসনাল আচরণ।

আফসস খেলাটা এখনও বুঝলাম না। আসন্ন BPL কোন দল সাপোর্ট করবো বুঝতে পারছি না। শুভকামনা সকল বাংলাদেশী সকল প্লেয়ার দের জন্য।

৫৫৫ বার দেখা হয়েছে

৪ টি মন্তব্য : “এক জন সাধারন ক্রিকেট দর্শক”

  1. নাফিস (২০০৪-১০)

    ক্যাডেট কলেজে যাবার আগে আমি প্রতিযোগিতা মূলক কোনো টুর্নামেন্টে খেলিনি। ক্লাস এইটে র ক্রিকেট কম্পিটিশন ছিলো আমার ফার্স্ট কোনো টুর্নামেন্ট। আর আপনি ছিলেন আমাদের টিমের ক্যাপ্টেন। সেই হিসেবে আপনি আমার ফার্স্ট ক্যাপ্টেন। ওস্তাদ শাওন ভাইকে ::salute:: রেগুলার লিখে যান। 🙂

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।