আকাশ বাড়িয়ে দাও

শিরোনামটির অর্থ আকাশের মতই হতে পারত। তবে এটি আমার নিজের সৃষ্ট কোন শিরোনাম নয়। আমি এই শিরোনামে কিছু একটি পড়েছিলাম যা আমার মধ্যে ভালো কিছু একটা করার প্রয়াস পাইয়েছিল। ভাবিয়েছিল অন্যের জন্যও কিছু করতে। কিন্তু এ বিষয়ে আমার “আহ্বান করা ” ছাড়া উপায় নেই। তাই যথাসাধ্য করার চেষ্টা থেকেই এটুকু করা। ক্যাডেট কলেজের গণ্ডিঘেরা পরিবেশে সবাই একজন হলেও যার কথা স্মরণ করেই তার সবচেয়ে বড় পরিচয় “মা”। ক্লাস সেভেনের মত জনসম্মুখে আবেগ দিয়ে সবাই একথা প্রকাশ না করলেও দায়িত্ববোধের দুনিয়ার মায়ের ঋণ একটু হলেও হালকা করার চেষ্টা সবাই করে বলেই আমরা বিশ্বাস করি। আমরা যদি নিজেদের প্রেক্ষাপটে চিন্তা করি তাহলে এই মানবিক ব্যাপারটির সর্বোচ্চ উপলব্ধি করা সম্ভব।
ঝিনাইদহ ক্যাডেট কলেজের ৩৫তম ব্যাচের (ক্যাডেট#১৯১২) জাকির ভাইয়ের কথা বলছি। খাইবার হাউসের চার দেয়ালের মাঝে থেকে তিনি যখন মায়ের কথা চিন্তা করতেন, তখন হয়ত মনকে সান্তনা দিতেন এই বলে “মা ভালো আছে”। মায়ের চিঠির দীর্ঘ অপেক্ষা শেষে সারদিনের ব্যস্ত দিন পার করে লিখতে না পারলেও হয়ত মনে মনে নিজেকেই বলতেন “তোমার দোয়ায় ভালো আছি মা” তেপান্তর পেরিয়ে মা হয়ত সেকথা শুনতে পেতেন। মা তো!!

আজ ভবিষ্যতের সিড়িতে দাড়িয়ে তাকে পিছু ফিরে তাকাতে হয়, হতে হয় বিমর্ষ! বর্তমানে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজী বিভাগের ৪র্থ বর্ষে অধ্যয়নরত। তাঁর মা অসুস্থ। বর্তমানে ঊনি ভারতের সি.এন.সি হাসপাতালে ভর্তি আছেন। ঊনার দুটো কিডনি নষ্ট হয়ে গেছে বলে চিকিৎসক জানিয়েছেন। চিকিৎসার জন্য কমপক্ষে ২০লাখ টাকার প্রয়োজন। তাঁর পরিবার যথেষ্ট প্রচেস্টা সত্বেও এককভাবে এই ভার বহন করতে পারছে না। ক্যাডেট সম্প্রদায় কি পারবে না একজন ক্যাডেটের মা’কে ফিরিয়ে দিতে। মানুষ হিসেবে আমরা কি ফিরিয়ে দিতে পারব না একজনের মা ডাকার অধিকার?

জীবনের অথৈ নদীতে যদি কাউকে পার করা যায় তাতে তো কোন ক্ষতি নেই। সকলের চেষ্টায় আসুন একজন মা’ কে ফিরিয়ে দিতে চেষ্টা করি তাঁর সন্তানের কাছে। আর একবার প্রমাণ করি “মানুষ মানুযের জন্যে”

সাহায্য পাঠানোর ঠিকানা
এ.এস.এম জাকির হোসেন
সঞ্চয়ী হিসাব নং# ১৪২৫৬১০০২১০৪১৬৪৮
সিটি ব্যাংক(City bank), ধানমণ্ডি শাখা, ঢাকা

বাংলাদেশের বাইরে যাদের CITY ব্যাংক (citi ব্যাংক নয়) এর এই শাখায় (ধানমণ্ডি) টাকা পাঠাতে সমস্যা তারা মানিগ্রাম বা western union অথবা এ জাতীয় মাধ্যেমে উপরে উল্লিখিত একাউন্টে টাকা পাঠাতে পারবেন।

যে কোন তথ্যের জন্য যোগাযোগ করতে পারেন—–
০১৯১১-৩৩৮৮৪৫ (জাকির ভাই)
০১৯১২-৭৩০১২৬
০১৯১১-৬৯৩০৮৮
০১৬৭৫-২১০০৯৯
০১৯১১-৮৭৪০৫২

৩,০০৫ বার দেখা হয়েছে

৪০ টি মন্তব্য : “আকাশ বাড়িয়ে দাও”

  1. রাশেদ (৯৯-০৫)

    ইউনিতে ওনার বন্ধুরা সম্ভবত একটা ক্যাম্পেইন করছে। চেষ্টা করব বন্ধুবান্ধব্দের সেখানে কন্ট্রিবিউট করতে উদ্বুদ্ধ করতে আর নিজের পক্ষে যা ক্ষুদ্র সামর্থ আছে তা সেখানে কন্ট্রিবিউট করতে।


    মানুষ তার স্বপ্নের সমান বড়

    জবাব দিন
  2. ফয়েজ (৮৭-৯৩)

    যতখানি পারি ব্যাংকে দিয়ে দিব ইনশাআল্লাহ।

    ধরে নিচ্ছি এটা দি সিটি ব্যাংক, সিটি ব্যাংক এন এ নয়।

    আশা করি উনি সুস্থ হয়ে আবার আমাদের মাঝে ফিরে আসবেন।


    পালটে দেবার স্বপ্ন আমার এখনও গেল না

    জবাব দিন
  3. ওয়াহিদা নূর আফজা (৮৫-৯১)

    যেই ব্যাংকের ঠিকানা দিয়েছ, তার সাথে আমেরিকায় আমার ব্যাংকের সরাসরি যোগাযোগ নেই। চেক পাঠানোর জন্য কোন ঠিকানা দেওয়া যাবে?


    “Happiness is when what you think, what you say, and what you do are in harmony.”
    ― Mahatma Gandhi

    জবাব দিন
    • আউয়াল (২০০৩-২০০৯)

      বাংলাদেশের বাইরে যাদের CITY ব্যাংক (citi ব্যাংক নয়) এর এই শাখায় (ধানমণ্ডি) টাকা পাঠাতে সমস্যা তারা মানিগ্রাম বা western union অথবা এ জাতীয় মাধ্যেমে উপরে উল্লিখিত একাউন্টে টাকা পাঠাতে পারবেন।

      জবাব দিন
    • জাকির (১৯৯৮ - ২০০৪)

      মায়ের অবস্থা দিন দিন আরও খারাপ হচ্ছে। আমি কি পারবো না আমার মাকে মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরিয়ে আনতে? এখন পর্যন্ত যে কিছুই হল না। আমি কি কিছুই করতে পারব না?

      জবাব দিন
      • কাইয়ূম (১৯৯২-১৯৯৮)

        ভাইয়া জাকির,
        ইনশাল্লাহ মায়ের জন্য প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সহায়তার ব্যবস্থা হয়ে যাবে। তোমার মনের অবস্থা পুরোপুরি বুঝেও বলছি ভাইয়া একটু শক্ত হও, ইনশাল্লাহ সবকিছু ঠিক হয়ে যাবে।

        সেইসাথে, সিসিবি'র আমরা যারা আমাদের মায়ের এই বিপদে আমাদের সীমিত ক্ষুদ্র কিন্তু আন্তরিক সামর্থ নিয়ে জাকিরের পাশে দাড়াতে চেয়েছি কিংবা প্রতিশ্রুত হয়েছি সাথে থাকার, এখন চূড়ান্ত সময় চলে এসেছে নিজেদের সাধ্যের ভেতরের সহায়তাটি নিয়ে সামনে আসার। জাকিরের কথা থেকেই আমরা জানলাম উনাকে ইন্ডিয়া নিয়ে যাবার কথা ছিলো আরো আগেই। তাই সবাইকে অনুরোধ করছি যারা পাশে থাকতে চেয়েছেন, কিংবা এখনো বলেননি, অথচ থাকবেন, আমরা সবাইই যাতে একটু দ্রুত নিজ নিজ কন্ট্রিবিউশন টা উপরে দেয়া ফোন নাম্বারে যোগাযোগ করে কিংবা ব্যাংকে পৌছে দিই। কারো সময়াভাব থাকলে আমাকে বা সিসিবি'র যে কাউকে একটা মেসেজ বা ফোন কল দিলে আমরা সেটা নিয়ে আসার ব্যবস্থা করবো।

        আবারো বলছি, যা করার একটু দ্রুত করতে হবে। ইনশাল্লাহ আমরা সবাই মিলে মাকে সুস্থ করে তুলতে পারবো।


        সংসারে প্রবল বৈরাগ্য!

        জবাব দিন
  4. আদনান (১৯৯৪-২০০০)

    আউয়াল পোস্ট টা তো এখনো আপডেট করলেনা । তাড়াতাড়ি আপডেট কর । আর দেখ বাইরে থেকে টাকা পাঠাতে চাইলে কার কাছে পাঠাবো, পয়েন্ট অফ কন্টাক্ট এগুলো আপডেট কর । পোস্ট টা আমার কাছে খুবই অসম্পূর্ন লাগছে । আশা করছি তাড়াতাড়ি গ্যাপ গুলো পূরন করবে । ভাল থেক ।

    জবাব দিন
  5. নাজমুল (০২-০৮)

    আমার শুনে খুব খারাপ লাগতেসে এবং আরো সমস্যার কথা ফারজানা(MGCC) এর অবস্থাও খারাপ।
    আল্লাহ তুমি ভাইয়ার দিকে তাকিয়ে ওনার মাকে সুস্থ করে দাও।
    ভাইয়ারা আমি পারতেসিনা কোনো সাহায্য করতে আপনারা একটু ওনার জন্য সাহায্য করেন 🙁

    জবাব দিন
  6. সিসিবি একাউন্ট না থাকায় সরাসরি যোগাযোগ করতে পারিনি। তবে ভাইয়ারা যা করার খুব তাড়াতাড়ি করা লাগবে। এ মাসের মধ্যে অপারেশন না করাতে পারলে আর কোন লাভ হবে না। শুধু আমার মা হিসেবে নয়, তার তো জাতি কে দেবার আরো অনেক কিছু আছে। আপনারা কি আমার মাকে মৃত্যুর হাত থেকে ফিরিয়ে আনতে পাশে থাকবেন না?

    জবাব দিন
  7. সানাউল্লাহ (৭৪ - ৮০)

    আমি আগে খেয়াল করিনি যে, এই জাকির এবিসি রেডিও'তে গত ১ তারিখ রেডিও ট্রেইনি হিসেবে যোগ দিয়েছে। ক্যাডেট কলেজের শিক্ষার্থীদের ব্যাপারে আমার একটা দুর্বলতা আছে। তারপরও লিখিত ও কণ্ঠ এবং পরে সাক্ষাৎকার পর্বে উত্তীর্ণ না হলে কাউকে নেওয়া হয় না। জাকির যথারীতি সব উত্তীর্ণ হয়েই কাজে যোগ দিয়েছিল। কয়েকদিন প্রশিক্ষণে থেকেছে। তারপর থেকে অনুপস্থিত। আমাদের প্রধান প্রতিবেদক জানিয়েছিল, ওর মা অসুস্থ তাই আসতে পারছে না। কিন্তু বেশ কিছুদিন পর আজ যখন ও অফিসে এসে আমাকে মায়ের অসুস্থতার বিস্তারিত জানালো তখন বুঝলাম, এই সেই জাকির।

    ওর মায়ের যে অসুস্থতা, ওর ওপর যে চাপ- কি বলবো, কি লিখবো! আমার বাবার মুখটা ভেসে উঠছিল বারবার। কিডনি 'ফেলিউরে'র কারণেই বাবা ১৯৯২ সালে মারা যান। চোখের সামনে। আজ বুঝি, কিছুই চিকিৎসা পাননি। তখন আমার বয়স ছিল ৩০-এর মতো। বড় ছেলে। ছোট চাকরি করি। সেসব যন্ত্রণা-দুর্ভোগের দিনগুলো এখনও স্মৃতিতে মাঝে-মধ্যে হানা দেয়।

    জাকিরের মাকে শিগগিরই চিকিৎসার জন্য ভেলোরে নিতে হবে। কিডনি ট্রান্সপ্লান্ট করতে হবে। ওর বন্ধুরা কনসার্ট করছে কলাবাগান মাঠে। এবিসি রেডিও অবশ্যই ওর পাশে থাকবে। রেডিও সঙ্গী হিসাবে কনসার্টের প্রচার দেবো আমরা সর্বোচ্চ। নিজে তো টিকেট কিনবোই, পাশাপাশি অফিসের সবাইকে কিনতে উৎসাহিত করবো। আসো আমরা সবাই মিলে একটা চেষ্টা করি।


    "মানুষে বিশ্বাস হারানো পাপ"

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।