ক্যাডেট নামচা- ১৯৮৬-৯২

ক্যাডেট কলেজ ব্লগ এ কিছু লিখতে যায়ে মান্না দে’র “কফি হাউসের সেই আড্ডাটা আজ আর নেই……আজ আর নেই” – এই গানটাই প্রথম মনে পড়ল। সমাজবিজ্ঞানে বলে, প্রতিটা মানুশের জীবনে কী স্টেজ ৩ টা – 1. Birth, 2. Puberty, 3. Marriage and Death।আর আমার জীবনে কী স্টেজ চারটা। সেই ৪ নম্বর টা হইলো ক্যাডেট কলেজ.আমার জীবন নামের ৪ খন্ডের বইয়ের একটা খন্ড এই ক্যাডেট কলেজ. আজকে আমি যতটুকুন, মা-বাবার পরে বাকিটা আমাকে দিয়েছে ক্যাডেট কলেজ। এমনকি বিশ্ববিদ্যালয় জীবনেও আমার যেই অর্জন সেখানেও আছে ক্যাডেট কলেজ এর অবদান। এই যে চাকুরী জীবন, এখানেও আমাকে পথ দেখায় ক্যাডেট কলেজ। সেই ১৯৮৬ সাল, ২২ বছর আগের কথা, ১২ বছরের একটি ছেলে বাবা-মায়ের হাত ছেড়ে সজল চোখে কলেজ গেট পার হয়ে হাউজ এর দিকে ভীরু পায়ে হেটে যাচ্ছে সিনিয়র কে অনুসরণ করে। সাল ১৯৯২- সেটাও প্রায় ১৬ বছর এর পুরোনো ঘটনা, সেই ছেলেটিই অশ্রু সজল চোখে বিদায় নিচ্ছে জুনিয়র আর টীচারদের কাছ থেকে, প্রিয় ক্যাডেট কলেজ থেকে। মাঝের ৬ টি বছর এখন হাসি-কান্না, ঘটন-অঘটনের এক সোনালী ইতিহাস। আমার জীবনের সোনালী ৬ টি বছর, আমার ক্যাডেট কলেজ লাইফ। আমরা বন্ধুরা যখনই এখনো একসাথে জড়ো হই প্রতিবার সেই পুরনো দিনের একই ঘটনা গুলো ঘুরে-ফিরে আসে। আর আমরা হাসতে হাসতে কুটি কুটি হই। যদিও অনেক ঘটনাই এখন ঝাপসা, তারপর ও সবার সাথে শেয়ার করার জন্যেই ক্যাডেট কলেজ ব্লগ এর সদস্য হওয়া। দেখি যদি কিছু ঘটনা শেয়ার করা যায়।

সৈয়দ শফি
বরিশাল ক্যাডেট কলেজ (১৯৮৬-৯২)

১,২২৪ বার দেখা হয়েছে

১৫ টি মন্তব্য : “ক্যাডেট নামচা- ১৯৮৬-৯২”

  1. মনে আছে লাস্ট এক্সকারশনে কলেজে ঢোকার ঠিক আগ মুহূর্তে আমরা সবাই মিলে গেয়ে উঠেছিলাম...কফি হাউসের সেই আড্ডাটা আজ আর নেই... আড্ডাটা তখনও ছিল...কিন্তু আমরা জানতাম আর বেশীদিন সেটা থাকবে না...কি যে খারাপ লাগছিল তখন...

    শফিভাই দারুন লিখেছেন...লেখালেখি শুরু করুন। শুধু কলেজ নিয়েই এমন কোন বাধ্যবাধকতা নেই। যা ইচ্ছা লিখতে পারেন...

    জবাব দিন
  2. ভাইয়া্‌, চমতকার লেখা। কলেজ এর সেই দিন গুলু আজঅ আমাদের স্ম্রিতি হয়ে আছে। সেই ৬ বছর ভুলার মত না। সেই P.T.,দ্রিল্ল, ক্লাস, dayning hall, প্রেপ, জুনিওউর, সিনিওর, হস্পিতাল, হউস, academy সব জায়গাতেই হাজার শ্রিতি জরিয়ে আছে। ৭ বছর হল কলেজ থাকে বের হইছি কিন্তু আকদিন এর জন্য ভুলতে পারি নাই কলেজ লাইফ!!!!

    জবাব দিন
  3. কুচ্ছিত হাঁসের ছানা 99 mcc

    উদ্ধৃতিঃ
    "আমরা বন্ধুরা যখনই এখনো একসাথে জড়ো হই প্রতিবার সেই পুরনো দিনের একই ঘটনা গুলো ঘুরে-ফিরে আসে। আর আমরা হাসতে হাসতে কুটি কুটি হই।"

    ইস্, শেষ রি ইউনিয়নেও আমরা গানটা গেয়েছিলাম।

    জবাব দিন
  4. ঝাপসা হলেও লিখুন। উদার হস্তে শেয়ার করুন।
    Old is Gold. আপনার লেখা থেকে উদ্যম পাব, হয়তো নতুন কোনো পথনির্দেশ পাব আমরা।

    সাব্বির ভাই
    আপনার কমেন্টটাও সুন্দর। প্রেরণাদায়ক। জাস্ট লেখার সময় অভ্র layout viewerটা সামনে রেখে বসবেন। প্লাস লেখা শেষে একবার চোখ বুলিয়ে নিবেন।

    জবাব দিন
  5. @Mahmudul Alam
    it was my first time using AVRO and bangla font.
    উপদেশ এর জন্য ধন্যবাদ আস্তে আস্তে ঠিক হয়ে যাবে। layout viewer টা অতি উন্নত মানের, i mean খুব কাজের।
    অসংখ্য ধন্যবাদ ভাই মাহমুদুল আলাম।

    জবাব দিন
  6. আজ বহুদিন বাদে আমার রুমে নেট লেগেছে। সবার আগে চলে আসলাম এখানে। সবাই কেমন আছে এখানকার? আমাকে কেউ একজন আপডেট করবা? আমাদের নতুন সাইট টার কি হল। নিজেদের হোমপেজ ? আমি অনেকদিন ছিলাম না নেটে ? অনেক লেখা মাথায় ঘুরেছে এই কয়দিন। প্রতিদিন ভাবতাম আজ কি না কি লেখা আসল পড়তে পারলাম না? নতুন অনেকে দেখলাম এখানে। সবাইকে স্বাগতম।

    জবাব দিন

মওন্তব্য করুন : sabbir8

জবাব দিতে না চাইলে এখানে ক্লিক করুন।

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।