প্রথম পরিচয়

বন্ধুর সাথে প্রথম দেখা হয়েছিলো সিলেট ক্যাডেট কলেজে৷ টয়লেটে ঢুকে সিগারেট টানতে গিয়ে এদিক ওদিক তাকাচ্ছিলাম কোনো পার্টনার পাওয়া যায় কিনা৷ একটু পরে দেখি শুকনো করে একজন এসে হাতের সিগারেটটার ব্র্যান্ড বোঝার চেষ্টা করছে৷ আধ খাওয়া সিগারেটটা বাড়িয়ে দিয়ে বললাম, লিপ চলে ???
আমার হাত থেকে সিগারেটটা নিয়ে বিশাল একটা টান দিয়ে বললো, *আলের পোলাপান ক্যান বেনশন টানে বুঝিনা৷ লিপের উপ্রে আছে কিছু৷ বুঝতে একটুও দেরী হলোনা যে এইটা আমার লাইনের লোক, আমাদের ফ্রিকোয়েন্সি একই রকম৷ এর পরে আবার দেখা হলো ওদের ভাড়া করা বাসায় আড্ডা দিতে গিয়ে৷ এই আড্ডাবাজি যখন রুটিনে পরিনত করবো ভাবছি, খবর পেলাম ছেলেটা আর্মিতে চলে গেছে৷ নিয়মিত যোগাযোগ না থাকলেও তার খবরাখবর রাখার চেষ্টা করতাম সবসময়৷

দোস্ত, তোর বাড্ডেতে অনেক কাহিনী লেখার ইচ্ছে ছিলো৷ কিন্তু সময় পাইলাম নারে৷ কাহিনী নাহয় পরে আরেকদিন হবে৷ আজকের জন্যে শুধু — শুভ জন্মদিন তাইফুর৷ ভালো থাকিসরে দোস্ত ………….

২,৪৩৮ বার দেখা হয়েছে

২৯ টি মন্তব্য : “প্রথম পরিচয়”

  1. কাইয়ূম (১৯৯২-১৯৯৮)

    সান মুন যমজ ভাতৃদ্বয়ের সুবাদে মির্জাপুরের লগে এমনিতেই আমগো ফৌজিয়ান ৯২-৯৮ ব্যাচের গিট্টু বেশি 😛 ইলেভেনে সাতদিনের এক্সকারশানে আইসা মির্জাপুরের পোলাপাইন ক্যামনে ক্যামনে আমাদের প্রিন্সিপাল স্যারকে ম্যানেজ করে ফেললো ব্যাচমেট ফৌজিয়ানদের সাথে দেখা করার আড্ডা দেয়ার। মাম্মার লগে প্রথম মোলাকাতটা কি ঐখানেই? ভুইলা গেসি।
    সিলেটের বাস্কেটবল ভলিবল আইসিসি তে প্রায় ধইরা ফেলা সেমিফাইনালে উঠার স্বপ্নে বিভোর এমসিসি জাফলং এ আউটিং কইরা আইসা শুনে রংপুর আমাদের কাছে নীল এ গেইম খায়া এমসিসি'র নাক কাইটা দিসে। জাফলং থেইকা আইসা এজ ইউজ্যুয়াল তুলকালাম লাগায়া দিল মির্জাপুরিয়ানরা 😀 আমাগো লগে খাতির থাকায় আকারে ইঙ্গিতে যট্টুক পারে কোপায়া বাকি কোপ গেল সিলেটের নীচের তলার হাউসটার বিভিন্ন অংশদিয়া। সেনাপতি আছিলেন মাম্মা :grr:

    ইন্টারের পর গেলাম নির্বাসনে, তাই অন্য পোলাপাইনের সাথে লম্বা গ্যাপ। মাম্মারে আবিষ্কার করলাম আমাগো মাশেকের সাথে মিশনে। সিসিবিতে উনি তখন উকিঝুকি দিচ্ছেন। তাইফুরের ডায়লগতো সবাই জানে :salute: কিন্তু মাম্মা পুরা বোম ফাটায়া দিলো আর্টসফিকশন লেইখা। অনেকে আছে অসাধারণ গল্প করতে পারে, কিন্তু লিখে সেটা প্রকাশ করতে পারেনা, আবার উলটা গ্রুপও আছে একই রকম। তাইফুর বিরল প্রজাতির। যারা ওকে চিনেন, সবাই একবাক্যে মানবেন, গল্পের আসরে যেমন, লেখালেখিতেও তেমনই আমার মাম্মা :hug: ওর কাছে যেকোন রকম হেল্প চায়া পায়নাই, এমন মনে হয়না কেউ আছে।

    যাউগগা,বহুত তেল দিলাম 😛 কিন্তু আমার দোস্ত নিয়া যা যা কইলাম সব খাঁটি সত্যি। লিখতে গেলে শেষ হবেনা। মাম্মারে হেপি বাড্ডে! ভালো থাকিস দোস্ত, সবসময়। এইরকম মধ্যমণি হয়েই থাকিস সবজায়গায় :hug:


    সংসারে প্রবল বৈরাগ্য!

    জবাব দিন
  2. কামরুল হাসান (৯৪-০০)

    বস, জন্মদিনের শুভেচ্ছা দিলাম জগে ভইরা।
    কম হইলে বইলেন, আরো দিমু। :grr:


    ---------------------------------------------------------------------------
    বালক জানে না তো কতোটা হেঁটে এলে
    ফেরার পথ নেই, থাকে না কোনো কালে।।

    জবাব দিন

মওন্তব্য করুন : তানভীর (১৯৯৫-২০০১)

জবাব দিতে না চাইলে এখানে ক্লিক করুন।

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।